রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্লেন দেখতে এসে আটক দুরন্ত ৫ শিশু

Spread the love

বিমান দেখতে এসে রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এপিবিএন হাতে আটক হয়েছে ৫ শিশু। সোহান, বড় ইমন, সাইফুল, ইমন ও শামীম এই দুরন্ত পাঁচ শিশু খিলগাঁওয়ের সিপাহীবাগ এলাকায় এই ৫ বন্ধুর বসবাস। সকালে ঘুম থেকে উঠে স্কুলে যাওয়া, বিকেলে একসাথে খেলাধুলা করা। সবই চলে একসাথে। হঠাৎ একজনের ইচ্ছে হলো বিমান দেখার। যে কথা সেই কাজ। শাহজালাল বিমানবন্দরে দূরন্ত এই ৫ বন্ধুর বিমান দেখতে আসা। অতপর এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশের (এপিবিএন) হাতে আটক হওয়া। শনিবার ( ২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এই ঘটনা ঘটে বলে সারাবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপস অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন শিমুল।

 

জানা যায়, মো. সোহান, বড় ইমন, মো.সাইফুল, মো.ইমন ও মো. শামীম । এরা ৫ বন্ধু। এদের মধ্যে সোহানের গ্রামের বাড়ি শরিয়তপুর। সে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। বড় ইমনের বাড়ি মাদারীপুরের কালকিনি সেও তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। সাইফুলের মাদারীপুরের বাজিতপুর সে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। ছোট ইমনের বাড়ি রংপুর ও শামীমের বাড়ি কুমিল্লায়। তারা দুজনেই কেজিতে পড়ে। এদের সবার বয়স ১০ বছরের নিচে। অন্যদিকে এদের কারও বাবা রিকশা চালান কিংবা ছোট খাট ব্যবসা করে পরিবাবের খরচ চালনা। বিমানবন্দরে কিভাবে এলে এমন প্রশ্নের জবাবে সারাবাংলাকে সোহান বলেন,আমরা সবাই বন্ধু। একজনের কিছু হলে অন্যজন থাকতে পারি না। হঠাৎ বড় ইমনের ইচ্ছা হলো বিমান দেখবে। সবাই মিলে বিকেলের ট্রেনের ছাঁদে করে বিমানবন্দর রেলস্টেশনে আসি। এরপর বিমানবন্দরের দেয়াল টপকিয়ে আমি ও বড় ইমন বিমান দেখার চেষ্টা করি। তখন আঙ্কেলরা আমাদেরকে ধরে।

 

বড় হয়ে কি হতে চাও এমন প্রশ্ন করতেই সোহান বলে, আমি বিমান চালাব। পড়ালেখা শিখে বিমান চালাতে চাই। কিভাবে উড়ে আবার নিচে এসে পড়ে। অনেক ভালো লাগে দেখতে। আমার বাবা রিকশা চালায়। এরপরও আমি বড় হয়ে বিমান চালাব। পাশ থেকে বড় ইমন বলে উঠে আমি পুলিশ অফিসার হবো। বাসায় গিয়ে আব্বাকে বলব আমি পড়ালেখা শেষ করে পুলিশ হয়ে বিমানবন্দরে কাজ করব। বড় ইমনের বাবা খিলগাঁওতে মাছ বিক্রি করেন। ৫ বন্ধুর আটক হওয়ার বিষয়ে এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপস অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন শিমুল সারাবাংলাকে বলেন, প্রতিদিন বিকেলে বাইরে থেকে অনেকেই আসেন শাহজালালে বিমান দেখতে। এরাও হয়তো তাদের মতো এসেছিলো। কিন্তু সোহান ও বড় ইমন অতি উৎসাহ নিয়ে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের সীমানা প্রাচীর টপকিয়ে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করেন।

 

তখন দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ সদস্যরা তাদেরকে আটক করে। তিনি আরও বলেন,  দূরন্ত শিশুদের এভাবে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়া বিপদজনক। ট্রেনের ছাঁদে করে কমলাপুর থেকে বিমানবন্দর রেলস্টেশনে আসা মোটেও শুভ লক্ষণ নয়। এ সমস্ত বিষয়ে সংশ্লিষ্ট অভিভাবকদের আরও বেশি বেশি সতর্ক  ও সন্তানদের দেখভাল করা প্রয়োজন। একই সাথে খিলগাঁও থানায় যোগাযোগ করে পরিবারের কাছে এদেরকে হস্তান্তরের চেষ্টা চলছে বলেও তিনি জানান।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» কক্সবাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

» আমি কিছু করিনি: আকুতি জানিয়েও রেহাই পায়নি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শিশুটি (ভিডিও)

» এখনো চলছে সেই ঘাতক জাবালে নূর পরিবহন

» রাজধানীর প্রগতি সরণিতে সু-প্রভাতের সেই বাসের নিবন্ধন বাতিল

» রাজধানীর মতিঝিলের ব্যাংক কলোনি ও এলিফ্যান্ট রোডে আগুন

» নিউজিল্যান্ডে সব নারীর হিজাব পরার ঘোষণা!

» না’গঞ্জে র‌্যালী ও কেক কাটার মধ্য দিয়ে তাঁতীলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

» জাটকা সংরক্ষণ উপলক্ষে দশমিনায় সচেতনামূলক সভা

» অতি দরিদ্র ২৫ পরিবারের মাঝে গরুর ঘর নির্মানের জন্য টিন বিতরণ

» উপকূলীয় গোলপাতার ঐতিহ্য হারিয়ে যাচ্ছে

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৬ই চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্লেন দেখতে এসে আটক দুরন্ত ৫ শিশু

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

বিমান দেখতে এসে রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এপিবিএন হাতে আটক হয়েছে ৫ শিশু। সোহান, বড় ইমন, সাইফুল, ইমন ও শামীম এই দুরন্ত পাঁচ শিশু খিলগাঁওয়ের সিপাহীবাগ এলাকায় এই ৫ বন্ধুর বসবাস। সকালে ঘুম থেকে উঠে স্কুলে যাওয়া, বিকেলে একসাথে খেলাধুলা করা। সবই চলে একসাথে। হঠাৎ একজনের ইচ্ছে হলো বিমান দেখার। যে কথা সেই কাজ। শাহজালাল বিমানবন্দরে দূরন্ত এই ৫ বন্ধুর বিমান দেখতে আসা। অতপর এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশের (এপিবিএন) হাতে আটক হওয়া। শনিবার ( ২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এই ঘটনা ঘটে বলে সারাবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপস অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন শিমুল।

 

জানা যায়, মো. সোহান, বড় ইমন, মো.সাইফুল, মো.ইমন ও মো. শামীম । এরা ৫ বন্ধু। এদের মধ্যে সোহানের গ্রামের বাড়ি শরিয়তপুর। সে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। বড় ইমনের বাড়ি মাদারীপুরের কালকিনি সেও তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। সাইফুলের মাদারীপুরের বাজিতপুর সে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। ছোট ইমনের বাড়ি রংপুর ও শামীমের বাড়ি কুমিল্লায়। তারা দুজনেই কেজিতে পড়ে। এদের সবার বয়স ১০ বছরের নিচে। অন্যদিকে এদের কারও বাবা রিকশা চালান কিংবা ছোট খাট ব্যবসা করে পরিবাবের খরচ চালনা। বিমানবন্দরে কিভাবে এলে এমন প্রশ্নের জবাবে সারাবাংলাকে সোহান বলেন,আমরা সবাই বন্ধু। একজনের কিছু হলে অন্যজন থাকতে পারি না। হঠাৎ বড় ইমনের ইচ্ছা হলো বিমান দেখবে। সবাই মিলে বিকেলের ট্রেনের ছাঁদে করে বিমানবন্দর রেলস্টেশনে আসি। এরপর বিমানবন্দরের দেয়াল টপকিয়ে আমি ও বড় ইমন বিমান দেখার চেষ্টা করি। তখন আঙ্কেলরা আমাদেরকে ধরে।

 

বড় হয়ে কি হতে চাও এমন প্রশ্ন করতেই সোহান বলে, আমি বিমান চালাব। পড়ালেখা শিখে বিমান চালাতে চাই। কিভাবে উড়ে আবার নিচে এসে পড়ে। অনেক ভালো লাগে দেখতে। আমার বাবা রিকশা চালায়। এরপরও আমি বড় হয়ে বিমান চালাব। পাশ থেকে বড় ইমন বলে উঠে আমি পুলিশ অফিসার হবো। বাসায় গিয়ে আব্বাকে বলব আমি পড়ালেখা শেষ করে পুলিশ হয়ে বিমানবন্দরে কাজ করব। বড় ইমনের বাবা খিলগাঁওতে মাছ বিক্রি করেন। ৫ বন্ধুর আটক হওয়ার বিষয়ে এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপস অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন শিমুল সারাবাংলাকে বলেন, প্রতিদিন বিকেলে বাইরে থেকে অনেকেই আসেন শাহজালালে বিমান দেখতে। এরাও হয়তো তাদের মতো এসেছিলো। কিন্তু সোহান ও বড় ইমন অতি উৎসাহ নিয়ে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের সীমানা প্রাচীর টপকিয়ে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করেন।

 

তখন দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ সদস্যরা তাদেরকে আটক করে। তিনি আরও বলেন,  দূরন্ত শিশুদের এভাবে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়া বিপদজনক। ট্রেনের ছাঁদে করে কমলাপুর থেকে বিমানবন্দর রেলস্টেশনে আসা মোটেও শুভ লক্ষণ নয়। এ সমস্ত বিষয়ে সংশ্লিষ্ট অভিভাবকদের আরও বেশি বেশি সতর্ক  ও সন্তানদের দেখভাল করা প্রয়োজন। একই সাথে খিলগাঁও থানায় যোগাযোগ করে পরিবারের কাছে এদেরকে হস্তান্তরের চেষ্টা চলছে বলেও তিনি জানান।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited