ফুলবাড়ীতে অপরিকল্পিত ড্রেন নির্মানে ভেঙ্গে পড়েছে কলেজের ছাত্রবাসসহ একাধিক বাড়ী-ঘরসহ

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে পৌরসভা কতৃপক্ষের দায়িত্বহীনতা ও অপরিকল্পিত ভাবে ড্রেন নির্মান করতে গিয়ে ভেঙ্গে পড়ছে ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের ছাত্রাবাসসহ একাধিক কাচা-পাকা ঘরবাড়ী ও এমারত। এদিকে ড্রেন নির্মানে পৌর মেয়রের সেচ্ছাচারীা ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভুগিগণ।

 

অপরিকল্পিভাবে ড্রেন খনন করতে গিয়ে ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের ছাত্রাবাস ভেঙ্গে পড়ায়, গত বুধবার ১০ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন, ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নজমুল হক। এছাড়া রাস্তার জায়গা উদ্ধার ও অপরিকল্পিভাবে ড্রেন নির্মান করার প্রতিবাদ জানিয়ে গত ৯ সেপ্টেম্বর উপজেলঅ নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক ও জেলা পরিষদের প্রধান প্রকৌশলী বরাবর অভিযোগ করেছেন পৌর সভার পশ্চিম গৌরীপাড়া গ্রামের সাবেক দুই পৌর কাউন্সিলরসহ গ্রামবাসীরা। একই ভাবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ে অভিযোগ করেছেন সুজাপুর গ্রামের বাসীন্দা ডাক্তার লিও চৌধুরী। কিন্তু কোন অভিযোগেই কর্নপাত না করে, পৌর মেয়র মুরতুজা সরকার মানিক তার নিজ ইচ্ছাকৃত ভাবে চালিয়ে যাচ্ছে তার কাজ।

 

ফুরবাড়ী সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজমুর হক বলেন পৌর মেয়রকে তার দপ্তর থেকে একাধিকবার চিঠি দেযা হলেও পৌর মেয়র সেই চিঠির কোন জবাব না দিয়ে াপরিকল্পিত ভাবে ড্রেন খনন করায় ভেঙ্গে পড়েছে কলেজের ছাত্রাবাসের ভবনটি। সুধু তাই নয় ইতোপুর্বেও উত্তর সুজাপুর গ্রামের ড্রেন সরকারী কলেজের প্রাচির ভেদ করে দেয়ায়, কলেজের প্রাচির ভেঙ্গে পড়েছে। এদিকে পৌর মেয়রের সেচ্ছাচারীতা ও অনিয়ম ভাকে ড্রেন খনন করে ছাত্রবাস ভেঙ্গে দেয়ার প্রতিবাদে, গত বুধবার বিকালে ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের সামনে মাদিলা সড়কের পাশে দাড়িয়ে মানববন্ধন করেছেন, ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের শিক্ষক শিক্ষার্থীগণ। এছাড়া সুজাপুর আবাসীক এলাকার কয়েক জন বাসীন্দা বলেন ওই এলাকায অপরিকল্পিত ভাবে ড্রেন খনন করতে এই প্রর্যন্ত ভেঙ্গে পড়েছে কয়েক ডর্জন বাড়ী প্রাচির।

 

অভিযোগ উঠেছে পৌর মেয়র ড্রেন নির্মানে পক্ষ-পাতিত্ব করে তাঁর নিজেস্ব্য ব্যাক্তি ও তার সঙ্গ-পাঙ্গদের বাড়ীর সামনে সরকারী জায়গা ছেড়ে দিয়ে অন্যর জায়গার উপর ড্রেন নির্মন ও খনন করে একাধিক নিরিহ ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি সাধন করছে। সুজাপুর গ্রামের বাসীন্দা মিজানুর রহমান মিন্টু বলেন অপরিকল্পিত ভাবে ডেন খনন করতে গিয়ে তার বাড়ীর প্রায় ১০০ ফিট প্রাচির ভেঙ্গে ফেলেছে, অথচ ওই প্রাচির বাদেও তার জায়গা ছেড়ে দেয়া রয়েছে, কিন্তু মেয়রের কর্মিবলে পরিচিত বার বাড়ীর সামনে এক ব্যাক্তি রাস্তার উপর প্রাচির নির্মান করলেও পৌর মেয়র সেই দিকে কোন পদক্ষেপ নেয়নি। সুজাপুর গ্রামের বাসীন্দা ডাঃ লিও চৌধুরী বলেন, পৌর মেয়র পক্ষপাতিত্ব করে তার জায়গার উপর দিয়ে ড্রেন নির্মান করার চেষ্টা করছে, অথচ তার ভোটের কর্মি ওবায়দুল চৌধুরীরকে রাস্তার জায়গা ছেড়ে দিয়ে ড্রেন নির্মান করছে।

 

সুধু সুজাপুর নয, কাটাবাড়ী গ্রামের কয়েক জন বাসীন্দা বলেন কাটাবাড়ী রাস্তার ধারে ড্রেন নির্মান করার সময তার এক কর্মির দোকান ঘর রক্ষা করতে, রাস্তার দক্ষিন পার্শের ড্রেন নির্মানের কথা থাকলেও, ওই ড্রেন রাস্তার দক্ষিন পাশে নির্মান না করে, রাস্তার উত্তর পাশ দিয়ে নির্মান করেছে। এতে করে কাটাবাড়ী রাস্তার উত্তর পাশে থাকা শতবছর বযসি একটি বট গাছ কেটে ফেলতে হয়েছে। তের গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ফুলবাড়ী শাখার আহবায়ক সৈযদ সাইফুল ইসলাম বলেন, পৌর মেযরের দৌরাত্ব ও স্বজনপ্রীতি এমন ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে এতেকরে তার কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে পৌরবাসী। সাবেক পৌর কাউন্সিরর ও সাবেক প্যানেল মেয়র এসএম নুরুজ্জামান বলেন, জনগনের মতামতের উপর ভিত্তি করে পৌর পরিষদ কর্মপরিকল্পনা তৈরী করে, কিন্তু বর্তমান পৌর মেয়র কর্মপরিকল্পনা তৈরী করে তার নিজের স্বার্থে, এই জন্য পদে পদে হযরানীর শিকার হচ্ছে পৌরবাসী ।

 

এই বিষয়ে কথা বলার জন্য পৌর মেয়রের মুঠোফোনে বারবার কল দেযা হলেও তিনি ফোন রিসিফ করেনি। তার অফিসে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি. তার বাসায় গিয়ে কথা বলার চেষ্ঠা করলে বাসার ভিতর থেকে জানায় মেয়র বাাসায নাই।
এই বিষয়ে পৌর প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ এর সাথে কথা বললে, তিনি বলেন মেয়র পরিষদের কোন মতামত গ্রহন করেনা, তার ইচ্ছামত কাজ করে, এই জন্য তিনিসহ পরিষধের ৯ জন কাউন্সিলর বিগত তিন মাস মাসিক সভা বর্জন করেছিল এর পরেও মেয়র তার একক ইচ্ছামত কাজ করে যাচ্ছে।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» জুড়ীতে পরিবেশ আইন লংঘন করায় ২৯ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ

» মৌলভীবাজারে বহু জাতিক পণ্য মেলা পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক

» মৌলভীবাজারে বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস পালিত

» সাংবাদিক কচির কৃতজ্ঞতা

» কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে ধানক্ষেতে কাঁদছিল ফুটফুটে নবজাতক

» সুনামগঞ্জের তুহিনকে হত্যার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন বাবা-চাচা

» মিয়ানমারকে ৫০ হাজার রোহিঙ্গার নতুন তালিকা দিলো বাংলাদেশ

» আবরারের খুনিদের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত: সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

» উন্মোচন হলো মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের ডায়ামন্ড খচিত ‘মুকুট’

» মাঠ পর্যায়ে: আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা বুয়েট শিক্ষার্থীদের

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৩০শে আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীতে অপরিকল্পিত ড্রেন নির্মানে ভেঙ্গে পড়েছে কলেজের ছাত্রবাসসহ একাধিক বাড়ী-ঘরসহ

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে পৌরসভা কতৃপক্ষের দায়িত্বহীনতা ও অপরিকল্পিত ভাবে ড্রেন নির্মান করতে গিয়ে ভেঙ্গে পড়ছে ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের ছাত্রাবাসসহ একাধিক কাচা-পাকা ঘরবাড়ী ও এমারত। এদিকে ড্রেন নির্মানে পৌর মেয়রের সেচ্ছাচারীা ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভুগিগণ।

 

অপরিকল্পিভাবে ড্রেন খনন করতে গিয়ে ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের ছাত্রাবাস ভেঙ্গে পড়ায়, গত বুধবার ১০ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন, ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নজমুল হক। এছাড়া রাস্তার জায়গা উদ্ধার ও অপরিকল্পিভাবে ড্রেন নির্মান করার প্রতিবাদ জানিয়ে গত ৯ সেপ্টেম্বর উপজেলঅ নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক ও জেলা পরিষদের প্রধান প্রকৌশলী বরাবর অভিযোগ করেছেন পৌর সভার পশ্চিম গৌরীপাড়া গ্রামের সাবেক দুই পৌর কাউন্সিলরসহ গ্রামবাসীরা। একই ভাবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ে অভিযোগ করেছেন সুজাপুর গ্রামের বাসীন্দা ডাক্তার লিও চৌধুরী। কিন্তু কোন অভিযোগেই কর্নপাত না করে, পৌর মেয়র মুরতুজা সরকার মানিক তার নিজ ইচ্ছাকৃত ভাবে চালিয়ে যাচ্ছে তার কাজ।

 

ফুরবাড়ী সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজমুর হক বলেন পৌর মেয়রকে তার দপ্তর থেকে একাধিকবার চিঠি দেযা হলেও পৌর মেয়র সেই চিঠির কোন জবাব না দিয়ে াপরিকল্পিত ভাবে ড্রেন খনন করায় ভেঙ্গে পড়েছে কলেজের ছাত্রাবাসের ভবনটি। সুধু তাই নয় ইতোপুর্বেও উত্তর সুজাপুর গ্রামের ড্রেন সরকারী কলেজের প্রাচির ভেদ করে দেয়ায়, কলেজের প্রাচির ভেঙ্গে পড়েছে। এদিকে পৌর মেয়রের সেচ্ছাচারীতা ও অনিয়ম ভাকে ড্রেন খনন করে ছাত্রবাস ভেঙ্গে দেয়ার প্রতিবাদে, গত বুধবার বিকালে ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের সামনে মাদিলা সড়কের পাশে দাড়িয়ে মানববন্ধন করেছেন, ফুলবাড়ী সরকারী কলেজের শিক্ষক শিক্ষার্থীগণ। এছাড়া সুজাপুর আবাসীক এলাকার কয়েক জন বাসীন্দা বলেন ওই এলাকায অপরিকল্পিত ভাবে ড্রেন খনন করতে এই প্রর্যন্ত ভেঙ্গে পড়েছে কয়েক ডর্জন বাড়ী প্রাচির।

 

অভিযোগ উঠেছে পৌর মেয়র ড্রেন নির্মানে পক্ষ-পাতিত্ব করে তাঁর নিজেস্ব্য ব্যাক্তি ও তার সঙ্গ-পাঙ্গদের বাড়ীর সামনে সরকারী জায়গা ছেড়ে দিয়ে অন্যর জায়গার উপর ড্রেন নির্মন ও খনন করে একাধিক নিরিহ ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি সাধন করছে। সুজাপুর গ্রামের বাসীন্দা মিজানুর রহমান মিন্টু বলেন অপরিকল্পিত ভাবে ডেন খনন করতে গিয়ে তার বাড়ীর প্রায় ১০০ ফিট প্রাচির ভেঙ্গে ফেলেছে, অথচ ওই প্রাচির বাদেও তার জায়গা ছেড়ে দেয়া রয়েছে, কিন্তু মেয়রের কর্মিবলে পরিচিত বার বাড়ীর সামনে এক ব্যাক্তি রাস্তার উপর প্রাচির নির্মান করলেও পৌর মেয়র সেই দিকে কোন পদক্ষেপ নেয়নি। সুজাপুর গ্রামের বাসীন্দা ডাঃ লিও চৌধুরী বলেন, পৌর মেয়র পক্ষপাতিত্ব করে তার জায়গার উপর দিয়ে ড্রেন নির্মান করার চেষ্টা করছে, অথচ তার ভোটের কর্মি ওবায়দুল চৌধুরীরকে রাস্তার জায়গা ছেড়ে দিয়ে ড্রেন নির্মান করছে।

 

সুধু সুজাপুর নয, কাটাবাড়ী গ্রামের কয়েক জন বাসীন্দা বলেন কাটাবাড়ী রাস্তার ধারে ড্রেন নির্মান করার সময তার এক কর্মির দোকান ঘর রক্ষা করতে, রাস্তার দক্ষিন পার্শের ড্রেন নির্মানের কথা থাকলেও, ওই ড্রেন রাস্তার দক্ষিন পাশে নির্মান না করে, রাস্তার উত্তর পাশ দিয়ে নির্মান করেছে। এতে করে কাটাবাড়ী রাস্তার উত্তর পাশে থাকা শতবছর বযসি একটি বট গাছ কেটে ফেলতে হয়েছে। তের গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ফুলবাড়ী শাখার আহবায়ক সৈযদ সাইফুল ইসলাম বলেন, পৌর মেযরের দৌরাত্ব ও স্বজনপ্রীতি এমন ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে এতেকরে তার কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে পৌরবাসী। সাবেক পৌর কাউন্সিরর ও সাবেক প্যানেল মেয়র এসএম নুরুজ্জামান বলেন, জনগনের মতামতের উপর ভিত্তি করে পৌর পরিষদ কর্মপরিকল্পনা তৈরী করে, কিন্তু বর্তমান পৌর মেয়র কর্মপরিকল্পনা তৈরী করে তার নিজের স্বার্থে, এই জন্য পদে পদে হযরানীর শিকার হচ্ছে পৌরবাসী ।

 

এই বিষয়ে কথা বলার জন্য পৌর মেয়রের মুঠোফোনে বারবার কল দেযা হলেও তিনি ফোন রিসিফ করেনি। তার অফিসে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি. তার বাসায় গিয়ে কথা বলার চেষ্ঠা করলে বাসার ভিতর থেকে জানায় মেয়র বাাসায নাই।
এই বিষয়ে পৌর প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ এর সাথে কথা বললে, তিনি বলেন মেয়র পরিষদের কোন মতামত গ্রহন করেনা, তার ইচ্ছামত কাজ করে, এই জন্য তিনিসহ পরিষধের ৯ জন কাউন্সিলর বিগত তিন মাস মাসিক সভা বর্জন করেছিল এর পরেও মেয়র তার একক ইচ্ছামত কাজ করে যাচ্ছে।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited