দিনাজপুরে ১৫ বছর বয়সী কিশোরীকে জোর করে বিয়ে করতে গিয়েই…

Spread the love

একে একে চারটি বিয়ে এবং যথারীতি একে একে চার স্ত্রীকে তালাক। পঞ্চম বিয়ের প্রস্তুতি, বিয়ের আয়োজনও প্রায় সম্পন্ন, তাও আবার ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে জোর করে ধরে এনে। খবর পেয়ে বিয়ের অনুষ্ঠানস্থলে সময়মতো হাজির বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম রওশন কবীর। এরপর সাক্ষ্য প্রমান শেষে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৭ ধারা মোতাবেক বর ইসমাইল হোসেনের ৬ মাসের কারাদণ্ড। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুরে দিনাজপুরের বিরল উপজেলার ১২ নং রাজারামপুর ইউনিয়নের হাসিলা গ্রামে। সাজাপ্রাপ্ত ইসমাইল হোসেন (৩৩) ওই গ্রামের মো. সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

 

স্থানীয়রা জানান, ৩৩ বছর বয়সী ইসমাইল হোসেন ইতিমধ্যেই চারটি বিয়ে করে চার স্ত্রীকেই তালাক দিয়েছেন। সবশেষ দুদিন আগে গত বুধবার ইসমাইল তালাক দিয়ে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে বাবার বাড়িতে রেখে এসেছে তার চতুর্থ স্ত্রীকে। সঙ্গে নিয়ে আসেন চতুর্থ স্ত্রীর গর্ভে জন্ম নেয়া ১৪ মাস বয়সী এক শিশু কন্যাকে। এখনও মায়ের জন্য কান্না থামেনি ১৪ মাস বয়সের সেই শিশুটির। সেই শিশুটির কান্না না থামতেই গত বৃহস্পতিবার ইসমাইল হোসেন ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার ১নং গেদুয়া ইউনিয়নের পিপলডাঙ্গী গ্রাম থেকে জোর করে ধরে নিয়ে আসে ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে। শুক্রবার দুপুরে সেই কিশোরীকে জোরপুর্বক বিয়ের আয়োজন চলছিল দিনাজপুরের বিরল উপজেলার হাসিলা গ্রামে ইসমাইল হোসেনের বাড়িতে।

 

দুপুরে জুমআর নামাজের পর যেই মুহুর্তে কলমা পড়ে জোরপুর্বক বিয়ে করা হবে ওই কিশোরীকে। গোপন সুত্রে খবর পেয়ে ঠিক সেই মুহুর্তে বিয়ের অনুষ্ঠানে হাজির বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম রওশন কবীর। সবকিছু যাচাই-বাছাই করে সেখানেই ভ্রাম্যমান আদালত বসান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবিএম রওশন কবীর। এরপর সাক্ষ্যপ্রমান শেষে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৭ ধারা মতে বর ইসমাইল হোসেনকে ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিরল উপজেলার ১২ নং রাজারামপর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোঃ মোকাররম হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম রওশন কবীর যুগান্তরকে জানান, বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ২০১৭ সালের ৭ ধারাটি মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে বিচারকাজ সম্পন্ন হওয়ার বিষয়টি ২০১৭ সালে পাস হলেও এটি প্রয়োগের নির্দেশনা এসেছে গত এক সপ্তাহ আগে। আর দিনাজপুরে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এই আইনের ধারায় এটিই প্রথম রায় বলে জানান ইউএনও। তিনি জানান, ভ্রাম্যমান আদালতে এই আইনটি প্রয়োগ করার সুযোগ পাওয়ায় সমাজ থেকে অনেকটাই বাল্য বিবাহ নিরোধ করা সম্ভব হবে। এই আইনটি প্রয়োগ করার সুযোগ দেয়ায় সরকারকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» এক সাথে পথ চলা’ প্রতিপাদ্যে ঝিনাইদহে বিশ্ব ডাউন সিনড্রোম দিবস পালিত 

» ঝিনাইদহে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৪৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

» ঝিনাইদহে অনাথ ভবঘুরে এতিম শিশুদের ইচ্ছা পুরণে এক ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠান

» শৈলকুপায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটের মাঠে কে এই সুন্দরী প্রার্থী? 

» নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জে ৩৫ভরি স্বর্ণ, ১২ লক্ষ টাকা নিয়ে আমেরিকা প্রবাসীর স্ত্রী উধাও

» রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় অ্যাপার্টমেন্টে আগুন

» দখল হয়ে যাচ্ছে তিন যুগ আগের দশমিনার নির্মিত বীজাগার

» খুন করে স্বামীর লাশের পাশেই রাত কাটালেন স্ত্রী!

» নিউজিল্যান্ডে নিহতদের স্মরণসভায় জনতার ঢল

» সাতক্ষীরার তালায় শিয়াল মারা ফাঁদে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

 দিনাজপুরে ১৫ বছর বয়সী কিশোরীকে জোর করে বিয়ে করতে গিয়েই…

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

একে একে চারটি বিয়ে এবং যথারীতি একে একে চার স্ত্রীকে তালাক। পঞ্চম বিয়ের প্রস্তুতি, বিয়ের আয়োজনও প্রায় সম্পন্ন, তাও আবার ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে জোর করে ধরে এনে। খবর পেয়ে বিয়ের অনুষ্ঠানস্থলে সময়মতো হাজির বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম রওশন কবীর। এরপর সাক্ষ্য প্রমান শেষে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৭ ধারা মোতাবেক বর ইসমাইল হোসেনের ৬ মাসের কারাদণ্ড। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুরে দিনাজপুরের বিরল উপজেলার ১২ নং রাজারামপুর ইউনিয়নের হাসিলা গ্রামে। সাজাপ্রাপ্ত ইসমাইল হোসেন (৩৩) ওই গ্রামের মো. সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

 

স্থানীয়রা জানান, ৩৩ বছর বয়সী ইসমাইল হোসেন ইতিমধ্যেই চারটি বিয়ে করে চার স্ত্রীকেই তালাক দিয়েছেন। সবশেষ দুদিন আগে গত বুধবার ইসমাইল তালাক দিয়ে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে বাবার বাড়িতে রেখে এসেছে তার চতুর্থ স্ত্রীকে। সঙ্গে নিয়ে আসেন চতুর্থ স্ত্রীর গর্ভে জন্ম নেয়া ১৪ মাস বয়সী এক শিশু কন্যাকে। এখনও মায়ের জন্য কান্না থামেনি ১৪ মাস বয়সের সেই শিশুটির। সেই শিশুটির কান্না না থামতেই গত বৃহস্পতিবার ইসমাইল হোসেন ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার ১নং গেদুয়া ইউনিয়নের পিপলডাঙ্গী গ্রাম থেকে জোর করে ধরে নিয়ে আসে ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে। শুক্রবার দুপুরে সেই কিশোরীকে জোরপুর্বক বিয়ের আয়োজন চলছিল দিনাজপুরের বিরল উপজেলার হাসিলা গ্রামে ইসমাইল হোসেনের বাড়িতে।

 

দুপুরে জুমআর নামাজের পর যেই মুহুর্তে কলমা পড়ে জোরপুর্বক বিয়ে করা হবে ওই কিশোরীকে। গোপন সুত্রে খবর পেয়ে ঠিক সেই মুহুর্তে বিয়ের অনুষ্ঠানে হাজির বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম রওশন কবীর। সবকিছু যাচাই-বাছাই করে সেখানেই ভ্রাম্যমান আদালত বসান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবিএম রওশন কবীর। এরপর সাক্ষ্যপ্রমান শেষে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৭ ধারা মতে বর ইসমাইল হোসেনকে ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিরল উপজেলার ১২ নং রাজারামপর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোঃ মোকাররম হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম রওশন কবীর যুগান্তরকে জানান, বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ২০১৭ সালের ৭ ধারাটি মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে বিচারকাজ সম্পন্ন হওয়ার বিষয়টি ২০১৭ সালে পাস হলেও এটি প্রয়োগের নির্দেশনা এসেছে গত এক সপ্তাহ আগে। আর দিনাজপুরে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এই আইনের ধারায় এটিই প্রথম রায় বলে জানান ইউএনও। তিনি জানান, ভ্রাম্যমান আদালতে এই আইনটি প্রয়োগ করার সুযোগ পাওয়ায় সমাজ থেকে অনেকটাই বাল্য বিবাহ নিরোধ করা সম্ভব হবে। এই আইনটি প্রয়োগ করার সুযোগ দেয়ায় সরকারকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited