দুঃসংবাদ জানিয়ে অস্ট্রেলিয়া গেলেন সাকিব

Spread the love

আঙুলে ইনজুরির কারণে এশিয়া কাপের খেলা শেষ হওয়ার আগেই দেশে ফিরে এসেছিলেন দেশ সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। আঙুলে পুঁজ জমে যাওয়ায় তা বের করতে সার্জারি করেন রাজধানী ঢাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে। এই মুহূর্তে সাকিবের অস্ত্রোপচার করা খুব জরুরি হলেও আঙুলের যে পরিস্থিতি, তাতে অস্ত্রোপচার করতে আরও কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে। তাই অস্ত্রোপচার বিষয়ে মতামত নিতে অস্ট্রেলিয়া গেছেন সাকিব। সেখানে অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত হ্যান্ড সার্জন গ্রেগ হয়কে চোট পাওয়া বাঁ হাতটা দেখাবেন এবং অস্ত্রোপচার নিয়ে আলোচনা করবেন।

 

দেশ ছাড়ার আগে সাকিব সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলে এক দুঃসংবাদ দিয়েছেন। আর তা হল তার চোটগ্রস্ত আঙুলটি আর কখনওই স্বাভাবিক হবে না। তবে কবে অস্ত্রোপচার করা হবে তা গ্রেগ হয়ের পরামর্শ অনুযায়ী ঠিক হবে। অস্ট্রেলিয়ান চিকিৎসককে দেখিয়ে পাঁচ দিন পর ফিরে আসার কথা রয়েছে সাকিবের। ফলে চলতি বছর আর মাঠে দেখা যাবে না সাকিব আল হাসানকে। আগামী বছর ঠিক কবে তাকে মাঠে দেখা যাবে সেটাও এখন নিশ্চিত নয়। তবে জানুয়ারির বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ঢাকা ডায়নামাইটের এই আইকন খেলার ব্যাপারে আশাবাদী। সম্ভাবনা আছে ফেব্রুয়ারির নিউজিল্যান্ড সফরেও। কিন্তু কোন কিছুই এখন চূড়ান্ত করে বলা যাচ্ছে না।

 

শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব বলেন, ওই আঙুলটা আর কখনো শতভাগ ঠিক হবে না। কারণ, এটা হচ্ছে হাড্ডিটা যেটা নরম হাড্ডি। এটা আর কখনো জোড়া লাগার সম্ভাবনা নাই। অতএব পুরোপুরি ঠিক হবে না কিন্তু সার্জারিটা হবে এমন যে, ওরা এমন একটা সিচুয়েশনে এনে দিবে যেখান থেকে আমি ব্যাট-ট্যাড ভালোভাবে ধরতে পারবো, ক্রিকেট খেলাটা চালাতে পারবো। সাকিব বলেন, তিন মাসের যে টাইমফ্রেম তাতে এক সপ্তাহর বেশি হয়ে গেল। এখন পর্যন্ত তো আমি আশাবাদী যে প্রথম থেকেই খেলতে পারবো। তিনি বলেন, এখন অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছি, তারা যদি বেটার কোন ট্রিটমেন্ট দিতে পারেন তাহলে আরও তাড়াতাড়ি হয়তো সারার সম্ভাবনা থাকবে। সাকিব বলেন, এখন সবার আগে ইনফেকশনটা দূর করতে হবে। ওটা চলে গেলেই আসলে বোঝা যাবে কত সময় লাগবে। আর মেইন সার্জারি যেটা করার কথা ওটা হলে ছয় থেকে আট সপ্তাহ।

 

নরমালি ছয় সপ্তাহ লাগে। দুই সপ্তাহ বেশি ধরা হয়। যদি ছয় সপ্তাহ হয় তাহলে বিপিএলের বেশ আগেই ফিট হয়ে যাবো বলে উল্লেখ করেন সাকিব। তিনি বলেন, যদি শুধু সার্জারিটা করা লাগতো তাহলে আমার আসলে খুব একটা খারাপ লগতো না। যেহেতু এটা অনেক আগের ইনজুরি, আমি জানি যে আমার সার্জারি করা লাগবে। মানসিকভাবে আমি প্রস্তুত ছিলাম। আসলে ইনফেকশন আমার সবথেকে বড় টেনশনের জায়গাটা। কারণ, ওটা যতক্ষণ পর্যন্ত না জিরো পার্সেন্টে আসবে, কোনো সার্জন হাত দেবে না। ওটা হাত দিলে পরে বোনে (হাড়) চলে যাবে আর হাড়ে চলে গেলে পুরো হাত নষ্ট। এখন আমার মেইন পয়েন্ট হচ্ছে কিভাবে ইনফেকশনটা সারানো যায়। অস্ট্রেলিয়ায় আমি ইনফেকশনের ট্রিটমেন্টের জন্যই যাচ্ছি, আর কোনো ট্রিটমেন্টের জন্য যাচ্ছি না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

 

ইনফেকশন ঠিক হলে যাবেন ছুরি কাঁচির নিচে। তবে সেটা শতভাগ ঠিক হবে না জানিয়ে সাকিব বলেন, ইনজুরির দিক থেকে এটাই তো আসলে সব থেকে বড়। এর আগে যে সার্জারিটা হয়েছিল ওটা খুব বেশিদিনের না। যদিও ওটা প্রথমেই যদি সঠিক ট্রিটমেন্ট হত তাহলে অনেক কম সময়ে হয়ে যেতো।  তবে ওটা আসলে অত বেশি চিন্তার ছিল না। এটা আমার কাছে মনে হয় বেশি। একটা জিনিস যে, হাতটা পুরোপুরি তো আর ওইভাবে ঠিক হবে না কিন্তু ক্রিকেট খেলার মতো ঠিক করতে হবে আঙুলটা। সাকিবের পাশাপাশি চোটে পড়ে তামিম ইকবালও এখন মাঠের বাইরে। এছাড়া মাশরাফি বিন মুর্তজা, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিমও কিছুটা চোটে পড়েছেন।

 

আসন্ন দেশের মাঠে জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি হোম সিরিজে দলের এই পাঁচ ভরসার সেবা বাংলাদেশ একসঙ্গে পাবে না। এতে বাংলাদেশ দল প্রতিপক্ষের কাছে পিছিয়ে পড়ছে কিনা? উত্তরে সাকিব বলেন, সবাই মনে করে সিনিয়র খেলোয়াড় ছাড়া দল চলবে না। কিন্তু এশিয়া কাপে যারা (জুনিয়ররা) সুযোগ পেল তারা কিন্তু ঠিকই পেরেছে। আরও কিছু খেলোয়াড় না থাকলেও আশা করি কোন সমস্যা হবে না।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» বেনাপোল প্যাসেঞ্জার টার্মিনাল থেকে ১৮ লাখ ভারতীয় রুপিসহ আটক-১

» বরগুনার পাথরঘাটায় গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

» নোবেলের আসল চেহারা ফাঁস করলো কলকাতা মিডিয়া!

» এবার ভারতে ইসলাম গ্রহণের হিড়িক

» গাজীপুরে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকায় ৩৭ যুবক-যুবতীকে গ্রেফতার

» আসামি ধরতে এবার ‘হুজুর’ সাজলেন পুলিশ

» মনের সুখই আসল সুখ বা অপরকে সুখী করানোই প্রকৃত সুখ

» কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বাংলাদেশী নিহত

» বেনাপোল চেকপোস্ট নারীর ব্যাগে মিলল ৪০ হাজার ডলার ও ১৩ লাখ রুপি

» বাংলাদেশের নতুন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৪ঠা ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দুঃসংবাদ জানিয়ে অস্ট্রেলিয়া গেলেন সাকিব

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

আঙুলে ইনজুরির কারণে এশিয়া কাপের খেলা শেষ হওয়ার আগেই দেশে ফিরে এসেছিলেন দেশ সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। আঙুলে পুঁজ জমে যাওয়ায় তা বের করতে সার্জারি করেন রাজধানী ঢাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে। এই মুহূর্তে সাকিবের অস্ত্রোপচার করা খুব জরুরি হলেও আঙুলের যে পরিস্থিতি, তাতে অস্ত্রোপচার করতে আরও কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে। তাই অস্ত্রোপচার বিষয়ে মতামত নিতে অস্ট্রেলিয়া গেছেন সাকিব। সেখানে অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত হ্যান্ড সার্জন গ্রেগ হয়কে চোট পাওয়া বাঁ হাতটা দেখাবেন এবং অস্ত্রোপচার নিয়ে আলোচনা করবেন।

 

দেশ ছাড়ার আগে সাকিব সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলে এক দুঃসংবাদ দিয়েছেন। আর তা হল তার চোটগ্রস্ত আঙুলটি আর কখনওই স্বাভাবিক হবে না। তবে কবে অস্ত্রোপচার করা হবে তা গ্রেগ হয়ের পরামর্শ অনুযায়ী ঠিক হবে। অস্ট্রেলিয়ান চিকিৎসককে দেখিয়ে পাঁচ দিন পর ফিরে আসার কথা রয়েছে সাকিবের। ফলে চলতি বছর আর মাঠে দেখা যাবে না সাকিব আল হাসানকে। আগামী বছর ঠিক কবে তাকে মাঠে দেখা যাবে সেটাও এখন নিশ্চিত নয়। তবে জানুয়ারির বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ঢাকা ডায়নামাইটের এই আইকন খেলার ব্যাপারে আশাবাদী। সম্ভাবনা আছে ফেব্রুয়ারির নিউজিল্যান্ড সফরেও। কিন্তু কোন কিছুই এখন চূড়ান্ত করে বলা যাচ্ছে না।

 

শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব বলেন, ওই আঙুলটা আর কখনো শতভাগ ঠিক হবে না। কারণ, এটা হচ্ছে হাড্ডিটা যেটা নরম হাড্ডি। এটা আর কখনো জোড়া লাগার সম্ভাবনা নাই। অতএব পুরোপুরি ঠিক হবে না কিন্তু সার্জারিটা হবে এমন যে, ওরা এমন একটা সিচুয়েশনে এনে দিবে যেখান থেকে আমি ব্যাট-ট্যাড ভালোভাবে ধরতে পারবো, ক্রিকেট খেলাটা চালাতে পারবো। সাকিব বলেন, তিন মাসের যে টাইমফ্রেম তাতে এক সপ্তাহর বেশি হয়ে গেল। এখন পর্যন্ত তো আমি আশাবাদী যে প্রথম থেকেই খেলতে পারবো। তিনি বলেন, এখন অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছি, তারা যদি বেটার কোন ট্রিটমেন্ট দিতে পারেন তাহলে আরও তাড়াতাড়ি হয়তো সারার সম্ভাবনা থাকবে। সাকিব বলেন, এখন সবার আগে ইনফেকশনটা দূর করতে হবে। ওটা চলে গেলেই আসলে বোঝা যাবে কত সময় লাগবে। আর মেইন সার্জারি যেটা করার কথা ওটা হলে ছয় থেকে আট সপ্তাহ।

 

নরমালি ছয় সপ্তাহ লাগে। দুই সপ্তাহ বেশি ধরা হয়। যদি ছয় সপ্তাহ হয় তাহলে বিপিএলের বেশ আগেই ফিট হয়ে যাবো বলে উল্লেখ করেন সাকিব। তিনি বলেন, যদি শুধু সার্জারিটা করা লাগতো তাহলে আমার আসলে খুব একটা খারাপ লগতো না। যেহেতু এটা অনেক আগের ইনজুরি, আমি জানি যে আমার সার্জারি করা লাগবে। মানসিকভাবে আমি প্রস্তুত ছিলাম। আসলে ইনফেকশন আমার সবথেকে বড় টেনশনের জায়গাটা। কারণ, ওটা যতক্ষণ পর্যন্ত না জিরো পার্সেন্টে আসবে, কোনো সার্জন হাত দেবে না। ওটা হাত দিলে পরে বোনে (হাড়) চলে যাবে আর হাড়ে চলে গেলে পুরো হাত নষ্ট। এখন আমার মেইন পয়েন্ট হচ্ছে কিভাবে ইনফেকশনটা সারানো যায়। অস্ট্রেলিয়ায় আমি ইনফেকশনের ট্রিটমেন্টের জন্যই যাচ্ছি, আর কোনো ট্রিটমেন্টের জন্য যাচ্ছি না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

 

ইনফেকশন ঠিক হলে যাবেন ছুরি কাঁচির নিচে। তবে সেটা শতভাগ ঠিক হবে না জানিয়ে সাকিব বলেন, ইনজুরির দিক থেকে এটাই তো আসলে সব থেকে বড়। এর আগে যে সার্জারিটা হয়েছিল ওটা খুব বেশিদিনের না। যদিও ওটা প্রথমেই যদি সঠিক ট্রিটমেন্ট হত তাহলে অনেক কম সময়ে হয়ে যেতো।  তবে ওটা আসলে অত বেশি চিন্তার ছিল না। এটা আমার কাছে মনে হয় বেশি। একটা জিনিস যে, হাতটা পুরোপুরি তো আর ওইভাবে ঠিক হবে না কিন্তু ক্রিকেট খেলার মতো ঠিক করতে হবে আঙুলটা। সাকিবের পাশাপাশি চোটে পড়ে তামিম ইকবালও এখন মাঠের বাইরে। এছাড়া মাশরাফি বিন মুর্তজা, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিমও কিছুটা চোটে পড়েছেন।

 

আসন্ন দেশের মাঠে জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি হোম সিরিজে দলের এই পাঁচ ভরসার সেবা বাংলাদেশ একসঙ্গে পাবে না। এতে বাংলাদেশ দল প্রতিপক্ষের কাছে পিছিয়ে পড়ছে কিনা? উত্তরে সাকিব বলেন, সবাই মনে করে সিনিয়র খেলোয়াড় ছাড়া দল চলবে না। কিন্তু এশিয়া কাপে যারা (জুনিয়ররা) সুযোগ পেল তারা কিন্তু ঠিকই পেরেছে। আরও কিছু খেলোয়াড় না থাকলেও আশা করি কোন সমস্যা হবে না।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited