কড়া নিরাপত্তায় ভারতজুড়ে পালিত হল প্রজাতন্ত্র দিবস

জঙ্গি হামলার হুঁশিয়ারিকে উপেক্ষা করে, কড়া নিরাপত্তায় নয়াদিল্লিতে পালিত হল ভারতের ৬৭তম প্রজাতন্ত্র দিবস। এই উপলক্ষে রাজপথে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। এবছর প্রজাতন্ত্র দিবসে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ।

 

প্রথমেই রাজপথে উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপর একে একে আসেন উপরাষ্ট্রপতি ডক্টর হামিদ আনসারি সহ বিশিষ্ট অতিথিরা। সকলকে স্বাগত জানান নরেন্দ্র মোদি। রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির সঙ্গে একই গাড়িতে রাইসিনা হিলস থেকে রাজপথে আসেন ওলাঁদে। তাদেরকেও স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী। কুচকাওয়াজ দেখতে সকাল থেকেই রাজপথে ভিড় করেন উত্‍সাহী লোকজন। বিভিন্ন সংস্থা আর রাজ্যের ট্যাবলো এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানইনয়। প্রজাতন্ত্র দিবসের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হল, শত্রুপক্ষের হামলা থেকে দেশকে সুরক্ষিত রাখতে, সেনাবাহিনীর ভাণ্ডারে কি কি অস্ত্র মজুত রয়েছে, তা সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মনে একটা ধারনা তৈরি করা। তারজন্যই এবছর প্রদর্শিত হল ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংসকারি টি নাইনটি ট্যাঙ্ক ভীস্ম। ছিল পদাতিক বাহিনীর কমব্যাট যান বিএমপি টু শরথ।

 

এছাড়াও ছিল ব্রহ্ম এবং আকাশের মত ক্ষেপণাস্ত্র  উতক্ষেপণকারী সমরযান। বিমান বাহিনীর সদস্যরা তুলে ধরল তাদের C17 গ্লোবমাস্টার, C130 হারকিউলিস এবং MI 17V5 যুদ্ধবিমান। এই বিমানগুলি উত্তরাখণ্ড, জম্মু ও কাশ্মীর, ইয়েমেন এবং নেপালে বিভিন্ন ধরণের ত্রাণ ও উদ্ধারকাজে ব্যবহৃত হয়। নৌসেনা দেখাল তাদের অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র এবং যুদ্ধবিমান বহনকারী নির্মিয়মাণ যুদ্ধজাহাজ INS বিক্রান্তের মডেল। এছাড়াও ছিল সম্পুর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে নির্মিত সাবমেরিন কলভারির মডেল। এবছর প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে অংশ নিল ফরাসি সেনার ৭৬জন সদস্যের একটি দল। নেতৃত্বে ছিলেন ফ্রেঞ্চ সামরিক ব্যান্ডের আটচল্লিশজন সঙ্গীত শিল্পী। এই প্রথম প্রজাতন্ত্র দিবসে অংশ নিল কোনও বিদেশি সেনাবাহিনী।

 

এছাড়াও এবারের কুচকাওয়াজের অন্যতম আকর্ষণ ছিল সেনাবাহিনীর ডগ স্কোয়াডের প্যারেড। ছাব্বিশ বছর পর ফের প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে সামিল হল ডগ স্কোয়াড। আর ছিল সীমান্তরক্ষী বাহিনীর উট স্কোয়াড। নেতৃত্বে ছিলেন ডেপুটি কমান্ডার কুলদীপ জে চৌধুরী। এবারই প্রথম ছাব্বিশে জানুয়ারির অনুষ্ঠানে ট্যাবলো নামালেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যরা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ছয় কোচিং সেন্টার সিলগালা : বেঞ্চ ধ্বংস

» গোপালগঞ্জে বিআরডিবি’র ইউসিসিএ কর্মচারীদের মানবন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

» সৌদি আরবকে ইইউ’র কালো তালিকা ভুক্ত করায় নাগরিক সমাজের উদ্বেগ

» দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ফুলচাষে প্রায় ৫০ লাখ মানুষের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে প্রায় ৬০ কোটি টাকাফুল বিক্রি

» যশোরের নাভারন প্রতিবন্ধী স্কুলে পথের আলো সংস্থার মোটর রিক্সা ভ্যান দান

» যশোরের শার্শায় মাদক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

» গলাচিপায় বীজ আলুর মাঠ দিবস পালিত

» ভাষাসৈনিকদের যথাযথ মর্যাদা দেওয়া সময়ের দাবি: ভাষাসৈনিক লায়ন শামসুল হুদা

» বই কিনুন, বই পড়ুন, নিজেকে সমৃদ্ধ করুন: যুবলীগ চেয়ারম্যাম মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী

» ঝিনাইদহে শুদ্ধসুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৮ই ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কড়া নিরাপত্তায় ভারতজুড়ে পালিত হল প্রজাতন্ত্র দিবস

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

জঙ্গি হামলার হুঁশিয়ারিকে উপেক্ষা করে, কড়া নিরাপত্তায় নয়াদিল্লিতে পালিত হল ভারতের ৬৭তম প্রজাতন্ত্র দিবস। এই উপলক্ষে রাজপথে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। এবছর প্রজাতন্ত্র দিবসে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ।

 

প্রথমেই রাজপথে উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপর একে একে আসেন উপরাষ্ট্রপতি ডক্টর হামিদ আনসারি সহ বিশিষ্ট অতিথিরা। সকলকে স্বাগত জানান নরেন্দ্র মোদি। রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির সঙ্গে একই গাড়িতে রাইসিনা হিলস থেকে রাজপথে আসেন ওলাঁদে। তাদেরকেও স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী। কুচকাওয়াজ দেখতে সকাল থেকেই রাজপথে ভিড় করেন উত্‍সাহী লোকজন। বিভিন্ন সংস্থা আর রাজ্যের ট্যাবলো এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানইনয়। প্রজাতন্ত্র দিবসের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হল, শত্রুপক্ষের হামলা থেকে দেশকে সুরক্ষিত রাখতে, সেনাবাহিনীর ভাণ্ডারে কি কি অস্ত্র মজুত রয়েছে, তা সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মনে একটা ধারনা তৈরি করা। তারজন্যই এবছর প্রদর্শিত হল ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংসকারি টি নাইনটি ট্যাঙ্ক ভীস্ম। ছিল পদাতিক বাহিনীর কমব্যাট যান বিএমপি টু শরথ।

 

এছাড়াও ছিল ব্রহ্ম এবং আকাশের মত ক্ষেপণাস্ত্র  উতক্ষেপণকারী সমরযান। বিমান বাহিনীর সদস্যরা তুলে ধরল তাদের C17 গ্লোবমাস্টার, C130 হারকিউলিস এবং MI 17V5 যুদ্ধবিমান। এই বিমানগুলি উত্তরাখণ্ড, জম্মু ও কাশ্মীর, ইয়েমেন এবং নেপালে বিভিন্ন ধরণের ত্রাণ ও উদ্ধারকাজে ব্যবহৃত হয়। নৌসেনা দেখাল তাদের অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র এবং যুদ্ধবিমান বহনকারী নির্মিয়মাণ যুদ্ধজাহাজ INS বিক্রান্তের মডেল। এছাড়াও ছিল সম্পুর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে নির্মিত সাবমেরিন কলভারির মডেল। এবছর প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে অংশ নিল ফরাসি সেনার ৭৬জন সদস্যের একটি দল। নেতৃত্বে ছিলেন ফ্রেঞ্চ সামরিক ব্যান্ডের আটচল্লিশজন সঙ্গীত শিল্পী। এই প্রথম প্রজাতন্ত্র দিবসে অংশ নিল কোনও বিদেশি সেনাবাহিনী।

 

এছাড়াও এবারের কুচকাওয়াজের অন্যতম আকর্ষণ ছিল সেনাবাহিনীর ডগ স্কোয়াডের প্যারেড। ছাব্বিশ বছর পর ফের প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে সামিল হল ডগ স্কোয়াড। আর ছিল সীমান্তরক্ষী বাহিনীর উট স্কোয়াড। নেতৃত্বে ছিলেন ডেপুটি কমান্ডার কুলদীপ জে চৌধুরী। এবারই প্রথম ছাব্বিশে জানুয়ারির অনুষ্ঠানে ট্যাবলো নামালেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যরা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited