পিয়নের পদের যেভাবে চাকরি পান সেই সুন্দরী: অজানা তথ্য ফাঁস

বহুল সমালোচিত জামালপুরের সাবেক জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের সঙ্গে তার অফিস সহায়কের অবৈধ শারীরিক সম্পর্কের পুরো ভিডিও ইউটিউবসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হয়েছে। গতকাল রোববার থেকে এ ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে। নামে বেনামে বিভিন্ন আইডি থেকে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়েছে। এদিকে ভিডিও ভাইরাল হওয়া নারী অফিস সহায়ক সানজিদা ইয়াসমিন সাধনা রোববার নিখোঁজ থাকলেও তিনি সোমবার অফিসে এসেছেন বলে জানিয়েছেন একুশে টেলিভিশনের জামালপুর প্রতিনিধি। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে খন্দকার সোহেল আহমেদ নামে একটি ফেইসবুক আইডি থেকে জেলা প্রশাসকের আপত্তিকর ভিডিওটি পোস্ট করা হয়। প্রথমে কবীর ও সাধানার অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সাড়ে তিন থেকে চার মিনিটের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। যদিও বিষয়টি অস্বীকার করে ঘটনাটি ‘সাজানো’ বলে দাবি করেন ডিসি আহমেদ কবীর। ফেইসবুকের একটি আইডি থেকে প্রকাশ করা হলেও পরে তা সরিয়ে নেওয়া হয়।

 

ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর আহমেদ কবীরকে রোববার জেলা প্রশাসকের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মোহাম্মদ এনামুল হককে জেলার নতুন জেলা প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হয়। এদিকে ডিসি আহমেদ কবীরের ওএসডি’র আদেশ আসার আগেই জনরোষ আতংকে রাতের আঁধারে জামালপুর ছেড়ে চলে যান আহমেদ কবির। বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় শনিবার রাত ৩টায় তিনি জামালপুর ত্যাগ করে ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে আশ্রয় নেন বলে একটি সূত্রে জানা যায়। এদিকে সেই ডিসির সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে থাকা নারী সানজিদা ইয়াসমিন সাধনা কিভাবে চাকরি পেলেন তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। জানা যায়, জামালপুরের মাদারগঞ্জের শুকনগরী গ্রামের সানজিদা ইয়াসমিন সাধনার স্বামী গত ৭ বছর আগে মা’রা যান। তার একটি ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া একটি সন্তান রয়েছে। ২০১৮ সালে জেলার উন্নয়ন মেলায় হস্তশিল্পের স্টল বরাদ্ধ নেয়ার জন্য জেলা প্রশাসক আহমেদ কবিরের সঙ্গে দেখা হয় সাধনার। তার সৌন্দর্যের কারণেই জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর তাকে বিনামূল্যে স্টল বরাদ্দ দেন। পরে উন্নয়ন মেলা চলাকালে আহমেদ কবীরের সঙ্গে সখ্য আরও গভীর হয়।

 

একপর্যায়ে সে সখ্যতা রূপ নেয় শারীরিক সম্পর্কে। সম্প্রতি সেই অবৈধ সম্পর্কের একটি ভিডিও চিত্র ভাইরাল হয়। চলতি বছর জানুয়ারিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ২৭ জনকে অফিস সহায়ক (পিয়ন) পদসহ ৫৫ জনকে নিয়োগ দেয়া হয়। সেই সম্পর্কের সূত্র ধরে ডিসি অফিসে পিয়ন (অফিস সহকারী) পদে নিয়োগ পান সাধনা। সেই সঙ্গে তার দুই আত্মীয় রজব আলী ও সাবান আলীকে অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ পাইয়ে দেন তিনি। পিয়ন পদে চাকরি করলেও সাধনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বেশ প্রতাপেই থাকতেন। আহমেদ কবীরের সঙ্গে সখ্যতা থাকার কারণে তার প্রভাবের বিরুদ্ধে ঊর্ধ্বতন কেউই কথা বলতে সাহস পেতেন না। এমনকি তার হাতে একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার লাঞ্ছিত হওয়ার কথাও জানা যায়।

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» রাজাপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে বসতঘর ক্ষতিগ্রস্থ ৫ শতাধিক পরিবারে হাহাকার, দ্রুত মাথা গোঁজার ঠাঁই চায় গৃহহীনরা!

» গলাচিপায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ৫ম শ্রেণির সমাপনী/১৯ শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত

» পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সহকর্মীর ছুরিকাঘাতে চীনা নাগরিক নিহত

» রাজশাহীতে বাড়ির ছাদে লুকিয়ে রেখেছিল ১৫ মণ পেঁয়াজ

» চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণ: তদন্ত কমিটি গঠন

» ফেসবুক লাইভে: আমি রাঙ্গার মেয়ে, বাবাকে নিয়ে কিছু কথা বলতে চাই (ভিডিও)

» ডামুড্যার সিড্যায় ৩৬ নং মধ্য সিড্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের বিদায় অনুষ্ঠান

» যাতায়াতের একমাত্র রাস্থা বন্ধ বিপাকে ১৩ পরিবার

» বাগেরহাটে কাড়াপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণীর বিদায় অনুষ্ঠান

» বরিশালের মেয়ে নায়লা নাঈমের জীবনী আসছে একুশে বইমেলা ২০২০ এ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ২রা অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পিয়নের পদের যেভাবে চাকরি পান সেই সুন্দরী: অজানা তথ্য ফাঁস

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

বহুল সমালোচিত জামালপুরের সাবেক জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের সঙ্গে তার অফিস সহায়কের অবৈধ শারীরিক সম্পর্কের পুরো ভিডিও ইউটিউবসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হয়েছে। গতকাল রোববার থেকে এ ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে। নামে বেনামে বিভিন্ন আইডি থেকে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়েছে। এদিকে ভিডিও ভাইরাল হওয়া নারী অফিস সহায়ক সানজিদা ইয়াসমিন সাধনা রোববার নিখোঁজ থাকলেও তিনি সোমবার অফিসে এসেছেন বলে জানিয়েছেন একুশে টেলিভিশনের জামালপুর প্রতিনিধি। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে খন্দকার সোহেল আহমেদ নামে একটি ফেইসবুক আইডি থেকে জেলা প্রশাসকের আপত্তিকর ভিডিওটি পোস্ট করা হয়। প্রথমে কবীর ও সাধানার অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সাড়ে তিন থেকে চার মিনিটের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। যদিও বিষয়টি অস্বীকার করে ঘটনাটি ‘সাজানো’ বলে দাবি করেন ডিসি আহমেদ কবীর। ফেইসবুকের একটি আইডি থেকে প্রকাশ করা হলেও পরে তা সরিয়ে নেওয়া হয়।

 

ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর আহমেদ কবীরকে রোববার জেলা প্রশাসকের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মোহাম্মদ এনামুল হককে জেলার নতুন জেলা প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হয়। এদিকে ডিসি আহমেদ কবীরের ওএসডি’র আদেশ আসার আগেই জনরোষ আতংকে রাতের আঁধারে জামালপুর ছেড়ে চলে যান আহমেদ কবির। বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় শনিবার রাত ৩টায় তিনি জামালপুর ত্যাগ করে ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে আশ্রয় নেন বলে একটি সূত্রে জানা যায়। এদিকে সেই ডিসির সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে থাকা নারী সানজিদা ইয়াসমিন সাধনা কিভাবে চাকরি পেলেন তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। জানা যায়, জামালপুরের মাদারগঞ্জের শুকনগরী গ্রামের সানজিদা ইয়াসমিন সাধনার স্বামী গত ৭ বছর আগে মা’রা যান। তার একটি ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া একটি সন্তান রয়েছে। ২০১৮ সালে জেলার উন্নয়ন মেলায় হস্তশিল্পের স্টল বরাদ্ধ নেয়ার জন্য জেলা প্রশাসক আহমেদ কবিরের সঙ্গে দেখা হয় সাধনার। তার সৌন্দর্যের কারণেই জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর তাকে বিনামূল্যে স্টল বরাদ্দ দেন। পরে উন্নয়ন মেলা চলাকালে আহমেদ কবীরের সঙ্গে সখ্য আরও গভীর হয়।

 

একপর্যায়ে সে সখ্যতা রূপ নেয় শারীরিক সম্পর্কে। সম্প্রতি সেই অবৈধ সম্পর্কের একটি ভিডিও চিত্র ভাইরাল হয়। চলতি বছর জানুয়ারিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ২৭ জনকে অফিস সহায়ক (পিয়ন) পদসহ ৫৫ জনকে নিয়োগ দেয়া হয়। সেই সম্পর্কের সূত্র ধরে ডিসি অফিসে পিয়ন (অফিস সহকারী) পদে নিয়োগ পান সাধনা। সেই সঙ্গে তার দুই আত্মীয় রজব আলী ও সাবান আলীকে অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ পাইয়ে দেন তিনি। পিয়ন পদে চাকরি করলেও সাধনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বেশ প্রতাপেই থাকতেন। আহমেদ কবীরের সঙ্গে সখ্যতা থাকার কারণে তার প্রভাবের বিরুদ্ধে ঊর্ধ্বতন কেউই কথা বলতে সাহস পেতেন না। এমনকি তার হাতে একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার লাঞ্ছিত হওয়ার কথাও জানা যায়।

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited