নারায়ণগঞ্জে দুই সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক প্রচার শেষে ভোটের অপেক্ষায়

Spread the love

মো:মাসুদ হাসান রিদম,ঢাকাঃ  প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে হওয়া সিটি নির্বাচনকে ঘিরে দৃষ্টি সারা দেশের মানুষেরই।দুই সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক প্রচার শেষে ভোটের অপেক্ষায় নারায়ণগঞ্জ। কে জিতবে সেই প্রশ্নের অপেক্ষায় নগর ছাড়িয়ে দূরের জনপদের মানুষও। বিএনপি-জামায়াত জোটের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের পর উপজেলা, পৌরসভা আর সিটি করপোরেশন হয়েছে অনেকগুলোই। তবে এর মধ্যেও নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনউল্লেখযোগ্য অন্য কারণে।

স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও এই ভোট জাতীয় নির্বাচনের মেজাজ পেয়ে গেছে দুই প্রধান দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে লড়াইয়ের কারণে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনাহায়াৎ আইভী এবং বিএনপির সাখাওয়াত হোসেন খান-দুই জনই সহজ জয়ের প্রত্যাশা করছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, ‘প্রচারণা চালানোর সময় আমি যে জোয়ার আর উদ্দীপনা দেখেছি, তাতে আমি বিশ্বাস করি ৭০ শতাংশ ভোট নৌকা প্রতীকেপড়বে।’

বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন আইভী বলছেন, প্রকাশ্য প্রচারণায় যেমনই হোক, তার পক্ষেই রায় দেবে ভোটাররা। তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের এই নির্বাচন আমেরিকারনির্বাচনের মতো হতে পারে। সকল জনমত জরিপে হিলারি এগিয়ে ছিল, কিন্তু ভোটের রাজনীতিতে ট্রাম্প এগিয়েছে। নারায়ণগঞ্জেও বিএনপির নীরব ভোট আছে। স্থানীয় গণমাধ্যমেযেসব জরিপ ছাপা হয়েছে এগুলো উল্টে যেতে পারে।’ প্রচারণায় ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতারাও,এই নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের পাশাপাশি গত দুই সপ্তাহ ধরেই ক্ষমতাসীন দল ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারাও প্রচারে ব্যস্ত ছিলেন নারায়ণগঞ্জে।

স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও ভোটের প্রচারে স্থানীয় নাগরিক সমস্যার চেয়ে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে জাতীয় রাজনীতির বক্তব্যও। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের কারণে ক্ষমতার বলয়ের বাইরে থাকা বিএনপি এই ভোটকে দেখাতেচাইছে দেখছে তাদের পক্ষে জনসমর্থনেরপ্রমাণ হিসেবে। দুই দলই দেখাতে চাইছে জনগণ আছে তাদের পক্ষেই।

সহজ জয়ের প্রত্যাশা নিয়ে কথা বলছেন দল দুটির কেন্দ্রীয় নেতারাও। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলছেন, আইভীর ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তার পাশাপাশি দলহিসেবে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক দক্ষতা আর সরকারের উন্নয়ন তৎপরতার কারণে ভোটাররা আওয়ামী লীগের পক্ষেই রায় দেবে। আর বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দেখছেন নীরব ভোট বিপ্লবের স্বপ্ন। তার দাবি, বর্তমান সরকারের আমলে তার ভাষায় দুঃশাসনের জবাব দিতে মুখিয়ে আছেমানুষ। নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে বিএনপি বিপুল ভোটে জিতবে বলে আশা করছেন তিনি।

বর্তমান সরকারের আমলে হওয়া বেশ কিছু নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নানা অভিযোগ থাকলেও নারায়ণগঞ্জ বিষয়ে এখনও জোরাল কোনো অভিযোগ করেনি বিএনপি। ভোটেরপরিবেশও এখন পর্যন্ত শান্ত। কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাই এখন পর্যন্ত ঘটেনি। ভোটের নিরাপত্তায় বিএনপি সেনা মোতায়েনের দাবি জানালেও তা অগ্রাহ্য করেছে নির্বাচন কমিশন। তবে নির্বাচনী এলাকায় র‌্যাব, পুলিশের পাশাপাশি মোতায়েন হয়েছে বিজিবি।

প্রায় পৌনে পাঁচ লাখ ভোটার মেয়রের পাশাপাশি কাউন্সিলর নির্বাচন করবেন। তবে প্রধান আকর্ষণ থাকছে মেয়র পদে কে নির্বাচিত হবেন তা নিয়েই। নারায়ণগঞ্জ সদরের পাশাপাশি সিদ্ধিরগঞ্জ এবং বন্দর উপজেলা নিয়ে এই নির্বাচনী আসনে মোট ভোটার সংখ্যা চার লাখ ৭৪ হাজার ৯৩১ জন। বৃহস্পতিবারের ভোটকে সামনে রেখে সকাল থেকেই ভোটের সরঞ্জাম পাঠানোর প্রস্তুতি শুরু হয়। বিকালের আগেই শেষ হবে সব প্রস্তুতি।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» কমলগঞ্জ ভোক্তা অধিকার আইনে ২ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

» লাংলিয়াছড়া সেতু বন্ধন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গৃহ নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন

» নলছিটিতে ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে নদীতে পড়ে বাবা নিখোঁজ

» গলাচিপায় জাতীর পিতার শাহদাত বার্ষিকী পালিত

» ঝিনাইদহের শৈলকুপায় আওয়ামীলীগের শোক দিবস পালন

» ঝিনাইদহে ছাত্র লীগের কালোপতাকা মৌন মিছিল ও সমাবেশ

» ঝিনাইদহে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

» ঝিনাইদহ জেলার শ্রেষ্ঠ পুলিশ সার্জেন্ট সাদ্দাম হোসেন নির্বাচিত

» কুয়াকাটা সৈকত সুরক্ষা বাধেঁর নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার আগেই বিলিন হয়ে গেছে জিও টিউব

» রুমায় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে এক ড্রাইভার অপহরণ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৫ই ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নারায়ণগঞ্জে দুই সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক প্রচার শেষে ভোটের অপেক্ষায়

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

মো:মাসুদ হাসান রিদম,ঢাকাঃ  প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে হওয়া সিটি নির্বাচনকে ঘিরে দৃষ্টি সারা দেশের মানুষেরই।দুই সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক প্রচার শেষে ভোটের অপেক্ষায় নারায়ণগঞ্জ। কে জিতবে সেই প্রশ্নের অপেক্ষায় নগর ছাড়িয়ে দূরের জনপদের মানুষও। বিএনপি-জামায়াত জোটের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের পর উপজেলা, পৌরসভা আর সিটি করপোরেশন হয়েছে অনেকগুলোই। তবে এর মধ্যেও নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনউল্লেখযোগ্য অন্য কারণে।

স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও এই ভোট জাতীয় নির্বাচনের মেজাজ পেয়ে গেছে দুই প্রধান দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে লড়াইয়ের কারণে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনাহায়াৎ আইভী এবং বিএনপির সাখাওয়াত হোসেন খান-দুই জনই সহজ জয়ের প্রত্যাশা করছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, ‘প্রচারণা চালানোর সময় আমি যে জোয়ার আর উদ্দীপনা দেখেছি, তাতে আমি বিশ্বাস করি ৭০ শতাংশ ভোট নৌকা প্রতীকেপড়বে।’

বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন আইভী বলছেন, প্রকাশ্য প্রচারণায় যেমনই হোক, তার পক্ষেই রায় দেবে ভোটাররা। তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের এই নির্বাচন আমেরিকারনির্বাচনের মতো হতে পারে। সকল জনমত জরিপে হিলারি এগিয়ে ছিল, কিন্তু ভোটের রাজনীতিতে ট্রাম্প এগিয়েছে। নারায়ণগঞ্জেও বিএনপির নীরব ভোট আছে। স্থানীয় গণমাধ্যমেযেসব জরিপ ছাপা হয়েছে এগুলো উল্টে যেতে পারে।’ প্রচারণায় ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতারাও,এই নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের পাশাপাশি গত দুই সপ্তাহ ধরেই ক্ষমতাসীন দল ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারাও প্রচারে ব্যস্ত ছিলেন নারায়ণগঞ্জে।

স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও ভোটের প্রচারে স্থানীয় নাগরিক সমস্যার চেয়ে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে জাতীয় রাজনীতির বক্তব্যও। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের কারণে ক্ষমতার বলয়ের বাইরে থাকা বিএনপি এই ভোটকে দেখাতেচাইছে দেখছে তাদের পক্ষে জনসমর্থনেরপ্রমাণ হিসেবে। দুই দলই দেখাতে চাইছে জনগণ আছে তাদের পক্ষেই।

সহজ জয়ের প্রত্যাশা নিয়ে কথা বলছেন দল দুটির কেন্দ্রীয় নেতারাও। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলছেন, আইভীর ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তার পাশাপাশি দলহিসেবে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক দক্ষতা আর সরকারের উন্নয়ন তৎপরতার কারণে ভোটাররা আওয়ামী লীগের পক্ষেই রায় দেবে। আর বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দেখছেন নীরব ভোট বিপ্লবের স্বপ্ন। তার দাবি, বর্তমান সরকারের আমলে তার ভাষায় দুঃশাসনের জবাব দিতে মুখিয়ে আছেমানুষ। নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে বিএনপি বিপুল ভোটে জিতবে বলে আশা করছেন তিনি।

বর্তমান সরকারের আমলে হওয়া বেশ কিছু নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নানা অভিযোগ থাকলেও নারায়ণগঞ্জ বিষয়ে এখনও জোরাল কোনো অভিযোগ করেনি বিএনপি। ভোটেরপরিবেশও এখন পর্যন্ত শান্ত। কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাই এখন পর্যন্ত ঘটেনি। ভোটের নিরাপত্তায় বিএনপি সেনা মোতায়েনের দাবি জানালেও তা অগ্রাহ্য করেছে নির্বাচন কমিশন। তবে নির্বাচনী এলাকায় র‌্যাব, পুলিশের পাশাপাশি মোতায়েন হয়েছে বিজিবি।

প্রায় পৌনে পাঁচ লাখ ভোটার মেয়রের পাশাপাশি কাউন্সিলর নির্বাচন করবেন। তবে প্রধান আকর্ষণ থাকছে মেয়র পদে কে নির্বাচিত হবেন তা নিয়েই। নারায়ণগঞ্জ সদরের পাশাপাশি সিদ্ধিরগঞ্জ এবং বন্দর উপজেলা নিয়ে এই নির্বাচনী আসনে মোট ভোটার সংখ্যা চার লাখ ৭৪ হাজার ৯৩১ জন। বৃহস্পতিবারের ভোটকে সামনে রেখে সকাল থেকেই ভোটের সরঞ্জাম পাঠানোর প্রস্তুতি শুরু হয়। বিকালের আগেই শেষ হবে সব প্রস্তুতি।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited