সেনা প্রত্যাহারে আগ্রহী ট্রাম্প, দাবি আফগান প্রেসিডেন্টের

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:০৭ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কাতারের রাজধানী দোহায় যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি দলের সঙ্গে তালিবান নেতাদের শান্তি আলোচনায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গে এক ফোনালাপের পর বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। খবর আল-জাজিরার।

আফগান প্রেসিডেন্ট একটি টুইট বার্তায় জানান, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী তাকে জানিয়েছে যে তালিবান নেতারা উল্লেখযোগ্য ও স্থায়ীভাবে সংঘর্ষ কমাতে চায়। তাছাড়া প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও আফগানিস্তান থেকে নিজেদের সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে চুক্তি করতে আগ্রহী।

টুইট বার্তায় আশরাফ লিখেছেন, তালিবান ও মার্কিন প্রতিনিধিদের এই অগ্রগতিকে স্বাগত জানাচ্ছি। কেননা উভয় পক্ষই শান্তি আলোচনায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি দেখিয়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে চালানো হামলার পর থেকেই আফগানিস্তানের মাটিতে মার্কিন সামরিক জোট ন্যাটো তাদের আগ্রাসন শুরু করে। যার ধারাবাহিকতায় পরবর্তীকালে তালিবান সরকারকে অঞ্চলটির ক্ষমতা থেকে উৎখাত করা হয়। মূলত তখন থেকেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তাদের মিত্র রাষ্ট্রগুলোর বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রাম চালিয়ে আসছে গোষ্ঠীটি।

উল্লেখ্য, যদিও দীর্ঘ ১৮ বছর পর ব্যাপক রক্তক্ষয় শেষে চলমান যুদ্ধের অবসান ঘটাতে গত বছরের জুন থেকে কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন প্রতিনিধিদের সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনা করে আসছে তালিবান। যার ধারাবাহিকতায় চলমান শান্তি আলোচনার সর্বশেষ এই অগ্রগতি দেখা যাচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :