প্রধানমন্ত্রীকে ছাগল উপহার দিতে চাওয়া সেই যুবক কারাগারে

Spread the love

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ১০০ কেজি ওজনের ছাগল উপহার দিতে চাওয়া যুবক ইসমাইল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে মহিষকুন্ডি বাজার থেকে মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়। গতকাল বুধবার (১৩ মার্চ) তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার গ্রাগপুর ইউনিয়নের মহিষকুন্ডি গ্রামের মৃত সামছুদ্দিন মন্ডলের ছেলে ইসমাইল হোসেন তার মাকে সঙ্গে নিয়ে ১০০ কেজি ওজনের ছাগল উপহার দিতে চান প্রধানমন্ত্রীকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন একটি খবর ছড়িয়ে পড়ে। এতে ছাগলটি দেখার জন্য বিভিন্ন এলাকার মানুষ তার বাড়িতে ভিড় করতে থাকে।

 

এলাকাবাসী জানায়, বাচ্চা থেকেই লালন-পালন করা হলেও প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়ার কথাটি আগে কখনও শোনা যায়নি। হঠাৎ করে কথাটি শোনা যাচ্ছে। ইসমাইল ও তার মা কেন হঠাৎ করে প্রধানমন্ত্রীকে ছাগল উপহার দিতে চান তা নিয়েও তাদের মনে প্রশ্ন ওঠে। অনুসন্ধানে জানা যায়, ছাগল উপহারের উদ্যোক্তা ইসমাইল একজন চা বিক্রেতা। স্থানীয় বাজারে তিনি চা বিক্রি করেন। মা লতিফুননেছা ও স্ত্রী সন্তান নিয়ে ইসমাইল একই বাড়িতে থাকেন। চা বিক্রি করে তিনি জীবিকা নির্বাহ করেন। কিন্তু বাস্তবতা হলো উল্টো, ইসমাইল একজন মাদক ব্যবসায়ী। তিনি চায়ের ব্যবসার আড়ালে দীর্ঘদিন ধরে মাদকের ব্যবসা করে আসছেন। প্রতিদিন দূর দূরান্ত থেকে মোটরসাইকেলে মাদকসেবীরা তার দোকানে এসে মাদক ক্রয় ও সেবন করে। এর আগে ইসমাইল ফেনসিডিলসহ পুলিশের হাতে আটকও হয়েছিলেন। তার নামে দৌলতপুর থানায় মাদকের মামলা আছে।

 

ইসমাইলের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ছাগলটি আমার বাড়িতে জন্ম হয়েছে। আমার মা ছাগলটি লালন-পালন করেন। আমি ও আমার মা ১০০ কেজি ওজনের এই ছাগলটি প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দিতে চাই। মাদক ব্যবসা সম্পর্কে ইসমাইল বলেন, আমি মাদক ব্যবসা করি না। আমার চা একটু ভালো হয়, তাই বিভিন্ন জেলা বা থানা থেকে লোক আসেন। মাদক ব্যবসায় অভিযোগ উঠলে দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম থানার উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিমকে বিষয়টি তদন্তের জন্য দায়িত্ব দেন। গত ২ মার্চ রাতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দেয় পুলিশ। প্রায় ১০ দিন তদন্তের পর বিষয়টির সত্যতা পাওয়ায় মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের ওই টিম মহিষকুন্ডি বাজারে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করেন।

 

এ ধরনের কৌশল অবলম্বন করায় অনেকে হতবাক হয়েছেন। দেরিতে হলেও আসল ঘটনা উদঘাটন হওয়ায় তারা স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। দৌলতপুর থানার উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম বলেন, তার নামে মাদকের একটি মামলা রয়েছে। মামলায় ওয়ারেন্টভুক্ত হওয়ায় তাকে আটক করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। তাই কোনো কৌশল করেই মাদক ব্যবসায়ীরা বাঁচতে পারবে না। প্রাগপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম মুকুল জানান, ইসমাইলের নামে মাদকের মামলা ও ওয়ারেন্ট রয়েছে বলে জেনেছি। এখন প্রমাণ হলো ইসমাইল মাদকের সঙ্গে জড়িত ছিল।দৌলতপুর থানা পুলিশের ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরও তদন্ত চলছে। সে মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» বেনাপোলে পাওনা টাকা আদায় করতে গিয়ে আসামী হলেন বাড়ীওয়ালা

» বেনাপোল দিয়ে ভারতের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে

» নিউজিল্যান্ডে মুসুল্লীদের হত্যার প্রতিবাদে কলাপাড়ায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

» কলাপাড়ায় জাপা নেতার’কবিতা কথা বলে’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

» কলাপাড়ায় বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্ভোধন

» রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে ব্রাশফায়ারে নিহতদের দুইজন নারী আনসার

» নিউজিল্যান্ডর পর এবার নেদারল্যান্ডসে হামলা, বহু হতাহতের আশঙ্কা

» নরসিংদীতে মা-মেয়ে ধর্ষণ: প্রধান আসামি গ্রেফতার

» মসজিদে ৫০ মুসল্লি নিহতের পর নিউজিল্যান্ডে ৩৫০ জনের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ

» শৈলকুপায় ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল স্কুল ছাত্রী

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৫ই চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীকে ছাগল উপহার দিতে চাওয়া সেই যুবক কারাগারে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ১০০ কেজি ওজনের ছাগল উপহার দিতে চাওয়া যুবক ইসমাইল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে মহিষকুন্ডি বাজার থেকে মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়। গতকাল বুধবার (১৩ মার্চ) তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার গ্রাগপুর ইউনিয়নের মহিষকুন্ডি গ্রামের মৃত সামছুদ্দিন মন্ডলের ছেলে ইসমাইল হোসেন তার মাকে সঙ্গে নিয়ে ১০০ কেজি ওজনের ছাগল উপহার দিতে চান প্রধানমন্ত্রীকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন একটি খবর ছড়িয়ে পড়ে। এতে ছাগলটি দেখার জন্য বিভিন্ন এলাকার মানুষ তার বাড়িতে ভিড় করতে থাকে।

 

এলাকাবাসী জানায়, বাচ্চা থেকেই লালন-পালন করা হলেও প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়ার কথাটি আগে কখনও শোনা যায়নি। হঠাৎ করে কথাটি শোনা যাচ্ছে। ইসমাইল ও তার মা কেন হঠাৎ করে প্রধানমন্ত্রীকে ছাগল উপহার দিতে চান তা নিয়েও তাদের মনে প্রশ্ন ওঠে। অনুসন্ধানে জানা যায়, ছাগল উপহারের উদ্যোক্তা ইসমাইল একজন চা বিক্রেতা। স্থানীয় বাজারে তিনি চা বিক্রি করেন। মা লতিফুননেছা ও স্ত্রী সন্তান নিয়ে ইসমাইল একই বাড়িতে থাকেন। চা বিক্রি করে তিনি জীবিকা নির্বাহ করেন। কিন্তু বাস্তবতা হলো উল্টো, ইসমাইল একজন মাদক ব্যবসায়ী। তিনি চায়ের ব্যবসার আড়ালে দীর্ঘদিন ধরে মাদকের ব্যবসা করে আসছেন। প্রতিদিন দূর দূরান্ত থেকে মোটরসাইকেলে মাদকসেবীরা তার দোকানে এসে মাদক ক্রয় ও সেবন করে। এর আগে ইসমাইল ফেনসিডিলসহ পুলিশের হাতে আটকও হয়েছিলেন। তার নামে দৌলতপুর থানায় মাদকের মামলা আছে।

 

ইসমাইলের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ছাগলটি আমার বাড়িতে জন্ম হয়েছে। আমার মা ছাগলটি লালন-পালন করেন। আমি ও আমার মা ১০০ কেজি ওজনের এই ছাগলটি প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দিতে চাই। মাদক ব্যবসা সম্পর্কে ইসমাইল বলেন, আমি মাদক ব্যবসা করি না। আমার চা একটু ভালো হয়, তাই বিভিন্ন জেলা বা থানা থেকে লোক আসেন। মাদক ব্যবসায় অভিযোগ উঠলে দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম থানার উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিমকে বিষয়টি তদন্তের জন্য দায়িত্ব দেন। গত ২ মার্চ রাতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দেয় পুলিশ। প্রায় ১০ দিন তদন্তের পর বিষয়টির সত্যতা পাওয়ায় মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের ওই টিম মহিষকুন্ডি বাজারে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করেন।

 

এ ধরনের কৌশল অবলম্বন করায় অনেকে হতবাক হয়েছেন। দেরিতে হলেও আসল ঘটনা উদঘাটন হওয়ায় তারা স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। দৌলতপুর থানার উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম বলেন, তার নামে মাদকের একটি মামলা রয়েছে। মামলায় ওয়ারেন্টভুক্ত হওয়ায় তাকে আটক করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। তাই কোনো কৌশল করেই মাদক ব্যবসায়ীরা বাঁচতে পারবে না। প্রাগপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম মুকুল জানান, ইসমাইলের নামে মাদকের মামলা ও ওয়ারেন্ট রয়েছে বলে জেনেছি। এখন প্রমাণ হলো ইসমাইল মাদকের সঙ্গে জড়িত ছিল।দৌলতপুর থানা পুলিশের ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরও তদন্ত চলছে। সে মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited