অর্থাভাবে হচ্ছে না চিকিৎসা দৃষ্টি ফিরে পেতে চায় রিপন

Spread the love

সঞ্জিব দাস, গলাচিপা (পটুয়াখালী): মেধাবী ছাত্র রিপন সাহার দু’চোখভরা স্বপ্ন। কিন্তু বয়স বাড়ার সঙ্গেই তার সেই স্বপ্ন ফিকে হয়ে যাচ্ছে। সতেরো বছরে পা দিয়ে জীবন হয়েছে বিষন্ন। কারণ, একচোখে পৃথিবীর আলো দেখলেও আরেক চোখ থেকেও যেন অন্ধ। ছোটবেলায় জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে বা পাশের চোখটা দিনদিন ঢেকে যাচ্ছে মাংসপি-ে। ফলে দু’চোখের দৃষ্টি স্বাভাবিক থাকলেও এখন একচোখে দেখে পথ চলতে হয়। তবুও নানা বাধা বিপত্তিকে উপেক্ষা করে পথ চলতে চলতে রিপন অনেকটা ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। সে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ছোটবাইশদিয়া বিজনেস ম্যানেজমেন্ট (বিএম) কলেজের দ্বাদশ শ্রেনির ছাত্র।

 

তখন রিপনের বয়স এক বছর। একদিন গায়ে প্রচ- জ্বর আসে এর পর মুখের বা পাশে মাংস ফুলে ওঠে। ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে মাংসপি- । এরপর ডাক্তার দেখিয়ে ঔষধ নিয়েছি। কিন্তু কোন পরিবর্তন হয়নি। এখন বা পাশের চোখটা পুরোপুরি ঢেকে গেছে। মুখ আর থুতনির পাশেও মাংস বেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন রিপনের মা শেপালি রাণী। উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামের দিনমজুর জয়দেব সাহার বড় ছেলে রিপন। অভাব অনটনের সংসার। মাঝে মধ্যে বাদাম বিক্রি করে থাকেন তিনি। একাই উপার্জন করে কোনমতে সংসার চালায় সে। এর ওপড়ে ছেলেদের পড়াশুনার খরচ সহ সাংসারিক খরচা, চিকিৎসার জন্য তিন লক্ষাধিক টাকা যোগান দেয়া দুঃসাধ্য হয়ে দাড়িয়েছে। তাইতো বাবার পক্ষে তার চিকিৎসা খরচ চালানো সম্ভব না হওয়ায় বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে ।

 

রিপনের বাবা জয়দেব সাহা বলেছেন, মাসখানেক আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েছি। তারা বলেছেন তিন ধাপে অস্ত্রোপাচার করে চিকিৎসা করতে হবে। এতে প্রায় ৩ লাখ টাকা খরচা হতে পারে। আমি অসহায় মানুষ এত টাকা আমার পক্ষে বহন করা অসাধ্য হয়ে পড়েছে। ছেলের চিকিৎসা করানোও জরুরী। সমাজের আরও কয়েকটি সুস্থ্যসবলদের কিশোরের মত রিপনও দু’চোখে সমান দৃষ্টি পাওয়ার আক্ষেপ রয়েছে। তাইতো গায়ের এপাশ ওপাশ ধরে সমাজের নানা শ্রেনীর মানুষসহ বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা নিয়ে সুস্থ্য হতে চায়।

 

ছোটবাইশদিয়া বিএম কলেজের অধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রিপন আমাদের কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির মেধাবী ছাত্র। অর্থাভাবে ওর ভাল চিকিৎসা করাতে পারছে না। ওর চিকিৎসা সেবার জন্য ইতোমধ্যে আমরা আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকেও সহযোগিতা করছি । সহযোগিতার জন্য যোগাযোগ করুন রিপনের বাবা জয়দেব সাহা: মোবাইল ০১৭৮৫-৪২০১৭৩

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» অবশেষে ক্যাটরিনাকেই বিয়ে করলেন সালমান!

» এবার কৃষকদের ধান কেটে দেয়ার ঘোষণা দিলো ছাত্রলীগ

» আবারও অলরাউন্ডার র‍্যাংকিংয়ে শীর্ষে ফিরলেন সাকিব আল হাসান

» আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দেশে ফিরছেন ফখরুল, শুক্রবার সংবাদ সম্মেলন

» ভারতের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে আবারও সরকার গঠনের পথে মমতা

» মোদির জয়ের আভাসে আতঙ্কিত মুসলিমরা, বিশেষ প্রার্থনা!

» কৃষকদের সাথে প্রহসনের শেষ কোথায়?

» রোজার স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক

» রোহিঙ্গাদের জন্য ১০ কোটি ডলার দেবে কানাডা

» ঝিনাইদহ পৌরসভার উন্মুক্ত প্রাক বাজেট আলোচনা নারী উদ্যোক্তা সম্প্রসারণে বাজেট বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অর্থাভাবে হচ্ছে না চিকিৎসা দৃষ্টি ফিরে পেতে চায় রিপন

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

সঞ্জিব দাস, গলাচিপা (পটুয়াখালী): মেধাবী ছাত্র রিপন সাহার দু’চোখভরা স্বপ্ন। কিন্তু বয়স বাড়ার সঙ্গেই তার সেই স্বপ্ন ফিকে হয়ে যাচ্ছে। সতেরো বছরে পা দিয়ে জীবন হয়েছে বিষন্ন। কারণ, একচোখে পৃথিবীর আলো দেখলেও আরেক চোখ থেকেও যেন অন্ধ। ছোটবেলায় জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে বা পাশের চোখটা দিনদিন ঢেকে যাচ্ছে মাংসপি-ে। ফলে দু’চোখের দৃষ্টি স্বাভাবিক থাকলেও এখন একচোখে দেখে পথ চলতে হয়। তবুও নানা বাধা বিপত্তিকে উপেক্ষা করে পথ চলতে চলতে রিপন অনেকটা ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। সে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ছোটবাইশদিয়া বিজনেস ম্যানেজমেন্ট (বিএম) কলেজের দ্বাদশ শ্রেনির ছাত্র।

 

তখন রিপনের বয়স এক বছর। একদিন গায়ে প্রচ- জ্বর আসে এর পর মুখের বা পাশে মাংস ফুলে ওঠে। ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে মাংসপি- । এরপর ডাক্তার দেখিয়ে ঔষধ নিয়েছি। কিন্তু কোন পরিবর্তন হয়নি। এখন বা পাশের চোখটা পুরোপুরি ঢেকে গেছে। মুখ আর থুতনির পাশেও মাংস বেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন রিপনের মা শেপালি রাণী। উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামের দিনমজুর জয়দেব সাহার বড় ছেলে রিপন। অভাব অনটনের সংসার। মাঝে মধ্যে বাদাম বিক্রি করে থাকেন তিনি। একাই উপার্জন করে কোনমতে সংসার চালায় সে। এর ওপড়ে ছেলেদের পড়াশুনার খরচ সহ সাংসারিক খরচা, চিকিৎসার জন্য তিন লক্ষাধিক টাকা যোগান দেয়া দুঃসাধ্য হয়ে দাড়িয়েছে। তাইতো বাবার পক্ষে তার চিকিৎসা খরচ চালানো সম্ভব না হওয়ায় বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে ।

 

রিপনের বাবা জয়দেব সাহা বলেছেন, মাসখানেক আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েছি। তারা বলেছেন তিন ধাপে অস্ত্রোপাচার করে চিকিৎসা করতে হবে। এতে প্রায় ৩ লাখ টাকা খরচা হতে পারে। আমি অসহায় মানুষ এত টাকা আমার পক্ষে বহন করা অসাধ্য হয়ে পড়েছে। ছেলের চিকিৎসা করানোও জরুরী। সমাজের আরও কয়েকটি সুস্থ্যসবলদের কিশোরের মত রিপনও দু’চোখে সমান দৃষ্টি পাওয়ার আক্ষেপ রয়েছে। তাইতো গায়ের এপাশ ওপাশ ধরে সমাজের নানা শ্রেনীর মানুষসহ বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা নিয়ে সুস্থ্য হতে চায়।

 

ছোটবাইশদিয়া বিএম কলেজের অধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রিপন আমাদের কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির মেধাবী ছাত্র। অর্থাভাবে ওর ভাল চিকিৎসা করাতে পারছে না। ওর চিকিৎসা সেবার জন্য ইতোমধ্যে আমরা আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকেও সহযোগিতা করছি । সহযোগিতার জন্য যোগাযোগ করুন রিপনের বাবা জয়দেব সাহা: মোবাইল ০১৭৮৫-৪২০১৭৩

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ





সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited