ভরণপোষণের অভাবে নিঃসন্তান দম্পতির হাতে নবজাতক তুলে দিলেন বাবা

Spread the love

ভরণপোষণ করতে না পেরে বাবা-মা শিশু ছেলেকে তুলে দিলেন আরেক দম্পতির হাতে। যে দম্পতি নিলেন তাদেরও সন্তান না হওয়ার অভাব পূরণ হয়েছে। অভাব পূরণ ও বিনিময়ের এ ঘটনা ঘটেছে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার মাওনা উত্তরপাড়া গ্রামে। ওই এলাকার শাহেদ আলীর ছেলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোমেন মিয়ার শিশুটির বাবা। শিশুটি ৭ জানুয়ারি রাতে মাওনা চৌরাস্তা সুনীল চন্দ্রের প্রাইভেট ক্লিনিকে ভূমিষ্ঠ হয়। মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ভিক্ষা করা যার পেশা সেই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোমেন মিয়ার সংসারে সদস্য সংখ্যা স্ত্রী ও পাঁচ ছেলে মেয়েসহ মোট সাতজন। ভিক্ষা করেই চলে তার সংসার।

 

শিশুর বাবা মোমেন মিয়ার ভাষ্যমতে, শিশুটির ভরণপোষণ করতে না পারায় নিজ তাগিদ থেকেই তিনি তার শিশু সন্তানকে নিঃসন্তান দম্পতির হাতে তুলে দেন। এতে কোনো লিখিত চুক্তি বা আর্থিক লেনদেন হয়নি। তবে ওই দম্পতি তার বাড়িতে এক বস্তা চাল আর চার হাজার টাকা দিয়ে গেছেন। শিশুর মা হোসনা বেগম জানান, অভাবের সংসারে ভরণপোষণের ক্ষমতা নেই। আমাদের আরও পাঁচ সন্তান রয়েছে। তাদেরকে নিয়ে সংসার চালাতে খুব কষ্ট হয়। তাই আমরা এই সন্তানকে কোনো কিছুর বিনিময় ছাড়াই নিঃসন্তান দম্পতিকে দিয়েছি।

 

একই উপজেলার পার্শ্ববর্তী মাওনা ইউনিয়নের বদনী ভাঙ্গা গ্রামের ছাত্তার মিয়া সন্তানের আশায় পর পর দুটি বিয়ে করেন। কিন্তু তার আশা পূরণ হয়নি। প্রথম স্ত্রী ঢাকার একটি হাসপাতাল থেকে একটি ছেলে শিশু এনে লালন পালন করে আসছেন। ছাত্তার মিয়ার দ্বিতীয় স্ত্রী মিনারা বেগমের সন্তান না হওয়ায় মোমেন মিয়ার শিশুটি লালন পালনের জন্য নিয়ে যান। মিনারা বেগম বলেন, মোমেন মিয়ার আরও পাঁচজন সন্তান রয়েছে। তাদের পরিবারের অনুমতিক্রমেই শিশুটিকে আমার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। -যুগান্তর

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» শরীয়তপুরে টাকার অভাবে চিকিৎসা করতে না পেরে আত্নহত্যা করেছে এক যুবক

» কাঁঠালিয়ায় সিসিটিভির ফুটেজ দেখে চোর গ্রেপ্তার

» ঝালকাঠি-বরিশাল রুটে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ, চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

» ঝালকাঠির সুগন্ধা তীরে হচ্ছে ডিসি পার্ক, উদ্যোগ্রের দ্রুত বাস্তবায়ন চায় জেলাবাসী

» জাবিতে ভিসি বিরোধী জোটের নতুন করে পূর্নগঠন

» বিটুমিন পোড়া গন্ধ-বিষাক্ত ধোঁয়া ও বিকট শব্দে স্কুল ও মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের পাঠদান ব্যাহত!

» প্রকৃতির টানে দুই শিক্ষার্থী সাইক্লিস্ট পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটায়

» মৌলভীবাজারে বজ্রপাতে ২ গরুর মৃত্যু

» গলাচিপায় প্রতিবন্ধীকে মারধর হাসপাতালে ভর্তি

» ঝিনাইদহের অজ গ্রামের বনবাদাড়ে নাম না জানা শাঁকসব্জিতে ভরপুর

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন








ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৩রা আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভরণপোষণের অভাবে নিঃসন্তান দম্পতির হাতে নবজাতক তুলে দিলেন বাবা

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

ভরণপোষণ করতে না পেরে বাবা-মা শিশু ছেলেকে তুলে দিলেন আরেক দম্পতির হাতে। যে দম্পতি নিলেন তাদেরও সন্তান না হওয়ার অভাব পূরণ হয়েছে। অভাব পূরণ ও বিনিময়ের এ ঘটনা ঘটেছে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার মাওনা উত্তরপাড়া গ্রামে। ওই এলাকার শাহেদ আলীর ছেলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোমেন মিয়ার শিশুটির বাবা। শিশুটি ৭ জানুয়ারি রাতে মাওনা চৌরাস্তা সুনীল চন্দ্রের প্রাইভেট ক্লিনিকে ভূমিষ্ঠ হয়। মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ভিক্ষা করা যার পেশা সেই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোমেন মিয়ার সংসারে সদস্য সংখ্যা স্ত্রী ও পাঁচ ছেলে মেয়েসহ মোট সাতজন। ভিক্ষা করেই চলে তার সংসার।

 

শিশুর বাবা মোমেন মিয়ার ভাষ্যমতে, শিশুটির ভরণপোষণ করতে না পারায় নিজ তাগিদ থেকেই তিনি তার শিশু সন্তানকে নিঃসন্তান দম্পতির হাতে তুলে দেন। এতে কোনো লিখিত চুক্তি বা আর্থিক লেনদেন হয়নি। তবে ওই দম্পতি তার বাড়িতে এক বস্তা চাল আর চার হাজার টাকা দিয়ে গেছেন। শিশুর মা হোসনা বেগম জানান, অভাবের সংসারে ভরণপোষণের ক্ষমতা নেই। আমাদের আরও পাঁচ সন্তান রয়েছে। তাদেরকে নিয়ে সংসার চালাতে খুব কষ্ট হয়। তাই আমরা এই সন্তানকে কোনো কিছুর বিনিময় ছাড়াই নিঃসন্তান দম্পতিকে দিয়েছি।

 

একই উপজেলার পার্শ্ববর্তী মাওনা ইউনিয়নের বদনী ভাঙ্গা গ্রামের ছাত্তার মিয়া সন্তানের আশায় পর পর দুটি বিয়ে করেন। কিন্তু তার আশা পূরণ হয়নি। প্রথম স্ত্রী ঢাকার একটি হাসপাতাল থেকে একটি ছেলে শিশু এনে লালন পালন করে আসছেন। ছাত্তার মিয়ার দ্বিতীয় স্ত্রী মিনারা বেগমের সন্তান না হওয়ায় মোমেন মিয়ার শিশুটি লালন পালনের জন্য নিয়ে যান। মিনারা বেগম বলেন, মোমেন মিয়ার আরও পাঁচজন সন্তান রয়েছে। তাদের পরিবারের অনুমতিক্রমেই শিশুটিকে আমার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। -যুগান্তর

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited