আমি তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাইনা-এইচ এম এরশাদ

ঢাকা: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, আমি তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাইনা। এই নির্বাচন কমিশনারের অধীনেই নির্বাচন করবো। সুষ্ঠ নির্বাচন হলে আমরাই জয়ী হবো। সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন, আমাকে বলা হয়েছিলো আপনি ক্ষমতা ছেড়ে দিয়ে জনগণের সমর্থন যাচাই করুন।

 

ক্ষমতা ছাড়ার পরে আমাকে নির্বাচনে কি করা হয়েছিল জনগণ তা ভুলে নাই। আমাদের উপর অনেক অত্যাচার করা হয়েছে। নিঃশেষ হয়ে যায় নাই। আমাদের উন্নয়নের কথা মানুষ এখনো ভুলে নাই। আমি ৪৬০ টি উপজেলা করেছিলাম। ২১ টি জেলা থেকে ৬৪ টি জেলা রূপান্তরিত করেছিলাম। ১০ হাজার পাকা রাস্তা করেছি এবং অসংখ্য ব্রীজ, কালভার্ট, কাঁচারাস্তা নির্মাণ করে জনগণের যোগাযোগ ব্যবস্থা সুন্দর করেছিলাম।আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ ঘটিকায় গুলশান-১ এ ইমানুয়েলস কনভেনশন
সেন্টারে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এস এম ফয়সল চিশতী’র সভাপতিত্বে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু এরশাদ এর হাতে ফুল দিয়ে স্ব-পরিবারে যোগদান করেন বাংলাদেশ সরকারের সাবেক স্বাস্থ্য সচিব এম এম নিয়াজ উদ্দিন, স্ত্রী নুর জাহান নিয়াজ, মেয়ে নুসরাত জাহান, নাফিয়াতুজ সাবরিন, ছেলে ব্যারিষ্টার নাজমুল হাসান চৌধুরী, মেয়ের জামাই মেহেদী আমীন।

 

এরশাদ বলেন, যমুনা সেতুর ভিত্তিস্তর স্থাপন করেছিলাম, বিশ্বব্যাংকের কাছে টাকা চেয়েছিলাম, উত্তরে বলেছিলো গরীব দেশ। বাংলাদেশের অর্থায়নে যমুনা সেতু করা হয়েছে। উত্তরবঙ্গের মানুষের যোগাযোগে অনেক উন্নতি হয়েছে। মানুষ সুখের স্বপ্ন বাস্তবে পেয়েছে। ঢাকা শহরের অবস্থা যানজট ১ ঘন্টায় একটি গাড়ি চলে ৭ কি:মি:, অসহনীয় যন্ত্রণা। আমরা ক্ষমতায় গেলে প্রাদেশিক সরকার গঠন করবো, ঢাকা শহরের যানজটমুক্ত করবো, সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন শহর উপহার দেব। যোগদান অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাখেন, জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ এমপি, কো-চেয়ারম্যান জি.এম কাদের, মহাসচিব এবিএম রহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গাজীপুর জেলা আহ্বায়ক আজম খান, ভাইস চেয়ারম্যান ও গাজীপুর সিটি সভাপতি আব্দুস সাত্তার মিয়া। জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আপনারা বলেন- মানুষের মাথা পিছু আয় ১৬০০ ডলার হয়েছে, গ্রামে যান মানুষের অবস্থা দেখেন।

 

ঢাকা-শহরে থাকেনতো! গ্রামের মানুষের দুঃখ দূর্দশা কেমনে বুঝবেন। ৫৬ টাকা চালের কেজি মানুষের হায় হাতাশ দেখেছি। আমিও ত্রাণ দিয়েছি। কিন্তু কি যে দুঃখ, কষ্ট রান্নাবান্না করার ব্যবস্থা নাই, থাকার কোনো ব্যবস্থা নাই, বিশুদ্ধ পানির অভাব, খোলা আকাশের নিচে মানুষের বসবাস। দেশের মানুষ এখন পরিবর্তন চাই। গুম, হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট চায় না। মানুষ স্মরণ করেন- এরশাদ সরকারের স্বর্ণালী যুগের দিন। এরশাদ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য হলো ৩০০’শ আসনে নির্বাচন করতে শক্তি ও সার্মথ্য দরকার। মানুষের ভালোবাসা অর্জন করো। মানুষ যাতে ভোট দেয় সে আস্থা অর্জন করা। তিনি বলেন, যারা জাতীয় পার্টি ছেড়ে চলে গেছেন তাদের অবস্থা কোথায়? তারা মুক্তির পথ খুঁজছে। জাতীয় পার্টি মর্যাদার সাথে আছে। বর্তমানে বিএনপি’র অবস্থা কি ? মাঠে ময়দানে নাই। শুধু বক্তব্য দেয়। যোদান অনুষ্ঠানে সাবেক রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

 

সভায় উপস্থিত ছিলেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান,আবুল কাশেম, হাফিজ উদ্দিন, সৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, মেজর খালেদ আখতার (অব.), চেয়ারম্যানের উপদেস্টা কাজী মামুনুর রশিদ, ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নুরু, খন্দকার আব্দুস ছালাম, বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল, যুগ্ম মহাসচিব মোঃ নুরুল ইসলাম ওমর এমপি, মোঃ শফিকুল ইসলাম শফিক, সাংগঠনিক সম্পাদক আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, ফকরুল আহসান শাহজাদা, জসিম উদ্দিন ভূইয়া, দফতর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, যুগ্ম দফতর সম্পাদক এম এ রাজ্জাক খান।

 

কেন্দ্রীয় নেতা – হুমায়ুন খান, আহাদ চৌধুরী শাহিন, মোঃ আনিসুর রহমান খোকন, নিজাম উদ্দিন সরকার, জয়নাল আবেদীন, সৈয়দ ইফতেকার আহসান হাসান, মিজানুর রহমান মিরু, এস এম আল জুবায়ের, নাজমুল খান, ফজলে এলাহী সোহাগ, আব্দুস সাত্তার, মোহাম্মদ আলী খান, আজহারুল ইসলাম সরকার, অ্যাড. মামুন, অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, মামুনুর রহমান, অ্যাড. আবু তৈয়ব, রেজাউর রাজি চৌধুরী স্বপন, মোঃ নেওয়াজ আলী ভূইয়া, মোঃ সোলায়মান সামি, মিলন খান, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, হারুন অর রশিদ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ছয় কোচিং সেন্টার সিলগালা : বেঞ্চ ধ্বংস

» গোপালগঞ্জে বিআরডিবি’র ইউসিসিএ কর্মচারীদের মানবন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

» সৌদি আরবকে ইইউ’র কালো তালিকা ভুক্ত করায় নাগরিক সমাজের উদ্বেগ

» দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ফুলচাষে প্রায় ৫০ লাখ মানুষের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে প্রায় ৬০ কোটি টাকাফুল বিক্রি

» যশোরের নাভারন প্রতিবন্ধী স্কুলে পথের আলো সংস্থার মোটর রিক্সা ভ্যান দান

» যশোরের শার্শায় মাদক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

» গলাচিপায় বীজ আলুর মাঠ দিবস পালিত

» ভাষাসৈনিকদের যথাযথ মর্যাদা দেওয়া সময়ের দাবি: ভাষাসৈনিক লায়ন শামসুল হুদা

» বই কিনুন, বই পড়ুন, নিজেকে সমৃদ্ধ করুন: যুবলীগ চেয়ারম্যাম মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী

» ঝিনাইদহে শুদ্ধসুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৮ই ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আমি তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাইনা-এইচ এম এরশাদ

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

ঢাকা: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, আমি তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাইনা। এই নির্বাচন কমিশনারের অধীনেই নির্বাচন করবো। সুষ্ঠ নির্বাচন হলে আমরাই জয়ী হবো। সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন, আমাকে বলা হয়েছিলো আপনি ক্ষমতা ছেড়ে দিয়ে জনগণের সমর্থন যাচাই করুন।

 

ক্ষমতা ছাড়ার পরে আমাকে নির্বাচনে কি করা হয়েছিল জনগণ তা ভুলে নাই। আমাদের উপর অনেক অত্যাচার করা হয়েছে। নিঃশেষ হয়ে যায় নাই। আমাদের উন্নয়নের কথা মানুষ এখনো ভুলে নাই। আমি ৪৬০ টি উপজেলা করেছিলাম। ২১ টি জেলা থেকে ৬৪ টি জেলা রূপান্তরিত করেছিলাম। ১০ হাজার পাকা রাস্তা করেছি এবং অসংখ্য ব্রীজ, কালভার্ট, কাঁচারাস্তা নির্মাণ করে জনগণের যোগাযোগ ব্যবস্থা সুন্দর করেছিলাম।আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ ঘটিকায় গুলশান-১ এ ইমানুয়েলস কনভেনশন
সেন্টারে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এস এম ফয়সল চিশতী’র সভাপতিত্বে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু এরশাদ এর হাতে ফুল দিয়ে স্ব-পরিবারে যোগদান করেন বাংলাদেশ সরকারের সাবেক স্বাস্থ্য সচিব এম এম নিয়াজ উদ্দিন, স্ত্রী নুর জাহান নিয়াজ, মেয়ে নুসরাত জাহান, নাফিয়াতুজ সাবরিন, ছেলে ব্যারিষ্টার নাজমুল হাসান চৌধুরী, মেয়ের জামাই মেহেদী আমীন।

 

এরশাদ বলেন, যমুনা সেতুর ভিত্তিস্তর স্থাপন করেছিলাম, বিশ্বব্যাংকের কাছে টাকা চেয়েছিলাম, উত্তরে বলেছিলো গরীব দেশ। বাংলাদেশের অর্থায়নে যমুনা সেতু করা হয়েছে। উত্তরবঙ্গের মানুষের যোগাযোগে অনেক উন্নতি হয়েছে। মানুষ সুখের স্বপ্ন বাস্তবে পেয়েছে। ঢাকা শহরের অবস্থা যানজট ১ ঘন্টায় একটি গাড়ি চলে ৭ কি:মি:, অসহনীয় যন্ত্রণা। আমরা ক্ষমতায় গেলে প্রাদেশিক সরকার গঠন করবো, ঢাকা শহরের যানজটমুক্ত করবো, সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন শহর উপহার দেব। যোগদান অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাখেন, জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ এমপি, কো-চেয়ারম্যান জি.এম কাদের, মহাসচিব এবিএম রহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গাজীপুর জেলা আহ্বায়ক আজম খান, ভাইস চেয়ারম্যান ও গাজীপুর সিটি সভাপতি আব্দুস সাত্তার মিয়া। জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আপনারা বলেন- মানুষের মাথা পিছু আয় ১৬০০ ডলার হয়েছে, গ্রামে যান মানুষের অবস্থা দেখেন।

 

ঢাকা-শহরে থাকেনতো! গ্রামের মানুষের দুঃখ দূর্দশা কেমনে বুঝবেন। ৫৬ টাকা চালের কেজি মানুষের হায় হাতাশ দেখেছি। আমিও ত্রাণ দিয়েছি। কিন্তু কি যে দুঃখ, কষ্ট রান্নাবান্না করার ব্যবস্থা নাই, থাকার কোনো ব্যবস্থা নাই, বিশুদ্ধ পানির অভাব, খোলা আকাশের নিচে মানুষের বসবাস। দেশের মানুষ এখন পরিবর্তন চাই। গুম, হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট চায় না। মানুষ স্মরণ করেন- এরশাদ সরকারের স্বর্ণালী যুগের দিন। এরশাদ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য হলো ৩০০’শ আসনে নির্বাচন করতে শক্তি ও সার্মথ্য দরকার। মানুষের ভালোবাসা অর্জন করো। মানুষ যাতে ভোট দেয় সে আস্থা অর্জন করা। তিনি বলেন, যারা জাতীয় পার্টি ছেড়ে চলে গেছেন তাদের অবস্থা কোথায়? তারা মুক্তির পথ খুঁজছে। জাতীয় পার্টি মর্যাদার সাথে আছে। বর্তমানে বিএনপি’র অবস্থা কি ? মাঠে ময়দানে নাই। শুধু বক্তব্য দেয়। যোদান অনুষ্ঠানে সাবেক রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

 

সভায় উপস্থিত ছিলেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান,আবুল কাশেম, হাফিজ উদ্দিন, সৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, মেজর খালেদ আখতার (অব.), চেয়ারম্যানের উপদেস্টা কাজী মামুনুর রশিদ, ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নুরু, খন্দকার আব্দুস ছালাম, বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল, যুগ্ম মহাসচিব মোঃ নুরুল ইসলাম ওমর এমপি, মোঃ শফিকুল ইসলাম শফিক, সাংগঠনিক সম্পাদক আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, ফকরুল আহসান শাহজাদা, জসিম উদ্দিন ভূইয়া, দফতর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, যুগ্ম দফতর সম্পাদক এম এ রাজ্জাক খান।

 

কেন্দ্রীয় নেতা – হুমায়ুন খান, আহাদ চৌধুরী শাহিন, মোঃ আনিসুর রহমান খোকন, নিজাম উদ্দিন সরকার, জয়নাল আবেদীন, সৈয়দ ইফতেকার আহসান হাসান, মিজানুর রহমান মিরু, এস এম আল জুবায়ের, নাজমুল খান, ফজলে এলাহী সোহাগ, আব্দুস সাত্তার, মোহাম্মদ আলী খান, আজহারুল ইসলাম সরকার, অ্যাড. মামুন, অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, মামুনুর রহমান, অ্যাড. আবু তৈয়ব, রেজাউর রাজি চৌধুরী স্বপন, মোঃ নেওয়াজ আলী ভূইয়া, মোঃ সোলায়মান সামি, মিলন খান, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, হারুন অর রশিদ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited