রাজনগরে অপহরন মামলায় নেছারসহ ২ আসামী এখনও গ্রেফতার হয়নি

Spread the love

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়নস্থিত মনসুরনগর গ্রামের সৌদিআরব প্রবাসী চেরাগ আলীর ১৫ বছর বয়সী কিশোরী কন্যা তছলিমা আক্তার রুমির অপহারক নেছারসহ ২ আসামী এখনও অধরা।

 

প্রায় ২ মাস অতিক্রান্ত হতে চললেও, অব্যাহত অভিযান চালিয়েও পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করতে পারছেনা। জানা গেছে- সহোদর ভাই আদম আলীর (আদর আলী) সাথে পূর্ব বিরোধ থাকার কারণে বোন খাপারুন বেগমকে প্যারালাইসিসে অসুস্থ্য স্ত্রী আবিয়া বেগম (রাবিয়া) ও একমাত্র সন্তান তছলিমা আক্তার রুমিকে দেখাশুনার সার্বিক দায়িত্ব দিয়ে চেরাগ আলী সৌদি আরব প্রবাসী হন। এরপর চেরাগ আলীর চাচাতো ভাই মাসুক মিয়ার পুত্র দুবাই প্রবাসী নেছার আলী দেশে আসে। এর ২/৩ দিন পর গত ৩০ মে সন্ধা সাড়ে ৭টার দিকে নেছার আলী তার ভাই ছালেহ আহমদ (৩৫) ও পিতা মাসুক মিয়ার সহায়তায় চেরাগ আলীর কিশোরী কন্যা রুমিকে ফুসলিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

 

সম্ভাব্য সকল স্থানে খোজাখুজি করেও ভাইঝি রুমিকে না পেয়ে খাপারুন বেগম ঘটনাটি তার সৌদি আরব প্রবাসী ভাই চেরাগ আলীকে জানিয়ে অপহারক নেছার আলী এবং সহায়তাকারী তার ভাই ছালেহ আহমদ ও পিতা মাসুক মিয়ার বিরুদ্ধে গত ৫ জুন রাজনগর থানায় একটি মামলা (নং- ১১, জিআর- ১৩৪/১৮) দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ ওইদিনই রাতেই অপহরণে সহায়তাকারী ভাই ছালেহ আহমদকে গ্রেফতার করে। এর পরপরই অপহারক নেছার আলী ও তার পিতা মাসুক মিয়া পালিয়ে যায় এবং পলাতক থেকেই নেছার আলী দুবাই চলে যেতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃত ছালেহ আহমদকে পরদিন আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। অপরদিকে, ৫ জুন রাতে ছালেহ আহমদ গ্রেফতার হবার পরদিন ৬ জুন সকালে আসামীদের পক্ষ থেকে অপহৃত রুমিকে মনসুরনগর ইউপি চেয়ারম্যান মিলন বখত এর কাছে নিয়ে যাওয়া হলে, তার পরামর্শে রুমিকে রাজনগর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

 

রাজনগর থানা রুমিকে আদালতে প্রেরণ করলে সৌদি আরব প্রবাসী চেরাগ আলীর সহোদর সেই ভাই আদম আলী (আদর আলী) আসামী পক্ষের যোগসাজসে তাকে নিজ জিম্মায় নেয়ার আবেদন করে। আদালত ওই আবেদন নামঞ্জুর করেন। খাপারুন বেগম বিষয়টি জানতে পেরে প্রথমে রুমিকে নিজ জিম্মায় নেয়ার আবেদন করেন। কিন্তু, আবারও অপহরণের অশংকায় পরে তিনি রুমিকে সিলেটের বাগবাড়ী পুলিশ সেইফ কাস্টডিতে রাখার আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করে রুমিকে সিলেটের বাগবাড়ী পুলিশ সেইফ কাস্টডিতে রাখার নির্দেশ দেন। সেইথেকে রুমি সেখানেই রয়েছে। এদিকে, রুমিকে নিজ জিম্মায় আনতে ব্যর্থ হওয়ায় এবং খাপারুন বেগম তাকে সিলেটের বাগবাড়ী পুলিশ সেইফ কাস্টডিতে দিয়ে দেয়ায় সৌদি আরব প্রবাসী চেরাগ আলীর সহোদর সেই ভাই আদম আলী (আদর আলী), তার স্ত্রী রেসকনা বেগম ও অপহারক নেছার আলীর অপর ভাই সমছু মিয়া একজোট হয়ে খাপারুন বেগমকে নানাভাবে উত্যক্ত করাসহ হুমকী-ধমকী দিচ্ছে।

 

ফলে, অজানা আশংকায় সদা আতংকগ্রস্ত খাপারুন বেগম এব্যাপারে রাজনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। সর্বশেষ- এ সংবাদ পরিবেশন পর্যন্ত প্রায় ২ মাস অতিক্রান্ত হতে চললেও, অপহারক নেছার আলী দুবাই পালিয়ে যাওয়ায় এবং মাসুক মিয়া বাড়ী ছেড়ে বিভিন্ন স্থানে অবস্থান ও ঘন ঘন অবস্থান পরিবর্তন করার কারণে পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করতে পারছেনা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» বিড়ির উপর বৈষম্যমূলক অতিরিক্ত শুল্ক প্রত্যাহারের দাবিতে যশোরের শার্শায় মানববন্ধন

» মৌলভীবাজারে ১৬৪৬ টি কেন্দ্রে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

» ইন্ডাষ্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিল-আইবিসি এর উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলন

» বান্দরবানে সাঙ্গু নদীতে নিখোঁজ মানসিক প্রতিবন্ধীকে উদ্ধারে নেমেছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বিশেষ টিম

» গলাচিপায় জোলেখার বাজারে বেহাল দশা

» ফতুল্লায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে নগদ টাকা ও ঢেউটিন বিতরণ

» শরীয়তপুরে নদীতে গোসল করতে নেমে যুবক নিখোঁজ

» চিত্রনায়িকা পরীমনিকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন চিত্রনায়ক আলমগীর

» ভারতের পেট্রাপোলে হুন্ডির টাকাসহ আটক বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ৩ কনস্টেবল অবশেষে মুক্ত।। ইমিগ্রেশনের কর্মচারী রুহুল কারাগারে

» ঝিনাইদহে তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন





ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাজনগরে অপহরন মামলায় নেছারসহ ২ আসামী এখনও গ্রেফতার হয়নি

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়নস্থিত মনসুরনগর গ্রামের সৌদিআরব প্রবাসী চেরাগ আলীর ১৫ বছর বয়সী কিশোরী কন্যা তছলিমা আক্তার রুমির অপহারক নেছারসহ ২ আসামী এখনও অধরা।

 

প্রায় ২ মাস অতিক্রান্ত হতে চললেও, অব্যাহত অভিযান চালিয়েও পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করতে পারছেনা। জানা গেছে- সহোদর ভাই আদম আলীর (আদর আলী) সাথে পূর্ব বিরোধ থাকার কারণে বোন খাপারুন বেগমকে প্যারালাইসিসে অসুস্থ্য স্ত্রী আবিয়া বেগম (রাবিয়া) ও একমাত্র সন্তান তছলিমা আক্তার রুমিকে দেখাশুনার সার্বিক দায়িত্ব দিয়ে চেরাগ আলী সৌদি আরব প্রবাসী হন। এরপর চেরাগ আলীর চাচাতো ভাই মাসুক মিয়ার পুত্র দুবাই প্রবাসী নেছার আলী দেশে আসে। এর ২/৩ দিন পর গত ৩০ মে সন্ধা সাড়ে ৭টার দিকে নেছার আলী তার ভাই ছালেহ আহমদ (৩৫) ও পিতা মাসুক মিয়ার সহায়তায় চেরাগ আলীর কিশোরী কন্যা রুমিকে ফুসলিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

 

সম্ভাব্য সকল স্থানে খোজাখুজি করেও ভাইঝি রুমিকে না পেয়ে খাপারুন বেগম ঘটনাটি তার সৌদি আরব প্রবাসী ভাই চেরাগ আলীকে জানিয়ে অপহারক নেছার আলী এবং সহায়তাকারী তার ভাই ছালেহ আহমদ ও পিতা মাসুক মিয়ার বিরুদ্ধে গত ৫ জুন রাজনগর থানায় একটি মামলা (নং- ১১, জিআর- ১৩৪/১৮) দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ ওইদিনই রাতেই অপহরণে সহায়তাকারী ভাই ছালেহ আহমদকে গ্রেফতার করে। এর পরপরই অপহারক নেছার আলী ও তার পিতা মাসুক মিয়া পালিয়ে যায় এবং পলাতক থেকেই নেছার আলী দুবাই চলে যেতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃত ছালেহ আহমদকে পরদিন আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। অপরদিকে, ৫ জুন রাতে ছালেহ আহমদ গ্রেফতার হবার পরদিন ৬ জুন সকালে আসামীদের পক্ষ থেকে অপহৃত রুমিকে মনসুরনগর ইউপি চেয়ারম্যান মিলন বখত এর কাছে নিয়ে যাওয়া হলে, তার পরামর্শে রুমিকে রাজনগর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

 

রাজনগর থানা রুমিকে আদালতে প্রেরণ করলে সৌদি আরব প্রবাসী চেরাগ আলীর সহোদর সেই ভাই আদম আলী (আদর আলী) আসামী পক্ষের যোগসাজসে তাকে নিজ জিম্মায় নেয়ার আবেদন করে। আদালত ওই আবেদন নামঞ্জুর করেন। খাপারুন বেগম বিষয়টি জানতে পেরে প্রথমে রুমিকে নিজ জিম্মায় নেয়ার আবেদন করেন। কিন্তু, আবারও অপহরণের অশংকায় পরে তিনি রুমিকে সিলেটের বাগবাড়ী পুলিশ সেইফ কাস্টডিতে রাখার আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করে রুমিকে সিলেটের বাগবাড়ী পুলিশ সেইফ কাস্টডিতে রাখার নির্দেশ দেন। সেইথেকে রুমি সেখানেই রয়েছে। এদিকে, রুমিকে নিজ জিম্মায় আনতে ব্যর্থ হওয়ায় এবং খাপারুন বেগম তাকে সিলেটের বাগবাড়ী পুলিশ সেইফ কাস্টডিতে দিয়ে দেয়ায় সৌদি আরব প্রবাসী চেরাগ আলীর সহোদর সেই ভাই আদম আলী (আদর আলী), তার স্ত্রী রেসকনা বেগম ও অপহারক নেছার আলীর অপর ভাই সমছু মিয়া একজোট হয়ে খাপারুন বেগমকে নানাভাবে উত্যক্ত করাসহ হুমকী-ধমকী দিচ্ছে।

 

ফলে, অজানা আশংকায় সদা আতংকগ্রস্ত খাপারুন বেগম এব্যাপারে রাজনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। সর্বশেষ- এ সংবাদ পরিবেশন পর্যন্ত প্রায় ২ মাস অতিক্রান্ত হতে চললেও, অপহারক নেছার আলী দুবাই পালিয়ে যাওয়ায় এবং মাসুক মিয়া বাড়ী ছেড়ে বিভিন্ন স্থানে অবস্থান ও ঘন ঘন অবস্থান পরিবর্তন করার কারণে পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করতে পারছেনা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited