বাগেরহাটে এলজিইডি’র কর্মকর্তার দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য: জনগণ ভোগান্তির চরমে

Spread the love

এস.এম.সাইফুল ইসলাম কবির,বাগেরহাট : বাগেরহাট  স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরের (এলজিইডি) জেলা ও উপজেলা শাখার কর্মকান্ডে সাধারণ জনগণ অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। কতিপয় কর্মকর্তার দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য সংস্কার কাজনিম্ন মানের হচ্ছে  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর যাতায়াতের জন্য এলজিইডি অধীন জেলার অধিকাংশ সড়ক পথ নির্মাণ কাজ শেষ হতে না হতেই চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ছে জনগণের ভোগান্তি চরমে । এ জেলার রামপাল ও মংলা উপজেলা ছাড়া বাকি ৭টি উপজেলার জনসাধারণ এলজিইডি’র কর্মকাজে সন্তোষ্ট হতে পারছে না।

আমাদের   বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবিরের পাঠানো তথ্যর ভিতিতে জানা যায়   বাগেরহাট এলজিইডি কতৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারদের সাথে অতিরিক্ত কমিশন বাণিজ্য করায় মাঠ পর্যায়ে এলজিইডি’র অধিন সড়ক ও কালভার্ট ব্রীজ নির্মাণ এবং সংস্কার কাজ  নিম্ন মানের হচ্ছে। যার ফলে এসব সড়কগুলি বেশি দিন ভাল থাকছে না অল্পদিনেই চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাগেরহাটের একাধিক ঠিকাদার বলেছেন এলজিইডি’র পিয়ন থেকে শুরু করে সকল টেবিলে কমিশন দিতে হয়।

এলজিইডি’র কতিপয় কর্মকর্তার দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য বন্ধ করে সরকারি কাজের জবাবদিহিতা নিশ্চত করলে কাজের মান শতভাগ ভাল হয়। পক্ষান্তরে জনগণের অর্থ সরকারীভাবে অপচয় হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার  বিভিন্ন এলাকায় ১০টি ব্রীজ ও কালভাটসহ পানি নিষ্কাশনের গেট ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। দ্রুত সংস্কার করা না হলে যে কোন মুহুর্তে ভেঙ্গে দুর্ঘটনার আশাংকা রয়েছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তর (এলজিইডি), পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ এগুলোকে পৃথক ভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করলেও এখনও পর্যন্ত সংস্কার বা পুনঃনির্মাণের কোন উদ্যোগ গ্রহন করেনি সংশ্লিষ্ট দপ্তর।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বাগেরহাট-খুলনা মহাসড়কের ফকিরহাট উপজেলার ব্যস্ততম ও গুরুত্বপূর্ণ কাটাখালী বাস স্ট্যান্ডের উপর নির্মিত ব্রীজ, লখপুর যুগীখালী নদীর উপর নির্মিত ব্রীজ, লখপুরের খাজুরা ১০গেট ও পাশে অবস্থিত ৬ গেট, মুলঘরের গোদাড়া ২১ গেট, একই এলাকার ডোঙ্গার ৯ গেট, নলধা-মৌভোগ ইউনিয়নের কাথলী-ফলতিতা সড়কের উপর নির্মিত সংযোগ ব্রীজ, শুভদিয়ার গৌরম্ভা সড়কের উপর কালভাট সহ প্রায় ১০টি ব্রীজ, কালভাট ও স্লুইচ গেট বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে।

এছাড়াও এলাকাবাসীর আহবানে সরেজমিনে জেলার চিতলমারী উপজেলায় গিয়ে দেখা যায় চিতলমারী সদর থেকে খাসেরহাট বাজার পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তা জনসাধারণের চলাচলের জন্য অনুপোযোগী অবস্থায় রয়েছে।  সংস্কার না হওয়ায় ওই সড়কটির প্রায় স্থানেই বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। যানবাহন তো দুরের কথা সামান্য বৃষ্টি হলেই ওই রাস্তাটি দিয়ে আর মানুষ যাতায়াত করতে পারে না।

ওই রাস্তাটির দুরাবস্থার জন্য কালিদাস বড়াল ডিগ্রি কলেজ, চরবানিয়ারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, বাহির দশ মহল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২ টি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থী ছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ নিয়মিত যাতায়াত করতে পারছে না। এ ছাড়া ওই এলাকার কৃষকদের উৎপাদিত সবজী ও মাছ খাসের হাট ও কালিগঞ্জ বাজারে এনে বিক্রি করতে পারছে না। যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় পাইকার’রা আসছে না।

কালিদাস বড়াল ডিগ্রি কলেজে’র অধ্যক্ষ স্বপন কুমার রায় সাংবাদিকদের বলেন, ওই রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। ছাত্র-ছাত্রীরা এমন কি শিক্ষক-শিক্ষিকারা চরম বিপাকে আছে। চিতলমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চরবানিয়ারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পীযুষ কান্তি রায় জানান রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের জন্য কর্তৃপক্ষকে  অবহিত করা হয়েছে। চিতলমারী উপজেলা প্রকৌশলী অমিতাভ সানা বলেন ওই রাস্তাটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার আহবান করা হয়েছে।

আগামী ডিসেম্বর নাগাদ রাস্তাটি’র কাজ শুরু হবে।  অপরদিকে, বাগেরহাট সদর উপজেলার যাত্রাপুর বাজার থেকে মশিদপুর সড়কেরও দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থা। গোটাপাড়া ইউনিয়নের পারনওয়া পাড়া আতাইকাঠি সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। এ রাস্তায় ২/৩ টি কালভার্ট ও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এলাকাবাসী বলছে বিএনপি সরকার সময়ে এ সড়কটি’র উন্নয়ন হয়েছে এরপর আর এদিকে কেহ নজর দেয়নি। বাগেরহাট সদর উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মানিক হোসেন বলেন গ্রামীণ অব কাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ আপাতত হচ্ছে না।  এলজিইডি’র অধীন বাকি  রাস্তার নির্মাণ বা সংস্কার কাজ অব্যাহত আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» কিশোর মুর্তজার মৃত্যুদণ্ড বাতিল করছে সৌদি আরব

» ঝিনাইদহে ট্রাক উল্টে খাদে, চালক-হেলপার নিহত

» তিস্তা চুক্তি ও সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে সহযোগিতার আশ্বাস

» সেদিন সেলেনার কানে যা বলেছিলেন বিল সেই ‘আসল রহস্য’ ফাঁস

» নিজেকে ‘নির্দোষ’ দাবি করলো নিউজিল্যান্ডে মসজিদের সেই হামলাকারী

» বন্দরে বসুন্ধরা সিমেন্ট ফ্যাক্টরি এখন মানুষ হত্যার কারখানা!

» নারায়ণগঞ্জের কাশীপুরে পরিত্যক্ত অবস্থায় অস্ত্র উদ্ধার

» ঝিনাইদহে ৩৫ মন ওজনের যুবরাজকে দেখতে মানুষের ভীড়, দাম হয়েছে ১৮ লাখ টাকা

» ঝিনাইদহে ২১৫ বোতল ফেনসিডিলসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ

» ভারতে পাচার হওয়া ৫ বাংলাদেশিকে বেনাপোল দিয়ে হস্তান্তর

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন








ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ২রা আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাগেরহাটে এলজিইডি’র কর্মকর্তার দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য: জনগণ ভোগান্তির চরমে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

এস.এম.সাইফুল ইসলাম কবির,বাগেরহাট : বাগেরহাট  স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরের (এলজিইডি) জেলা ও উপজেলা শাখার কর্মকান্ডে সাধারণ জনগণ অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। কতিপয় কর্মকর্তার দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য সংস্কার কাজনিম্ন মানের হচ্ছে  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর যাতায়াতের জন্য এলজিইডি অধীন জেলার অধিকাংশ সড়ক পথ নির্মাণ কাজ শেষ হতে না হতেই চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ছে জনগণের ভোগান্তি চরমে । এ জেলার রামপাল ও মংলা উপজেলা ছাড়া বাকি ৭টি উপজেলার জনসাধারণ এলজিইডি’র কর্মকাজে সন্তোষ্ট হতে পারছে না।

আমাদের   বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবিরের পাঠানো তথ্যর ভিতিতে জানা যায়   বাগেরহাট এলজিইডি কতৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারদের সাথে অতিরিক্ত কমিশন বাণিজ্য করায় মাঠ পর্যায়ে এলজিইডি’র অধিন সড়ক ও কালভার্ট ব্রীজ নির্মাণ এবং সংস্কার কাজ  নিম্ন মানের হচ্ছে। যার ফলে এসব সড়কগুলি বেশি দিন ভাল থাকছে না অল্পদিনেই চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাগেরহাটের একাধিক ঠিকাদার বলেছেন এলজিইডি’র পিয়ন থেকে শুরু করে সকল টেবিলে কমিশন দিতে হয়।

এলজিইডি’র কতিপয় কর্মকর্তার দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য বন্ধ করে সরকারি কাজের জবাবদিহিতা নিশ্চত করলে কাজের মান শতভাগ ভাল হয়। পক্ষান্তরে জনগণের অর্থ সরকারীভাবে অপচয় হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার  বিভিন্ন এলাকায় ১০টি ব্রীজ ও কালভাটসহ পানি নিষ্কাশনের গেট ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। দ্রুত সংস্কার করা না হলে যে কোন মুহুর্তে ভেঙ্গে দুর্ঘটনার আশাংকা রয়েছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তর (এলজিইডি), পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ এগুলোকে পৃথক ভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করলেও এখনও পর্যন্ত সংস্কার বা পুনঃনির্মাণের কোন উদ্যোগ গ্রহন করেনি সংশ্লিষ্ট দপ্তর।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বাগেরহাট-খুলনা মহাসড়কের ফকিরহাট উপজেলার ব্যস্ততম ও গুরুত্বপূর্ণ কাটাখালী বাস স্ট্যান্ডের উপর নির্মিত ব্রীজ, লখপুর যুগীখালী নদীর উপর নির্মিত ব্রীজ, লখপুরের খাজুরা ১০গেট ও পাশে অবস্থিত ৬ গেট, মুলঘরের গোদাড়া ২১ গেট, একই এলাকার ডোঙ্গার ৯ গেট, নলধা-মৌভোগ ইউনিয়নের কাথলী-ফলতিতা সড়কের উপর নির্মিত সংযোগ ব্রীজ, শুভদিয়ার গৌরম্ভা সড়কের উপর কালভাট সহ প্রায় ১০টি ব্রীজ, কালভাট ও স্লুইচ গেট বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে।

এছাড়াও এলাকাবাসীর আহবানে সরেজমিনে জেলার চিতলমারী উপজেলায় গিয়ে দেখা যায় চিতলমারী সদর থেকে খাসেরহাট বাজার পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তা জনসাধারণের চলাচলের জন্য অনুপোযোগী অবস্থায় রয়েছে।  সংস্কার না হওয়ায় ওই সড়কটির প্রায় স্থানেই বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। যানবাহন তো দুরের কথা সামান্য বৃষ্টি হলেই ওই রাস্তাটি দিয়ে আর মানুষ যাতায়াত করতে পারে না।

ওই রাস্তাটির দুরাবস্থার জন্য কালিদাস বড়াল ডিগ্রি কলেজ, চরবানিয়ারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, বাহির দশ মহল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২ টি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থী ছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ নিয়মিত যাতায়াত করতে পারছে না। এ ছাড়া ওই এলাকার কৃষকদের উৎপাদিত সবজী ও মাছ খাসের হাট ও কালিগঞ্জ বাজারে এনে বিক্রি করতে পারছে না। যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় পাইকার’রা আসছে না।

কালিদাস বড়াল ডিগ্রি কলেজে’র অধ্যক্ষ স্বপন কুমার রায় সাংবাদিকদের বলেন, ওই রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। ছাত্র-ছাত্রীরা এমন কি শিক্ষক-শিক্ষিকারা চরম বিপাকে আছে। চিতলমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চরবানিয়ারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পীযুষ কান্তি রায় জানান রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের জন্য কর্তৃপক্ষকে  অবহিত করা হয়েছে। চিতলমারী উপজেলা প্রকৌশলী অমিতাভ সানা বলেন ওই রাস্তাটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার আহবান করা হয়েছে।

আগামী ডিসেম্বর নাগাদ রাস্তাটি’র কাজ শুরু হবে।  অপরদিকে, বাগেরহাট সদর উপজেলার যাত্রাপুর বাজার থেকে মশিদপুর সড়কেরও দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থা। গোটাপাড়া ইউনিয়নের পারনওয়া পাড়া আতাইকাঠি সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। এ রাস্তায় ২/৩ টি কালভার্ট ও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এলাকাবাসী বলছে বিএনপি সরকার সময়ে এ সড়কটি’র উন্নয়ন হয়েছে এরপর আর এদিকে কেহ নজর দেয়নি। বাগেরহাট সদর উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মানিক হোসেন বলেন গ্রামীণ অব কাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ আপাতত হচ্ছে না।  এলজিইডি’র অধীন বাকি  রাস্তার নির্মাণ বা সংস্কার কাজ অব্যাহত আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited