হিরো আলমের কষ্টের জীবন ও সুখি সংসারের গল্প

হিরো আলম। সমসাময়িক আলোচনার শীর্ষে এই সেলিব্রেটি। পুরো নাম আশরাফুল হোসেন আলম। ছোটবেলা থেকে নাচ গান আর অভিনয়ের সাথে সম্পর্ক। পরবর্তীতে নিজেই ছোট ছোট অনুষ্ঠানে অভিনয় করে হিরো নামে খ্যাতি পান। বর্তমানে একাদশ সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ আসন থেকে নির্বাচন করতে চাওয়ায় দেশজুড়ে আলোচনার শীর্ষে আসেন তিনি। হিরো আলমের বাড়ি বগুড়া সদরের এরুলিয়া ইউনিয়নের পলিবাড়ীতে। এটি তার পালক বাবার বাড়ি। আর আপন বাবা- মায়ের বাড়ি একই গ্রামের পশ্চিমপাড়ায়।

 

হিরো আলমের বয়স যখন ১০-১২ বছর তখন থেকে তার পালক বাবা আব্দুর রাজ্জাক তাকে লালন পালনের দায়িত্ব নেন। অতি গরিব ঘরে জন্ম নেওয়া হিরো আলমের বাবা আহম্মদ আলী বাড়িতে চানাচুর, আঁচার বানাতেন। সেই চানাচুর এবং আঁচার গ্রামে গ্রামে বিক্রি করতেন হিরো আলম এবং তার বাবা। পরবর্তীতে বাবা আরেকটি বিয়ে করলে বাড়িতে অভাব অনটন এবং অশান্তির কারণে পালক বাবার কাছে চলে যান তিনি। সেখানে গিয়ে ৭ম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। পরে কেবল নেটওয়ার্কের ব্যবসা এবং মিউজিক ভিডিও সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন হিরো আলম।

 

২০০৭ সালে পার্শ্ববর্তী গ্রামের শাহপাড়ার মেয়ে সুমীর সঙ্গে বিয়ে হয় আলমের। হিরো আলমের বড় মেয়ে আলোমনি দ্বিতীয় শ্রেণী মেজো মেয়ে আঁখি, ১ম শ্রেণির ছাত্রী এবং ছেলে আবিরের বয়স চার বছর। তিন সন্তান ও স্ত্রী সুমীকে নিয়েই সংসার। হিরো আলমের মতো সুমীরও দাবি, তার সুখের সংসার। হিরো আলমের স্ত্রী সাবিহা আক্তার সুমির কাছে সময়নিউজের প্রশ্ন ছিল আশরাফুলের হিরো হিসেবে খ্যাতি পাওয়ার পেছনে তার অবদান কতটুকু। উত্তরে সুমি বলেন, ডিসের ব্যবসার পাশাপাশি মিউজিক ভিডিও নিয়ে পড়ে থাকতেন তিনি, আলম খোলা মনের মানুষ। সারাদিনে যা-যা ঘটে সবকিছুই রাতে খুলে বলতেন, সমঝোতা ছিল ভালো। তিনিও উৎসাহ দিতেন এসব কাজে।

 

অন্য মেয়ে নিয়ে নাচানাচি আপনার মনে কষ্ট দেয় না এমন প্রশ্নের উত্তরে সুমি বলেন, এটি তো তার ক্যারিয়ার, ব্যবসা। এর সঙ্গে সংসার জীবনে কোনো প্রভাব এখনো পড়েনি। সংসারের খরচ চালানো নিয়ে সুমী বলেন, ‘ডিশ ব্যবসার সমস্ত হিসাব কিতাব আমি দেখি। মাসে খরচ বাদে ৫০ হাজার টাকা মতো থাকে তা দিয়েই সংসার বেশ ভালোই চলে। লাইনের কোনো সমস্যা হলে কাজের লোক দিয়ে আব্বাকে (শ্বশুর) পাঠাই। ডিশ ব্যবসায় হেল্প করার জন্য আমাদের এখানে মোট ৮ জন লোক কাজ করে। আলম না থাকলেও আমরা সবকিছু সামলে নেই।

 

তার আপন বাবার বাড়িতে গিয়ে দেখা গেলো, তার মা মনোয়ারা বেগম জীর্ণ মাটির ঘরে তালা দিয়ে বাবার বাড়িতে চলে গেছেন। এছাড়া আলমের সৎ মাও ছিল না বাড়িতে। আর হিরো আলমের আপন বাবা আহম্মদ আলী মারা গেছেন দেড় বছর আগে।চাচাতো ভাবী মমতাজ বেগম সময় নিউজকে জানালেন হিরো আলমের ছোট বেলা কষ্টের কথা। ভাবী বলেন, ছোটবেলা খুব কষ্ট করে চলেছে। বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করেছে। এরপর থেকে আচার, চানাচুর বানিয়ে চলত, পরে ডিশ লাইন থেকে নাচগানে চলে গেল। এখন এমপিতে দাঁড়াচ্ছে। আমরাও চাই পাস করুক। ভালো কিছু করুক। হিরো আলম ৪ ভাই বোনের মধ্যে দ্বিতীয়। তার বড় বোনের নাম মিনি বেগম এবং ছোট দুই বোন রিনি এবং রঞ্জনা। -সময় নিউজ

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» ঝিনাইদহের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ

» আত্রাইয়ে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক সচেতনতা সভা

» হঠাৎ বিদ্রোহের ডাক দিলেন ক্রিকেটাররা, যে ঘোষণা দিলেন সাকিব

» ভোলায় পুলিশ-জনতা সংঘর্ষে নিরাপরাধ মানুষের প্রাণহানির সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন

» ময়মনসিংহ শহরে পুলিশের ঘিরে রাখা ব্যাগে মিললো পুরুষের খণ্ডিত মরদেহ

» ভোলার ঘটনার প্রতিবাদে ঢাকার মোহাম্মদপুরে সড়ক অবরোধ

» ৩ চেকে ৫ কোটি! ১৪ দিনের রিমান্ডে কাউন্সিলর রাজীব

» ভারতের ভয়ানক হামলা, পাকিস্তানের ১০ সেনা নিহত

» গুজবে কান না দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

» হামলা থেকে রক্ষায় মন্দিরের নিরাপত্তায় হাটহাজারী মাদ্রাসাছাত্ররা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৫ই কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

হিরো আলমের কষ্টের জীবন ও সুখি সংসারের গল্প

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

হিরো আলম। সমসাময়িক আলোচনার শীর্ষে এই সেলিব্রেটি। পুরো নাম আশরাফুল হোসেন আলম। ছোটবেলা থেকে নাচ গান আর অভিনয়ের সাথে সম্পর্ক। পরবর্তীতে নিজেই ছোট ছোট অনুষ্ঠানে অভিনয় করে হিরো নামে খ্যাতি পান। বর্তমানে একাদশ সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ আসন থেকে নির্বাচন করতে চাওয়ায় দেশজুড়ে আলোচনার শীর্ষে আসেন তিনি। হিরো আলমের বাড়ি বগুড়া সদরের এরুলিয়া ইউনিয়নের পলিবাড়ীতে। এটি তার পালক বাবার বাড়ি। আর আপন বাবা- মায়ের বাড়ি একই গ্রামের পশ্চিমপাড়ায়।

 

হিরো আলমের বয়স যখন ১০-১২ বছর তখন থেকে তার পালক বাবা আব্দুর রাজ্জাক তাকে লালন পালনের দায়িত্ব নেন। অতি গরিব ঘরে জন্ম নেওয়া হিরো আলমের বাবা আহম্মদ আলী বাড়িতে চানাচুর, আঁচার বানাতেন। সেই চানাচুর এবং আঁচার গ্রামে গ্রামে বিক্রি করতেন হিরো আলম এবং তার বাবা। পরবর্তীতে বাবা আরেকটি বিয়ে করলে বাড়িতে অভাব অনটন এবং অশান্তির কারণে পালক বাবার কাছে চলে যান তিনি। সেখানে গিয়ে ৭ম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। পরে কেবল নেটওয়ার্কের ব্যবসা এবং মিউজিক ভিডিও সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন হিরো আলম।

 

২০০৭ সালে পার্শ্ববর্তী গ্রামের শাহপাড়ার মেয়ে সুমীর সঙ্গে বিয়ে হয় আলমের। হিরো আলমের বড় মেয়ে আলোমনি দ্বিতীয় শ্রেণী মেজো মেয়ে আঁখি, ১ম শ্রেণির ছাত্রী এবং ছেলে আবিরের বয়স চার বছর। তিন সন্তান ও স্ত্রী সুমীকে নিয়েই সংসার। হিরো আলমের মতো সুমীরও দাবি, তার সুখের সংসার। হিরো আলমের স্ত্রী সাবিহা আক্তার সুমির কাছে সময়নিউজের প্রশ্ন ছিল আশরাফুলের হিরো হিসেবে খ্যাতি পাওয়ার পেছনে তার অবদান কতটুকু। উত্তরে সুমি বলেন, ডিসের ব্যবসার পাশাপাশি মিউজিক ভিডিও নিয়ে পড়ে থাকতেন তিনি, আলম খোলা মনের মানুষ। সারাদিনে যা-যা ঘটে সবকিছুই রাতে খুলে বলতেন, সমঝোতা ছিল ভালো। তিনিও উৎসাহ দিতেন এসব কাজে।

 

অন্য মেয়ে নিয়ে নাচানাচি আপনার মনে কষ্ট দেয় না এমন প্রশ্নের উত্তরে সুমি বলেন, এটি তো তার ক্যারিয়ার, ব্যবসা। এর সঙ্গে সংসার জীবনে কোনো প্রভাব এখনো পড়েনি। সংসারের খরচ চালানো নিয়ে সুমী বলেন, ‘ডিশ ব্যবসার সমস্ত হিসাব কিতাব আমি দেখি। মাসে খরচ বাদে ৫০ হাজার টাকা মতো থাকে তা দিয়েই সংসার বেশ ভালোই চলে। লাইনের কোনো সমস্যা হলে কাজের লোক দিয়ে আব্বাকে (শ্বশুর) পাঠাই। ডিশ ব্যবসায় হেল্প করার জন্য আমাদের এখানে মোট ৮ জন লোক কাজ করে। আলম না থাকলেও আমরা সবকিছু সামলে নেই।

 

তার আপন বাবার বাড়িতে গিয়ে দেখা গেলো, তার মা মনোয়ারা বেগম জীর্ণ মাটির ঘরে তালা দিয়ে বাবার বাড়িতে চলে গেছেন। এছাড়া আলমের সৎ মাও ছিল না বাড়িতে। আর হিরো আলমের আপন বাবা আহম্মদ আলী মারা গেছেন দেড় বছর আগে।চাচাতো ভাবী মমতাজ বেগম সময় নিউজকে জানালেন হিরো আলমের ছোট বেলা কষ্টের কথা। ভাবী বলেন, ছোটবেলা খুব কষ্ট করে চলেছে। বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করেছে। এরপর থেকে আচার, চানাচুর বানিয়ে চলত, পরে ডিশ লাইন থেকে নাচগানে চলে গেল। এখন এমপিতে দাঁড়াচ্ছে। আমরাও চাই পাস করুক। ভালো কিছু করুক। হিরো আলম ৪ ভাই বোনের মধ্যে দ্বিতীয়। তার বড় বোনের নাম মিনি বেগম এবং ছোট দুই বোন রিনি এবং রঞ্জনা। -সময় নিউজ

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited