দখলদারদের কবলে পড়েছে কুয়াকাটা ঐতিহ্যবাহী পুকুর

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,০৮ মে।। দখলদারদের কবলে পড়েছে কুয়াকাটার ঐতিহ্যবাহী খাস পুকুর। মহাসড়ক লাগোয়া এলজিইডি গেস্ট হাউসের সম্মুখের পুকুর পাড় থেকে দখল প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। দলীয় প্রভাব ও স্থানীয় প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে ইতোমধ্যে চারটি দোকান ঘর তুলা হয়েছে বলে এমন অভিযোগ রয়েছে।

 

প্রকাশ্যে এ খাস পুকুর পাড় এভাবে দখল হলেও কুয়কাটা পৌর প্রশাসনের নীরব ভূমিকা পালন করছে। এর ফলে পর্যটকসহ জনমনে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ব্রিটিশ আমলে যখন আদিবাসী রাখাইন সম্প্রদায় কুয়াকাটায় বসতি স্থাপন শুরু করে তখন সুপেয় পানির জন্য এ পুকুরটি খনন করা হয়। শত বছরের ঐতিহ্যবাহী এ পুকুরটি একসময় রাখাইনদের হাতে নিয়ন্ত্রণ ছিল। তখন পুকুরের পানি ব্যবহারে শর্ত ছিল। কেউ পুকুরে নেমে গোসল করত না।

 

পরবর্তীতে রাখাইনদের নিয়ন্ত্রনহারা হয় পুকুরটি। জনস্বার্থে এবং পর্যটকের ব্যবহারের সুবিধার্থে এলজিইডি কর্তৃপক্ষ একটি ঘাটলা নির্মাণ করে দেয়।এদিকে কুয়াকাটায় আগত পর্যটক-দর্শনার্থীসহ সাধারন পৌরবাসী ও স্কুলের শিক্ষার্থীসহ মসজিদের মুসল্লীদের ব্যবহারের একমাত্র পুকুরটি দখলদারদের করানে সৌন্দর্য হারাতে বসেছে। আগত পর্যটকরা সাগরে গোসল শেষে এই পুকুরের পানিতে ফ্রেশ হয়। এছাড়া রান্না কাজে এ পুকুরের পানি স্থানীয়দের ব্যবহার করছেন। এখন এ সুবিধা থেকে বঞ্চিতের শঙ্কায় পড়েছেন পর্যটকসহ স্থানীয় বাসিন্দারা।

 

মহিপুর উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, বিষয়টি সরজমিনে দেখাসহ যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য লোক পাঠানো হচ্ছে। কুয়াকাটা পৌর মেয়র আব্দুল বারেক মোল্লা জানান, কুয়কাটার ঐতিহ্যবাহী পুকুরের সৌন্দর্য্য বিনষ্টকারী দখলদারদের খুব দ্রুত উচ্ছেদ করা হবে। কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.তানভীর রহমান জানান, পুকুর দখলদারদের উচ্ছেদ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» বাতিল হচ্ছে এমসিকিউ? বিপদে শিক্ষার্থীরা

» রাজধানীর চকবাজারে আগুন: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৯

» আগুন নেভাতে বিমান বাহিনীর দুই হেলিকপ্টার

» আজ অমর একুশে ভাষা শহীদদের প্রতি জাতির বিনম্র শ্রদ্ধা

» রাজধানীর চকবাজার এলাকায় ভয়াবহ আগুন

» নিজ পরিচয়ে সারাবিশ্বে ও স্বদেশের উজ্জ্বল নক্ষত্র, শ্রেষ্ঠ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা

» একুশে স্মৃতি সংসদ সম্মাননা পেলেন: লায়ন গনি মিয়া বাবুল

» কলাপাড়ায় ছুরিকাঘাতে কলেজ শিক্ষিকা গুরুতর জখম

» চাঁদপুরে গ্রাম আদালতের অগ্রগতি ও চ্যালেন্জসমূহ নিয়ে জেলা প্রশাসকের ভিডিও কনফারেন্স

» গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ছয় কোচিং সেন্টার সিলগালা : বেঞ্চ ধ্বংস

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

দখলদারদের কবলে পড়েছে কুয়াকাটা ঐতিহ্যবাহী পুকুর

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,০৮ মে।। দখলদারদের কবলে পড়েছে কুয়াকাটার ঐতিহ্যবাহী খাস পুকুর। মহাসড়ক লাগোয়া এলজিইডি গেস্ট হাউসের সম্মুখের পুকুর পাড় থেকে দখল প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। দলীয় প্রভাব ও স্থানীয় প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে ইতোমধ্যে চারটি দোকান ঘর তুলা হয়েছে বলে এমন অভিযোগ রয়েছে।

 

প্রকাশ্যে এ খাস পুকুর পাড় এভাবে দখল হলেও কুয়কাটা পৌর প্রশাসনের নীরব ভূমিকা পালন করছে। এর ফলে পর্যটকসহ জনমনে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ব্রিটিশ আমলে যখন আদিবাসী রাখাইন সম্প্রদায় কুয়াকাটায় বসতি স্থাপন শুরু করে তখন সুপেয় পানির জন্য এ পুকুরটি খনন করা হয়। শত বছরের ঐতিহ্যবাহী এ পুকুরটি একসময় রাখাইনদের হাতে নিয়ন্ত্রণ ছিল। তখন পুকুরের পানি ব্যবহারে শর্ত ছিল। কেউ পুকুরে নেমে গোসল করত না।

 

পরবর্তীতে রাখাইনদের নিয়ন্ত্রনহারা হয় পুকুরটি। জনস্বার্থে এবং পর্যটকের ব্যবহারের সুবিধার্থে এলজিইডি কর্তৃপক্ষ একটি ঘাটলা নির্মাণ করে দেয়।এদিকে কুয়াকাটায় আগত পর্যটক-দর্শনার্থীসহ সাধারন পৌরবাসী ও স্কুলের শিক্ষার্থীসহ মসজিদের মুসল্লীদের ব্যবহারের একমাত্র পুকুরটি দখলদারদের করানে সৌন্দর্য হারাতে বসেছে। আগত পর্যটকরা সাগরে গোসল শেষে এই পুকুরের পানিতে ফ্রেশ হয়। এছাড়া রান্না কাজে এ পুকুরের পানি স্থানীয়দের ব্যবহার করছেন। এখন এ সুবিধা থেকে বঞ্চিতের শঙ্কায় পড়েছেন পর্যটকসহ স্থানীয় বাসিন্দারা।

 

মহিপুর উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, বিষয়টি সরজমিনে দেখাসহ যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য লোক পাঠানো হচ্ছে। কুয়াকাটা পৌর মেয়র আব্দুল বারেক মোল্লা জানান, কুয়কাটার ঐতিহ্যবাহী পুকুরের সৌন্দর্য্য বিনষ্টকারী দখলদারদের খুব দ্রুত উচ্ছেদ করা হবে। কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.তানভীর রহমান জানান, পুকুর দখলদারদের উচ্ছেদ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited