সেন্টমার্টিনে ট্রলার ডুবির ঘটনায় গ্রেফতার-৮ দালাল

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৫৫ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কক্সবাজারের টেকনাফের সেন্টমার্টিনের অদূরবর্তী সাগরে রোহিঙ্গা বোঝাই ট্রলার ডুবির ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ১৯ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা সাত থেকে আটজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে কোস্টগার্ড। এদিকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজাহারভূক্ত আরো চার দালালকে গ্রেপ্তার করেছে। এ নিয়ে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার চারজনসহ মোট আট জন দালাল গ্রেপ্তার হয়েছে। অন্যদিকে সেন্টমার্টিনের নিকটবর্তী সাগরে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করেছে আরো একজন রোহিঙ্গাকে। এতে এ পর্যন্ত উদ্ধার হয়েছে ৭৩ জন মালয়েশিয়াগামী রোহিঙ্গা।

গ্রেপ্তার দালালদের মধ্যে দুইজন রোহিঙ্গা ও ছয়জন বাংলাদেশি নাগরিক। টেকনাফ থানার পরিদর্শক (ওসি) ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাতে কোস্টগার্ডের টেকনাফ স্টেশনের সদস্য এমএস ইসলাম বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেছেন। ওসি জানান, কোস্টগার্ডের দায়ের করা মামলায় ১৯ জনের নাম উল্লেখ করার পাশাপাশি সাত থেকে আটজনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। তবে গ্রেপ্তার আসামিদের নাম ও পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

ওসি প্রদীপ বলেন, মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে টেকনাফের বিভিন্ন এলাকা থেকে এজাহারভূক্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করে। এর আগে ট্রলার ডুবির ঘটনায় জীবিত উদ্ধার হওয়া চারজনকেও মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজন রোহিঙ্গা ও ছয়জন বাংলাদেশি নাগরিক। মামলার অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে জানান ওসি। প্রদীপ বলেন, বুধবার দুপুরে গ্রেপ্তার আসামীদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া ট্রলার ডুবির ঘটনায় জীবিত উদ্ধারদের আদালতে প্রেরণ করা হবে। পরে আদালতের নির্দেশনা মত তাদের ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে কোস্টগার্ডের সেন্টমার্টিন স্টেশনের ইনচার্জ লেফটেন্যান্ট নাঈম-উল হক জানান, বুধবার ভোর রাতে সেন্টমার্টিনের অদূরবর্তী সাগর থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় আরো এক রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করা হয়েছে। নাঈম-উল হক বলেন, বুধবার ভোর রাতে উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গাকে সেন্টমার্টিনের স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাকে টেকনাফ থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর রাতে টেকনাফের সেন্টমার্টিনের নিকটবর্তী সাগরে মালয়েশিয়াগামী রোহিঙ্গা বোঝাই একটি ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। এতে কোস্টগার্ডসহ নৌ-বাহিনী ও স্থানীয় জেলেদের সহায়তায় ১৫ জনের মৃতদেহ এবং জীবিত অবস্থায় ৭২ জনকে উদ্ধার করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :