ভালবাসা দিবসের ঢেউ লেগেছে কুয়াকাটার সৈকতে

উত্তম কুমার হাওলাদার,কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,১৪ ফেব্রুয়ারি।। ভালবাসা দিবসের ঢেউ লেগেছে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটার সৈকতে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আশা হাজার হাজার পর্যটকদের পদভারে মুখরিত। উত্তাল ঢেউয়ের সঙ্গে গা ভাসিয়ে আনন্দ-উচ্ছ্বাসে মেতেছেন তারা। কেউ সমুদ্র স্নানে মেতেছেন। কেউ সৈকতের বালুতে পা ডুবিয়ে অন্যরকম আনন্দ-অনুভূতিতে আত্মহারা। এদিকে দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পর্যটকদের নিরাপত্তা দিতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক নজরদারীও ছিল চোখে পড়ার মেতো।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দখিণের হাওয়ায় জোর নেই। তাই শরীরও সহনশীল। মনে রয়েছে স্বতঃস্ফুর্ততা। থেমে নেই প্রেমিক যুগলের উত্তাল বিচরন। ফাগুনের আগুন ধরা রঙে হৃদয় রাঙানো বাসনা নিয়ে সৈকতের বেলাভূমে নীল জলের পা ভেজানো স্পন্দন কিংবা অনুভূতি কী যে শীহরণ যোগায় শরীরে তা খুব কাছাকাছি থেকেই বোঝা যায়। হাতে হাত ধরে একে অপরকে বোঝানো যায়। মনের সেই জমানো, অব্যক্ত কথা প্রকাশেই এসব যুগল বেছে নেয় বিশ্ব ভালবাসা দিবস। কেউবা আবার হাতে থাকা র্স্মাট ফোনে সেলফি তুলে সাথে সাথে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছেন। এ দিবসটি পালন উপলক্ষে পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রেকর্ড পরিমাণে ফুল বিক্রি হয়েছে। ফুলের দোকানীরা চড়া দামে বিক্রি করেছে বলে অভিযোগও রয়েছে।

 

কুয়াকাটার সৈকতে কথা হয় মো.মাহাফুজ হায়দার ও লাভলী আক্তার জুটির সাথে। তারা জানান, এই প্রথম কুয়াকাটায় আসেন। গত একদিন কীভাবে কেটে গেছে তা বুঝতে পারিনি। এ দিবসটি স্মরণে থাকবে। তবে সৈকতে ঢেউয়ের সঙ্গে মিতালি স্থাপন এক অন্যরকম অনুভূতি। আর এখানকার বেশকিছু স্মৃতি মোবাইল ধারন করে রেখেছি। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে পর্যটদের উপচেপড়া ভিড় রয়েছে কুয়াকাটা সৈকতে। সৈকতসহ দর্শনীয় স্থানে নেচে-গেয়ে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উদযাপন করেছে অগণিত পর্যটক যুগল।

 

আবাসিক হোটেল-মোটেল, খাবার হোটেল ও বিপণি বিতানগুলোতেও পর্যটকের পদচারণায় তিল ধারনের ঠাঁই ছিল না। যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়নে পর্যটক সংখ্যা বেড়েছে। বিশেষ দিবসের কারণে আগমন বাড়ছে দর্শনার্থীদের। আর নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ভাল। বুধবার বিকেল থেকে পর্যটকরা আসতে শুরু করেছেন। আবাসিক হোটেল মালিক কর্তৃপক্ষদের সাথে আলাপা করলে তারা জানান, গত দু’দিনে আগাম বুকিং দিয়ে কুয়াকাটায় এসে পর্যটকরা। টুরিস্ট বোর্ড মালিক সমিতির সভাপতি জনি আলগীর জানান,পর্যটক’র সমাগম বেশি থাকায় সমুদ্র পথে পর্যটকদের দর্শনীয় স্থানে নিতে তাদের হিমশিম খেতে হয়েছে।

 

কুয়াকাটা ইলিশ পার্কের পরিচালক রুমান ইমতিয়াজ তুষার জানান,দিবসটি পালনের লক্ষ্যে এবছর পার্কের মধ্যে কাপেল মেলার আয়োজন করা হয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হওয়ায় পর্যটকের চাপও রয়েছে বেশ। কুয়াকাটা ট্যুরিষ্ট পুলিশের এস আই অসিম জানান, প্রত্যেকটি দর্শনীয় স্পটে আমাদের ট্যুরিষ্ট পুলিশের টহল রয়েছে। মহিপুর থানার ওসি সাঈদুল ইসলাম জানান, ভালবাসা দিবস উপলক্ষে পর্যটকদের ঢল বাইছে। এ ক্ষেত্রে কোন ব্যক্তয় না ঘটে সে জন্য মহিপুর থানা পুলিশ সচেষ্ট রয়েছে। কুয়াকাটা পৌর মেয়র আবদুল বারেক মোল্লা জানান, বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে আমাদেও প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া আইন শৃঙ্খলা বাহিনির সাথে মিংটিং হয়েছে, আশাকরি কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই পর্যটকরা এ দিবসটি উদযাপন করতে পারবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» কুয়াকাটায় যথাযথ মর্যাদায় মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে

» দশমিনায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

» দশমিনায় প্রানী সম্পদ অধিদপ্তরে ভাষা দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন হয়নি

» যশোরের বেনাপোলে ফেন্সিডিলসহ মহিলা ব্যবসায়ী আটক

» আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবসে বেনাপোল নোম্যান্সল্যান্ডে দুই বাংলার মিলন মেলা

» বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে ভাষা শহীদদেও প্রতি শ্রদ্ধা

» বান্দরবানের রুমায় বিষ পানে পাড়া প্রধানের আত্মহত্যা

» গলাচিপায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালিত

» পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটা সৈকতে পতাকা বিক্রেতা মো.গিয়াস উদ্দিন

» আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন ও আলোচনা সভা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ১০ই ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ভালবাসা দিবসের ঢেউ লেগেছে কুয়াকাটার সৈকতে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

উত্তম কুমার হাওলাদার,কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,১৪ ফেব্রুয়ারি।। ভালবাসা দিবসের ঢেউ লেগেছে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটার সৈকতে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আশা হাজার হাজার পর্যটকদের পদভারে মুখরিত। উত্তাল ঢেউয়ের সঙ্গে গা ভাসিয়ে আনন্দ-উচ্ছ্বাসে মেতেছেন তারা। কেউ সমুদ্র স্নানে মেতেছেন। কেউ সৈকতের বালুতে পা ডুবিয়ে অন্যরকম আনন্দ-অনুভূতিতে আত্মহারা। এদিকে দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পর্যটকদের নিরাপত্তা দিতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক নজরদারীও ছিল চোখে পড়ার মেতো।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দখিণের হাওয়ায় জোর নেই। তাই শরীরও সহনশীল। মনে রয়েছে স্বতঃস্ফুর্ততা। থেমে নেই প্রেমিক যুগলের উত্তাল বিচরন। ফাগুনের আগুন ধরা রঙে হৃদয় রাঙানো বাসনা নিয়ে সৈকতের বেলাভূমে নীল জলের পা ভেজানো স্পন্দন কিংবা অনুভূতি কী যে শীহরণ যোগায় শরীরে তা খুব কাছাকাছি থেকেই বোঝা যায়। হাতে হাত ধরে একে অপরকে বোঝানো যায়। মনের সেই জমানো, অব্যক্ত কথা প্রকাশেই এসব যুগল বেছে নেয় বিশ্ব ভালবাসা দিবস। কেউবা আবার হাতে থাকা র্স্মাট ফোনে সেলফি তুলে সাথে সাথে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছেন। এ দিবসটি পালন উপলক্ষে পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রেকর্ড পরিমাণে ফুল বিক্রি হয়েছে। ফুলের দোকানীরা চড়া দামে বিক্রি করেছে বলে অভিযোগও রয়েছে।

 

কুয়াকাটার সৈকতে কথা হয় মো.মাহাফুজ হায়দার ও লাভলী আক্তার জুটির সাথে। তারা জানান, এই প্রথম কুয়াকাটায় আসেন। গত একদিন কীভাবে কেটে গেছে তা বুঝতে পারিনি। এ দিবসটি স্মরণে থাকবে। তবে সৈকতে ঢেউয়ের সঙ্গে মিতালি স্থাপন এক অন্যরকম অনুভূতি। আর এখানকার বেশকিছু স্মৃতি মোবাইল ধারন করে রেখেছি। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে পর্যটদের উপচেপড়া ভিড় রয়েছে কুয়াকাটা সৈকতে। সৈকতসহ দর্শনীয় স্থানে নেচে-গেয়ে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উদযাপন করেছে অগণিত পর্যটক যুগল।

 

আবাসিক হোটেল-মোটেল, খাবার হোটেল ও বিপণি বিতানগুলোতেও পর্যটকের পদচারণায় তিল ধারনের ঠাঁই ছিল না। যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়নে পর্যটক সংখ্যা বেড়েছে। বিশেষ দিবসের কারণে আগমন বাড়ছে দর্শনার্থীদের। আর নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ভাল। বুধবার বিকেল থেকে পর্যটকরা আসতে শুরু করেছেন। আবাসিক হোটেল মালিক কর্তৃপক্ষদের সাথে আলাপা করলে তারা জানান, গত দু’দিনে আগাম বুকিং দিয়ে কুয়াকাটায় এসে পর্যটকরা। টুরিস্ট বোর্ড মালিক সমিতির সভাপতি জনি আলগীর জানান,পর্যটক’র সমাগম বেশি থাকায় সমুদ্র পথে পর্যটকদের দর্শনীয় স্থানে নিতে তাদের হিমশিম খেতে হয়েছে।

 

কুয়াকাটা ইলিশ পার্কের পরিচালক রুমান ইমতিয়াজ তুষার জানান,দিবসটি পালনের লক্ষ্যে এবছর পার্কের মধ্যে কাপেল মেলার আয়োজন করা হয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হওয়ায় পর্যটকের চাপও রয়েছে বেশ। কুয়াকাটা ট্যুরিষ্ট পুলিশের এস আই অসিম জানান, প্রত্যেকটি দর্শনীয় স্পটে আমাদের ট্যুরিষ্ট পুলিশের টহল রয়েছে। মহিপুর থানার ওসি সাঈদুল ইসলাম জানান, ভালবাসা দিবস উপলক্ষে পর্যটকদের ঢল বাইছে। এ ক্ষেত্রে কোন ব্যক্তয় না ঘটে সে জন্য মহিপুর থানা পুলিশ সচেষ্ট রয়েছে। কুয়াকাটা পৌর মেয়র আবদুল বারেক মোল্লা জানান, বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে আমাদেও প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া আইন শৃঙ্খলা বাহিনির সাথে মিংটিং হয়েছে, আশাকরি কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই পর্যটকরা এ দিবসটি উদযাপন করতে পারবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited