কলাপাড়ায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনে ইউপি চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন (ভিডিও)

কলাপাড়া: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় অতিসম্প্রতি ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের রমজানপুর বেড়িবাঁধ নদী ভাঙ্গনে বিলীন এলাকার সোনাতলা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে

 

স্থানীয়দের সঙ্গে বেড়িবাঁধ নির্মাণকারী চাইনিজ কোম্পানির সাব ঠিকাদার তৌহিদুল ইসলাম বিশ্বাসের লোকজনের সংঘর্ষের ঘটনায় পরিকল্পিতভাবে জড়িতের অভিযোগ এনে চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম সিকদার শুক্রবার বেলা ১১টার সময় কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, ভাঙ্গনকবলিত এলাকা থেকে বালু উত্তোলন করলে যে কোন বেড়িবাঁধ তো দুরের কথা গোটা গ্রাম বিলীন হয়ে যাবে।

 

এ কারণে বালু উত্তোলনে বাঁধা দেয় জনগণ। বালুমহল খাজুরা থেকে প্রশাসনের অনুমতি স্বাপেক্ষ বালু উত্তোলন করে ঠিকাদার কাজ করবেন এটি স্বাভাবিক। এর জের ধরে একটি সংঘর্ষের ঘটনায় তিনিসহ আওয়ামী লীগের অসংখ্য নে জানা গেছে বিশ^ব্যাংকের অর্থায়নে ওই পোল্ডারের ১৭ কিমি বেড়িবাঁধ মেরামত এবং উচুকরনের কাজ শুরু হয়েছে। চায়নার একটি কোম্পানি একাজ করছে। কিন্তু ওই কোম্পানির সাব ঠিকাদার তৌহিদুল ইসলাম ভাঙ্গনকবলিত এলাকা সংলগ্ন নদী থেকে বালু উত্তোলন করতে গিয়ে গ্রামের সাধারণ মানুষের সঙ্গে দ্বন্ধে জড়িয়ে পড়েন। যা নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম সিকদার জানান, সাব ঠিকাদার তিন শ’ টাকার স্ট্যাম্পে গ্রামের সহজ-সরল ৫৯ জন কৃষকের সই নিয়ে প্রায় পাঁচ একর জমিতে ব্লক তৈরির জন্য তিন বছরের জন্য ভাড়ায় নেন।

 

কিন্তু কোন টাকা-পয়সা দিচ্ছিলেন না। যা নিয়ে সিআইপি-১ প্রকল্পের টিম লিডারের কাছে তিনি লিখিত চিঠি দেন। যার প্রেক্ষিতে নামে মাত্র ৫৯ কৃষককে ৫০ হাজার টাকা দেয়া হয়্। এরপর থেকেই সাব ঠিকাদার তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে সরকারের উন্নয়ন কাজে বিলম্ব সৃষ্টি করছেন। করছেন জনস্বার্থ ক্ষুন্ন। এমনকি এলাকায় গ্রামের মানুষের মধ্যে একটি কোন্দলের সৃষ্টি করার পায়তারা চলছে। যাতে সরকারের এই উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করছেন তিনি। বালু ভরাটের ঠিকাদার তৌহিদুল ইসলাম জানান, বালু ভরাটের কাছে তার কাছে সিএফটি প্রতি এক টাকা করে চাঁদা দাবি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ, যুবলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের নামে এই টাকা চাওয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল আলম টিটোসহ স্থানীয় গ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন।

 

সোনাতলা নদীর প্রবল ভাঙ্গনে ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের রমজানপুর, পেয়ারপুরসহ ১০টি গ্রামের সাড়ে চার হাজার পরিবারের জীবন ও সম্পদ রক্ষায় শুরু হয়েছে ১৭ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ পুনরাকৃতিকরনের কাজ। ইতোমধ্যে ভাঙ্গন প্রতিরোধে ব্লক তৈরির জন্য প্রায় পাঁচ একর কৃষি জমি ব্যবহারের জন্য ৫৯ কৃষক ছেড়ে দিয়েছেন। এজন্য তারা বছর প্রতি মাত্র শতক প্রতি এক শ’ টাকা পেয়েছেন। তাও অনেক দেন দরবার করে। ৪৭/২ নম্বর পোল্ডারের এই ১৭ কিমি বেড়িবাঁধের কাজ নিয়ে শুরু হয়েছে বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্র।

 

যেখান থেকে বাঁধ ভেঙ্গে নদীতে বিলীন হয়েছে সেখান থেকে এ কাজের সাব ঠিকাদার বালু উত্তোলন করায় ফের গোটা এলাকা নদীতে বিলীনের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। স্থানীয়রা বাঁধা দেয়ায় তাঁেদরকে বিভিন্ন ধরনের মামলার হুমকি দেয়া হচ্ছে। এ কারণে বেড়িবাঁধের কাজ যথাযথভাবে নির্বিঘেœ সম্পন্ন করার দাবি নিয়ে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম সিকদার

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» কানাডায় নারীরা অন্যের বাচ্চা জন্ম দিচ্ছেন

» বেনাপোল স্থল বন্দর শ্রমিক ধর্মঘট, অসহায় ব্যবসায়ীরা

» একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোটবদ্ধ ২৯ ছাড়াও জাপা ১৪৩ প্রার্থী

» আওয়ামী লীগের এবারের ইশতেহার হবে ঐতিহাসিক : বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

» ঢাকাটাইমস, প্রিয়ডটকমসহ ৫৮ নিউজ সাইট বন্ধের নির্দেশ

» চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার দেশে ফিরবেন চামেলী

» মনোনয়ন ফিরে পেতে এখনও আশাবাদী হিরো আলম

» হাওলাদারকে এরশাদের বিশেষ সহকারী হিসেবে নিয়োগ

» গুলশানে বিএনপির বঞ্চিতদের হামলা, নয়াপল্টনে তালা

» বিজয়ের মাসে সাত বীরশ্রেস্ট’র নামে কলাপাড়ায় সাতটি পাঠাগার

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দ, ২৭শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কলাপাড়ায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনে ইউপি চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন (ভিডিও)

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

কলাপাড়া: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় অতিসম্প্রতি ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের রমজানপুর বেড়িবাঁধ নদী ভাঙ্গনে বিলীন এলাকার সোনাতলা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে

 

স্থানীয়দের সঙ্গে বেড়িবাঁধ নির্মাণকারী চাইনিজ কোম্পানির সাব ঠিকাদার তৌহিদুল ইসলাম বিশ্বাসের লোকজনের সংঘর্ষের ঘটনায় পরিকল্পিতভাবে জড়িতের অভিযোগ এনে চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম সিকদার শুক্রবার বেলা ১১টার সময় কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, ভাঙ্গনকবলিত এলাকা থেকে বালু উত্তোলন করলে যে কোন বেড়িবাঁধ তো দুরের কথা গোটা গ্রাম বিলীন হয়ে যাবে।

 

এ কারণে বালু উত্তোলনে বাঁধা দেয় জনগণ। বালুমহল খাজুরা থেকে প্রশাসনের অনুমতি স্বাপেক্ষ বালু উত্তোলন করে ঠিকাদার কাজ করবেন এটি স্বাভাবিক। এর জের ধরে একটি সংঘর্ষের ঘটনায় তিনিসহ আওয়ামী লীগের অসংখ্য নে জানা গেছে বিশ^ব্যাংকের অর্থায়নে ওই পোল্ডারের ১৭ কিমি বেড়িবাঁধ মেরামত এবং উচুকরনের কাজ শুরু হয়েছে। চায়নার একটি কোম্পানি একাজ করছে। কিন্তু ওই কোম্পানির সাব ঠিকাদার তৌহিদুল ইসলাম ভাঙ্গনকবলিত এলাকা সংলগ্ন নদী থেকে বালু উত্তোলন করতে গিয়ে গ্রামের সাধারণ মানুষের সঙ্গে দ্বন্ধে জড়িয়ে পড়েন। যা নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম সিকদার জানান, সাব ঠিকাদার তিন শ’ টাকার স্ট্যাম্পে গ্রামের সহজ-সরল ৫৯ জন কৃষকের সই নিয়ে প্রায় পাঁচ একর জমিতে ব্লক তৈরির জন্য তিন বছরের জন্য ভাড়ায় নেন।

 

কিন্তু কোন টাকা-পয়সা দিচ্ছিলেন না। যা নিয়ে সিআইপি-১ প্রকল্পের টিম লিডারের কাছে তিনি লিখিত চিঠি দেন। যার প্রেক্ষিতে নামে মাত্র ৫৯ কৃষককে ৫০ হাজার টাকা দেয়া হয়্। এরপর থেকেই সাব ঠিকাদার তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে সরকারের উন্নয়ন কাজে বিলম্ব সৃষ্টি করছেন। করছেন জনস্বার্থ ক্ষুন্ন। এমনকি এলাকায় গ্রামের মানুষের মধ্যে একটি কোন্দলের সৃষ্টি করার পায়তারা চলছে। যাতে সরকারের এই উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করছেন তিনি। বালু ভরাটের ঠিকাদার তৌহিদুল ইসলাম জানান, বালু ভরাটের কাছে তার কাছে সিএফটি প্রতি এক টাকা করে চাঁদা দাবি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ, যুবলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের নামে এই টাকা চাওয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল আলম টিটোসহ স্থানীয় গ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন।

 

সোনাতলা নদীর প্রবল ভাঙ্গনে ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের রমজানপুর, পেয়ারপুরসহ ১০টি গ্রামের সাড়ে চার হাজার পরিবারের জীবন ও সম্পদ রক্ষায় শুরু হয়েছে ১৭ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ পুনরাকৃতিকরনের কাজ। ইতোমধ্যে ভাঙ্গন প্রতিরোধে ব্লক তৈরির জন্য প্রায় পাঁচ একর কৃষি জমি ব্যবহারের জন্য ৫৯ কৃষক ছেড়ে দিয়েছেন। এজন্য তারা বছর প্রতি মাত্র শতক প্রতি এক শ’ টাকা পেয়েছেন। তাও অনেক দেন দরবার করে। ৪৭/২ নম্বর পোল্ডারের এই ১৭ কিমি বেড়িবাঁধের কাজ নিয়ে শুরু হয়েছে বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্র।

 

যেখান থেকে বাঁধ ভেঙ্গে নদীতে বিলীন হয়েছে সেখান থেকে এ কাজের সাব ঠিকাদার বালু উত্তোলন করায় ফের গোটা এলাকা নদীতে বিলীনের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। স্থানীয়রা বাঁধা দেয়ায় তাঁেদরকে বিভিন্ন ধরনের মামলার হুমকি দেয়া হচ্ছে। এ কারণে বেড়িবাঁধের কাজ যথাযথভাবে নির্বিঘেœ সম্পন্ন করার দাবি নিয়ে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম সিকদার

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited