আবারও কি স্বরুপে ফিরছেন ৯৬’র সেই শামীম ওসমান!

Spread the love

সত্য প্রকাশ রায়:- প্রকাশ্যে অস্ত্র উচিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে গিয়ে নিজেই গনপিটুনির শিকার হয়েছিলো সাংসদ শামীম ওসমানের একনিস্ট সমর্থক মো.নিয়াজুল ইসলাম। শুধু তাই নয় তার কাছে থাকা লাইসেন্সকৃত অস্ত্রটি ছিনিয়েও নেয় কে বা কারা। হকার ইস্যু নিয়ে সাংসদ শামীম ওসমান ও মেয়র আইভী সমর্থকদের মাঝে গত ১৬ জানুয়ারীর ঘটনায় নিয়াজুল,শাহ নিজাম,হেলাল,সাজনু,সুজন,জুয়েলসহ আরো ২/৩জনকে নামীয় এবং অজ্ঞাত প্রায় হাজার খানেকের নামে একটি অভিযোগও হয়েছে থানায়।

 

আগামী ৩রা ফেব্রুয়ারীর জনসভার এক প্রস্তুতিমুলক সভায় সাংসদ শামীম ওসমান তার অনুগতদের শাসনের পরিবর্তে উল্টো উস্কানী দিয়ে দিলেন এবং প্রতিপক্ষকে উদ্দেশ্যে করে বললেন,মামলা দিয়ে কী মনে করছেন? নিয়াজুলকে ধরবেন! নিজামকে ধরবেন! ধরা তো দূরের কথা মাথার চুলের আগায় হাত দিলে নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বালাইয়া দিবো। তিনি বলেন, ‘বিএনপি জামাত শিবির উচ্ছেদ করতে মাঠে নামবেন না আর আমার ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিয়ে ফালাইবেন। এবার দেখবো হকারদের যেমন করে উচ্ছেদ করছেন অমনি যদি বিএনপি জামাত শিবির উচ্ছেদে মাঠে থাকেন তবে আপনি আমার ভাই আপনি আমার বোন, আপনি আমার নেতা। মাঠে থাকবেন না, আর আমার নিজাম হেলাল, সাজনু, জুয়েল, সুজন এদের নামে মামলা দিয়ে ফালাইবেন! সব আওয়ামীলীগ কর্মীদের নামে মামলা দিলেন কেনো? কারণ কী?

 

শামীম ওসমান অনেকটা ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, ‘ধৈর্যের বাঁধ ভাইঙ্গা গেছে। নাটক করবেন না। পিস্তল যে নিছে তারে ধরেন। পত্রিকায় লেখাইছেন নিয়াজুল পলাতক। নিয়াজুল পলাতক না, নিয়াজুল চিকিৎসা নিচ্ছে। নিয়াজুলের ওপর হামলার বিচার করেন, হয় আপনারা করবেন, নয়তো জনগণ নিয়ে আমরা করবো। যা হয় হবে, বাকিটা আমি বুঝবো। ’

 

জ্ঞানীগুনী শামীম ওসমানের এমন উস্কানীমুলক বক্তব্যে হতবাক নারায়নগঞ্জের শান্তিপ্রিয় সাধারন মানুষ। তারা অনেকেই মনে করছেন হয়তবা শামীম ওসমান আবারো সেই ৯৬ সালের রুপধারন করতেই কি তার অনুগতদেরকে সাহস জোগাচ্ছেন নাকি অন্য কিছু ? সে সময় কিন্তু শামীম ওসমানের একান্ত সহযোগিতায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছিলো

 

সারোয়ার,নিয়াজুল,সুইট,লাল,মাকসুদ ও অগা মিঠুরা। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলো নারায়নগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ। তাদের অধিক অত্যাচারকে কিন্তু সাধারন ভোটাররা নিরব ভোটের মাধ্যমে সমুচিত জবাব দিয়েছিলো এবং তাদের লালনকর্তা শামীম ওসমানকেসহ সবাইকে রাতারাতি দেশত্যাগ করতে হয়েছিলো। শনিবারে ওসমানী স্টেডিয়ামে শামীম ওসমানের উস্কানীমুলক বক্তব্যে নিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই বলেন,একজন রাজনৈতিক ব্যক্তির কাছে এমন কথা আমাদের কারোরই কাম্য নয়।

 

সেখানে নিয়াজুল ও শাহ নিজামদের পক্ষে যে বক্তব্যে দিয়েছেন সেটা ভিন্নভাবেও উপস্থাপন করতে পারতেন। তারা বলেন,আইন যদি সবার জন্য সমান হয়ে থাকে এবং আইনের প্রতি যদি দেশের সকল মানুষ শ্রদ্ধাশীল হয়ে থাকেন তাহলে শামীম সাহেবেরও উচিত ছিলো আইনকে শ্রদ্ধা করেই বক্তব্যে দেয়া। তিনি একজন সংসদ সদস্য অথ্যাৎ আইন প্রনেতা তাহলে তিনি তো বলতে পারতেন নিয়াজুলরা যদি অপরাধী হয়ে থাকে তাহলে আইন সেটা দেখে শুনেই বিবেচনা করবেন এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ করে থাকলে অবশ্যই শাস্তি পাবে। কিন্তু তিনি তা করে উল্টো বললেন, মামলা দিয়ে কী মনে করছেন? নিয়াজুলকে ধরবেন! নিজামকে ধরবেন! ধরা তো দূরের কথা মাথার চুলের আগায় হাত দিলে নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বালাইয়া দিবো। আপনার এমন বক্তব্যে তো ভবিষ্যতে আরো বেশী অস্ত্র প্রদর্শন হতে পারে আপনার অনুগতদের দ্বারা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» গলাচিপায় ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়ে পাঠদান

» কলাপাড়ায় গাঁজা সহ ব্যবসায়ী আটক

» এবার হাসপাতালে যাওয়ার পথে নার্সকে কুপিয়ে হত্যা

» গাছের সাথে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন

» খুনির সঙ্গে রিফাতের স্ত্রী মিন্নির ‘সম্পর্কের তথ্য’ ফাঁস

» দশমিনা-উলানিয়া সড়কের কারপিটিংপিচ উঠে খানা খন্দের সৃষ্টি

» দশমিনায় চাঁই ব্যবহারের ফলে: গল্পেরমত থেকে যাবে দেশী প্রজাতির মাছ

» কলাপাড়ায় গৃহবধু হত্যা মামলায় শ্বশুড় গ্রেফতার

» সীমান্ত প্রেসক্লাব বেনাপোলের প্রচার সম্পাদক রাসেলের উপর প্রাননাশের হুমকিতে থানায় জিডি

» কেরোসিনের চুলা বিস্ফোরণে তিন ছাত্রী দগ্ধ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ১৩ই আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আবারও কি স্বরুপে ফিরছেন ৯৬’র সেই শামীম ওসমান!

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

সত্য প্রকাশ রায়:- প্রকাশ্যে অস্ত্র উচিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে গিয়ে নিজেই গনপিটুনির শিকার হয়েছিলো সাংসদ শামীম ওসমানের একনিস্ট সমর্থক মো.নিয়াজুল ইসলাম। শুধু তাই নয় তার কাছে থাকা লাইসেন্সকৃত অস্ত্রটি ছিনিয়েও নেয় কে বা কারা। হকার ইস্যু নিয়ে সাংসদ শামীম ওসমান ও মেয়র আইভী সমর্থকদের মাঝে গত ১৬ জানুয়ারীর ঘটনায় নিয়াজুল,শাহ নিজাম,হেলাল,সাজনু,সুজন,জুয়েলসহ আরো ২/৩জনকে নামীয় এবং অজ্ঞাত প্রায় হাজার খানেকের নামে একটি অভিযোগও হয়েছে থানায়।

 

আগামী ৩রা ফেব্রুয়ারীর জনসভার এক প্রস্তুতিমুলক সভায় সাংসদ শামীম ওসমান তার অনুগতদের শাসনের পরিবর্তে উল্টো উস্কানী দিয়ে দিলেন এবং প্রতিপক্ষকে উদ্দেশ্যে করে বললেন,মামলা দিয়ে কী মনে করছেন? নিয়াজুলকে ধরবেন! নিজামকে ধরবেন! ধরা তো দূরের কথা মাথার চুলের আগায় হাত দিলে নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বালাইয়া দিবো। তিনি বলেন, ‘বিএনপি জামাত শিবির উচ্ছেদ করতে মাঠে নামবেন না আর আমার ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিয়ে ফালাইবেন। এবার দেখবো হকারদের যেমন করে উচ্ছেদ করছেন অমনি যদি বিএনপি জামাত শিবির উচ্ছেদে মাঠে থাকেন তবে আপনি আমার ভাই আপনি আমার বোন, আপনি আমার নেতা। মাঠে থাকবেন না, আর আমার নিজাম হেলাল, সাজনু, জুয়েল, সুজন এদের নামে মামলা দিয়ে ফালাইবেন! সব আওয়ামীলীগ কর্মীদের নামে মামলা দিলেন কেনো? কারণ কী?

 

শামীম ওসমান অনেকটা ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, ‘ধৈর্যের বাঁধ ভাইঙ্গা গেছে। নাটক করবেন না। পিস্তল যে নিছে তারে ধরেন। পত্রিকায় লেখাইছেন নিয়াজুল পলাতক। নিয়াজুল পলাতক না, নিয়াজুল চিকিৎসা নিচ্ছে। নিয়াজুলের ওপর হামলার বিচার করেন, হয় আপনারা করবেন, নয়তো জনগণ নিয়ে আমরা করবো। যা হয় হবে, বাকিটা আমি বুঝবো। ’

 

জ্ঞানীগুনী শামীম ওসমানের এমন উস্কানীমুলক বক্তব্যে হতবাক নারায়নগঞ্জের শান্তিপ্রিয় সাধারন মানুষ। তারা অনেকেই মনে করছেন হয়তবা শামীম ওসমান আবারো সেই ৯৬ সালের রুপধারন করতেই কি তার অনুগতদেরকে সাহস জোগাচ্ছেন নাকি অন্য কিছু ? সে সময় কিন্তু শামীম ওসমানের একান্ত সহযোগিতায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছিলো

 

সারোয়ার,নিয়াজুল,সুইট,লাল,মাকসুদ ও অগা মিঠুরা। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলো নারায়নগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ। তাদের অধিক অত্যাচারকে কিন্তু সাধারন ভোটাররা নিরব ভোটের মাধ্যমে সমুচিত জবাব দিয়েছিলো এবং তাদের লালনকর্তা শামীম ওসমানকেসহ সবাইকে রাতারাতি দেশত্যাগ করতে হয়েছিলো। শনিবারে ওসমানী স্টেডিয়ামে শামীম ওসমানের উস্কানীমুলক বক্তব্যে নিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই বলেন,একজন রাজনৈতিক ব্যক্তির কাছে এমন কথা আমাদের কারোরই কাম্য নয়।

 

সেখানে নিয়াজুল ও শাহ নিজামদের পক্ষে যে বক্তব্যে দিয়েছেন সেটা ভিন্নভাবেও উপস্থাপন করতে পারতেন। তারা বলেন,আইন যদি সবার জন্য সমান হয়ে থাকে এবং আইনের প্রতি যদি দেশের সকল মানুষ শ্রদ্ধাশীল হয়ে থাকেন তাহলে শামীম সাহেবেরও উচিত ছিলো আইনকে শ্রদ্ধা করেই বক্তব্যে দেয়া। তিনি একজন সংসদ সদস্য অথ্যাৎ আইন প্রনেতা তাহলে তিনি তো বলতে পারতেন নিয়াজুলরা যদি অপরাধী হয়ে থাকে তাহলে আইন সেটা দেখে শুনেই বিবেচনা করবেন এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ করে থাকলে অবশ্যই শাস্তি পাবে। কিন্তু তিনি তা করে উল্টো বললেন, মামলা দিয়ে কী মনে করছেন? নিয়াজুলকে ধরবেন! নিজামকে ধরবেন! ধরা তো দূরের কথা মাথার চুলের আগায় হাত দিলে নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বালাইয়া দিবো। আপনার এমন বক্তব্যে তো ভবিষ্যতে আরো বেশী অস্ত্র প্রদর্শন হতে পারে আপনার অনুগতদের দ্বারা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited