রাবির ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে মানববন্ধন, স্থানীয় কোচিং সেন্টারের উস্কানী

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার নতুন নিয়মের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে ভর্তিচ্ছু কিছু শিক্ষার্থী। আন্দোলনকারী এসব শিক্ষার্থীর প্রায় সবাই রাজশাহীর বিভিন্ন কোচিংয়ের শিক্ষার্থী। এরা কোচিং সেন্টারের শিক্ষকদের পরামর্শেই আন্দোলন করছে বলে আন্দোলনরত কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে।

 

জানা গেছে, রাবির ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা হবে মাত্র তিনটি ইউনিটে। প্রতি ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবে মাত্র ৩২ হাজার শিক্ষার্থী। একটি ইউনিটের ফরমের মূল্য ১৯৮০ টাকা। একজন শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক যে বিভাগ থেকে পাশ করেছে, সেই শিক্ষার্থী কেবল তার সংশ্লিষ্ট একটি ইউনিটেই ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। সে ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর পছন্দ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে তার পছন্দক্রম অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য ইউনিটের বিভাগগুলোতে ভর্তি হতে পারবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করছে কোচিং সেন্টারের কিছু শিক্ষার্থী। সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের জন্য গত তিনদিন ধরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছে তারা।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মঙ্গলবার ভর্তিচ্ছু দুই শতাধিক শিক্ষার্থীকে মানববন্ধন করতে দেখা গেছে। তবে মানববন্ধনে সরেজমিনে দেখা গেছে, মানববন্ধনে অংশ নেয়া সকলেই রাজশাহীর বিভিন্ন কোচিংয়ের শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনকারী কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মানববন্ধনে যারা এসেছেন তাদের অধিকাংশই ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ ও ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের শিক্ষার্থী। কোচিংয়ের দুইজন শিক্ষকের সহায়তায় তারা মানববন্ধন কর্মসূচিতে এসেছে।

 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভর্তিচ্ছু একজন শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমার বাড়ি রাজশাহীর বিনোদপুরে। আমি উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করেছি। আমি বিজ্ঞান বিভাগেই ভর্তি পরীক্ষা দিব। আর সেজন্য আমি ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ এ কোচিং করছি। বন্ধুদের অনুরোধে আমি এখানে এসেছি।’ অন্য এক শিক্ষার্থী বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন এ বছর ভর্তি পরীক্ষাতে নতুন নিয়ম করলো। আমরা যারা উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশুনা করেছি, তারা বিভাগ পরিবর্তন করে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারব না। এই বিষয়টি জানার পর আমরা কোচিংয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলি। তারাই মূলত আমাদের এধরণের আন্দোলনের পরামর্শ দিয়েছেন।

 

রাজশাহীর ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ কোচিংয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ বছর তাদের কোচিং এ ১২০০ এরও বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। এই শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করেছে, যারা বিভাগ পরিবর্তন করে মানবিক শাখার সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষা দিতে চায়। এ দিকে আজকের মানববন্ধন চলাকালীন কোচিং সেন্টারগুলোর চারজন শিক্ষককেও সেখানে থাকতে দেখা গেছে। তাদের মধ্যে ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের তানজিম আরেফিন নামের একজন মানববন্ধনকারী শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পরামর্শও দিচ্ছিলেন।

 

জানতে চাইলে ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের শিক্ষক তানজিম আরেফিন বলেন, শিক্ষার্থীদের সঙ্গেই তিনি মানববন্ধনে এসেছেন। আন্দোলনের জন্য শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের কোনো ধরণের পরামর্শ দেয়নি। তবে শিক্ষার্থীদের মানবন্ধনে কোচিংয়ের শিক্ষকরা কেন এসেছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে কোনো উত্তর দেননি তানজিম আরেফিন।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» গলাচিপায় বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত

» ঝিনাইদহের মোশাররফ হোসেন ডিগ্রি কলেজে নবীন বরণ

» শৈলকুপায় প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দাবীতে মানববন্ধন

» শৈলকুপায় নারী নির্যাতন মামলায় ৪ শিক্ষক-কর্মচারী কারাগারে

» ঝিনাইদহের ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের কৃষি ভিত্তিক রোবট আবিস্কার

» ব্যারিস্টার তাপসকে ভোট দিয়ে অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়ুন: বাংলাদেশের ডেপুটি এটর্নী জেনারেল এড. আবুল হাশেম

» মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ড, একই পরিবারের ৫ জন নিহত

» আমরা চাই নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ যেন বজায় থাকে: তাপস

» দুর্নীতির অভিযোগে ডেসটিনির রফিকুল আমীনের ৩ বছরের কারাদণ্ড

» আত্রাইয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ১৫ই মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাবির ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে মানববন্ধন, স্থানীয় কোচিং সেন্টারের উস্কানী

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার নতুন নিয়মের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে ভর্তিচ্ছু কিছু শিক্ষার্থী। আন্দোলনকারী এসব শিক্ষার্থীর প্রায় সবাই রাজশাহীর বিভিন্ন কোচিংয়ের শিক্ষার্থী। এরা কোচিং সেন্টারের শিক্ষকদের পরামর্শেই আন্দোলন করছে বলে আন্দোলনরত কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে।

 

জানা গেছে, রাবির ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা হবে মাত্র তিনটি ইউনিটে। প্রতি ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবে মাত্র ৩২ হাজার শিক্ষার্থী। একটি ইউনিটের ফরমের মূল্য ১৯৮০ টাকা। একজন শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক যে বিভাগ থেকে পাশ করেছে, সেই শিক্ষার্থী কেবল তার সংশ্লিষ্ট একটি ইউনিটেই ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। সে ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর পছন্দ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে তার পছন্দক্রম অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য ইউনিটের বিভাগগুলোতে ভর্তি হতে পারবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করছে কোচিং সেন্টারের কিছু শিক্ষার্থী। সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের জন্য গত তিনদিন ধরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছে তারা।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মঙ্গলবার ভর্তিচ্ছু দুই শতাধিক শিক্ষার্থীকে মানববন্ধন করতে দেখা গেছে। তবে মানববন্ধনে সরেজমিনে দেখা গেছে, মানববন্ধনে অংশ নেয়া সকলেই রাজশাহীর বিভিন্ন কোচিংয়ের শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনকারী কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মানববন্ধনে যারা এসেছেন তাদের অধিকাংশই ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ ও ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের শিক্ষার্থী। কোচিংয়ের দুইজন শিক্ষকের সহায়তায় তারা মানববন্ধন কর্মসূচিতে এসেছে।

 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভর্তিচ্ছু একজন শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমার বাড়ি রাজশাহীর বিনোদপুরে। আমি উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করেছি। আমি বিজ্ঞান বিভাগেই ভর্তি পরীক্ষা দিব। আর সেজন্য আমি ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ এ কোচিং করছি। বন্ধুদের অনুরোধে আমি এখানে এসেছি।’ অন্য এক শিক্ষার্থী বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন এ বছর ভর্তি পরীক্ষাতে নতুন নিয়ম করলো। আমরা যারা উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশুনা করেছি, তারা বিভাগ পরিবর্তন করে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারব না। এই বিষয়টি জানার পর আমরা কোচিংয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলি। তারাই মূলত আমাদের এধরণের আন্দোলনের পরামর্শ দিয়েছেন।

 

রাজশাহীর ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ কোচিংয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ বছর তাদের কোচিং এ ১২০০ এরও বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। এই শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করেছে, যারা বিভাগ পরিবর্তন করে মানবিক শাখার সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষা দিতে চায়। এ দিকে আজকের মানববন্ধন চলাকালীন কোচিং সেন্টারগুলোর চারজন শিক্ষককেও সেখানে থাকতে দেখা গেছে। তাদের মধ্যে ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের তানজিম আরেফিন নামের একজন মানববন্ধনকারী শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পরামর্শও দিচ্ছিলেন।

 

জানতে চাইলে ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের শিক্ষক তানজিম আরেফিন বলেন, শিক্ষার্থীদের সঙ্গেই তিনি মানববন্ধনে এসেছেন। আন্দোলনের জন্য শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের কোনো ধরণের পরামর্শ দেয়নি। তবে শিক্ষার্থীদের মানবন্ধনে কোচিংয়ের শিক্ষকরা কেন এসেছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে কোনো উত্তর দেননি তানজিম আরেফিন।

 

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited