“ধ”র্ষণ করিনি নাতনী সম্পর্কীয় চার শিশুকে বিবস্ত্র করে “যৌ”ন শিক্ষা দিয়েছি

পেশায় রিকশা ভ্যানের চালক পঞ্চাশোর্ধ জয়নাল আবেদীন। স্ত্রী ঢাকায় গার্মেন্টে কর্মরত। ধুনটের গোপালপুর খাদুলী গ্রামে জয়নালের বসবাস। মঙ্গলবার সকালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুটি ধ’র্ষণ মামলার আসামি হিসেবে। প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়া চার শিশুকে ধ’র্ষণের অভিযোগ রয়েছে জয়নালের বিরুদ্ধে। পুলিশ হেফাজতে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল স্বীকার করেছেন তার অপকর্ম। ঘটনার শিকার চার শিশুকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

স্থানীয় সূত্র জানায়, তিন সন্তানের জনক জয়নাল আবেদীন মূলত গ্রামের বাড়িতে একা থাকেন। স্ত্রী ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। রিকশা ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করা জয়নালের বিরুদ্ধে হঠাৎ করেই অভিযোগ উঠেছে ধারাবাহিকভাবে শিশু ধ’র্ষণের। চলতি সপ্তাহে প্রতিবেশী চার শিশুকে ধ’র্ষণ করার অভিযোগে দুটি মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারের পর জয়নালের দাবি, নাতনী সম্পর্কীয় চার শিশুকে যৌ’ন শিক্ষা দিয়েছেন, ধ’র্ষণ করেননি।

 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ধ’র্ষণের শিকার চার শিশু দরিদ্র পরিবারের। তাদের দুরসম্পর্কের আত্মীয় জয়নাল। কাছাকাছি হওয়ায় শিশুদের যাতায়াত ছিল জয়নালের বাড়িত। শুক্রবার দুপুরের দিকে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়া দুই শিশু জয়নালের বাড়িতে যায় জলপাই কুড়াতে। এ সময় জয়নাল তাদের জলপাই খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ঘরের ভেতর নিয়ে যান। এরপর পর্যায়ক্রমে ২ শিশুকে ধ’র্ষণ করেন। এরপর রবিবার দুপুরের দিকে জয়নালের বাড়িতে যায় প্রথম শ্রেণিতে পড়া দুই শিশু। তাদেরকেও জয়নাল কৌশলে ঘরে ডেকে নিয়ে ধ’র্ষণ করেন।

 

শিশুদের মাধ্যমে বাবা ও মা ঘটনা সম্পর্কে জানতে পারেন। তখন তারা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে যান। বিচার প্রার্থী অভিভাবকদের বক্তব্য শুনে চেয়ারম্যান কৌশলে মথুরাপুর বাজার এলাকা থেকে জয়নাল আবেদীনকে আটক করেন। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। ধ’র্ষণের শিকার দুই শিশুর বাবা বাদী হয়ে জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল আবেদীন দাবি করেছেন, চার শিশু যৌ’ন মিলনের কৌশল শিখতে চেয়েছিল। তাদের বিবস্ত্র করে যৌ’ন মিলনের প্রশিক্ষণ দেন তিনি। এ সময় তারা সামান্য ব্যাথা পেয়েছে। জোরপূর্বক তাদের ধ’র্ষণ করা হয়নি।

 

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক অংকিতা রব চৈতি জানান, প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে চার শিশুর যৌ’নাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তাদের চিকিৎসা চলছে। বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল আবেদীন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। চার শিশুকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় জয়নালের বিরুদ্ধে থানায় দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। চার শিশুকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» কলাপাড়ায় রান্নার চুলা ভাঙ্গার প্রতিবাদ করায় গৃহবধুকে নির্যাতন

» নওগাঁর আত্রাই ২নং ভোঁ-পাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিকী কাউন্সিল অধিবেশন-২০১৯

» ঝিনাইদহ ইসলামিক ফাউন্ডশেনের আয়োজনে ঈদে মিলাদুন্নবী পালিত

» ঝিনাইদহে তারেক রহমানের জন্ম-বাষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

» ঝিনাইদহে তৃতীয় দিনের মত চলছে পরিবহণ ধর্মঘট, যাত্রীরা পড়ছেন মহা দুর্ভগে

» মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে ঢুকছে এরা কারা?

» দুই হাত ছাড়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়ে ফাল্গুনী আজ অফিসার

» সুফিয়া কামালের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনা সভা করেছে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট

» কলাপাড়ায় চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

» কলাপাড়ায় আয়কর মেলার উদ্বোধন

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

“ধ”র্ষণ করিনি নাতনী সম্পর্কীয় চার শিশুকে বিবস্ত্র করে “যৌ”ন শিক্ষা দিয়েছি

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

পেশায় রিকশা ভ্যানের চালক পঞ্চাশোর্ধ জয়নাল আবেদীন। স্ত্রী ঢাকায় গার্মেন্টে কর্মরত। ধুনটের গোপালপুর খাদুলী গ্রামে জয়নালের বসবাস। মঙ্গলবার সকালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুটি ধ’র্ষণ মামলার আসামি হিসেবে। প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়া চার শিশুকে ধ’র্ষণের অভিযোগ রয়েছে জয়নালের বিরুদ্ধে। পুলিশ হেফাজতে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল স্বীকার করেছেন তার অপকর্ম। ঘটনার শিকার চার শিশুকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

স্থানীয় সূত্র জানায়, তিন সন্তানের জনক জয়নাল আবেদীন মূলত গ্রামের বাড়িতে একা থাকেন। স্ত্রী ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। রিকশা ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করা জয়নালের বিরুদ্ধে হঠাৎ করেই অভিযোগ উঠেছে ধারাবাহিকভাবে শিশু ধ’র্ষণের। চলতি সপ্তাহে প্রতিবেশী চার শিশুকে ধ’র্ষণ করার অভিযোগে দুটি মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারের পর জয়নালের দাবি, নাতনী সম্পর্কীয় চার শিশুকে যৌ’ন শিক্ষা দিয়েছেন, ধ’র্ষণ করেননি।

 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ধ’র্ষণের শিকার চার শিশু দরিদ্র পরিবারের। তাদের দুরসম্পর্কের আত্মীয় জয়নাল। কাছাকাছি হওয়ায় শিশুদের যাতায়াত ছিল জয়নালের বাড়িত। শুক্রবার দুপুরের দিকে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়া দুই শিশু জয়নালের বাড়িতে যায় জলপাই কুড়াতে। এ সময় জয়নাল তাদের জলপাই খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ঘরের ভেতর নিয়ে যান। এরপর পর্যায়ক্রমে ২ শিশুকে ধ’র্ষণ করেন। এরপর রবিবার দুপুরের দিকে জয়নালের বাড়িতে যায় প্রথম শ্রেণিতে পড়া দুই শিশু। তাদেরকেও জয়নাল কৌশলে ঘরে ডেকে নিয়ে ধ’র্ষণ করেন।

 

শিশুদের মাধ্যমে বাবা ও মা ঘটনা সম্পর্কে জানতে পারেন। তখন তারা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে যান। বিচার প্রার্থী অভিভাবকদের বক্তব্য শুনে চেয়ারম্যান কৌশলে মথুরাপুর বাজার এলাকা থেকে জয়নাল আবেদীনকে আটক করেন। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। ধ’র্ষণের শিকার দুই শিশুর বাবা বাদী হয়ে জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল আবেদীন দাবি করেছেন, চার শিশু যৌ’ন মিলনের কৌশল শিখতে চেয়েছিল। তাদের বিবস্ত্র করে যৌ’ন মিলনের প্রশিক্ষণ দেন তিনি। এ সময় তারা সামান্য ব্যাথা পেয়েছে। জোরপূর্বক তাদের ধ’র্ষণ করা হয়নি।

 

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক অংকিতা রব চৈতি জানান, প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে চার শিশুর যৌ’নাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তাদের চিকিৎসা চলছে। বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল আবেদীন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। চার শিশুকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় জয়নালের বিরুদ্ধে থানায় দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। চার শিশুকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited