স্বর্নের কলস-গুপ্তধন পাইয়ে দেয়ার নামে প্রতারনা গ্রেফতার-৩

প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০২১

দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি।। পটুয়াখালীর দশমিনায় স্বর্নের কলস-গুপ্তধন পাইয়ে দেয়ার নামে সংঘবদ্ধ প্রতারনা করার অভিযোগে প্রতারক চক্রের প্রধানসহ সহযোগী তিন সদস্যকে আটক করেছে থানা পুলিশ। রোববার রাতে উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ানের দক্ষিন দাস পাড়া গ্রামের নিজাম উদ্দিন রাড়ির বাড়ি থেকে প্রতারক চক্রের এ তিন সদস্যকে আটক করা হয়।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বহরমপুর ইউনিয়নের বহরমপুর গ্রামের ১নং ওয়ার্ডের মো. দেলোয়ার হোসেন মুন্সির ছেলে তোফাজ্জেল(মোফাজ্জেল) হোসেন(৩৫) এর নেতৃত্বে উপজেলা সদরে বাসা ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ স্বর্নের কলস ও ঘরের ভিতরে গুপ্তধন পাইয়ে দেয়ার নামে সহজ-সরল মানুষের সাথে প্রতারনা করে লাক্ষ লাক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ এ চক্রের বিরুদ্ধে।গ্রেফতারকৃতরা হলেন, তোফাজ্জেল(মোফাজ্জেল) হোসেন (৩৫), একই গ্রামের হানিফ মুন্সির-ছেলে সোহেল (২২) ও রাঙ্গাবালী উপজেলার সেনের হাওলা গ্রামের মৃত. হালিম মোল্লার ছেলে আঃ বারেক মোল্লা (৩৬) ।

চক্রটি গালর্স স্কুল সড়কের মন্নান খলিফার বাসা ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রতারনা করে আসছিল। সর্বশেষ বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের চরহোসনাবাদ এলাকার মো. নজরুল সিকদারের বাসা নিয়ে প্রতারনার করে আসছে। প্রতারনায় শিকার মোসা. হেলেনা বেগম রোববার বিকালে দশমিনা থানায় প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেয় । প্রতারনায় শিকার হেলেনা উপজেলার বহরমপুর ইউনিয়নের দক্ষিন বহরমপুর গ্রামের মোসা. মাহাবুব সরদারের স্ত্রী ।

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয় স্বর্নের কলস ও গুপ্তধন পাইয়ে দেয়ার নামে বিভিন্ন সময় প্রায় ১১ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় এ প্রতারক চক্র তোফাজ্জেলরা । দশমিনা থানা ওসি মো. জসীম জানান, অভিযোগ পেয়ে আসামীদেরকে দ্রত গ্রেফতার করা হয় এবং অভিযোগের সত্যতা পেয়েছি । আসামীদের আদালদে সোপর্দা করা হয়েছে।

 

আপনার মতামত লিখুন :