মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে অনুরোধ পেশাদার সাংবাদিকদের হয়রানির হাত থেকে রক্ষা করুন

Spread the love

হাবিবুর রহমান বাদল, লন্ডন থেকে: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি সাংবাদিক বান্ধব এবং সত্যের পৃষ্ঠপোষক।তারপরও সাংবাদিকদেরকে সত্য তথ্য নির্ভর সংবাদ পরিবেশন করার ফলেও কেনো তাদের বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ক্ষমতাসীনদের বলয়ে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়? এই প্রশ্ন আজ সারা দেশের সাংবাদিক মহলে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে আপনি মানবতার জননী হিসেবে আখ্যায়িত হয়েছেন। যার কারণে আমরা বাঙ্গালী জাতি হিসেবে বিশে^র কাছে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছি। আপনি শুধু মানবতার জননীই নন, বরং আপনি স্বাধীন বাংলাদেশের শ্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্যে কন্যা। আপনি যতবারই ক্ষমতায় এসেছেন বা যতবারই বাংলাদেশের দায়িত্ব হাতে নিয়েছেন ততবারই এ দেশ উন্নয়নের মুখ দেখেছে এবং সাংবাদিকরা নিজেদের নিরাপদ বোধ করেছে।

 

সাংবাদিকরা যাতে হয়রানির স্বীকার না হয় সে জন্য আপনি তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারাটি বাতিল করার নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু আপনার সেই নির্দেশ আজও বাস্তবায়ন হয়নি। বরং সৎনিষ্ঠ,ন্যায়পরায়ণ এবং নির্ভীক সাংবাদিকদের জীবন এখন হুমকির মুখে। অনেক দিন কেটে গিয়েছে কিন্তু আজও সাংবাদিকরা সেই একই ধারায় হয়রানির স্বীকার হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনি জানেন বাংলাদেশের সাংবাদিকরা আপনাকে কতটা ভালোবাসে। আপনি সাংবাদিকদের জন্য যে সকল সুযোগ সুবিধার বিধান করেছেন তাতে সাংবাদিকরা আপনাকে চিরদিন মনে রাখবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারাটি এখনও বহাল থাকার দরুন ক্ষমতাশীন দলের কেউ কেউ নিজেদের আক্রোশ মেটাতে ক্ষমতার অপব্যবহার করে পেশাদার সাংবাদিকদের হয়রানি করছে।

 

পেশাদার সাংবাদিকরা কখনও কাউকে প্রতিপক্ষ হিসেবে গন্য করে কিংবা কারও পক্ষপাতি হয়ে সংবাদ পরিবেশন করে না। সাংবাদিকরা একজন মানুষ কখনও সাংবাদ পরিবেশন করতে গিয়ে তথ্যগত ভুল হতে পারে। আর যখনই ভুলটি ধরাপড়ে তখন সংশ্লিষ্ট সম্পাদক ভুলটি সংশোধন করে তার পত্রিকায় প্রকাশ করে এটাই একজন পেশাদার সাংবাদিকের বৈশিষ্ট্য। গতকাল বৃহস্পতিবার সুদূর লন্ডনে বসে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেখে মর্মাহত হই। যে একজন পেশাদার সাংবাদিককে সত্য সংবাদ প্রকাশ করতে গিয়ে আজ কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে জামিন নিতে হয়েছে।

 

নারায়ণগঞ্জ আদালতে ’দৈনিক নারায়ণগঞ্জের আলো’ পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদকসহ সত্য প্রকাশ করতে গিয়ে ক্ষমতাসীন দলের জনৈক নেতা নারায়ণগঞ্জে ৬ পেশাদার সাংবাদিকের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করে হয়রানি করছে। নারায়ণগঞ্জে হয়রানির শিকার সাংবাদিকরা কোন রাজনৈতিক দলের নয়। তারপরও তাদের হয়রানি হতে হচ্ছে। আমি সবচেয়ে বেশী মর্মাহত হই যখন পেশাদার সাংবাদিকরা কোন ক্ষমতাশীন দলের লোক দ্বারা হয়রানির শিকার হয়। সাংবাদিকরা যখন সত্য ও বস্তুনিষ্ট সংবাদ পরিবেশন করে তখন কারো না কারো খারাপ লাগতেই পারে।

 

তবে সাংবাদিকদের লিখনী হলো সমাজের ভুলগুলি ধরিয়ে দেয়া যাতে সমাজপতিরা ভুল সংশোধন করে নিতে পারেন। এটাই একজন পেশাদার সাংবাদিকের দায়িত্ব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি সাংবাদিকদের বন্ধু আপনিই পারেন সাংবাদিকদের এ সকল হয়রানির হাত থেকে রক্ষা করে আরও একটি নিরপেক্ষ এবং ন্যায়বিচারকের উজ্জল দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করতে। সর্বশেষে আপনার যোগ্য নেতৃত্বের ধারাবাহিকতা অটুট থাকুক এ প্রত্যাশা করে পেশাদার সাংবাদিকদের ৫৭ ধারায় হয়রানি থেকে মুক্তি করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» কোটি জেলের বেকারত্বের আশংকা: ভরা মৌসুমে সমুদ্রে ৬৫দিন অবরোধের প্রতিবাদে মাঠে নামছেন জেলেরা

» শার্শায় প্রতিপক্ষের আঘাতে দম্পত্তি আহত মামলা না করার হুমকি

» সিরাজগঞ্জে ভাবীকে বিয়ে করল ছোট ভাই, বউ ফিরে পেতে প্রাণ গেল বড় ভাইয়ের

» দশমিনায় ১৫ জেলের জেল ১লাখ মিটার অবৈধ জাল জব্দ

» গলাচিপায় টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের ৫তলাএকাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

» দশমিনা-উলানিয়া সড়ক না যেন মরণ ফাঁদ

» প্রশ্নপত্রে পর্নো তারকার নাম বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে: শিক্ষামন্ত্রী

» হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) দুনিয়ার সর্বকালের সেরা মানব : রানী মুখার্জি

» ছাত্রীদেড় প্রস্তাব দেন বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের, ফোনালাপ ফাঁস! (অডিও)

» আমরা বিপদে, বাঁচান! এবার আশ্রয় চেয়ে আর্তি দুই তরুণীর

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

x

আজ শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৭ই বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে অনুরোধ পেশাদার সাংবাদিকদের হয়রানির হাত থেকে রক্ষা করুন

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

হাবিবুর রহমান বাদল, লন্ডন থেকে: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি সাংবাদিক বান্ধব এবং সত্যের পৃষ্ঠপোষক।তারপরও সাংবাদিকদেরকে সত্য তথ্য নির্ভর সংবাদ পরিবেশন করার ফলেও কেনো তাদের বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ক্ষমতাসীনদের বলয়ে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়? এই প্রশ্ন আজ সারা দেশের সাংবাদিক মহলে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে আপনি মানবতার জননী হিসেবে আখ্যায়িত হয়েছেন। যার কারণে আমরা বাঙ্গালী জাতি হিসেবে বিশে^র কাছে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছি। আপনি শুধু মানবতার জননীই নন, বরং আপনি স্বাধীন বাংলাদেশের শ্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্যে কন্যা। আপনি যতবারই ক্ষমতায় এসেছেন বা যতবারই বাংলাদেশের দায়িত্ব হাতে নিয়েছেন ততবারই এ দেশ উন্নয়নের মুখ দেখেছে এবং সাংবাদিকরা নিজেদের নিরাপদ বোধ করেছে।

 

সাংবাদিকরা যাতে হয়রানির স্বীকার না হয় সে জন্য আপনি তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারাটি বাতিল করার নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু আপনার সেই নির্দেশ আজও বাস্তবায়ন হয়নি। বরং সৎনিষ্ঠ,ন্যায়পরায়ণ এবং নির্ভীক সাংবাদিকদের জীবন এখন হুমকির মুখে। অনেক দিন কেটে গিয়েছে কিন্তু আজও সাংবাদিকরা সেই একই ধারায় হয়রানির স্বীকার হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনি জানেন বাংলাদেশের সাংবাদিকরা আপনাকে কতটা ভালোবাসে। আপনি সাংবাদিকদের জন্য যে সকল সুযোগ সুবিধার বিধান করেছেন তাতে সাংবাদিকরা আপনাকে চিরদিন মনে রাখবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারাটি এখনও বহাল থাকার দরুন ক্ষমতাশীন দলের কেউ কেউ নিজেদের আক্রোশ মেটাতে ক্ষমতার অপব্যবহার করে পেশাদার সাংবাদিকদের হয়রানি করছে।

 

পেশাদার সাংবাদিকরা কখনও কাউকে প্রতিপক্ষ হিসেবে গন্য করে কিংবা কারও পক্ষপাতি হয়ে সংবাদ পরিবেশন করে না। সাংবাদিকরা একজন মানুষ কখনও সাংবাদ পরিবেশন করতে গিয়ে তথ্যগত ভুল হতে পারে। আর যখনই ভুলটি ধরাপড়ে তখন সংশ্লিষ্ট সম্পাদক ভুলটি সংশোধন করে তার পত্রিকায় প্রকাশ করে এটাই একজন পেশাদার সাংবাদিকের বৈশিষ্ট্য। গতকাল বৃহস্পতিবার সুদূর লন্ডনে বসে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেখে মর্মাহত হই। যে একজন পেশাদার সাংবাদিককে সত্য সংবাদ প্রকাশ করতে গিয়ে আজ কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে জামিন নিতে হয়েছে।

 

নারায়ণগঞ্জ আদালতে ’দৈনিক নারায়ণগঞ্জের আলো’ পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদকসহ সত্য প্রকাশ করতে গিয়ে ক্ষমতাসীন দলের জনৈক নেতা নারায়ণগঞ্জে ৬ পেশাদার সাংবাদিকের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করে হয়রানি করছে। নারায়ণগঞ্জে হয়রানির শিকার সাংবাদিকরা কোন রাজনৈতিক দলের নয়। তারপরও তাদের হয়রানি হতে হচ্ছে। আমি সবচেয়ে বেশী মর্মাহত হই যখন পেশাদার সাংবাদিকরা কোন ক্ষমতাশীন দলের লোক দ্বারা হয়রানির শিকার হয়। সাংবাদিকরা যখন সত্য ও বস্তুনিষ্ট সংবাদ পরিবেশন করে তখন কারো না কারো খারাপ লাগতেই পারে।

 

তবে সাংবাদিকদের লিখনী হলো সমাজের ভুলগুলি ধরিয়ে দেয়া যাতে সমাজপতিরা ভুল সংশোধন করে নিতে পারেন। এটাই একজন পেশাদার সাংবাদিকের দায়িত্ব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি সাংবাদিকদের বন্ধু আপনিই পারেন সাংবাদিকদের এ সকল হয়রানির হাত থেকে রক্ষা করে আরও একটি নিরপেক্ষ এবং ন্যায়বিচারকের উজ্জল দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করতে। সর্বশেষে আপনার যোগ্য নেতৃত্বের ধারাবাহিকতা অটুট থাকুক এ প্রত্যাশা করে পেশাদার সাংবাদিকদের ৫৭ ধারায় হয়রানি থেকে মুক্তি করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited