শৈলকুপায় বিষধর সাঁপ নিয়ে ঐহিত্যবাহী ঝাপান খেলা অনুষ্ঠিত

Spread the love

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ: বিষধর সাপকে বসে আনা মানুষের কাছে চিরকালই আকর্ষণীয়। তারওপর যদি একের পর এক প্রদর্শন করা হয় বিষধর সাপের নানা কৌশল তাহলে তো কথাই নেই । বাদ্যের তালে তালে হাড়ি থেকে বেরিয়ে আসছে বিষধর গোখরা সাঁপ। আর সাপুড়ে সেই সাপের সর্বোচ্চ ফনা তোলাতে দেখাচ্ছেন নানা অঙ্গভঙ্গি। সেই সাথে পরিবেশন করা হচ্ছে মনসামঙ্গলের পালাগান। অন্য সাপুড়ে সাপের ফনা নামাতে দিচ্ছেন ঝাড়ফুক। এমনই ঝাপান খেলার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ঝিনাইদহ শৈলকুপা উপজেলার সাধুখালী গ্রামে। গ্রামবাসীর আয়োজনে শনিবার মির্জাপুর ইউনিয়নের সাধুখালী বাজারে এ ঝাঁপান খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

 

গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী এ খেলা উপভোগ করতে আশাপাশ এলাকা থেকে ছুটে আসে হাজারো উৎসুক জনতা। খেলাকে ঘিরে ওই এলাকা পরিণত হয়েছিল উৎসবের নগরীতে। বাশির সুরে একে একে হাড়ি থেকে বের হয়ে আসে গোখরাসহ বিভিন্ন বিষধর সাপ। বাদ্যের তালে সাপুড়েকে নিজে নাচতে হয় আর সাথে ফনা তুলে সাপও বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে। সাপুড়ের ইশারায় সাপের এই অঙ্গ ভঙ্গি প্রদর্শন মানুষকে দেয় অনাবিল আনন্দ। শনিবার বিকেলে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে বৃদ্ধ, নারী-পুরুষ, শিশুরা উপস্থিত থেকে নিবিড় দৃষ্টিতে উপভোগ করেন এই খেলা। আর খেলাকে ঘিরে এখানে সৃষ্টি হয় উৎসবের আমেজ। পাংশা, রাজবাড়ী, ঝ্উাদিয়া, কুমারখালী ও শৈলকুপা থেকে আসে ৮টি সাপুড়ে দল।  ৮টি সাপুড়ে দলের অর্ধ শতাধিক সাপের মধ্যে নিজেকে সেরা প্রমাণ করতে প্রতিটি সাপ প্রদর্শন করে নিজেদের আকর্ষণীয় কসরত। আর এই দুর্লভ দৃশ্য দেখতে দূরদূরান্ত থেকে ছুটে এসেছেন দর্শনার্থীরা।

 

অনেকে জীবনে প্রথম আবার অনেকেই  অনেক দিন পর দেখছেন এ খেলা। এই ঝাপান খেলা দেখে খুবই আনন্দিত দর্শক। তাই প্রতিনিয়ত এ ধরনের আয়োজন করার দাবি তাদের। আর সাপুড়েরা জানান, মানুষকে আনন্দ দেওয়াই তাদের মূল উদ্দেশ্যে। দূরদূরানÍ থেকে ছুটে আসা দর্শনার্থীরা বালেন, বাংলার ঐতিহ্য যে এত মনোমুগ্ধকর তা না দেখলে বোঝা যাবে না। ঝাপান খেলা দেখে আজ তা বুঝতে পারছি। এ ধরনের আয়োজন যদি বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে করা হতো তাহলে বর্তমান প্রজন্ম বাংলার আদি রূপ সম্পর্কে ধারনা পেত। গ্রামবাসীর পক্ষে আয়োজক মির্জাপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি বলেন, চিরায়ত বাংলার ঐহিত্যবাহী এ খেলা ধরে রাখতেই এই আয়োজন। মানুষকে নিবিড় আনন্দ দেওয়ার মধ্যে থেকে নিজেদের আনন্দ পাওয়া। প্রতিবছর এ ধরনের আয়োজন করা হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন। দিনভর এ খেলায় সকলকে হারিয়ে প্রথম স্থান অধিকার করে শৈলকুপা উপজেলার ভগবান নগর এলাকার বিখ্যাত সাপুড়ে সোহেল ও তার দল।

 

দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে দুধসর চাঁদপুর এলাকার লিটন সাপুড়ে ও তৃতীয় স্থান অধিকার করে বেতাই চন্ডিপুর এলাকার খোকন সাপুড়ে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথী থেকে খেলা উপভোগ করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও মির্জাপুর ইউপি চেয়্যারম্যান মকবুল হোসেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সভাপতি আবু বক্কর,সাধারন  সম্পাদক  আতিয়ার রহমান, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম টুলু প্রমুখ। খেলা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। গ্রামবাসির পক্ষ হতে একক নেতৃত্বে সার্বিক তত্বাবধানে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাবেক ইউ,পি সদস্য ও মির্জাপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মোস্তাক আহম্মেদ।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» তেজগাঁওয়ের ফু-ওয়াং ক্লাবে চলছে অভিযান

» কপাল খুলে গেল ১২শ’ বেসরকারি শিক্ষকের

» সংস্কার হতেনা হতেই দশমিনায় গুরুত্বপূর্ন সড়কের বেহাল দশা

» মাদক সেবন কারিদেরকে দশমিনায় পূর্নবাসন

» ভিসি নাসিরের পদত্যাগ দাবিতে ৬ষ্ঠ দিনেও আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা: উত্তাল বশেমুরবিপ্রবি ক্যাম্পাস

» বড়লেখায় ভোক্তা অধিকার আইনে  ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

» ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে গোল টেবিল বৈঠক

» ঝালকাঠিতে নারীকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ২ ডাকাতের ফাঁসি, ৩ জনের যাবজ্জীবন

» জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারন: দখল ও দূষনের কারনে অস্তিত্ব হারাচ্ছে শিববাড়িয়া নদী

» মৌলভীবাজারের মেয়ে আলেয়া মান্নান পিংকি বাংলাদেশ বিমানের প্রধান ক্যাপ্টেন

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৮ই আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শৈলকুপায় বিষধর সাঁপ নিয়ে ঐহিত্যবাহী ঝাপান খেলা অনুষ্ঠিত

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ: বিষধর সাপকে বসে আনা মানুষের কাছে চিরকালই আকর্ষণীয়। তারওপর যদি একের পর এক প্রদর্শন করা হয় বিষধর সাপের নানা কৌশল তাহলে তো কথাই নেই । বাদ্যের তালে তালে হাড়ি থেকে বেরিয়ে আসছে বিষধর গোখরা সাঁপ। আর সাপুড়ে সেই সাপের সর্বোচ্চ ফনা তোলাতে দেখাচ্ছেন নানা অঙ্গভঙ্গি। সেই সাথে পরিবেশন করা হচ্ছে মনসামঙ্গলের পালাগান। অন্য সাপুড়ে সাপের ফনা নামাতে দিচ্ছেন ঝাড়ফুক। এমনই ঝাপান খেলার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ঝিনাইদহ শৈলকুপা উপজেলার সাধুখালী গ্রামে। গ্রামবাসীর আয়োজনে শনিবার মির্জাপুর ইউনিয়নের সাধুখালী বাজারে এ ঝাঁপান খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

 

গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী এ খেলা উপভোগ করতে আশাপাশ এলাকা থেকে ছুটে আসে হাজারো উৎসুক জনতা। খেলাকে ঘিরে ওই এলাকা পরিণত হয়েছিল উৎসবের নগরীতে। বাশির সুরে একে একে হাড়ি থেকে বের হয়ে আসে গোখরাসহ বিভিন্ন বিষধর সাপ। বাদ্যের তালে সাপুড়েকে নিজে নাচতে হয় আর সাথে ফনা তুলে সাপও বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে। সাপুড়ের ইশারায় সাপের এই অঙ্গ ভঙ্গি প্রদর্শন মানুষকে দেয় অনাবিল আনন্দ। শনিবার বিকেলে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে বৃদ্ধ, নারী-পুরুষ, শিশুরা উপস্থিত থেকে নিবিড় দৃষ্টিতে উপভোগ করেন এই খেলা। আর খেলাকে ঘিরে এখানে সৃষ্টি হয় উৎসবের আমেজ। পাংশা, রাজবাড়ী, ঝ্উাদিয়া, কুমারখালী ও শৈলকুপা থেকে আসে ৮টি সাপুড়ে দল।  ৮টি সাপুড়ে দলের অর্ধ শতাধিক সাপের মধ্যে নিজেকে সেরা প্রমাণ করতে প্রতিটি সাপ প্রদর্শন করে নিজেদের আকর্ষণীয় কসরত। আর এই দুর্লভ দৃশ্য দেখতে দূরদূরান্ত থেকে ছুটে এসেছেন দর্শনার্থীরা।

 

অনেকে জীবনে প্রথম আবার অনেকেই  অনেক দিন পর দেখছেন এ খেলা। এই ঝাপান খেলা দেখে খুবই আনন্দিত দর্শক। তাই প্রতিনিয়ত এ ধরনের আয়োজন করার দাবি তাদের। আর সাপুড়েরা জানান, মানুষকে আনন্দ দেওয়াই তাদের মূল উদ্দেশ্যে। দূরদূরানÍ থেকে ছুটে আসা দর্শনার্থীরা বালেন, বাংলার ঐতিহ্য যে এত মনোমুগ্ধকর তা না দেখলে বোঝা যাবে না। ঝাপান খেলা দেখে আজ তা বুঝতে পারছি। এ ধরনের আয়োজন যদি বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে করা হতো তাহলে বর্তমান প্রজন্ম বাংলার আদি রূপ সম্পর্কে ধারনা পেত। গ্রামবাসীর পক্ষে আয়োজক মির্জাপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি বলেন, চিরায়ত বাংলার ঐহিত্যবাহী এ খেলা ধরে রাখতেই এই আয়োজন। মানুষকে নিবিড় আনন্দ দেওয়ার মধ্যে থেকে নিজেদের আনন্দ পাওয়া। প্রতিবছর এ ধরনের আয়োজন করা হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন। দিনভর এ খেলায় সকলকে হারিয়ে প্রথম স্থান অধিকার করে শৈলকুপা উপজেলার ভগবান নগর এলাকার বিখ্যাত সাপুড়ে সোহেল ও তার দল।

 

দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে দুধসর চাঁদপুর এলাকার লিটন সাপুড়ে ও তৃতীয় স্থান অধিকার করে বেতাই চন্ডিপুর এলাকার খোকন সাপুড়ে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথী থেকে খেলা উপভোগ করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও মির্জাপুর ইউপি চেয়্যারম্যান মকবুল হোসেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সভাপতি আবু বক্কর,সাধারন  সম্পাদক  আতিয়ার রহমান, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম টুলু প্রমুখ। খেলা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। গ্রামবাসির পক্ষ হতে একক নেতৃত্বে সার্বিক তত্বাবধানে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাবেক ইউ,পি সদস্য ও মির্জাপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মোস্তাক আহম্মেদ।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited