গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় ইফতারিতে বিষ মিশিয়ে কলেজ ছাত্রীকে হত্যা!

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে মিথ্যা অপবাদ দেওয়ার পর ইফতারিতে বিষ মিশিয়ে খাদিজা (২৩) নামে এক কলেজ ছাত্রীকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

জেলার টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পূর্ব গিমাডাঙ্গা গ্রামে বুধবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। পরে বৃহস্পতিবার গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও টুঙ্গিপাড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহত খাদিজা ওই গ্রামের মো: হোসেন সিকদারের মেয়ে ও টুঙ্গিপাড়া শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বিএ শেষ বর্ষের ছাত্রী।

 

টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এ কে এম এনামুল কবীর জানান, খাদিজা প্রতিবেশী শেখ নাসির ওরফে ঝন্টুর ছেলে ও মেয়েকে প্রাইভেট পড়াতেন। এ কারণে খাদিজার ওই বাড়িতে যাতায়াত ছিলো। নাসিরের স্ত্রী মিতু বেগমের সাথে তার শ্বাশুড়ি বেবী বেগম ও ননদ নাজমা বেগমের ভাল সম্পর্ক ছিলো না। তাই খাদিজার নাসিরের বাড়িতে যাতায়াত পছন্দ করতো না বেবী ও নাজমা।

 

তিনি আরো জানান, বুধবার বিকেলে খাদিজা ওই বাড়িতে যায়। এ সময় নাজমা তার স্বামী মিন্টুর সঙ্গে খাদিজার অবৈধ সম্পর্ক আছে বলে অভিযোগ তোলে। পরে খাদিজা বিষয়টি অস্বীকার করলেও তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাচ ও অপমান করেন নাজমা। এ সময় বাড়ি ফিরে যান খাদিজা। পরে সন্ধ্যায় মিতু বেগম খাদিজাকে বাড়িতে ডেকে ইফতার খাওয়ান। ইফতার খেয়ে খাদিজা বাড়িতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপর তাকে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ভর্তির ৪ ঘন্টা পর খাদিজা সেখানে মারা যান।

 

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, খাদিজার মা মাবিয়া বেগম বৃহস্পতিবার অভিযোগ করেন ঝগড়াকে কেন্দ্র করে মিতু বেগম ইফতারির মধ্যে বিষ মিশিয়ে খাদিজাকে হত্যা করেছেন। অভিযোগ পাওয়ার পর গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার তদন্ত করি। তবে প্রাথমিক তদন্তে মনে হয়েছে অপবাদ সইতে না পেরে ক্ষোভে ও অপমানে বিকেলে সামান্য বিষপান করে ছিলেন খাদিজা। তারপর তিনি মিতু বেগমের ঘরে ইফতার করেন। তবে মিতু বেগম ইফতারে বিষ মিশিয়েছেন কিনা সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে জানিয়ে ওসি আরও বলেন, এ ব্যাপারে একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

গতকাল বিকেলে গোপালগঞ্জ  জেনারেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে খাদিজার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। খাদিজার মা মাবিয়া বেগম অভিযোগ করে বলেন, মিতুর শ্বাশুড়ি বেবী ও ননদ নাজমার সঙ্গে কথা বলেছে খাদিজা। এটি সহ্য করতে পারেননি মিতু বেগম। তাই প্রতিশোধ নিতেই মিতু ইফতারের মধ্যে বিষ দিয়ে আমার মেয়েকে হত্যা করেছে। ঘটনার পর নাসির শেখ, তার স্ত্রী, মা ও বোন বাড়িতে তালা লাগিয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন।

 

নাসির শেখ ওরফে ঝন্টু বলেন, মেয়েটি অত্যন্ত ভালো ছিলো। আমার ছেলে-মেয়েকে পড়াতো। ঝগড়াঝাটি কে কেন্দ্র করে খাদিজাকে আমার মা ও বোন অপবাদ দিয়ে অপমান করে। এটি সইতে না পেরে খাদিজা বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। এখন এলাকার একটি কুচক্রী মহল বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। সেই মহলের প্ররোচণায় খাদিজার মা আমার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছেন। আমার স্ত্রী তাকে বিষ প্রয়োগে হত্যা করেনি।

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» দুর্নীতিতে বালিশ পর্দাকে হারিয়েছে মোবাইল চার্জার

» নাইক্ষ্যংছড়ির শান্তিপূর্ন পরিবেশ চলছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন

» নাইজেরিয়ায় একসঙ্গে ৪০০ জনের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ

» রেকর্ড গড়ে বিয়ে করলে প্রেমিকা

» আবরার হ’ত্যা: আলোচিত অমিত সাহাকে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার

» পদ্মা সেতুতে বসছে ১৫ তম স্প্যান

» পুলিশ বাহিনীর অবদানের গল্পে মৌসুমী

» ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাঙ্গাবালীর চরমোন্তাজে ভবন উদ্বোধন করলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী

» ইকুয়েডরকে গোলবন্যায় ভাসাল আর্জেন্টিনা

» তুর্কি হামলায় সিরিয়া থেকে পালাচ্ছে মার্কিন বাহিনী

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ২৯শে আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় ইফতারিতে বিষ মিশিয়ে কলেজ ছাত্রীকে হত্যা!

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে মিথ্যা অপবাদ দেওয়ার পর ইফতারিতে বিষ মিশিয়ে খাদিজা (২৩) নামে এক কলেজ ছাত্রীকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

জেলার টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পূর্ব গিমাডাঙ্গা গ্রামে বুধবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। পরে বৃহস্পতিবার গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও টুঙ্গিপাড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহত খাদিজা ওই গ্রামের মো: হোসেন সিকদারের মেয়ে ও টুঙ্গিপাড়া শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বিএ শেষ বর্ষের ছাত্রী।

 

টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এ কে এম এনামুল কবীর জানান, খাদিজা প্রতিবেশী শেখ নাসির ওরফে ঝন্টুর ছেলে ও মেয়েকে প্রাইভেট পড়াতেন। এ কারণে খাদিজার ওই বাড়িতে যাতায়াত ছিলো। নাসিরের স্ত্রী মিতু বেগমের সাথে তার শ্বাশুড়ি বেবী বেগম ও ননদ নাজমা বেগমের ভাল সম্পর্ক ছিলো না। তাই খাদিজার নাসিরের বাড়িতে যাতায়াত পছন্দ করতো না বেবী ও নাজমা।

 

তিনি আরো জানান, বুধবার বিকেলে খাদিজা ওই বাড়িতে যায়। এ সময় নাজমা তার স্বামী মিন্টুর সঙ্গে খাদিজার অবৈধ সম্পর্ক আছে বলে অভিযোগ তোলে। পরে খাদিজা বিষয়টি অস্বীকার করলেও তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাচ ও অপমান করেন নাজমা। এ সময় বাড়ি ফিরে যান খাদিজা। পরে সন্ধ্যায় মিতু বেগম খাদিজাকে বাড়িতে ডেকে ইফতার খাওয়ান। ইফতার খেয়ে খাদিজা বাড়িতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপর তাকে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ভর্তির ৪ ঘন্টা পর খাদিজা সেখানে মারা যান।

 

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, খাদিজার মা মাবিয়া বেগম বৃহস্পতিবার অভিযোগ করেন ঝগড়াকে কেন্দ্র করে মিতু বেগম ইফতারির মধ্যে বিষ মিশিয়ে খাদিজাকে হত্যা করেছেন। অভিযোগ পাওয়ার পর গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার তদন্ত করি। তবে প্রাথমিক তদন্তে মনে হয়েছে অপবাদ সইতে না পেরে ক্ষোভে ও অপমানে বিকেলে সামান্য বিষপান করে ছিলেন খাদিজা। তারপর তিনি মিতু বেগমের ঘরে ইফতার করেন। তবে মিতু বেগম ইফতারে বিষ মিশিয়েছেন কিনা সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে জানিয়ে ওসি আরও বলেন, এ ব্যাপারে একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

গতকাল বিকেলে গোপালগঞ্জ  জেনারেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে খাদিজার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। খাদিজার মা মাবিয়া বেগম অভিযোগ করে বলেন, মিতুর শ্বাশুড়ি বেবী ও ননদ নাজমার সঙ্গে কথা বলেছে খাদিজা। এটি সহ্য করতে পারেননি মিতু বেগম। তাই প্রতিশোধ নিতেই মিতু ইফতারের মধ্যে বিষ দিয়ে আমার মেয়েকে হত্যা করেছে। ঘটনার পর নাসির শেখ, তার স্ত্রী, মা ও বোন বাড়িতে তালা লাগিয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন।

 

নাসির শেখ ওরফে ঝন্টু বলেন, মেয়েটি অত্যন্ত ভালো ছিলো। আমার ছেলে-মেয়েকে পড়াতো। ঝগড়াঝাটি কে কেন্দ্র করে খাদিজাকে আমার মা ও বোন অপবাদ দিয়ে অপমান করে। এটি সইতে না পেরে খাদিজা বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। এখন এলাকার একটি কুচক্রী মহল বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। সেই মহলের প্ররোচণায় খাদিজার মা আমার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছেন। আমার স্ত্রী তাকে বিষ প্রয়োগে হত্যা করেনি।

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited