জাতীয় শহীদ মিনারে ও দোয়েল চত্বরে লাখো প্রাথমিক শিক্ষকের ঢল

আজ ২৩ অক্টোবর প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের পূর্বঘোষিত মহাসমাবেশে লাখো শিক্ষকের ঢল নামে। প্রাথমিক শিক্ষকদের ১৪টি সংগঠনের মর্চা প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনরা এই মহাসমাবেশের আয়োজন করেন। ভোর হতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হাজারো প্রাথমিক শিক্ষকদের ঢল নামতে শুরু করে। সকাল থেকেই পুলিশ বাহিনী শহীদ মিনার ঘেরাও করে রাখে এবং শিক্ষকদের বাধা প্রদান করেন।

 

কোন অবস্থাতেই পুলিশ বাহিনী শিক্ষকদেরকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রবেশ করতে দেয়নি। এরই মধ্যে শিক্ষকরা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ঢোকার চেষ্টা করলে ঐক্য পরিষদের সমন্বয়ক আতিকুল ইসলামকে পুলিশ গ্রেফতার করে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায়। পরে শিক্ষকগণ পুলিশের ধাওয়া খেয়ে দোয়েল চত্বরে হাজার হাজার শিক্ষক জমায়েত হতে থাকে। এরপর দোয়েল চত্বরে লক্ষাধিক শিক্ষকের ঢল নামে। এখানেও পুলিশ শিক্ষকদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য লাঠিচার্জ করে এবং অনেক শিক্ষক আহত হন। এরপর পুলিশ শিক্ষকদেরকে আধা ঘন্টার মধ্যে কর্মসূচি শেষ করে চলে যেতে নির্দেশ প্রদান করেন।

 

মহাসমাবেশে শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রধান উপদেষ্টা আনোয়ারুল হক তোতা, নীতিনির্ধারণের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ সরকার, ঐক্য পরিষদের মহাসচিব মোহাম্মদ শামছুদ্দীন মাসুদ, যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাশেম। পরিশেষে প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক আনিছুর রহমান ও ঐক্য পরিষদের প্রধান মুখপাত্র মোঃ বদরুল আলম শিক্ষকদের আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেন। সমাবেশে আরো বক্তব্যদেন রবিউল হাসান, কামরুল ইসলাম, সাবেরা বেগম, আব্দুল হক, আব্দুস সবুর, শিবাজী বিশ্বাস, রোজেল সাজু, আব্দুল খালেক, ওমর খৈয়াম বাগদাদী রুমী প্রমুখ।

 

প্রশাসনের চাপে দ্রুত মহাসমাবেশ শেষ করার কারণে সাধারণ শিক্ষকরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে। এদিকে শহীদ মিনারের চারদিকে পুলিশের বাধায় আটকে থাকা শিক্ষকরা মিছিলসহ শহীদ মিনারে প্রবেশ করে। এখানেও লক্ষাধিক শিক্ষকের সমাবেশ ঘটে। শহীদ মিনারেও শিক্ষকরে ছত্রভঙ্গ করার জন্য পুলিশ লাঠিচাজ করে। পুলিশের সাথে শিক্ষকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। এতে প্রায় ৩০জন শিক্ষক আহত হয় এবং ৪জন শিক্ষককে ঢাকা মেডিকেল ভর্তি করা হয়। পুলিশ মাসুদ রানা নামে আরো একজন শিক্ষককে গ্রেফতার করে। দীর্ঘ ২ ঘন্টা পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তির পর শিক্ষকরা শহীদ মিনার ত্যাগ করতে বাধ্য হন।

 

কর্মসূচি নি¤œরূপন: প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন গতকাল শিক্ষক নেতৃবৃন্দকে আশ্বাস প্রদান করেন যে, আগামী ১০ দিনের মধ্যে শিক্ষকদের বেতন- বৈষম্য দুরীকরণ ও যৌক্তিক দাবি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে শিক্ষক নেতৃবৃন্দের সাক্ষাত করার প্রতিশ্রুতি দেন। শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আগামী মাসের ১৩ তারিখের মধ্যে আমাদের ১ দফা দাবি সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড ও প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড মেনে না নিলে আগামী সমাপনী পরিক্ষা বর্জন করবে প্রাথমিক শিক্ষকগণ। এরপরেও দাবি না মানলে বার্ষিক পরিক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» ঝিনাইদহের স্থানীয় সকল রুটে বাস চলাচল বন্ধ, চরম ভোগান্তীতে যাত্রীরা

» ঝিনাইদহে আলোচিত স্কুলছাত্র সিফাত হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন

» হরিণাকুন্ডুতে ৯মামলার আসামি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে সন্ত্রাসী নিহত

» ইভটিজিংয়ের সাথে আমার পুত্র জড়িত নয় এমনটাই দাবী কওে পিতার সংবাদ সম্মেলন

» গলাচিপায় ৪ জন আহত হওয়ায়! থানায় ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

» সাপাহারে তিলনা ইউনিয়ন আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে সাংবাদিক হাফিজুলকে দেখতে চায় তিলনাবাসী

» আগৈলঝাড়া থানার উদ্যোগে বাল্য বিয়ে ও ইভটিজিং প্রতিরোধে সচেতনতা বিষয়ক আলোচনা সভা

» ঘুমের ওষুধ খেয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে আইসিইউতে ভর্তি এমপি নুসরাত

» ইজিবাইকে দিনরাত কাটানো বাবা-মেয়েকে ঘর দিলেন ডিসি

» মাত্র ১৯ বছরেই ৩ হাজার ৩২৩ জন পুরুষের সঙ্গে

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জাতীয় শহীদ মিনারে ও দোয়েল চত্বরে লাখো প্রাথমিক শিক্ষকের ঢল

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

আজ ২৩ অক্টোবর প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের পূর্বঘোষিত মহাসমাবেশে লাখো শিক্ষকের ঢল নামে। প্রাথমিক শিক্ষকদের ১৪টি সংগঠনের মর্চা প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনরা এই মহাসমাবেশের আয়োজন করেন। ভোর হতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হাজারো প্রাথমিক শিক্ষকদের ঢল নামতে শুরু করে। সকাল থেকেই পুলিশ বাহিনী শহীদ মিনার ঘেরাও করে রাখে এবং শিক্ষকদের বাধা প্রদান করেন।

 

কোন অবস্থাতেই পুলিশ বাহিনী শিক্ষকদেরকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রবেশ করতে দেয়নি। এরই মধ্যে শিক্ষকরা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ঢোকার চেষ্টা করলে ঐক্য পরিষদের সমন্বয়ক আতিকুল ইসলামকে পুলিশ গ্রেফতার করে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায়। পরে শিক্ষকগণ পুলিশের ধাওয়া খেয়ে দোয়েল চত্বরে হাজার হাজার শিক্ষক জমায়েত হতে থাকে। এরপর দোয়েল চত্বরে লক্ষাধিক শিক্ষকের ঢল নামে। এখানেও পুলিশ শিক্ষকদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য লাঠিচার্জ করে এবং অনেক শিক্ষক আহত হন। এরপর পুলিশ শিক্ষকদেরকে আধা ঘন্টার মধ্যে কর্মসূচি শেষ করে চলে যেতে নির্দেশ প্রদান করেন।

 

মহাসমাবেশে শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রধান উপদেষ্টা আনোয়ারুল হক তোতা, নীতিনির্ধারণের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ সরকার, ঐক্য পরিষদের মহাসচিব মোহাম্মদ শামছুদ্দীন মাসুদ, যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাশেম। পরিশেষে প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক আনিছুর রহমান ও ঐক্য পরিষদের প্রধান মুখপাত্র মোঃ বদরুল আলম শিক্ষকদের আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেন। সমাবেশে আরো বক্তব্যদেন রবিউল হাসান, কামরুল ইসলাম, সাবেরা বেগম, আব্দুল হক, আব্দুস সবুর, শিবাজী বিশ্বাস, রোজেল সাজু, আব্দুল খালেক, ওমর খৈয়াম বাগদাদী রুমী প্রমুখ।

 

প্রশাসনের চাপে দ্রুত মহাসমাবেশ শেষ করার কারণে সাধারণ শিক্ষকরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে। এদিকে শহীদ মিনারের চারদিকে পুলিশের বাধায় আটকে থাকা শিক্ষকরা মিছিলসহ শহীদ মিনারে প্রবেশ করে। এখানেও লক্ষাধিক শিক্ষকের সমাবেশ ঘটে। শহীদ মিনারেও শিক্ষকরে ছত্রভঙ্গ করার জন্য পুলিশ লাঠিচাজ করে। পুলিশের সাথে শিক্ষকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। এতে প্রায় ৩০জন শিক্ষক আহত হয় এবং ৪জন শিক্ষককে ঢাকা মেডিকেল ভর্তি করা হয়। পুলিশ মাসুদ রানা নামে আরো একজন শিক্ষককে গ্রেফতার করে। দীর্ঘ ২ ঘন্টা পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তির পর শিক্ষকরা শহীদ মিনার ত্যাগ করতে বাধ্য হন।

 

কর্মসূচি নি¤œরূপন: প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন গতকাল শিক্ষক নেতৃবৃন্দকে আশ্বাস প্রদান করেন যে, আগামী ১০ দিনের মধ্যে শিক্ষকদের বেতন- বৈষম্য দুরীকরণ ও যৌক্তিক দাবি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে শিক্ষক নেতৃবৃন্দের সাক্ষাত করার প্রতিশ্রুতি দেন। শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আগামী মাসের ১৩ তারিখের মধ্যে আমাদের ১ দফা দাবি সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড ও প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড মেনে না নিলে আগামী সমাপনী পরিক্ষা বর্জন করবে প্রাথমিক শিক্ষকগণ। এরপরেও দাবি না মানলে বার্ষিক পরিক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited