সোনারগাঁয়ে ওসি মোরশেদ আলম নিজেই যখন লাঠিয়াল ও জমি দখলকারী ভুমিকায়!

Spread the love

কুয়াকাটা নিউজ:- নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্ট সানিফয়েলস এন্ড পলিমার ইন্ড্রাস্ট্রিজের মালিক আল-মোস্তফা ও সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম পিপিএম এর সাথে দীর্ঘক্ষন গোপন বৈঠক হয়।

 

একটি সূত্র নিশ্চিত করে, বৈঠকে দেড় কোটি টাকায় সানিফয়েলস এন্ড পলিমার ইন্ড্রাস্ট্রিজের মালিক আল-মোস্তফার লাঠিয়াল হিসাবে সম্পূর্ন বেআইনী ভাবে দেড় কোটি টাকার মধ্যে ৫০ লাখ টাকা উৎকোচ গ্রহন করে সোনারগাঁ থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক এমপি কায়সার হাসনাতের এপিএস মাসুম চৌধুরীর ক্রয়কৃত জমি আল মোস্তফাকে দখল করে দেয় অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম। ৫০ লাখ টাকা উৎকোচ পেয়ে গত রবিবার রাত ১০ টার মধ্যে জমি ছেড়ে দিতে হুমকি দেয় জমির মালিক যুবলীগ নেতা ও সাবেক এমপির এপিএস মাসুম চৌধুরী ও জাহিদুল ইসলাম স্বপনকে। কিন্তু অফিসার ইনচার্জের বেআইনী নির্দেশ না মানায় রবিবার রাত ২ টায় অফিসার ইনচার্জ নিজেই অবৈধভাবে জমির আরেক মালিক জাহিদুল ইসলাম স্বপনসহ বাসায় থাকা তার ভাইকেও গ্রেফতার করে।

 

জানা গেছে, মাসুম চৌধুরী বিরুদ্ধে আদালতে ৬টি মামলা করে প্রতিপক্ষ। ৬ টি মামলায়ই আদালত মাসুম চৌধুরীর পক্ষে রায় দিয়ে তাকে ষোল আনা জমির মালিক ঘোষনা করে। আদালতের সুষ্পষ্ট নির্দেশনা অমান্য করে সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম নিজে রাত ২টায় কোন প্রকার ওয়ারেন্ট ছাড়াই সাবেক এমপি কায়সার হাসনাতের এপিএস ও থানা যুবলীগের সদস্য জাহিদুল ইসলাম স্বপন ও তার ভাইকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় শুধু টাকার জন্য আওয়ামীলীগ নেতাকে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানায় স্হানীয় এলাকাবাসী। থানা আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা দুর্নীতিবাজ সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলমের অপসারনসহ তদন্তপূর্বক তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্হা ও দুর্নীতি দমন কমিশনের মাধ্যমে তার দুর্নীতি অনুসন্ধানের দাবি জানায়।

 

সোনারগাঁ থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক এমপির এপিএস মাসুম চৌধুরী আদালত অবমাননা ও চরম দুর্নীতির তীব্র নিন্দা জানিয়ে যুবলীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম স্বপনের মুক্তি চায়।

 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক সোনারগাঁবাসী ও আওয়ামীগ নেতাকর্মীরা জানায়, দুর্নীতিবাজ অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলমের দুর্নীতি অনুসন্ধানে দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ করা হবে এবং উচ্চ আদালতে তার দুর্নীতি তদন্তে রিট করা হবে। এছাড়াও তিনি চরম মানবাধিকার লঙ্গনের পাশাপাশি আদালত অবমাননা করেন।

 

সোনারগাঁ থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ শাহীন জানায়, কেন জাহিদুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে তা জানি না। ওসি স্যার নিজেই গ্রেফতার করেছে। ওসি স্যার, আসলে মামলা হবে।

 

এ বিষয়ে সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মো.মোরশেদ আলমকে একাধিকবার তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেনি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» এক সাথে পথ চলা’ প্রতিপাদ্যে ঝিনাইদহে বিশ্ব ডাউন সিনড্রোম দিবস পালিত 

» ঝিনাইদহে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৪৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

» ঝিনাইদহে অনাথ ভবঘুরে এতিম শিশুদের ইচ্ছা পুরণে এক ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠান

» শৈলকুপায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটের মাঠে কে এই সুন্দরী প্রার্থী? 

» নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জে ৩৫ভরি স্বর্ণ, ১২ লক্ষ টাকা নিয়ে আমেরিকা প্রবাসীর স্ত্রী উধাও

» রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় অ্যাপার্টমেন্টে আগুন

» দখল হয়ে যাচ্ছে তিন যুগ আগের দশমিনার নির্মিত বীজাগার

» খুন করে স্বামীর লাশের পাশেই রাত কাটালেন স্ত্রী!

» নিউজিল্যান্ডে নিহতদের স্মরণসভায় জনতার ঢল

» সাতক্ষীরার তালায় শিয়াল মারা ফাঁদে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সোনারগাঁয়ে ওসি মোরশেদ আলম নিজেই যখন লাঠিয়াল ও জমি দখলকারী ভুমিকায়!

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

কুয়াকাটা নিউজ:- নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্ট সানিফয়েলস এন্ড পলিমার ইন্ড্রাস্ট্রিজের মালিক আল-মোস্তফা ও সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম পিপিএম এর সাথে দীর্ঘক্ষন গোপন বৈঠক হয়।

 

একটি সূত্র নিশ্চিত করে, বৈঠকে দেড় কোটি টাকায় সানিফয়েলস এন্ড পলিমার ইন্ড্রাস্ট্রিজের মালিক আল-মোস্তফার লাঠিয়াল হিসাবে সম্পূর্ন বেআইনী ভাবে দেড় কোটি টাকার মধ্যে ৫০ লাখ টাকা উৎকোচ গ্রহন করে সোনারগাঁ থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক এমপি কায়সার হাসনাতের এপিএস মাসুম চৌধুরীর ক্রয়কৃত জমি আল মোস্তফাকে দখল করে দেয় অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম। ৫০ লাখ টাকা উৎকোচ পেয়ে গত রবিবার রাত ১০ টার মধ্যে জমি ছেড়ে দিতে হুমকি দেয় জমির মালিক যুবলীগ নেতা ও সাবেক এমপির এপিএস মাসুম চৌধুরী ও জাহিদুল ইসলাম স্বপনকে। কিন্তু অফিসার ইনচার্জের বেআইনী নির্দেশ না মানায় রবিবার রাত ২ টায় অফিসার ইনচার্জ নিজেই অবৈধভাবে জমির আরেক মালিক জাহিদুল ইসলাম স্বপনসহ বাসায় থাকা তার ভাইকেও গ্রেফতার করে।

 

জানা গেছে, মাসুম চৌধুরী বিরুদ্ধে আদালতে ৬টি মামলা করে প্রতিপক্ষ। ৬ টি মামলায়ই আদালত মাসুম চৌধুরীর পক্ষে রায় দিয়ে তাকে ষোল আনা জমির মালিক ঘোষনা করে। আদালতের সুষ্পষ্ট নির্দেশনা অমান্য করে সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম নিজে রাত ২টায় কোন প্রকার ওয়ারেন্ট ছাড়াই সাবেক এমপি কায়সার হাসনাতের এপিএস ও থানা যুবলীগের সদস্য জাহিদুল ইসলাম স্বপন ও তার ভাইকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় শুধু টাকার জন্য আওয়ামীলীগ নেতাকে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানায় স্হানীয় এলাকাবাসী। থানা আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা দুর্নীতিবাজ সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলমের অপসারনসহ তদন্তপূর্বক তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্হা ও দুর্নীতি দমন কমিশনের মাধ্যমে তার দুর্নীতি অনুসন্ধানের দাবি জানায়।

 

সোনারগাঁ থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক এমপির এপিএস মাসুম চৌধুরী আদালত অবমাননা ও চরম দুর্নীতির তীব্র নিন্দা জানিয়ে যুবলীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম স্বপনের মুক্তি চায়।

 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক সোনারগাঁবাসী ও আওয়ামীগ নেতাকর্মীরা জানায়, দুর্নীতিবাজ অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলমের দুর্নীতি অনুসন্ধানে দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ করা হবে এবং উচ্চ আদালতে তার দুর্নীতি তদন্তে রিট করা হবে। এছাড়াও তিনি চরম মানবাধিকার লঙ্গনের পাশাপাশি আদালত অবমাননা করেন।

 

সোনারগাঁ থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ শাহীন জানায়, কেন জাহিদুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে তা জানি না। ওসি স্যার নিজেই গ্রেফতার করেছে। ওসি স্যার, আসলে মামলা হবে।

 

এ বিষয়ে সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মো.মোরশেদ আলমকে একাধিকবার তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেনি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited