ফতুল্লার এনায়েতনগরে মাদকের অভয়ারন্য’ তিন জনের নিয়ন্ত্রনে মাদক ব্যবসা!

Spread the love

কুয়াকাটা নিউজ:- নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলার ফতুল্লার এনায়েতনগর ইউনিয়নে মাদকের ব্যাপক বিস্তার ঘটেছে। পুলিশের চোঁখকে ফাকিঁ দিয়ে অনেকটা বাধাহীন ও নির্বিঘ্নে ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে মাদকের ডিলার হিসেবে পরিচিত সানি, কাকন এবং কথিত আওয়ামীলীগ নেতার ভাগ্নে তুহিন। আর এ সকল ডিলারদের হয়ে এনায়েতনগর ইউনিয়নের অলিতে গলিতে ডজন খানেকেরও বেশি সেল্সম্যান মাদক খুঁঁচরা ব্যবসায়ীদের হাতে পৌছে দিচ্ছে। ভিন্ন কৌশলী এ মাদক ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদীন ধরে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসার ফলে বণে গেছে অঢেল অর্থের মালিক।

 

অপরদিকে অবৈধ পন্থায় মাদক ব্যবসায়ীরা আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ বণে গেলেও ধবংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে স্থাণীয় যুব সমাজ। তাই এ সকল মাদক ব্যসায়ীদের লাঘাম টেনে না ধরতে পারলে পরবর্তী প্রজন্মের অস্তিত্ব অনেকটা হুমকির মুখে পড়বে বলে সচেতন মহল মনে করছেন।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের কতিপয় সোর্সদের দৈনিক ভাতা প্রদানের মাধ্যমে উল্লেখিত মাদক ব্যবসায়ীরা নিজস্ব সেল্সম্যানের মাধ্যমে প্রতিদিন কয়েক হাজার পিচ ইয়াবা বিক্রি করে আসছে। পুলিশের কতিপয় সোর্সদের ম্যানেজ করার কারনে এনায়েতনগর ইউনিয়নের মাদক ব্যবায়ীদের আইনের আওতায় আনতে পারছে না স্থাণীয় পুলিশ প্রশাসন। এনায়েতনগর ইউনিয়নে মাদকের ছোবলে আক্রান্ত হয়ে ধ্বংসের দিকে ধাবিতে হচ্ছে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে দেশের ভবিষ্যত কর্ণধার স্থানীয় যুব সমাজ।

 

অপরদিকে দেশের ভবিষ্যত যেখানে নিজেদের সমাজ সেবায় নিয়োজিত রাখার কথা সেখানে ইয়াবার ছোবলে আক্রান্ত হয়ে মাদকের অর্থ জোগাড়ে জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডে। তাই অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে এ ইউনিয়নের মাদক ব্যবসার লাগান টেনে ধরতে না পারলে দেশের ভবিষ্যত কর্ণধার ধ্বংসের দিকে ধাবিত হবে বলে সচেতন মহল মনে করেন।

 

পরিবারের অণ্যতম উপার্জন ক্ষম ব্যাক্তি মাদকের ছোবলে আক্রান্ত হয়ে যাওয়ার ফলে অনিশ্চিত ভবিষত্যের কথা ভেবে আতংকের মধ্যে দিনযাপন করছে অভিভাবক মহল। এ অবস্থায় ইয়াবা গড ফাদারদের মাদক ব্যবসার লাগাম টেনে ধরাসহ মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনার জন্য স্থাণীয় এলাকাবাসীর একমাত্র ভরসা আইনশৃংখলা বাহিনীর উপর। ইয়াবা ডন হিসেবে পরিচিত সানি ও কাকন এবং তুহিনকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি জেলা র‌্যাবের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

 

সূত্রে জানা যায়, এনায়েতনগর ইউনিয়নটিতে কয়েক লাখ মানুষের বসবাস। আর এলাকাটি শিল্পাঞ্চল এলাকা হিসেবে জেলাবাসীর কাছে পরিচিত। নানা কারনেই এ এলাকায় মাদকের ব্যবহার বেশি। স্থাণীয় প্রভাবশালীদের ছত্র ছায়ায় ও থানা পুলিশের কতিপয় সোর্সদের ম্যানেজের মাধ্যমে ফতুল্লার ফাজিঁলপুর এলাকার সানি ও কাকন এবং চাঁদনী হাউজিং এলাকার কথিত আওয়ামীলীগ নেতা হামিদ ওরফে পাগলা হামিদের ভাগ্নে তুহিন প্রতিদিন কয়েক হাজার পিচ ইয়াবা পাইকারী ও খুচরা বিক্রি করে আসছে। ফতুল্লার ফাজিঁলপুর এলাকায় কাকন ও সানি একাধিক সেল্সম্যানের মাধ্যমে ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে আসছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিরতীহীন ভাবে চলে তাদের ইয়াবা ব্যবসা। খুঁচরা মাদক ব্যবসায়ী সিফাত, সাগর, অমি, ভোলার সোহেল ও ফতুল্লার চাঁদনী হাউজিং এলাকার তুহিনের সেল্সম্যান হাবিব ও সাগরের মাধ্যমে ইয়াবা এনায়েতনগর ইউনিয়নের বিভিন্ন অলিগলি ছড়িয়ে পড়েছে। দীর্ঘদীন ধরা ছোয়ার বাইরে থাকার কারনে এ সকল মাদক ব্যবসায়ীরা অনেকটা বেপরোয়া গতিতে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে। এ সকল মাদক ব্যবসায়ীদের মাদকের ছোবলে আক্রান্ত হয়ে বিপদগামী হয়ে পড়ছে স্থাণীয় তরুন সমাজ। অনিশ্চিত ভবিষত্যের কথা চিন্তা করে অন্ধকারের কালোমেঘ বিরাজ করছে সাধারন অভিভাবকদের মধ্যে।

 

এদিকে বেপরোয়া মাদক ব্যবসায়ীদের লাগাম টেনে ধরার জন্য স্থাণীয় সচেতন মহল একাধিকবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। সচেতন মহলের প্রতিবাদ কন্ঠস্বর কিংবা ভূমিকা মাদক ব্যবসায়ীদের অদৃশ্য খুটিঁর জোড়ে অনেকটা অসহায়ত্ব বরন করার মতো মুখ বুঝে সহ্য করা ছাড়া আর কিছুই করা থাকে না। তাই এ সকল সচেতন মহলের একমাত্র ভরসা এখন আইনশৃংঙ্খলা বাহিনীর উপর। স্থাণীয় যুব সমাজকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষার্থে অনতিবিলম্বে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

 

এ ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার অপারেশন মজিবর রহমান জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের উপর তাদের অভিযান অব্যাহত আছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। মাদক ব্যবসায়ী যত বড়ই ক্ষমতাশালী হউক না কেন তাদের অস্তিত্ব মাটির সাথে মিশিয়ে দেয়া হবে। সে সাথে মাদক ব্যবসায়ীদের শেল্টার দাতাদের বিরুদ্ধেও হার্ড লাইনে রয়েছে স্থাণীয় পুলিশ প্রশাসন।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের পৃথক কয়েকটি অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত আসামী-১,ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ আটক-২

» বেনাপোলের আমড়া খালি এলাকা থেকে ৪১ টি সোনার বার সহ আটক-৪

» গাইবান্ধায় বিলের পাড়ে হাত পা বাধা অবস্থায় এক নারী উদ্ধার

» পুলিশ যা জানালো ওসি মোয়াজ্জেমকে গ্রেফতারের পর

» রংপুর চেম্বার পরিচালনা পর্ষদের সঙ্গে ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনারের মত বিনিময় সভা

» ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেফতার: নুসরাতের বাবা-মায়ের নামাজ আদায়

» বাজেট ইতিবাচক, আরো ৫৬৫০ কোটি টাকা প্রণোদনা চায় বিজিএমইএ

» ছাত্রদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়তে যা করতেন শিক্ষিকা!

» ছেলে থাকেন দালানে, মায়ের জায়গা ঝুপড়িতে

» সোনাগাজী থানার ওসি মোয়াজ্জেমের জামিন চাইলে যে ব্যবস্থা নিবেন ব্যারিস্টার সুমন

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন








ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৩রা আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফতুল্লার এনায়েতনগরে মাদকের অভয়ারন্য’ তিন জনের নিয়ন্ত্রনে মাদক ব্যবসা!

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

কুয়াকাটা নিউজ:- নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলার ফতুল্লার এনায়েতনগর ইউনিয়নে মাদকের ব্যাপক বিস্তার ঘটেছে। পুলিশের চোঁখকে ফাকিঁ দিয়ে অনেকটা বাধাহীন ও নির্বিঘ্নে ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে মাদকের ডিলার হিসেবে পরিচিত সানি, কাকন এবং কথিত আওয়ামীলীগ নেতার ভাগ্নে তুহিন। আর এ সকল ডিলারদের হয়ে এনায়েতনগর ইউনিয়নের অলিতে গলিতে ডজন খানেকেরও বেশি সেল্সম্যান মাদক খুঁঁচরা ব্যবসায়ীদের হাতে পৌছে দিচ্ছে। ভিন্ন কৌশলী এ মাদক ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদীন ধরে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসার ফলে বণে গেছে অঢেল অর্থের মালিক।

 

অপরদিকে অবৈধ পন্থায় মাদক ব্যবসায়ীরা আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ বণে গেলেও ধবংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে স্থাণীয় যুব সমাজ। তাই এ সকল মাদক ব্যসায়ীদের লাঘাম টেনে না ধরতে পারলে পরবর্তী প্রজন্মের অস্তিত্ব অনেকটা হুমকির মুখে পড়বে বলে সচেতন মহল মনে করছেন।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের কতিপয় সোর্সদের দৈনিক ভাতা প্রদানের মাধ্যমে উল্লেখিত মাদক ব্যবসায়ীরা নিজস্ব সেল্সম্যানের মাধ্যমে প্রতিদিন কয়েক হাজার পিচ ইয়াবা বিক্রি করে আসছে। পুলিশের কতিপয় সোর্সদের ম্যানেজ করার কারনে এনায়েতনগর ইউনিয়নের মাদক ব্যবায়ীদের আইনের আওতায় আনতে পারছে না স্থাণীয় পুলিশ প্রশাসন। এনায়েতনগর ইউনিয়নে মাদকের ছোবলে আক্রান্ত হয়ে ধ্বংসের দিকে ধাবিতে হচ্ছে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে দেশের ভবিষ্যত কর্ণধার স্থানীয় যুব সমাজ।

 

অপরদিকে দেশের ভবিষ্যত যেখানে নিজেদের সমাজ সেবায় নিয়োজিত রাখার কথা সেখানে ইয়াবার ছোবলে আক্রান্ত হয়ে মাদকের অর্থ জোগাড়ে জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডে। তাই অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে এ ইউনিয়নের মাদক ব্যবসার লাগান টেনে ধরতে না পারলে দেশের ভবিষ্যত কর্ণধার ধ্বংসের দিকে ধাবিত হবে বলে সচেতন মহল মনে করেন।

 

পরিবারের অণ্যতম উপার্জন ক্ষম ব্যাক্তি মাদকের ছোবলে আক্রান্ত হয়ে যাওয়ার ফলে অনিশ্চিত ভবিষত্যের কথা ভেবে আতংকের মধ্যে দিনযাপন করছে অভিভাবক মহল। এ অবস্থায় ইয়াবা গড ফাদারদের মাদক ব্যবসার লাগাম টেনে ধরাসহ মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনার জন্য স্থাণীয় এলাকাবাসীর একমাত্র ভরসা আইনশৃংখলা বাহিনীর উপর। ইয়াবা ডন হিসেবে পরিচিত সানি ও কাকন এবং তুহিনকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি জেলা র‌্যাবের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

 

সূত্রে জানা যায়, এনায়েতনগর ইউনিয়নটিতে কয়েক লাখ মানুষের বসবাস। আর এলাকাটি শিল্পাঞ্চল এলাকা হিসেবে জেলাবাসীর কাছে পরিচিত। নানা কারনেই এ এলাকায় মাদকের ব্যবহার বেশি। স্থাণীয় প্রভাবশালীদের ছত্র ছায়ায় ও থানা পুলিশের কতিপয় সোর্সদের ম্যানেজের মাধ্যমে ফতুল্লার ফাজিঁলপুর এলাকার সানি ও কাকন এবং চাঁদনী হাউজিং এলাকার কথিত আওয়ামীলীগ নেতা হামিদ ওরফে পাগলা হামিদের ভাগ্নে তুহিন প্রতিদিন কয়েক হাজার পিচ ইয়াবা পাইকারী ও খুচরা বিক্রি করে আসছে। ফতুল্লার ফাজিঁলপুর এলাকায় কাকন ও সানি একাধিক সেল্সম্যানের মাধ্যমে ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে আসছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিরতীহীন ভাবে চলে তাদের ইয়াবা ব্যবসা। খুঁচরা মাদক ব্যবসায়ী সিফাত, সাগর, অমি, ভোলার সোহেল ও ফতুল্লার চাঁদনী হাউজিং এলাকার তুহিনের সেল্সম্যান হাবিব ও সাগরের মাধ্যমে ইয়াবা এনায়েতনগর ইউনিয়নের বিভিন্ন অলিগলি ছড়িয়ে পড়েছে। দীর্ঘদীন ধরা ছোয়ার বাইরে থাকার কারনে এ সকল মাদক ব্যবসায়ীরা অনেকটা বেপরোয়া গতিতে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে। এ সকল মাদক ব্যবসায়ীদের মাদকের ছোবলে আক্রান্ত হয়ে বিপদগামী হয়ে পড়ছে স্থাণীয় তরুন সমাজ। অনিশ্চিত ভবিষত্যের কথা চিন্তা করে অন্ধকারের কালোমেঘ বিরাজ করছে সাধারন অভিভাবকদের মধ্যে।

 

এদিকে বেপরোয়া মাদক ব্যবসায়ীদের লাগাম টেনে ধরার জন্য স্থাণীয় সচেতন মহল একাধিকবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। সচেতন মহলের প্রতিবাদ কন্ঠস্বর কিংবা ভূমিকা মাদক ব্যবসায়ীদের অদৃশ্য খুটিঁর জোড়ে অনেকটা অসহায়ত্ব বরন করার মতো মুখ বুঝে সহ্য করা ছাড়া আর কিছুই করা থাকে না। তাই এ সকল সচেতন মহলের একমাত্র ভরসা এখন আইনশৃংঙ্খলা বাহিনীর উপর। স্থাণীয় যুব সমাজকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষার্থে অনতিবিলম্বে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

 

এ ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার অপারেশন মজিবর রহমান জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের উপর তাদের অভিযান অব্যাহত আছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। মাদক ব্যবসায়ী যত বড়ই ক্ষমতাশালী হউক না কেন তাদের অস্তিত্ব মাটির সাথে মিশিয়ে দেয়া হবে। সে সাথে মাদক ব্যবসায়ীদের শেল্টার দাতাদের বিরুদ্ধেও হার্ড লাইনে রয়েছে স্থাণীয় পুলিশ প্রশাসন।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited