রাবনাবাদ নদীর ভাঙ্গনে ভূমিহীন হয়ে পড়ছে নতুন নতুন পরিবার

Spread the love

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি।। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রাবনাবাদ নদীর প্রবল ¯্রােতে ভেঙ্গে যাচ্ছে বন্যানিয়ন্ত্রন বাঁধ। প্রতিদিনই জোয়ারের সময় পানি লোকালয়ে প্রবেশ করছে। নদীর পানির স্তর স্বাভাবিকের তুলনায় কয়েক ফুট বেড়ে গেছে। অব্যাহত ভাঙ্গনে নদীগর্ভে বিলিন হয়ে কমে যাচ্ছে উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের ভূখন্ড। ভূমিহীন হয়ে পড়েছে নতুন নতুন পরিবার। অনেকেই বন্ধ করে দিয়েছে কৃষিকাজ। মজবুত বাঁধ নির্মানসহ যথাযথ পরিকল্পনা গ্রহন না করলে এই জনপদটি পুরোপুরি বিলিন হওয়ার শংকা করছে এলাকাবাসী।

 

লালুয়া ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ওই ইউনিয়নের মোট আয়তন ছিল ৪৯ বর্গকিলোমিটার। ক্রমান্বয়ে তা কমে বর্তমানে দাঁড়িয়েছে ৩৯ বর্গকিলোমিটারে। ইউনিয়নের ৪৭/৫ পোল্ডারে সাত কিলোমিটারের অবস্থা খুবই নাজুক। অব্যাহত ভাঙ্গনে যে কোন সময় বিলীন হয়ে যেতে পারে চাড়িপাড়া, নাওয়াপাড়া, বানাতিপাড়া, ১১নং হাওয়া, চৌধুরিপাড়া, নয়াকাটা, মুন্সীপাড়া, চান্দুপাড়া, হাসনাপাড়া,.চর-চান্দুপাড়া ও পশরবুনিয়া গ্রাম। চারিপাড়া গ্রামের রফিক হাওলাদার জানান, সে এক সময়ের বিত্তশালী পরিবারের সন্তান ছিলো। এখন নিঃস্ব হয়ে ভাঙ্গা বাঁধের পাশে আশ্রয় নিয়েছে। তাদের বাড়ীর সামনে এক একর জমি ছিল, সবই নদীতে বিলিন হয়ে গেছে। এ বছর ভাঙ্গনের পরিমান অনেক বেশি।

 

নাওয়াপাড়া গ্রামের কৃষক আলাউদ্দিন বলেন, বাঁধ ভাইঙ্গা যাওনে মোগো সব শ্যাস অইয়া গ্যাছে। চাষবাস কইর‌্যা যে খামু হেইরহম অবস্থাও নাই। চারিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান ফোরকান জানান, স্কুলের চারপাশে কোন বেরিবাঁধ নেই। জোয়ারের সময় ছেলে মেয়েরা স্কুলে আসতে পারেনা। আমাদের নিজেদেরকে ট্রলারের মাধ্যমে স্কুলে যেতে হয়। লালুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শওকত হোসেন তপন বিশ্বাস বলেন, চারিপাড়ার মানুষ নিঃস্ব ও অসহায়। বর্তমানে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে। বিয়ষটি জনগনের স্বার্থে পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তারপরও সমস্যা সমাধান হচ্ছেনা।

 

কলাপাড়া পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়ালিউজ্জামান জানান, লালুয়ার ইউনিয়নে সাত কিলোমিটার বেরিবাঁধ ভাঙ্গন পায়রা সমুদ্র বন্দরের বহির্নোঙরের জেটি নির্মানের জন্য জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া রয়েছে। এ কারনে সেখানে এখন বাঁধসহ অভ্যন্তরীণ উন্নয়ন কাজ বন্ধ। চারিপাড়া গ্রামে পায়রা সমুদ্র বন্দরের কাজ শুরু হলে গোটা এলাকায় পরিকল্পিত উন্নয়ন কাজ শুরু হবে। তখন আর এই দুর্ভোগ থাকবে না বলে তিনি সাংবাদিকদেও জানিয়েছেন।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» তেজগাঁওয়ের ফু-ওয়াং ক্লাবে চলছে অভিযান

» কপাল খুলে গেল ১২শ’ বেসরকারি শিক্ষকের

» সংস্কার হতেনা হতেই দশমিনায় গুরুত্বপূর্ন সড়কের বেহাল দশা

» মাদক সেবন কারিদেরকে দশমিনায় পূর্নবাসন

» ভিসি নাসিরের পদত্যাগ দাবিতে ৬ষ্ঠ দিনেও আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা: উত্তাল বশেমুরবিপ্রবি ক্যাম্পাস

» বড়লেখায় ভোক্তা অধিকার আইনে  ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

» ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে গোল টেবিল বৈঠক

» ঝালকাঠিতে নারীকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ২ ডাকাতের ফাঁসি, ৩ জনের যাবজ্জীবন

» জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারন: দখল ও দূষনের কারনে অস্তিত্ব হারাচ্ছে শিববাড়িয়া নদী

» মৌলভীবাজারের মেয়ে আলেয়া মান্নান পিংকি বাংলাদেশ বিমানের প্রধান ক্যাপ্টেন

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৮ই আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাবনাবাদ নদীর ভাঙ্গনে ভূমিহীন হয়ে পড়ছে নতুন নতুন পরিবার

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি।। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রাবনাবাদ নদীর প্রবল ¯্রােতে ভেঙ্গে যাচ্ছে বন্যানিয়ন্ত্রন বাঁধ। প্রতিদিনই জোয়ারের সময় পানি লোকালয়ে প্রবেশ করছে। নদীর পানির স্তর স্বাভাবিকের তুলনায় কয়েক ফুট বেড়ে গেছে। অব্যাহত ভাঙ্গনে নদীগর্ভে বিলিন হয়ে কমে যাচ্ছে উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের ভূখন্ড। ভূমিহীন হয়ে পড়েছে নতুন নতুন পরিবার। অনেকেই বন্ধ করে দিয়েছে কৃষিকাজ। মজবুত বাঁধ নির্মানসহ যথাযথ পরিকল্পনা গ্রহন না করলে এই জনপদটি পুরোপুরি বিলিন হওয়ার শংকা করছে এলাকাবাসী।

 

লালুয়া ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ওই ইউনিয়নের মোট আয়তন ছিল ৪৯ বর্গকিলোমিটার। ক্রমান্বয়ে তা কমে বর্তমানে দাঁড়িয়েছে ৩৯ বর্গকিলোমিটারে। ইউনিয়নের ৪৭/৫ পোল্ডারে সাত কিলোমিটারের অবস্থা খুবই নাজুক। অব্যাহত ভাঙ্গনে যে কোন সময় বিলীন হয়ে যেতে পারে চাড়িপাড়া, নাওয়াপাড়া, বানাতিপাড়া, ১১নং হাওয়া, চৌধুরিপাড়া, নয়াকাটা, মুন্সীপাড়া, চান্দুপাড়া, হাসনাপাড়া,.চর-চান্দুপাড়া ও পশরবুনিয়া গ্রাম। চারিপাড়া গ্রামের রফিক হাওলাদার জানান, সে এক সময়ের বিত্তশালী পরিবারের সন্তান ছিলো। এখন নিঃস্ব হয়ে ভাঙ্গা বাঁধের পাশে আশ্রয় নিয়েছে। তাদের বাড়ীর সামনে এক একর জমি ছিল, সবই নদীতে বিলিন হয়ে গেছে। এ বছর ভাঙ্গনের পরিমান অনেক বেশি।

 

নাওয়াপাড়া গ্রামের কৃষক আলাউদ্দিন বলেন, বাঁধ ভাইঙ্গা যাওনে মোগো সব শ্যাস অইয়া গ্যাছে। চাষবাস কইর‌্যা যে খামু হেইরহম অবস্থাও নাই। চারিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান ফোরকান জানান, স্কুলের চারপাশে কোন বেরিবাঁধ নেই। জোয়ারের সময় ছেলে মেয়েরা স্কুলে আসতে পারেনা। আমাদের নিজেদেরকে ট্রলারের মাধ্যমে স্কুলে যেতে হয়। লালুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শওকত হোসেন তপন বিশ্বাস বলেন, চারিপাড়ার মানুষ নিঃস্ব ও অসহায়। বর্তমানে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে। বিয়ষটি জনগনের স্বার্থে পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তারপরও সমস্যা সমাধান হচ্ছেনা।

 

কলাপাড়া পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়ালিউজ্জামান জানান, লালুয়ার ইউনিয়নে সাত কিলোমিটার বেরিবাঁধ ভাঙ্গন পায়রা সমুদ্র বন্দরের বহির্নোঙরের জেটি নির্মানের জন্য জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া রয়েছে। এ কারনে সেখানে এখন বাঁধসহ অভ্যন্তরীণ উন্নয়ন কাজ বন্ধ। চারিপাড়া গ্রামে পায়রা সমুদ্র বন্দরের কাজ শুরু হলে গোটা এলাকায় পরিকল্পিত উন্নয়ন কাজ শুরু হবে। তখন আর এই দুর্ভোগ থাকবে না বলে তিনি সাংবাদিকদেও জানিয়েছেন।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited