চট্টগ্রামে জিনের হাত থেকে উদ্ধার সেই কিশোরী ফিরে গেল পরিবারে

চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলায় ‘জিনের’ হাত থেকে উদ্ধার সেই কিশোরী ফিরে গেল পরিবারের কাছে। রোববার সকাল থেকে নিখোঁজ হয়ে পাশের ইউনিয়নে চলে যায় কোমলমতি ফুটফুটে কিশোরীটি। পরে ইউপি চেয়ারম্যান ও নির্বাহী কর্মকর্তা রোববার রাতে তাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেন। উপজেলার মায়ানী ইউপি চেয়ারম্যান কবির আহমদ নিজামী জানান, বিকাল ৪টায় আমার এলাকার ইউপি সদস্য জানে আলম ১৪ বছরের এক কিশোরীকে আমার কার্যালয়ে নিয়ে আসে। পশ্চিম মায়ানী গ্রামের শাহ আলম হুজুর তার বাড়ি থেকে উক্ত মেম্বারের কাছে কিশোরীকে হস্তান্তর করেন।

 

চেয়ারম্যান কবির নিজামী তার কার্যালয়ে গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে উক্ত কিশোরীর নাম-পরিচয় জানতে চাইলে কিশোরী তার নাম জান্নাতুল ফেরদাউস মরিয়ম বলে জানায়। সে ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদের পাশ্বর্বর্তী একটি বাসায় আন্টির সঙ্গে থাকে বলে জানায়। কিশোরীটি জানায়, এখানে তাকে একটি জিনে নিয়ে আসছে। জিন তাকে একটি সিএনজিতে রেখে চলে গেছে। এই জিন তাকে আগেও নিয়ে আসছিল, আবার বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে। কিশোরীটি তার বাবা-মা কিংবা নিকটাত্মীয় কারো মোবাইল নাম্বার বা ঠিকানাও বলতে পারছিল না। অবশেষে ইউপি চেয়ারম্যান কবির নিজামী উক্ত ফুটফুটে এবং কোমলমতি শিশুর বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিনের পরামর্শ চান।

 

নির্বাহী কর্মকর্তা কিশোরীকে জেলা সমাজসেবা অধিদফতরে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া করছিলেন। ইতিমধ্যে রাত ৮টার দিকে কিশোরীর পরিবারের হদিস পাওয়া যায়। জানা গেছে, মেয়েটি মীরসরাই উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের শেখটোলা গ্রামের রসুল আহমেদ ও সুরাইয়া বেগমের কন্যা সানজিদা আক্তার মিতু। বাবা প্রবাসে থাকেন। খবর পেয়ে কিছুক্ষণের মধ্যেই মা, চাচা, নানা, খালাসহ সবাই নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে পারিবারিক এ্যালবামের ছবি ইত্যাদি নিয়ে উপস্থিত হন। মেয়েটির চাচা মহিউদ্দিন জানান, তাদের কন্যা মলিয়াইশ উচ্চবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। সকালে উঠে ফজর নামাজ পড়ে, কোরআন তেলাওয়াত করে সবার অজান্তে সে নিখোঁজ হয়ে যায়। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাচ্ছিল না।

 

চাচা মহিউদ্দিন জানান, গত রমজানের পরে এমন সমস্যা হয়েছিল। এবার এভাবে পার্শ্বের ইউনিয়নে উধাও হয়ে যাওয়া এবং দুপুরে শাহ আলম হুজুরের বাড়িতে তার অস্বিত্ব পাওয়া যায়। কারো আপত্তিকর দৃষ্টিতে না পড়ার জন্য হুজুর বোরখা পরিয়ে রাখে, পরিবারের সঙ্গে তাকে দুপুরের আহার ও করান। ইতিমধ্যে সবাই আশপাশের গ্রাম তন্নতন্ন করে খুঁজেছেন। তিনি জানান, অবশেষে নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে একটি মেয়ে আনা হয়েছে খবর শুনে ছুটে আসেন তারা। অবশেষে রাত সাড়ে ৮টার দিকে কিশোরী সানজিদাকে পরিবারের হাতে হস্তান্তর করেন নির্বাহী কর্মকর্তা।

 

এ সময় অশ্রসিক্ত সানজিদার মা সুরাইয়া আক্তার আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, আমার এই ফুটফুটে কিশোরী কন্যা নিরাপদে কিছু ভালো মানুষের হাত ধরে পরিবারে ফিরে যাওয়ায় নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন ও ইউপি চেয়ারম্যান কবির নিজামীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। বখাটে বা কোনো আপত্তিকর মানুষের হাতে পড়লে অবুঝ কিশোরীর ক্ষতি হতে পারত। তিনি উক্ত ঘটনায় সহযোগিতা প্রদানকারী সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। এদিকে এ ঘটনা নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, বিষয়টি কিশোরীর বয়সন্ধিকালীন কোনো মানসিক চাপের কারণেও ঘটতে পারে। জিনের বিষয় হোক আর অসুস্থতা হোক সবাইকে তাদের সন্তানদের প্রতি সব সময় খেয়াল রাখা উচিত বলে মন্তব্য করেন করেন তিনি। সূত্র : যুগান্তর

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» পাঁচ পরিকল্পনায় তাপসের ইশতেহার ঘোষণা

» বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি নরেন্দ্র মোদি

» শেষ মুহূর্তে দশমিনায় সরস্বতী পূূঁজার প্রস্তুুতি

» জুড়ীতে ভোক্তা অধিকার আইনে ৫ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

» চিনা নাগরিকদের মধ্যে করোনা ভাইরাস’র উপর সচেতনতামূলক বিশেষ প্রশিক্ষণ

» এই প্রথম কলাপাড়ায় শহীদ আলাউদ্দিনের ৫১তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন

» গলাচিপায় বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত

» ঝিনাইদহের মোশাররফ হোসেন ডিগ্রি কলেজে নবীন বরণ

» শৈলকুপায় প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দাবীতে মানববন্ধন

» শৈলকুপায় নারী নির্যাতন মামলায় ৪ শিক্ষক-কর্মচারী কারাগারে

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ১৫ই মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে জিনের হাত থেকে উদ্ধার সেই কিশোরী ফিরে গেল পরিবারে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলায় ‘জিনের’ হাত থেকে উদ্ধার সেই কিশোরী ফিরে গেল পরিবারের কাছে। রোববার সকাল থেকে নিখোঁজ হয়ে পাশের ইউনিয়নে চলে যায় কোমলমতি ফুটফুটে কিশোরীটি। পরে ইউপি চেয়ারম্যান ও নির্বাহী কর্মকর্তা রোববার রাতে তাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেন। উপজেলার মায়ানী ইউপি চেয়ারম্যান কবির আহমদ নিজামী জানান, বিকাল ৪টায় আমার এলাকার ইউপি সদস্য জানে আলম ১৪ বছরের এক কিশোরীকে আমার কার্যালয়ে নিয়ে আসে। পশ্চিম মায়ানী গ্রামের শাহ আলম হুজুর তার বাড়ি থেকে উক্ত মেম্বারের কাছে কিশোরীকে হস্তান্তর করেন।

 

চেয়ারম্যান কবির নিজামী তার কার্যালয়ে গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে উক্ত কিশোরীর নাম-পরিচয় জানতে চাইলে কিশোরী তার নাম জান্নাতুল ফেরদাউস মরিয়ম বলে জানায়। সে ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদের পাশ্বর্বর্তী একটি বাসায় আন্টির সঙ্গে থাকে বলে জানায়। কিশোরীটি জানায়, এখানে তাকে একটি জিনে নিয়ে আসছে। জিন তাকে একটি সিএনজিতে রেখে চলে গেছে। এই জিন তাকে আগেও নিয়ে আসছিল, আবার বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে। কিশোরীটি তার বাবা-মা কিংবা নিকটাত্মীয় কারো মোবাইল নাম্বার বা ঠিকানাও বলতে পারছিল না। অবশেষে ইউপি চেয়ারম্যান কবির নিজামী উক্ত ফুটফুটে এবং কোমলমতি শিশুর বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিনের পরামর্শ চান।

 

নির্বাহী কর্মকর্তা কিশোরীকে জেলা সমাজসেবা অধিদফতরে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া করছিলেন। ইতিমধ্যে রাত ৮টার দিকে কিশোরীর পরিবারের হদিস পাওয়া যায়। জানা গেছে, মেয়েটি মীরসরাই উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের শেখটোলা গ্রামের রসুল আহমেদ ও সুরাইয়া বেগমের কন্যা সানজিদা আক্তার মিতু। বাবা প্রবাসে থাকেন। খবর পেয়ে কিছুক্ষণের মধ্যেই মা, চাচা, নানা, খালাসহ সবাই নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে পারিবারিক এ্যালবামের ছবি ইত্যাদি নিয়ে উপস্থিত হন। মেয়েটির চাচা মহিউদ্দিন জানান, তাদের কন্যা মলিয়াইশ উচ্চবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। সকালে উঠে ফজর নামাজ পড়ে, কোরআন তেলাওয়াত করে সবার অজান্তে সে নিখোঁজ হয়ে যায়। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাচ্ছিল না।

 

চাচা মহিউদ্দিন জানান, গত রমজানের পরে এমন সমস্যা হয়েছিল। এবার এভাবে পার্শ্বের ইউনিয়নে উধাও হয়ে যাওয়া এবং দুপুরে শাহ আলম হুজুরের বাড়িতে তার অস্বিত্ব পাওয়া যায়। কারো আপত্তিকর দৃষ্টিতে না পড়ার জন্য হুজুর বোরখা পরিয়ে রাখে, পরিবারের সঙ্গে তাকে দুপুরের আহার ও করান। ইতিমধ্যে সবাই আশপাশের গ্রাম তন্নতন্ন করে খুঁজেছেন। তিনি জানান, অবশেষে নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে একটি মেয়ে আনা হয়েছে খবর শুনে ছুটে আসেন তারা। অবশেষে রাত সাড়ে ৮টার দিকে কিশোরী সানজিদাকে পরিবারের হাতে হস্তান্তর করেন নির্বাহী কর্মকর্তা।

 

এ সময় অশ্রসিক্ত সানজিদার মা সুরাইয়া আক্তার আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, আমার এই ফুটফুটে কিশোরী কন্যা নিরাপদে কিছু ভালো মানুষের হাত ধরে পরিবারে ফিরে যাওয়ায় নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন ও ইউপি চেয়ারম্যান কবির নিজামীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। বখাটে বা কোনো আপত্তিকর মানুষের হাতে পড়লে অবুঝ কিশোরীর ক্ষতি হতে পারত। তিনি উক্ত ঘটনায় সহযোগিতা প্রদানকারী সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। এদিকে এ ঘটনা নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, বিষয়টি কিশোরীর বয়সন্ধিকালীন কোনো মানসিক চাপের কারণেও ঘটতে পারে। জিনের বিষয় হোক আর অসুস্থতা হোক সবাইকে তাদের সন্তানদের প্রতি সব সময় খেয়াল রাখা উচিত বলে মন্তব্য করেন করেন তিনি। সূত্র : যুগান্তর

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited