পটুয়াখালী-৪ আসনে আ’লীগ ও বিএনপি পাল্টা পাল্টি অভিযোগ এনে সম্মেলনে

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,১২ডিসেম্বর।।পটুয়াখালী-৪ (কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী) আসনে নির্বাচনী প্রচারনাকালে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি কর্মীদের মধ্যে সশস্ত্র সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত: দেড় শতাধিক কর্মী সমর্থক আহত হওয়ার পর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছে আ’লীগ ও বিএনপি। দু’দলই হামলায় জড়িত সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবি সহ প্রশাসনের প্রতি নির্বাচন উপযোগী পরিবেশ সৃষ্টির আহবান জানিয়েছেন। এছাড়া উভয় দল তাদের নিজ নিজ সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচনের আগে চিহ্নিত ও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধারের দাবি জানান। মঙ্গলবার বিকালে রাঙ্গাবালীতে নির্বাচনী প্রচারনাকালে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি কর্মীদের মধ্যে সশস্ত্র সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সশস্ত্র হামলার ওই ঘটনায় ২০ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

বুধবার সকাল ১১ টায় কলাপাড়া উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে বিএনপি প্রার্থী ও কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন উপস্থিত সাংবাদিকদের সন্মুখে মহাজোট প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরন বিধি লংঘনসসহ নেতা-কর্মীদের হুমকী ও মারধরের অভিযোগ এনে বিএনপি’র প্রার্থী এবিএম মোশারফ হোসেন লিখিত বক্তব্য বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে রাঙ্গাবালী উপজেলার খালগোড়া বাজারে পথসভা করার আগেই যুবলীগ নেতা রিয়াজ মৃধা, রেসাদ ও চেয়ারম্যান মামুন খানের নেতৃত্বে হামলা করে দলীয় অন্তত: ১৫০ নেতাকর্মীকে আহত ও জখম করে। এসময় চর মোন্তাজ ইউনিয়নের বশির ফকিরের পা কেটে দেয়া হয়। এছাড়া কাওসার আহম্মেদ, সাহজুল মীর, আলাউদ্দিন প্যাদা, সাইদুল গাজী, মন্নান মীর, খোকন, মোকলেছ মীর, রেশাদ, রিয়াদ আকন, রাব্বি, জাকির মোমিন হাওলাদার, মোকলেছুর হাওলাদার, মোশারফ লাহেরী, বেলাল খলিফা ও রহিম খলিফা রক্তাক্ত জখম হয। এরা বরিশাল, কলাপাড়া ও গলাচিপা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে তিঁনি অভিযোগ করেন, ধুলাসারের চিহ্নিত সন্ত্রাসী ইউনুচ দালাল, শাকিল, এমদাদ মৃধা, হাবিবের নেতৃত্বে মঙ্গলবার চাপলী বাজারের বিএনপির নির্বাচনী কার্যালয়ের চেয়ার টেবিল লুট করে নেয়া হয়। ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নে প্রচার মাইক ভাংচুর করা হয়। একইদিন কুয়াকাটায় আওয়ামীলীগের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মজিবর, মিলন পাহলান, খালেক খান ও মহিবুল্লাহ চৌকিদারের নেতৃত্বে প্রচার মাইক ভাংচুর করা হয়। মহিপুর বাজারে নির্বাচনী প্রচারে বাঁধা দেয়া হয়। এ ঘটনায় নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ তার।

 

এদিকে কলাপাড়া প্রেসক্লাবে বেলা ১২টায় অপর এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামীলীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম রাকিবুল আহসান লিখিত বক্তব্যে আওয়ামীগের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন, রাঙ্গাবালীতে আ’লীগের নির্ধারিত পথসভা চলছিল। তার পাশে ধানের শীষ প্রতীকের পথসভার আয়োজন করে বিএনপি। এসময় বিএনপি প্রার্থী এবিএম মোশাররফ হোসেন পথ সভায় উপস্থিত হওয়ার সাথে সাথে জামায়াত ও বিএনপির চিহ্নিত সন্ত্রাসী কবির তালুকদার, রহমান মাষ্টার, সাবু মিয়া, সোহাগ আকন, জাকির, নিয়াজ, বিপু, ইব্রাহীম, রহমান ফরাজী, মোতালেব হাওলাদার, মামুন হাওলাদার ও রাকিব হাওলাদারের নেতৃত্বে অতর্কিত হামলা চালায় আ’লীগ কর্মী সমর্থকদের ওপর। হামলায় রাঙ্গাবালী উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক লিটু, হাবিবুল বসার তোতা, শাহারুল হাওলাদার, কালাম হাওলাদার, রাহাত, ইউপি সদস্য শিমুল , সাদ্দাম, সোহেল মীর, মহাসীন, বিপ্লব, আতিকুর, কামাল, সোহেল মিয়াসহ অর্ধশত আহত হয়। এরা বর্তমানে কলাপাড়া, গলাচিপা ও বরিশালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তিনি বলেন, ধুলাসার, মহীপুর ও কুয়াকাটায় যে ঘটনার উল্লেখ করা হয়েছে এবং যাদের নাম বলা হয়েছে তারা আ’লীগের কেউ নয়। এ হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের সাথে আ’লীগের কেউ জড়িত নয় বলে দাবী তার। আ’লীগের সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কলাপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব তালুকদার, পৌরসভার মেয়র বিপুল চন্দ্র হাওলাদার, অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, অধ্যক্ষ সৈয়দ নাসির উদ্দীন, অ্যাডভোকেট বিমল সমাদ্দার প্রমূখ।

 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত কলাপাড়ান উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব তালুকদার বলেন, এ আসনটি আ’লীগের ঘাটি। নৌকা এখানে নিশ্চিত বিজয়ী হবে। বিএনপি নিশ্চিত পরাজয় হবে বুঝতে পেরে এখন হামলা ও লুটপাটের মিথ্যা গল্প বানিয়ে প্রচার করছে। পৌরসভার মেয়র বিপুল চন্দ্র হাওলাদার বলেন, বিএনপি যেসব আহতদের নাম উল্লেখস করেছে তারা স্থানীয় কেউ না, বহিরাগত। এই বহিরাগত সন্ত্রাসীরা এ অনাকাঙ্খিত পরিবেশ সৃষ্টির জন্যই জড়ো হয়েছিলো। যাদের কয়েকজনকে পুলিশ ট্রলারসহ আটক করেছে। রাঙ্গাবালী থানায় ওসি মিলন কৃষ্ণ মিত্র সাংকাদিকদের জানান, আ’লীগের পক্ষ থেকে রাঙ্গাবালী থানায় বিশেষ ক্ষমতা ও বিস্ফোরক আইনে ৪৫ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ইতোমধ্যে ২০জনকে আটক করেছে। তবে বিএনপি’র পক্ষ থেকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন মামলা দায়ের করার তথ্য জানা যায়নি।

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» কলাপাড়ায় আলোচিত শ্রমিকলীগ সভাপতি বুদাই দল থেকে বহিস্কার

» মৌলভীবাজারে এইচআইভি/এইডস বিষয়ক মতবিনিময় সভা

» দশমিনায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ত্রান বিতরন

» ভারতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রিমঝিম মিত্র গ্রেফতার

» ইউটিউবে নতুন নীতিমালা, সংকটের মুখে ইউটিউবাররা

» বাবরি মসজিদে জমি দেওয়া নিয়ে যা বললেন তসলিমা নাসরিন

» বুলবুলকে মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে সুন্দরবন

» ঝিনাইদহের সিমান্তে বিজিবি কর্তৃক সাড়ে ২৯ লাখ টাকার ২১৬টি সোনার আংটি উদ্ধার

» গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের চেষ্টা : আটক ১০

» রাজাপুরে পিতার মাথায় রড ঢুকিয়ে হত্যার ঘটনায় ঘাতক ছেলে গ্রেফতার

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ২৮শে কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পটুয়াখালী-৪ আসনে আ’লীগ ও বিএনপি পাল্টা পাল্টি অভিযোগ এনে সম্মেলনে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,১২ডিসেম্বর।।পটুয়াখালী-৪ (কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী) আসনে নির্বাচনী প্রচারনাকালে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি কর্মীদের মধ্যে সশস্ত্র সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত: দেড় শতাধিক কর্মী সমর্থক আহত হওয়ার পর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছে আ’লীগ ও বিএনপি। দু’দলই হামলায় জড়িত সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবি সহ প্রশাসনের প্রতি নির্বাচন উপযোগী পরিবেশ সৃষ্টির আহবান জানিয়েছেন। এছাড়া উভয় দল তাদের নিজ নিজ সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচনের আগে চিহ্নিত ও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধারের দাবি জানান। মঙ্গলবার বিকালে রাঙ্গাবালীতে নির্বাচনী প্রচারনাকালে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি কর্মীদের মধ্যে সশস্ত্র সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সশস্ত্র হামলার ওই ঘটনায় ২০ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

বুধবার সকাল ১১ টায় কলাপাড়া উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে বিএনপি প্রার্থী ও কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন উপস্থিত সাংবাদিকদের সন্মুখে মহাজোট প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরন বিধি লংঘনসসহ নেতা-কর্মীদের হুমকী ও মারধরের অভিযোগ এনে বিএনপি’র প্রার্থী এবিএম মোশারফ হোসেন লিখিত বক্তব্য বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে রাঙ্গাবালী উপজেলার খালগোড়া বাজারে পথসভা করার আগেই যুবলীগ নেতা রিয়াজ মৃধা, রেসাদ ও চেয়ারম্যান মামুন খানের নেতৃত্বে হামলা করে দলীয় অন্তত: ১৫০ নেতাকর্মীকে আহত ও জখম করে। এসময় চর মোন্তাজ ইউনিয়নের বশির ফকিরের পা কেটে দেয়া হয়। এছাড়া কাওসার আহম্মেদ, সাহজুল মীর, আলাউদ্দিন প্যাদা, সাইদুল গাজী, মন্নান মীর, খোকন, মোকলেছ মীর, রেশাদ, রিয়াদ আকন, রাব্বি, জাকির মোমিন হাওলাদার, মোকলেছুর হাওলাদার, মোশারফ লাহেরী, বেলাল খলিফা ও রহিম খলিফা রক্তাক্ত জখম হয। এরা বরিশাল, কলাপাড়া ও গলাচিপা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে তিঁনি অভিযোগ করেন, ধুলাসারের চিহ্নিত সন্ত্রাসী ইউনুচ দালাল, শাকিল, এমদাদ মৃধা, হাবিবের নেতৃত্বে মঙ্গলবার চাপলী বাজারের বিএনপির নির্বাচনী কার্যালয়ের চেয়ার টেবিল লুট করে নেয়া হয়। ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নে প্রচার মাইক ভাংচুর করা হয়। একইদিন কুয়াকাটায় আওয়ামীলীগের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মজিবর, মিলন পাহলান, খালেক খান ও মহিবুল্লাহ চৌকিদারের নেতৃত্বে প্রচার মাইক ভাংচুর করা হয়। মহিপুর বাজারে নির্বাচনী প্রচারে বাঁধা দেয়া হয়। এ ঘটনায় নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ তার।

 

এদিকে কলাপাড়া প্রেসক্লাবে বেলা ১২টায় অপর এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামীলীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম রাকিবুল আহসান লিখিত বক্তব্যে আওয়ামীগের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন, রাঙ্গাবালীতে আ’লীগের নির্ধারিত পথসভা চলছিল। তার পাশে ধানের শীষ প্রতীকের পথসভার আয়োজন করে বিএনপি। এসময় বিএনপি প্রার্থী এবিএম মোশাররফ হোসেন পথ সভায় উপস্থিত হওয়ার সাথে সাথে জামায়াত ও বিএনপির চিহ্নিত সন্ত্রাসী কবির তালুকদার, রহমান মাষ্টার, সাবু মিয়া, সোহাগ আকন, জাকির, নিয়াজ, বিপু, ইব্রাহীম, রহমান ফরাজী, মোতালেব হাওলাদার, মামুন হাওলাদার ও রাকিব হাওলাদারের নেতৃত্বে অতর্কিত হামলা চালায় আ’লীগ কর্মী সমর্থকদের ওপর। হামলায় রাঙ্গাবালী উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক লিটু, হাবিবুল বসার তোতা, শাহারুল হাওলাদার, কালাম হাওলাদার, রাহাত, ইউপি সদস্য শিমুল , সাদ্দাম, সোহেল মীর, মহাসীন, বিপ্লব, আতিকুর, কামাল, সোহেল মিয়াসহ অর্ধশত আহত হয়। এরা বর্তমানে কলাপাড়া, গলাচিপা ও বরিশালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তিনি বলেন, ধুলাসার, মহীপুর ও কুয়াকাটায় যে ঘটনার উল্লেখ করা হয়েছে এবং যাদের নাম বলা হয়েছে তারা আ’লীগের কেউ নয়। এ হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের সাথে আ’লীগের কেউ জড়িত নয় বলে দাবী তার। আ’লীগের সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কলাপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব তালুকদার, পৌরসভার মেয়র বিপুল চন্দ্র হাওলাদার, অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, অধ্যক্ষ সৈয়দ নাসির উদ্দীন, অ্যাডভোকেট বিমল সমাদ্দার প্রমূখ।

 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত কলাপাড়ান উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব তালুকদার বলেন, এ আসনটি আ’লীগের ঘাটি। নৌকা এখানে নিশ্চিত বিজয়ী হবে। বিএনপি নিশ্চিত পরাজয় হবে বুঝতে পেরে এখন হামলা ও লুটপাটের মিথ্যা গল্প বানিয়ে প্রচার করছে। পৌরসভার মেয়র বিপুল চন্দ্র হাওলাদার বলেন, বিএনপি যেসব আহতদের নাম উল্লেখস করেছে তারা স্থানীয় কেউ না, বহিরাগত। এই বহিরাগত সন্ত্রাসীরা এ অনাকাঙ্খিত পরিবেশ সৃষ্টির জন্যই জড়ো হয়েছিলো। যাদের কয়েকজনকে পুলিশ ট্রলারসহ আটক করেছে। রাঙ্গাবালী থানায় ওসি মিলন কৃষ্ণ মিত্র সাংকাদিকদের জানান, আ’লীগের পক্ষ থেকে রাঙ্গাবালী থানায় বিশেষ ক্ষমতা ও বিস্ফোরক আইনে ৪৫ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ইতোমধ্যে ২০জনকে আটক করেছে। তবে বিএনপি’র পক্ষ থেকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন মামলা দায়ের করার তথ্য জানা যায়নি।

 

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited