আত্রাই-রাণীনগরে আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা

রওশন আরা শিলা,নওগাঁ থেকে : নওগাঁর আত্রাই-রাণীনগরে চলতি রবিশস্য মৌসুমে আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। দু’টি উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নের চাষযোগ্য জমিতে মাঠে মাঠে এখন শুধু আলু গাছের সবুজ রং এর সমরাহ। এ বছর বড় ধরণের বন্যা না হওয়ার কারণে রোপ-আমন ধান কাটার সাথে সাথে মাঠে রবিশস্যের উপযুগি চাষযোগ্য জমিতে কৃষকরা আগাম জাতের আলু চাষ করেছে। সরকার পর্যায় থেকে কৃষকদের মাঝে কৃষি উপকরণ সহ রাসায়নিক সার বিনা মূল্যে যথা সময়ে বিতরণ করায় এসব এলাকার কৃষকদের যথা সময়ে আলু লাগানো সম্ভব হয়েছে।

 

চলতি রবিশস্য মৌসুমে কোন প্রকার প্রাকৃতিক দূর্যোগ হানা না দেওয়ায় এবং আলু চাষের অনুকূল পরিবেশ থাকায় নিবির পরির্চ্চা, স্থাণীয় কৃষি বিভাগের যথাযথ পরামর্শ ও আবহাওয়া ভাল থাকার কারণে রোগবালাই মুক্ত হওয়ায় অন্যান্য রবিশস্যের পাশাপাশি আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। গ্রামীণ জনপদের প্রান্তিক কৃষকরা এবার ডায়মন্ড, লালপাকরী ও দেশী জাতের আলু লাগিয়েছে। যথা সময়ে আলু ঘরে তুলতে পাড়লে এবং বাজারের চাহিদা ও মূল্য ভাল থাকলে আলু চাষে কৃষকদের আগ্রহ আরো বৃদ্ধি পাবে বলে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা মনে করছেন।

 

জানা গেছে, চলতি রবিশস্য মৌসুমে রাণীনগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ১হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও এবছর ১৪শ’ হেক্টর জমিতে আলুর চাষ হয়েছে। আত্রাইয়ে ৮টি ইউনিয়নে আলু চাষ হয়েছে ২ হাজার ৮শ’ ৯০ হেক্টর জমিতে। মাঠ পর্যায়ে আলু চাষিদের কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে যথাযথ পরামর্শ ও প্রত্যক্ষ কারিগরী সহযোগিতার কারণে আলু ক্ষেতে রোগ-বালাই অনেকটায় কম। তবে ঘনকুয়াশা আর হিমেল বাতাসের কারণে আলু চাষিরা কিছুটা আতংকে রয়েছে। আগামী ইরি-বোরো ধান উৎপাদনের প্রস্তুতি হিসেবে প্রান্তিক চাষিরা কিছুটা বাধ্য হয়েই অন্যের জমি বর্গা নিয়ে আলু, সরিষা, গম ও ভোট্টা চাষে অতি আগ্রহী হয়ে উঠে। রাণীনগর উপজেলার সদর, বড়গাছা, মিরাট, কাশিমপুর, গোনা, পারইল আত্রাই উপজেলার বড় কালিকাপুর, হাট কালুপাড়া ও সাহাগোলা ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশি আলু চাষ হয়েছে বলে কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে।

 

রাণীনগর উপজেলার ঘোষগ্রাম ব্লকের মালঞ্চি গ্রামের কৃষক বেলাল হোসেন জানান, আমি এবছর অন্যান্য রবিশস্যর পাশাপাশি প্রায় ১ বিঘা জমিতে আলুর চাষ করেছি। কৃষি অফিসের পরামর্শক্রমে ভাল জাতের দেশী আলুর বীজ কিনে জমিতে লাগিয়েছি। এপর্যন্ত আলু গাছের গঠন দেখে মনে হচ্ছে আশানুরুপ ফলন পাব।রাণীনগর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো: শহিদুল ইসলাম জানান, রাণীনগরে বিগত বছরের তুলনায় এবারও আসানুরুপ আলু চাষ হয়েছে। যথা সময়ে জমি চাষ যোগ্য হওয়ায় এলাকার কৃষকরা সুযোগ বুঝে আলু লাগিয়েছে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে তাদেরকে যথাযথ পরামর্শ ও পরিচর্চার বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে।

 

আত্রাই উপজেলা কৃষি আফিসার কে এম কাওসার হোসেন জানান, প্রাকৃতিক দূর্যোগে কোন প্রকার ক্ষতি না হলে আত্রাই উপজেলায় আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা রয়েছে। শুধু তাই নয় আলু চাষের জমিগুলোতে কিছু পরিমান উদ্ধবৃত্ত সারের শক্তি থাকায় কৃষকরা ইরি-বোরো চাষেও এর সুফল পাবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ছয় কোচিং সেন্টার সিলগালা : বেঞ্চ ধ্বংস

» গোপালগঞ্জে বিআরডিবি’র ইউসিসিএ কর্মচারীদের মানবন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

» সৌদি আরবকে ইইউ’র কালো তালিকা ভুক্ত করায় নাগরিক সমাজের উদ্বেগ

» দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ফুলচাষে প্রায় ৫০ লাখ মানুষের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে প্রায় ৬০ কোটি টাকাফুল বিক্রি

» যশোরের নাভারন প্রতিবন্ধী স্কুলে পথের আলো সংস্থার মোটর রিক্সা ভ্যান দান

» যশোরের শার্শায় মাদক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

» গলাচিপায় বীজ আলুর মাঠ দিবস পালিত

» ভাষাসৈনিকদের যথাযথ মর্যাদা দেওয়া সময়ের দাবি: ভাষাসৈনিক লায়ন শামসুল হুদা

» বই কিনুন, বই পড়ুন, নিজেকে সমৃদ্ধ করুন: যুবলীগ চেয়ারম্যাম মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী

» ঝিনাইদহে শুদ্ধসুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আত্রাই-রাণীনগরে আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

রওশন আরা শিলা,নওগাঁ থেকে : নওগাঁর আত্রাই-রাণীনগরে চলতি রবিশস্য মৌসুমে আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। দু’টি উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নের চাষযোগ্য জমিতে মাঠে মাঠে এখন শুধু আলু গাছের সবুজ রং এর সমরাহ। এ বছর বড় ধরণের বন্যা না হওয়ার কারণে রোপ-আমন ধান কাটার সাথে সাথে মাঠে রবিশস্যের উপযুগি চাষযোগ্য জমিতে কৃষকরা আগাম জাতের আলু চাষ করেছে। সরকার পর্যায় থেকে কৃষকদের মাঝে কৃষি উপকরণ সহ রাসায়নিক সার বিনা মূল্যে যথা সময়ে বিতরণ করায় এসব এলাকার কৃষকদের যথা সময়ে আলু লাগানো সম্ভব হয়েছে।

 

চলতি রবিশস্য মৌসুমে কোন প্রকার প্রাকৃতিক দূর্যোগ হানা না দেওয়ায় এবং আলু চাষের অনুকূল পরিবেশ থাকায় নিবির পরির্চ্চা, স্থাণীয় কৃষি বিভাগের যথাযথ পরামর্শ ও আবহাওয়া ভাল থাকার কারণে রোগবালাই মুক্ত হওয়ায় অন্যান্য রবিশস্যের পাশাপাশি আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। গ্রামীণ জনপদের প্রান্তিক কৃষকরা এবার ডায়মন্ড, লালপাকরী ও দেশী জাতের আলু লাগিয়েছে। যথা সময়ে আলু ঘরে তুলতে পাড়লে এবং বাজারের চাহিদা ও মূল্য ভাল থাকলে আলু চাষে কৃষকদের আগ্রহ আরো বৃদ্ধি পাবে বলে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা মনে করছেন।

 

জানা গেছে, চলতি রবিশস্য মৌসুমে রাণীনগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ১হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও এবছর ১৪শ’ হেক্টর জমিতে আলুর চাষ হয়েছে। আত্রাইয়ে ৮টি ইউনিয়নে আলু চাষ হয়েছে ২ হাজার ৮শ’ ৯০ হেক্টর জমিতে। মাঠ পর্যায়ে আলু চাষিদের কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে যথাযথ পরামর্শ ও প্রত্যক্ষ কারিগরী সহযোগিতার কারণে আলু ক্ষেতে রোগ-বালাই অনেকটায় কম। তবে ঘনকুয়াশা আর হিমেল বাতাসের কারণে আলু চাষিরা কিছুটা আতংকে রয়েছে। আগামী ইরি-বোরো ধান উৎপাদনের প্রস্তুতি হিসেবে প্রান্তিক চাষিরা কিছুটা বাধ্য হয়েই অন্যের জমি বর্গা নিয়ে আলু, সরিষা, গম ও ভোট্টা চাষে অতি আগ্রহী হয়ে উঠে। রাণীনগর উপজেলার সদর, বড়গাছা, মিরাট, কাশিমপুর, গোনা, পারইল আত্রাই উপজেলার বড় কালিকাপুর, হাট কালুপাড়া ও সাহাগোলা ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশি আলু চাষ হয়েছে বলে কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে।

 

রাণীনগর উপজেলার ঘোষগ্রাম ব্লকের মালঞ্চি গ্রামের কৃষক বেলাল হোসেন জানান, আমি এবছর অন্যান্য রবিশস্যর পাশাপাশি প্রায় ১ বিঘা জমিতে আলুর চাষ করেছি। কৃষি অফিসের পরামর্শক্রমে ভাল জাতের দেশী আলুর বীজ কিনে জমিতে লাগিয়েছি। এপর্যন্ত আলু গাছের গঠন দেখে মনে হচ্ছে আশানুরুপ ফলন পাব।রাণীনগর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো: শহিদুল ইসলাম জানান, রাণীনগরে বিগত বছরের তুলনায় এবারও আসানুরুপ আলু চাষ হয়েছে। যথা সময়ে জমি চাষ যোগ্য হওয়ায় এলাকার কৃষকরা সুযোগ বুঝে আলু লাগিয়েছে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে তাদেরকে যথাযথ পরামর্শ ও পরিচর্চার বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে।

 

আত্রাই উপজেলা কৃষি আফিসার কে এম কাওসার হোসেন জানান, প্রাকৃতিক দূর্যোগে কোন প্রকার ক্ষতি না হলে আত্রাই উপজেলায় আলুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা রয়েছে। শুধু তাই নয় আলু চাষের জমিগুলোতে কিছু পরিমান উদ্ধবৃত্ত সারের শক্তি থাকায় কৃষকরা ইরি-বোরো চাষেও এর সুফল পাবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited