অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় সীমান্তে হাজারো রোহিঙ্গা (ভিডিও)

Spread the love

মায়ানমারে সহিংসতার তৃতীয় দিন রাতে হাজারো রোহিঙ্গা রাতের আধারে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। আরকান রাজ্যের বিভিন্ন গ্রামে অগ্নিকান্ডে আগুনের লেলিহান শিখা সীমান্ত এলাকা থেকে দেখা যাচ্ছে। আতংকিত রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের উখিয়া, টেকনাফের বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে এপারে ঢুকে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও আত্মীয় স্বজনের বাড়ীতে আশ্রয় নিচ্ছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

 

উখিয়া সংলগ্ন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্ত পয়েন্টে দিয়ে পাঁচ হাজারের বেশী রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় আছে। ওই এলাকার জিরো পয়েন্টে প্রায় এক হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকালে বিজিবির হাতে আটকা পড়েছে। দিশেহারা রোহিঙ্গাদের আর্তনাদে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠে। বিজিবি সীমান্তে কড়া পাহারায় রয়েছে এবং অতিরিক্ত টহল জোরদার করেছে।

 

আজ দুপুরে বিজিবি মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আবুল হোসেন মিয়ানমার সীমান্তবর্তী বাংলাদেশের ঘুমধুম জলপাইতলী এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের জানান, সীমান্তে বিজিবি কড়া সতর্কতায় রয়েছে। নিরাপত্তার জন্য আরো অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ কঠোরভাবে দমন করা হবে। রোহিঙ্গারা যেন সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ করতে না পারে সেজন্য কঠোর নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

 

এদিকে টেকনাফের হোয়াইক্যং উলুবনিয়া, লম্বাবিল, খারাইংগ্যা ঘোনা, উখিয়ার পালংখালী এলাকা দিয়ে শত শত রোহিঙ্গা নাফনদী অতিক্রম করে সীমান্তের উপকূলীয় বিভিন্ন কেওড়া বনে লুকিয়ে থাকছে বলে জানা গেছে। এসব রোহিঙ্গারা রাতের আধারে অনুপ্রবেশ করে টেকনাফের লেদা অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প, নয়াপাড়া শারণার্থী ক্যাস্প, উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প, কুতুপালং ও বালুখালী অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাস্পে সুযোগ বুঝে আশ্রয় নিচ্ছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। পালিয়ে আসা মিয়ানমারের ঢেকিবনিয়ার দিল মোহাম্মদ ও মিনারা বেগম জানান, সেনা বাহিনী গ্রামে ঢুকে অত্যাচার করছে। পুরুষদের ধরে নির্যাতন চালিয়ে গুলি করে হত্যা করছে। গ্রামে অগ্নি সংযোগ করে গোটা গ্রাম জ্বালিয়ে দিচ্ছে। প্রায় চারদিন ধরে খাবার নেই।

 

রাখাইন রাজ্যে এক রাতে ৩০টি পুলিশ পোস্টে হামলার পর সেই দেশের সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা গোষ্ঠির উপর দমন নীপড়ন, হত্যাসহ ভয়াবহ অত্যাচার বাড়িয়েছে বলে আগত রোহিঙ্গারা জানিয়েছে। অত্যাচারের মাত্রা তীব্র থেকে তীব্রতর হওয়ায় আরাকান (রাখাইন) রাজ্য হতে মুসলিম রোহিঙ্গারা টেকনাফের হোয়াইক্যং, হ্নীলা, শাহপরীরদ্বীপ ও উখিয়ার পালংখালী, থাইংখালী ঘুমধুম সীমান্ত হয়ে দলে দলে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে।

 

শনিবার দুপুরের দিকে ঘুমধুম সীমান্তের শূণ্য রেখায় ঝটলা বেঁধে থাকা রোহিঙ্গাদের দিকে গুলি ছুঁড়ে সেদেশের সেনা বাহিনী। এর প্রেক্ষিতে হাজার হাজার রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করে। রাতে এপারে অনুপ্রবেশ করতে গিয়ে ঘুমধুম সীমান্তের জিরো পয়েন্টে শতাধিক রোহিঙ্গা বিজিবির হাতে আটক হয়। বিজিবি জানায়, তাদের পর্যায়ক্রমে স্বদেশে ফেরত পাঠানো হবে। একই সাথে বিজিবি ও কোস্টগার্ড অতিরিক্ত ফোর্সসহ টহল দল বাড়ানোর কথাও জানান তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» ব্রুনাই পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

» শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ বোমা হামলা, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৮

» দশমিনায় হঠাৎ ডায়রিয়ার প্রকোপ

» শার্শার স্কুলছাত্রী নিপা কৃত্রিম পা লাগাতে নেয়া হবে বিদেশে

» ২০ বছর আগের তুলনায় তুমি এখন আরো ‘হট’ হৃতিককে সাবেক স্ত্রী

» টাঙ্গাইলে ধর্ষিত মেয়েকে নিয়ে হাসপাতালে কাঁদছেন পাকিস্তানি মা

» ঠাকুরগাঁওয়ে শূন্যের ওপর ঘুরলেন বিস্ময়কর নারী!

» জেল থেকে বেরিয়েই চমক দিয়ে নতুন ঘোষণা দিলেন হিরো আলম!

» প্রধানমন্ত্রী ব্রুনাইয়ের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন

» আজ পবিত্র শবেবরাত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

x

আজ রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৮ই বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় সীমান্তে হাজারো রোহিঙ্গা (ভিডিও)

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

মায়ানমারে সহিংসতার তৃতীয় দিন রাতে হাজারো রোহিঙ্গা রাতের আধারে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। আরকান রাজ্যের বিভিন্ন গ্রামে অগ্নিকান্ডে আগুনের লেলিহান শিখা সীমান্ত এলাকা থেকে দেখা যাচ্ছে। আতংকিত রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের উখিয়া, টেকনাফের বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে এপারে ঢুকে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও আত্মীয় স্বজনের বাড়ীতে আশ্রয় নিচ্ছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

 

উখিয়া সংলগ্ন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্ত পয়েন্টে দিয়ে পাঁচ হাজারের বেশী রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় আছে। ওই এলাকার জিরো পয়েন্টে প্রায় এক হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকালে বিজিবির হাতে আটকা পড়েছে। দিশেহারা রোহিঙ্গাদের আর্তনাদে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠে। বিজিবি সীমান্তে কড়া পাহারায় রয়েছে এবং অতিরিক্ত টহল জোরদার করেছে।

 

আজ দুপুরে বিজিবি মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আবুল হোসেন মিয়ানমার সীমান্তবর্তী বাংলাদেশের ঘুমধুম জলপাইতলী এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের জানান, সীমান্তে বিজিবি কড়া সতর্কতায় রয়েছে। নিরাপত্তার জন্য আরো অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ কঠোরভাবে দমন করা হবে। রোহিঙ্গারা যেন সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ করতে না পারে সেজন্য কঠোর নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

 

এদিকে টেকনাফের হোয়াইক্যং উলুবনিয়া, লম্বাবিল, খারাইংগ্যা ঘোনা, উখিয়ার পালংখালী এলাকা দিয়ে শত শত রোহিঙ্গা নাফনদী অতিক্রম করে সীমান্তের উপকূলীয় বিভিন্ন কেওড়া বনে লুকিয়ে থাকছে বলে জানা গেছে। এসব রোহিঙ্গারা রাতের আধারে অনুপ্রবেশ করে টেকনাফের লেদা অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প, নয়াপাড়া শারণার্থী ক্যাস্প, উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প, কুতুপালং ও বালুখালী অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাস্পে সুযোগ বুঝে আশ্রয় নিচ্ছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। পালিয়ে আসা মিয়ানমারের ঢেকিবনিয়ার দিল মোহাম্মদ ও মিনারা বেগম জানান, সেনা বাহিনী গ্রামে ঢুকে অত্যাচার করছে। পুরুষদের ধরে নির্যাতন চালিয়ে গুলি করে হত্যা করছে। গ্রামে অগ্নি সংযোগ করে গোটা গ্রাম জ্বালিয়ে দিচ্ছে। প্রায় চারদিন ধরে খাবার নেই।

 

রাখাইন রাজ্যে এক রাতে ৩০টি পুলিশ পোস্টে হামলার পর সেই দেশের সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা গোষ্ঠির উপর দমন নীপড়ন, হত্যাসহ ভয়াবহ অত্যাচার বাড়িয়েছে বলে আগত রোহিঙ্গারা জানিয়েছে। অত্যাচারের মাত্রা তীব্র থেকে তীব্রতর হওয়ায় আরাকান (রাখাইন) রাজ্য হতে মুসলিম রোহিঙ্গারা টেকনাফের হোয়াইক্যং, হ্নীলা, শাহপরীরদ্বীপ ও উখিয়ার পালংখালী, থাইংখালী ঘুমধুম সীমান্ত হয়ে দলে দলে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে।

 

শনিবার দুপুরের দিকে ঘুমধুম সীমান্তের শূণ্য রেখায় ঝটলা বেঁধে থাকা রোহিঙ্গাদের দিকে গুলি ছুঁড়ে সেদেশের সেনা বাহিনী। এর প্রেক্ষিতে হাজার হাজার রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করে। রাতে এপারে অনুপ্রবেশ করতে গিয়ে ঘুমধুম সীমান্তের জিরো পয়েন্টে শতাধিক রোহিঙ্গা বিজিবির হাতে আটক হয়। বিজিবি জানায়, তাদের পর্যায়ক্রমে স্বদেশে ফেরত পাঠানো হবে। একই সাথে বিজিবি ও কোস্টগার্ড অতিরিক্ত ফোর্সসহ টহল দল বাড়ানোর কথাও জানান তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited