খালেদা এতিম ছেলের কথা বলতেন, তাও হতো : প্রধানমন্ত্রী

Spread the love

খালেদা জিয়া তার ‘এতিম’ দুই ছেলের জন্য বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ টাকা রাখার কথা বললেও পারতেন বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার রোমে গ্র্যান্ড হোটেলে পারকো দেই প্রিনচিপিতে আওয়ামী লীগের দেয়া এক সংবর্ধনায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

 

গত ৮ ফেব্রুয়ারি এই মামলার রায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ এসেছে। রায়ের দিন বরিশালে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী খালেদা পরিবারকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন, লজ্জা থাকলে তারা আর জনগণের অর্থ লুট করবে না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যদি খালেদা জিয়া বলতো আমার দুই ছেলে এতিম, তার জন্য রেখেছি। তাও একটা যুক্তি ছিল। সেটাও উনি করেননি। দুই কোটি টাকার দুর্নীতির জন্য খালেদা জিয়ার এই শাস্তির কী দরকার ছিল- রায়ের সমালোচনাকারীদের এমন বক্তব্য জেনেছেন প্রধানমন্ত্রীও। তিনি জবাবে বলেন, ‘তখন দুই কোটি টাকায় ধানমণ্ডিতে চারটি ফ্ল্যাট কেনা যেত।…টাকার মায়া ছাড়তে পারেনি। নিজের কাছে কুক্ষিগত করতে গিয়ে ধরা খেয়েছে।

 

‘আমার প্রশ্ন, আজকে যারা বিএনপি দরদি, আঁতেলরাও আছে তারা বলে দুই কোটি টাকার জন্য কেন এত মামলা। তাহলে আমার এখানে একটা প্রশ্ন আছে, দুর্নীতির করার জন্য কি একটা সিলিং থাকবে যে কত কোটি টাকা পর্যন্ত দুর্নীতি করা জায়েজ। তারা কি সেটা বলতে চায়?’। বিএনপি তাহলে একটা দাবি করুক যে এত কোটি পর্যন্ত তারা দুর্নীতি করতে পারবে। সেটা নিয়ে একটা রিট করুক। বিদেশ থেকে আসা এতিমের টাকা দেশে কোন এতিম পেয়েছে, সে প্রশ্নও রাখেন প্রধানমন্ত্রী। এই মামলা বা রায়ে সরকারের কোনো ভূমিকা ছিল না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে মামলায় খালেদা জিয়ার শাস্তি হয়েছে সে মামলা দিয়েছেন তার ‘প্রিয় ব্যক্তিত্ব’ ফখরুদ্দীন, মইন উদ্দিন, ইয়াজউদ্দীন। এ মামলা আওয়ামী লীগ দেয়নি।

 

এই মামলায় সরকার করলে তা ১০ বছর চলতেই দিতেন না বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘২০০৮ এ যখন ক্ষমতায় আসলাম, তখনই তো করতে (বিচার) পারতাম। খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমানের ঘুষের টাকা সিঙ্গাপুর থেকে ফিরিয়ে আনার কতাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘খালেদা জিয়ার দুই ছেলে অর্থ পাচারের সঙ্গে জড়িত। যাদের টাকা আমরা ফেরত এনেছিলাম। জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর তার কথিত ‘ভাঙা স্যুটকেস ও ছেড়া গেঞ্জি’ পরে জাদুর বাক্স হয়ে গেছে কীভাবে সে প্রশ্নও রাখেন তিনি। বলেন, ‘সেখান থেকে কোকো ১, ২, ৩, ৪ লঞ্চ বের হচ্ছে। সেখান থেকে ইন্ডাস্ট্রি বের হচ্ছে। সেখান থেকে নানান ধরনের সম্পদের পাহাড় গড়ছে দেশে-বিদেশে এবং মানি লন্ডারিং করে যাচ্ছে।… আর ছেড়া গেঞ্জির ফুটো দিয়ে ফ্রেঞ্চ শিপন বের হচ্ছে।

 

নির্বাচন ঠেকাতে ২০১৩ ও ২০১৪ সালে এবং ২০১৫ সালে সরকার পতনের আন্দোলনের নামে জ্বালাও পোড়াওয়েরও সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। আন্দোলনে পাঁচশ মানুষের মৃত্যু, পেট্রল বোমায় তিন হাজার মানুষের ঝলসে যাওয়া, পুলিশ, বিজিবি ও সেনা-সদস্যদের হত্যার বিষয়টিও তুলে ধরেন তিনি। ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি ইদ্রিস ফারাজির সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক হাসান ইকবালের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, ইতালিতে বাংলাদেশের রাষ্টদূত আব্দুস সোবহান শিকদার, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী অনিল দাশগুপ্ত, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামিম হক প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» প্রশ্নপত্রে পর্নো তারকার নাম বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে: শিক্ষামন্ত্রী

» হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) দুনিয়ার সর্বকালের সেরা মানব : রানী মুখার্জি

» ছাত্রীদেড় প্রস্তাব দেন বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের, ফোনালাপ ফাঁস! (অডিও)

» আমরা বিপদে, বাঁচান! এবার আশ্রয় চেয়ে আর্তি দুই তরুণীর

» আযানের সাথে সাথে শুরু হতো ওসি মোয়াজ্জেমের জন্য চাঁদা আদায়

» নুসরাত হত্যাকাণ্ড: ‘অনেক তথ্য’ দিয়েছেন আসামি কাদের

» তোরা যদি সাফাকে গালি দিস তবে আবার আমি একই কাজ করবো: সেফাতউল্লাহ

» সেফুদাকে ধরিয়ে দিলেই ২ লাখ পুরস্কার!

» নুসরাতকে নিয়ে ছোট ভাই রায়হানের আবেগঘন স্ট্যাটাস!

» নবম শ্রেণির বাংলা প্রশ্নে দুই পর্নো তারকার নাম!

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

x

আজ শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৬ই বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

খালেদা এতিম ছেলের কথা বলতেন, তাও হতো : প্রধানমন্ত্রী

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

খালেদা জিয়া তার ‘এতিম’ দুই ছেলের জন্য বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ টাকা রাখার কথা বললেও পারতেন বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার রোমে গ্র্যান্ড হোটেলে পারকো দেই প্রিনচিপিতে আওয়ামী লীগের দেয়া এক সংবর্ধনায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

 

গত ৮ ফেব্রুয়ারি এই মামলার রায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ এসেছে। রায়ের দিন বরিশালে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী খালেদা পরিবারকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন, লজ্জা থাকলে তারা আর জনগণের অর্থ লুট করবে না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যদি খালেদা জিয়া বলতো আমার দুই ছেলে এতিম, তার জন্য রেখেছি। তাও একটা যুক্তি ছিল। সেটাও উনি করেননি। দুই কোটি টাকার দুর্নীতির জন্য খালেদা জিয়ার এই শাস্তির কী দরকার ছিল- রায়ের সমালোচনাকারীদের এমন বক্তব্য জেনেছেন প্রধানমন্ত্রীও। তিনি জবাবে বলেন, ‘তখন দুই কোটি টাকায় ধানমণ্ডিতে চারটি ফ্ল্যাট কেনা যেত।…টাকার মায়া ছাড়তে পারেনি। নিজের কাছে কুক্ষিগত করতে গিয়ে ধরা খেয়েছে।

 

‘আমার প্রশ্ন, আজকে যারা বিএনপি দরদি, আঁতেলরাও আছে তারা বলে দুই কোটি টাকার জন্য কেন এত মামলা। তাহলে আমার এখানে একটা প্রশ্ন আছে, দুর্নীতির করার জন্য কি একটা সিলিং থাকবে যে কত কোটি টাকা পর্যন্ত দুর্নীতি করা জায়েজ। তারা কি সেটা বলতে চায়?’। বিএনপি তাহলে একটা দাবি করুক যে এত কোটি পর্যন্ত তারা দুর্নীতি করতে পারবে। সেটা নিয়ে একটা রিট করুক। বিদেশ থেকে আসা এতিমের টাকা দেশে কোন এতিম পেয়েছে, সে প্রশ্নও রাখেন প্রধানমন্ত্রী। এই মামলা বা রায়ে সরকারের কোনো ভূমিকা ছিল না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে মামলায় খালেদা জিয়ার শাস্তি হয়েছে সে মামলা দিয়েছেন তার ‘প্রিয় ব্যক্তিত্ব’ ফখরুদ্দীন, মইন উদ্দিন, ইয়াজউদ্দীন। এ মামলা আওয়ামী লীগ দেয়নি।

 

এই মামলায় সরকার করলে তা ১০ বছর চলতেই দিতেন না বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘২০০৮ এ যখন ক্ষমতায় আসলাম, তখনই তো করতে (বিচার) পারতাম। খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমানের ঘুষের টাকা সিঙ্গাপুর থেকে ফিরিয়ে আনার কতাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘খালেদা জিয়ার দুই ছেলে অর্থ পাচারের সঙ্গে জড়িত। যাদের টাকা আমরা ফেরত এনেছিলাম। জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর তার কথিত ‘ভাঙা স্যুটকেস ও ছেড়া গেঞ্জি’ পরে জাদুর বাক্স হয়ে গেছে কীভাবে সে প্রশ্নও রাখেন তিনি। বলেন, ‘সেখান থেকে কোকো ১, ২, ৩, ৪ লঞ্চ বের হচ্ছে। সেখান থেকে ইন্ডাস্ট্রি বের হচ্ছে। সেখান থেকে নানান ধরনের সম্পদের পাহাড় গড়ছে দেশে-বিদেশে এবং মানি লন্ডারিং করে যাচ্ছে।… আর ছেড়া গেঞ্জির ফুটো দিয়ে ফ্রেঞ্চ শিপন বের হচ্ছে।

 

নির্বাচন ঠেকাতে ২০১৩ ও ২০১৪ সালে এবং ২০১৫ সালে সরকার পতনের আন্দোলনের নামে জ্বালাও পোড়াওয়েরও সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। আন্দোলনে পাঁচশ মানুষের মৃত্যু, পেট্রল বোমায় তিন হাজার মানুষের ঝলসে যাওয়া, পুলিশ, বিজিবি ও সেনা-সদস্যদের হত্যার বিষয়টিও তুলে ধরেন তিনি। ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি ইদ্রিস ফারাজির সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক হাসান ইকবালের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, ইতালিতে বাংলাদেশের রাষ্টদূত আব্দুস সোবহান শিকদার, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী অনিল দাশগুপ্ত, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামিম হক প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited