দখল হয়ে যাচ্ছে তিন যুগ আগের দশমিনার নির্মিত বীজাগার

Spread the love

সঞ্জয় ব্যানার্জী , দশমিনা(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলায় দুর্যোগ মৌসুমে কৃষি বীজ সংকট মোকাবেলায় উন্নত মানের বীজ সংরক্ষণ ও কৃষককে কৃষিতথ্য সরবরাহের লক্ষ্যে গড়ে তোলা হয়েছিল বীজাগার। উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে প্রায় তিন যুগ আগে নির্মিত বীজাগারগুলো অযন্তে অবহেলায় পড়ে থাকায় বেদথল হয়ে যাচ্ছে। ফলে অবকাঠামোর বেহালে বীজাগারগুলো কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে কোনো কাজে আসছে না। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বর ভয়াল জলোচ্ছ্বাসে জান,মাল ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় তৎকালীন সরকার ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃষি সম্প্রসারণের জন্য বীজাগার বা বীজকেন্দ্র নির্মান করে।

আপৎকালের জন্য বীজ সংরক্ষণ কৃষি তথ্য সেবার পাশাপাশি প্রতিটি ইউনিয়নে একজন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তার অফিস ও আবাসনের লক্ষ্য নিয়ে এই কেন্দ্র গড়ে উঠেছিল। যাতে কৃষক কৃষি পরিষেবা সুবিধা তার দোরগোড়ায় পৌছানো। কিন্তু নানা সংকটে এগুলো এখন অকার্যকর। এ উপজেলার ৬টি বীজগার তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে জড়াজীর্ণ অবস্থায় পরে রয়েছে। সংস্কার না করায় বীজাগারের অতি পুরনো পাকা স্থাপনা বা অবকাঠামোগুলো ধসে পড়ার উপক্রম। কোনো কোনোটি ধ্বংস পরিনত হয়েছে। সেখানে বীজ সংরক্ষন,কৃষি প্রযুক্তি সুরক্ষা ও কৃষি বিভাগের কোনো দাপ্তরিক কার্যক্রমই চলছে না। উপজেলার ৬টি বীজাগার হলো দশমিনা ইউনিয়ন, রণগোপালদী ইউনিয়ন, আলীপুর ইউনিয়ন, বেতাগী সানকিপুর ইউনিয়ন, বহরমপুর ইউনিয়ন ও বাশঁবাড়িয়া ইউনিয়ন বীজাগার। অপরদিকে, উপজেলার উদ্ভিদ সংরক্ষন গোডাউন দিন দিন দখল হয়ে যাচ্ছে, বীজাগারগুলো ঘিরে ধরেছে জঙ্গল।

 

দশমিনা ইউনিয়নের আরজবেগী গ্রামের সফল কৃষক হানিফ আকন বলেন, এক সময় ইউনিয়ন বীজাগার থেকে কৃষকরা আপৎকালে মানসম্মত বীজ সংগ্রহ করতেন। এসব বীজাগার থেকে কৃষকরা কৃষি বিষয়ে নানা পরামর্শ সুবিধাও পেতেন। বর্তমানে বীজাগারগুলোর কোনো কার্যক্রম নেই। অথচ কৃষির উন্নয়নে বীজাগার খুবই দরকারি। তিনি আরো বলেন, ইউনিয়ন বীজাগারগুলো চালু করলে কৃষি ও কৃষকের লাভ হবে। উপজেলার সদর ইউনিয়নের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মো.মাহাবুব বলেন, সারাদেশে ইউনিয়ন পর্যায়ে বীজ সংরক্ষণ ও কৃষি তথ্যসেবার পাশাপাশি উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের আবাসনের জন্য সিড হাউসগুলো (বীজাগার) গড়ে তোলা হয়েছিল। সংস্কার ও কার্যক্রম না থাকায় এগুলো পরিত্যক্ত হয়ে পড়ে আছে।উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মোঃ বনি আমিন খাঁন বলেন, এসব বীজাগারে অতিশ্রীর্ঘই দেয়াল নির্মাণ না করলে বেদখলের হাত থেকে রক্ষা করা যাবে না।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» তিস্তা চুক্তি ও সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে সহযোগিতার আশ্বাস

» সেদিন সেলেনার কানে যা বলেছিলেন বিল সেই ‘আসল রহস্য’ ফাঁস

» নিজেকে ‘নির্দোষ’ দাবি করলো নিউজিল্যান্ডে মসজিদের সেই হামলাকারী

» বন্দরে বসুন্ধরা সিমেন্ট ফ্যাক্টরি এখন মানুষ হত্যার কারখানা!

» নারায়ণগঞ্জের কাশীপুরে পরিত্যক্ত অবস্থায় অস্ত্র উদ্ধার

» ঝিনাইদহে ৩৫ মন ওজনের যুবরাজকে দেখতে মানুষের ভীড়, দাম হয়েছে ১৮ লাখ টাকা

» ঝিনাইদহে ২১৫ বোতল ফেনসিডিলসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ

» ভারতে পাচার হওয়া ৫ বাংলাদেশিকে বেনাপোল দিয়ে হস্তান্তর

» বেনাপোলে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতিকে হত্যাচেষ্টা ও বোমা হামলার প্রতিবাদে সমাবেশ

» পর্যটন নগরী কুয়াকাটায় মাতাল দুই পর্যটককে শুক্রবার জামিন

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন








ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ২রা আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দখল হয়ে যাচ্ছে তিন যুগ আগের দশমিনার নির্মিত বীজাগার

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

সঞ্জয় ব্যানার্জী , দশমিনা(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলায় দুর্যোগ মৌসুমে কৃষি বীজ সংকট মোকাবেলায় উন্নত মানের বীজ সংরক্ষণ ও কৃষককে কৃষিতথ্য সরবরাহের লক্ষ্যে গড়ে তোলা হয়েছিল বীজাগার। উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে প্রায় তিন যুগ আগে নির্মিত বীজাগারগুলো অযন্তে অবহেলায় পড়ে থাকায় বেদথল হয়ে যাচ্ছে। ফলে অবকাঠামোর বেহালে বীজাগারগুলো কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে কোনো কাজে আসছে না। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বর ভয়াল জলোচ্ছ্বাসে জান,মাল ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় তৎকালীন সরকার ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃষি সম্প্রসারণের জন্য বীজাগার বা বীজকেন্দ্র নির্মান করে।

আপৎকালের জন্য বীজ সংরক্ষণ কৃষি তথ্য সেবার পাশাপাশি প্রতিটি ইউনিয়নে একজন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তার অফিস ও আবাসনের লক্ষ্য নিয়ে এই কেন্দ্র গড়ে উঠেছিল। যাতে কৃষক কৃষি পরিষেবা সুবিধা তার দোরগোড়ায় পৌছানো। কিন্তু নানা সংকটে এগুলো এখন অকার্যকর। এ উপজেলার ৬টি বীজগার তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে জড়াজীর্ণ অবস্থায় পরে রয়েছে। সংস্কার না করায় বীজাগারের অতি পুরনো পাকা স্থাপনা বা অবকাঠামোগুলো ধসে পড়ার উপক্রম। কোনো কোনোটি ধ্বংস পরিনত হয়েছে। সেখানে বীজ সংরক্ষন,কৃষি প্রযুক্তি সুরক্ষা ও কৃষি বিভাগের কোনো দাপ্তরিক কার্যক্রমই চলছে না। উপজেলার ৬টি বীজাগার হলো দশমিনা ইউনিয়ন, রণগোপালদী ইউনিয়ন, আলীপুর ইউনিয়ন, বেতাগী সানকিপুর ইউনিয়ন, বহরমপুর ইউনিয়ন ও বাশঁবাড়িয়া ইউনিয়ন বীজাগার। অপরদিকে, উপজেলার উদ্ভিদ সংরক্ষন গোডাউন দিন দিন দখল হয়ে যাচ্ছে, বীজাগারগুলো ঘিরে ধরেছে জঙ্গল।

 

দশমিনা ইউনিয়নের আরজবেগী গ্রামের সফল কৃষক হানিফ আকন বলেন, এক সময় ইউনিয়ন বীজাগার থেকে কৃষকরা আপৎকালে মানসম্মত বীজ সংগ্রহ করতেন। এসব বীজাগার থেকে কৃষকরা কৃষি বিষয়ে নানা পরামর্শ সুবিধাও পেতেন। বর্তমানে বীজাগারগুলোর কোনো কার্যক্রম নেই। অথচ কৃষির উন্নয়নে বীজাগার খুবই দরকারি। তিনি আরো বলেন, ইউনিয়ন বীজাগারগুলো চালু করলে কৃষি ও কৃষকের লাভ হবে। উপজেলার সদর ইউনিয়নের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মো.মাহাবুব বলেন, সারাদেশে ইউনিয়ন পর্যায়ে বীজ সংরক্ষণ ও কৃষি তথ্যসেবার পাশাপাশি উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের আবাসনের জন্য সিড হাউসগুলো (বীজাগার) গড়ে তোলা হয়েছিল। সংস্কার ও কার্যক্রম না থাকায় এগুলো পরিত্যক্ত হয়ে পড়ে আছে।উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মোঃ বনি আমিন খাঁন বলেন, এসব বীজাগারে অতিশ্রীর্ঘই দেয়াল নির্মাণ না করলে বেদখলের হাত থেকে রক্ষা করা যাবে না।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited