বেড়িয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য, একাই দুজনকে খুন করেছে সুরভী

আফরোজা বেগম ও তার গৃহকর্মী দিতিকে একাই হত্যা করেছেন বলে পুলিশের কাছে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে নতুন সেই গৃহকর্মী সুরভী আক্তার নাহিদা। ২৩ বছর বয়সী এই তরুণী জানিয়েছে, বাসা থেকে বের হতে না দেয়ায় সে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। যদিও তার এমন বক্তব্য বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়নি তদন্ত সংশ্লিষ্টদের কাছে। যে কারণে সবদিক বিবেচনায় রেখেই হত্যা মামলার তদন্তের কাজ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের ধানমন্ডি বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আব্দুল্লাহেল কাফি। সোমবার তিনি বলেন, জোড়া হত্যার এই মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশের কাছে স্থানান্তর করা হয়েছে৷ সবকিছু বিবেচনায় রেখে তারা এ ঘটনার রহস্য উন্মোচন করবেন।

 

এর আগে রোববার রাতে রাজধানীর আগারগাঁও বস্তি থেকে গৃহকর্মী সুরভীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রাতভর জিজ্ঞাসাবাদে সুরভী জানায়, এলাকার স্থানীয় এক পান বিক্রেতার সাথে তার আগে থেকে পরিচয় ছিল। নিহত আফরোজার জামাতা মনির উদ্দিনের বডিগার্ড আতিকুল হক বাচ্চু ওই পান বিক্রেতার দোকান থেকে নিয়মিত পান কিনতেন। বাচ্চু ওই পান বিক্রেতাকে বলেছিলেন নতুন একজন গৃহকর্মীর খোঁজ নিতে। পরে ওই পান বিক্রেতার মাধ্যমেই বাচ্চুর সাথে শুক্রবার আফরোজাদের বাড়িতে যায় সুরভী। তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র আরো জানায়, বাচ্চু ওই বাসায় কাজে নিয়ে গেলেও, তার আচরণ ভালো লাগেনি সুরভীর। শুক্রবার বাচ্চু তাকে ওই বাসায় নিয়ে যায়। এরপর আফরোজা বেগম প্রথম দিনেরমতো সুরভীকে দিয়ে কিছু কাজ করান। কাজ শেষে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে চায় সুরভী। কিন্তু তাকে বাধা দেয় আফরোজাদের পুরনো গৃহকর্মী দিতি। এক পর্যায়ে দিতি ও সুরভীর মধ্যে ঝগড়া হয়। তখন সুরভী রান্নাঘর নেয়া ছুরি দিয়ে দিতির গলা, পিঠ আর বুকে আঘাত করে।

 

এরপর আফরোজার কক্ষে গিয়ে সুরভী বলে- সে বাইরে যেতে চায়। তখন আফরোজা জানতে চায়, অন্য ঘরে দিতি চিৎকার করল কেন। সুরভী তখন বলে, তাকে বাইরে যেতে দেয়নি বলে ঝগড়া করেছে। তখন আফরোজা বলে, যে তোকে এনে দিয়ে গেছে সে না বলা পর্যন্ত তোকে যেতে দেব না। এ সময় সুরভী অফরোজাকে গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে গেট খুলে পালিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদে সুরভী আরো জানায়, সে ভয় পাচ্ছিল, বাচ্চু তাকে পাচার করে দিতে পারে অথবা অন্য কোনো অনৈতিক কাজ করাতে পারে। হত্যাকাণ্ডের পর বাসা থেকে তিনটি মোবাইল ফোন, নগদ টাকা, সঞ্চয়পত্র ও সোনাসহ অনেক কিছু খোয়া গেছে বলে অভিযোগ করেছিল আফরোজার পরিবার। তবে সুরভী পুলিশকে জানিয়েছে, সে একটি আইফোন নিয়ে গিয়েছিল। সেটি চার হাজার টাকায় বিক্রি করে দিয়েছে।

 

এদিকে ঘটনার পর থেকে পুলিশের হেফাজতে রয়েছে বডিগার্ড বাচ্চু, সিকিউরিটি গার্ড নুরুজ্জামান, কেয়ারটেকার বেলাল, ইলেকট্রিক মিস্ত্রি প্রিন্স ও সেই পান বিক্রেতা। গৃহকর্মী সুরভীর সাথে তারাও এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকতে পারেন এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে তাদের মামলার সন্দেহভাজন আসামি করেছেন আফরোজার মেয়ে দিলরুবা। তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, সুরভী একাই হত্যাকাণ্ড ঘটনার কথা জানালেও বাকিদের এখনই সন্দেহের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হচ্ছে না। বাচ্চু জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছিলেন যে তিনি সুরভীকে তেমন ভালোভাবে চেনেন না। অথচ তদন্তে দেখা গেছে হত্যাকাণ্ডের আগে ও পরে কমপক্ষে অর্ধশতবার সুরভীর সাথে মোবাইলে তার যোগাযোগ হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার রাতে ধানমন্ডির ২৮নং রোডের ২১নং বাড়ি থেকে গৃহকত্রী আফরোজা বেগম ও গৃহপরিচারিকা দিতির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত আফরোজা বিজিএমইএ পরিচালক ও শিল্পপতি কাজী মনির উদ্দিনের শাশুড়ি। ওই ঘটনায় রোববার সকালে নিহত আফরোজা বেগমের মেয়ে দিলরুবা বাদী হয়ে এজাহারনামীয় ও অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে ধানমন্ডি থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» আত্রাইয়ে বেগম রোকেয়া দিবস পালিত

» সমুদ্রের মঝে নয়নাভিরাম অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানি।। পাখির কোলাহল আর লাল কাকড়ার লুকোচুরিতে মুখরিত চর বিজয়

» বেনাপোলে শত্রুতা জেরে চাষির ক্ষেতের ফসল আগুনে পুড়ালো দূর্বত্তরা

» বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের অভিযানে ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার-১

» কলাপাড়ায় রোকেয়া দিবস উদযাপন।। পাঁচ জয়ীতাকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান

» কলাপাড়ায় দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালন

» মৌলভীবাজারে আন্তর্জাতিক দুর্ণীতি বিরোধী দিবস- ২০১৯ পালিত

» সবুজ সংকেত পেলেই তবে দিবারাত্রির টেস্ট নিয়ে সিদ্ধান্ত

» বাণিজ্যিক কোর্স পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করছে

» মাদক মামলায় সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বেড়িয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য, একাই দুজনকে খুন করেছে সুরভী

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

আফরোজা বেগম ও তার গৃহকর্মী দিতিকে একাই হত্যা করেছেন বলে পুলিশের কাছে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে নতুন সেই গৃহকর্মী সুরভী আক্তার নাহিদা। ২৩ বছর বয়সী এই তরুণী জানিয়েছে, বাসা থেকে বের হতে না দেয়ায় সে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। যদিও তার এমন বক্তব্য বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়নি তদন্ত সংশ্লিষ্টদের কাছে। যে কারণে সবদিক বিবেচনায় রেখেই হত্যা মামলার তদন্তের কাজ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের ধানমন্ডি বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আব্দুল্লাহেল কাফি। সোমবার তিনি বলেন, জোড়া হত্যার এই মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশের কাছে স্থানান্তর করা হয়েছে৷ সবকিছু বিবেচনায় রেখে তারা এ ঘটনার রহস্য উন্মোচন করবেন।

 

এর আগে রোববার রাতে রাজধানীর আগারগাঁও বস্তি থেকে গৃহকর্মী সুরভীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রাতভর জিজ্ঞাসাবাদে সুরভী জানায়, এলাকার স্থানীয় এক পান বিক্রেতার সাথে তার আগে থেকে পরিচয় ছিল। নিহত আফরোজার জামাতা মনির উদ্দিনের বডিগার্ড আতিকুল হক বাচ্চু ওই পান বিক্রেতার দোকান থেকে নিয়মিত পান কিনতেন। বাচ্চু ওই পান বিক্রেতাকে বলেছিলেন নতুন একজন গৃহকর্মীর খোঁজ নিতে। পরে ওই পান বিক্রেতার মাধ্যমেই বাচ্চুর সাথে শুক্রবার আফরোজাদের বাড়িতে যায় সুরভী। তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র আরো জানায়, বাচ্চু ওই বাসায় কাজে নিয়ে গেলেও, তার আচরণ ভালো লাগেনি সুরভীর। শুক্রবার বাচ্চু তাকে ওই বাসায় নিয়ে যায়। এরপর আফরোজা বেগম প্রথম দিনেরমতো সুরভীকে দিয়ে কিছু কাজ করান। কাজ শেষে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে চায় সুরভী। কিন্তু তাকে বাধা দেয় আফরোজাদের পুরনো গৃহকর্মী দিতি। এক পর্যায়ে দিতি ও সুরভীর মধ্যে ঝগড়া হয়। তখন সুরভী রান্নাঘর নেয়া ছুরি দিয়ে দিতির গলা, পিঠ আর বুকে আঘাত করে।

 

এরপর আফরোজার কক্ষে গিয়ে সুরভী বলে- সে বাইরে যেতে চায়। তখন আফরোজা জানতে চায়, অন্য ঘরে দিতি চিৎকার করল কেন। সুরভী তখন বলে, তাকে বাইরে যেতে দেয়নি বলে ঝগড়া করেছে। তখন আফরোজা বলে, যে তোকে এনে দিয়ে গেছে সে না বলা পর্যন্ত তোকে যেতে দেব না। এ সময় সুরভী অফরোজাকে গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে গেট খুলে পালিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদে সুরভী আরো জানায়, সে ভয় পাচ্ছিল, বাচ্চু তাকে পাচার করে দিতে পারে অথবা অন্য কোনো অনৈতিক কাজ করাতে পারে। হত্যাকাণ্ডের পর বাসা থেকে তিনটি মোবাইল ফোন, নগদ টাকা, সঞ্চয়পত্র ও সোনাসহ অনেক কিছু খোয়া গেছে বলে অভিযোগ করেছিল আফরোজার পরিবার। তবে সুরভী পুলিশকে জানিয়েছে, সে একটি আইফোন নিয়ে গিয়েছিল। সেটি চার হাজার টাকায় বিক্রি করে দিয়েছে।

 

এদিকে ঘটনার পর থেকে পুলিশের হেফাজতে রয়েছে বডিগার্ড বাচ্চু, সিকিউরিটি গার্ড নুরুজ্জামান, কেয়ারটেকার বেলাল, ইলেকট্রিক মিস্ত্রি প্রিন্স ও সেই পান বিক্রেতা। গৃহকর্মী সুরভীর সাথে তারাও এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকতে পারেন এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে তাদের মামলার সন্দেহভাজন আসামি করেছেন আফরোজার মেয়ে দিলরুবা। তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, সুরভী একাই হত্যাকাণ্ড ঘটনার কথা জানালেও বাকিদের এখনই সন্দেহের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হচ্ছে না। বাচ্চু জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছিলেন যে তিনি সুরভীকে তেমন ভালোভাবে চেনেন না। অথচ তদন্তে দেখা গেছে হত্যাকাণ্ডের আগে ও পরে কমপক্ষে অর্ধশতবার সুরভীর সাথে মোবাইলে তার যোগাযোগ হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার রাতে ধানমন্ডির ২৮নং রোডের ২১নং বাড়ি থেকে গৃহকত্রী আফরোজা বেগম ও গৃহপরিচারিকা দিতির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত আফরোজা বিজিএমইএ পরিচালক ও শিল্পপতি কাজী মনির উদ্দিনের শাশুড়ি। ওই ঘটনায় রোববার সকালে নিহত আফরোজা বেগমের মেয়ে দিলরুবা বাদী হয়ে এজাহারনামীয় ও অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে ধানমন্ডি থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited