কলাপাড়ায় অনলাইন ভিত্তিক পাঠদান শুরু।। নেই অধিকাংশ শিক্ষার্থী হাতে স্মার্ট ফোন

প্রকাশিত : ৫ অক্টোবর ২০২০

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি।। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় শুরু হয়েছে একাদশ শ্রেনীর অনলাইন ভিত্তিক পাঠদান কার্যক্রম। সারা দেশের ন্যায় রবিবার থেকে এ উপজেলার ৬ টি উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অনলাইন ভিত্তিক পাঠদানের সুযোগ পাচ্ছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এবছর নতুন করে ভর্তি হওয়া একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থীরা পাঠদান থেকে পিছিয়ে পড়ে। এ কার্যক্রম শুরু হওয়ায় শিক্ষার্থীদের মাঝে বিরাজ করছে এক ধরনের উৎসাহ উদ্দীপনা। স্বস্তির নিশ্বাস ফেলছেন অভিভাবকরাও। তবে স্মার্টফোন না থাকায় ভার্চুয়াল পাঠদান কার্যক্রম থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অনেক শিক্ষার্থী।আবার সহপাঠীদের সাহায্য নিয়ে কিংবা গ্রæপ পদ্ধতিতে অনেক শিক্ষার্থী অংশ গ্রহন করছেন পাঠদান কার্যক্রমে। কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রী কলেজের একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থী মো. ইমরান জানান, করোনার কারনে দীর্ঘ দিন কলেজ বন্ধ থাকার পর এখন অনলাইন ক্লাস শুরু হয়েছে। কিন্তু স্মার্ট ফোন না থাকায় ক্লাস গুলো দেখতে পারছিনা। অপর শিক্ষার্থী মোসা.দুলিয়া জানান, দীর্ঘ দিন ধরে ক্লাস বন্ধ থাকায় আমাদের লোখাপাড়ায় বেশ ক্ষতি হয়েছে। এখন অনলাইন ক্লাশ চালু হয়েছে। এর মাধ্যমে কিছুটা হলেও শিখতে পারবো।

কলাপাড়া মহিলা কলেজের পৌরনীতি ও সু-শাসন বিভাগের প্রভাসক মো.আসলাম শিকদার বলেন, অনলাই ক্লাশের মাধ্যমে আমাদের কলেজের শিক্ষার্থীদের পাঠদানের চেষ্টা করছি। আশা করি কিছুটা হলেও শিক্ষার্থীরা এর মাধ্যমে শিখতে পারবে। কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ সি এম সাইফুর রহমান খান বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কুয়াকাটা খানাবাদ কলেজে জুলাই মাস থেকে অনলাইন ক্লাস শুরু হয়েছে। কিন্তু এ এলাকা উপজাতি রাখাইন অধ্যুষিত ও জেলে পল্লির অধিকাংশ ছাত্র ছাত্রীর হাতে স্মার্ট ফোন না থাকায় এ সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। কলাপাড়া মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মো.আবু সাইদ বলেন, শিক্ষার্থীদের শিক্ষামুখী করতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :