কলাপাড়ায় পাঁচ স্ত্রীর স্বামী রহস্যে ঘেরা কথিত পীর গ্রেফতার

Spread the love

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,১৮নভেম্বর।। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় কথিত পীর আলতাপ হোসেন ওরফে মিন্টু হুজুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চতুর্থ স্ত্রী আসমা বেগমকে নির্মম মারধর করে চার সন্তানকে রেখে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় দায়ের করা অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

কলাপাড়া থানার এসআই জিয়া আলতাপকে দীঘর বালিয়াতলী গ্রামের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে। আসমা জানায়, আলতাপ হোসেন কৌশলে মারধর নির্যাতন করে এক এক করে আরও চারজন স্ত্রীকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি নিজে কাউকে তালাক দেননি। স্ত্রীরা নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে সন্তান-সন্ততি নিয়ে বাড়ি ছেড়েছে। পাঁচ স্ত্রীর সংসারে নয় সন্তান রয়েছে তার। চতুর্থ স্ত্রী ছাড়া অন্য কোন সন্তানেরও খোঁজ-খবর রাখেননি।

 

আসমার লিখিত অভিযোগ, তার স্বামী নিজেকে পীর সাহেব সেজে মহিলা-পুরুষকে মুরিদ করেন। মহিলা মুরিদগণ তাকে রাতে আপত্তিকর কায়দায় খেদমত করে। এসব কাজে বাধা দেয়ার কৌশলে যৌতুক দাবী করে তার ওপর নির্দয় নির্যাতন করেছে বহুবার। এনিয়ে বহুবার চেয়ারম্যানের কাছে সালিশ বৈঠক হয়েছে। তারপরও শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চালানো হয় তার ওপর। সর্বশেষ ১৪ নবেম্বর বেলা ১১টায় বেধড়ক মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয় তাকে। এ ঘটনায় আসমা বেগম কলাপাড়া থানায় বৃহস্পতিবার রাতে একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেছেন।

 

তিনি তার স্বামীর সকল কর্মকান্ডকে রহস্যময় উল্লেখ করেছেন। স্বামীর বিরুব্দে অনৈতিক কাজের অভিযোগ করে আছমা বলেন, এলাকায় নিজেকে বড় হুজুর (পীর) হিসেবে জাহির করেন। হাজার হাজার মুরিদান বানায়। যার মধ্যে মহিলাও রয়েছে। পানি পড়া, তেল পড়া দেন। দেশের বিভিন্ন স্থান, বিশেষ করে ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকে বহু লোক আসে। সমস্ত রোগের চিকিৎসা করেন।

 

অভিযুক্ত আলতাপ হোসেন বলেন, আমার বদ নসীব। রাগের মাথায় একটু মেরেছি, এটি সঠিক। কিন্তু যা বলা হয়েছে তা সম্পুর্ণ ঠিক নয়। চতুর্থ বিবি আসমা বেগম এমন কিছু কাজ করেছে যা এক কথায় অকারেন্স। বাকি চার বিবিগণও নিজেদের ভুলের কারণে চলে গেছেন। ভুলের সংশোধন তারা করতে পারেনি। আমি কাউকে অযথা হয়রাণি করিনি। ইউপি চেয়ারম্যান এবিএম হুমায়ুন কবির জানান, একবার চতুর্থ স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগ পেয়ে তিনি ডেকে শাসিয়ে দিয়েছেন।

 

কলাপাড়া থানার ওসি আলাউদ্দিন জানান, আসমা বেগমকে কতোটা নির্দয় এবং নির্মমভাবে মারধর ও মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে তা তিনি মহিলা পুলিশের মাধ্যমে অবগত হয়েছেন। আলতাফকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। বাদিনীও সময় চেয়ে ফয়সালার কথা বলেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» ফুুুুটবল খেলোয়াড় হতে না পেরেই হলেন নাট্যকার

» আমি মৃত্যুর মুখে, আমাকে বাঁচান

» আমেরিকায় অভিনেত্রী মৌসুমীকে আজীবন সম্মাননা

» নুসরাতকে হত্যার হুকুম দিয়ে ভুল করেছি, জবানবন্দিতে সিরাজ উদ দৌলা

» বান্দরবানের রুমায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় সেনাবাহিনীর ১০ সদস্য আহত

» বান্দরবানে মানবাধিকার কর্মীর বিরুদ্ধে চাঁদা দাবির অভিযোগ বৌদ্ধ ভিক্ষুর

» পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক অসন্তোষ নিয়ন্ত্রনে, চায়না শ্রমিক সহ নিহত ২; পুলিশ সহ আহত ১৫

» তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মতবিনিময় ও পরিদর্শন করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

» কলাপাড়ায় আস্থা প্রকল্পের উদ্যোগে উদযাপিত হলো যুব সমাবেশ

» বাগেরহাটে সব দোকানেই মিলছে গ্যাস সিলিন্ডার, দুর্ঘটনার আশঙ্কা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন





ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৬ই আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কলাপাড়ায় পাঁচ স্ত্রীর স্বামী রহস্যে ঘেরা কথিত পীর গ্রেফতার

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,১৮নভেম্বর।। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় কথিত পীর আলতাপ হোসেন ওরফে মিন্টু হুজুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চতুর্থ স্ত্রী আসমা বেগমকে নির্মম মারধর করে চার সন্তানকে রেখে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় দায়ের করা অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

কলাপাড়া থানার এসআই জিয়া আলতাপকে দীঘর বালিয়াতলী গ্রামের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে। আসমা জানায়, আলতাপ হোসেন কৌশলে মারধর নির্যাতন করে এক এক করে আরও চারজন স্ত্রীকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি নিজে কাউকে তালাক দেননি। স্ত্রীরা নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে সন্তান-সন্ততি নিয়ে বাড়ি ছেড়েছে। পাঁচ স্ত্রীর সংসারে নয় সন্তান রয়েছে তার। চতুর্থ স্ত্রী ছাড়া অন্য কোন সন্তানেরও খোঁজ-খবর রাখেননি।

 

আসমার লিখিত অভিযোগ, তার স্বামী নিজেকে পীর সাহেব সেজে মহিলা-পুরুষকে মুরিদ করেন। মহিলা মুরিদগণ তাকে রাতে আপত্তিকর কায়দায় খেদমত করে। এসব কাজে বাধা দেয়ার কৌশলে যৌতুক দাবী করে তার ওপর নির্দয় নির্যাতন করেছে বহুবার। এনিয়ে বহুবার চেয়ারম্যানের কাছে সালিশ বৈঠক হয়েছে। তারপরও শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চালানো হয় তার ওপর। সর্বশেষ ১৪ নবেম্বর বেলা ১১টায় বেধড়ক মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয় তাকে। এ ঘটনায় আসমা বেগম কলাপাড়া থানায় বৃহস্পতিবার রাতে একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেছেন।

 

তিনি তার স্বামীর সকল কর্মকান্ডকে রহস্যময় উল্লেখ করেছেন। স্বামীর বিরুব্দে অনৈতিক কাজের অভিযোগ করে আছমা বলেন, এলাকায় নিজেকে বড় হুজুর (পীর) হিসেবে জাহির করেন। হাজার হাজার মুরিদান বানায়। যার মধ্যে মহিলাও রয়েছে। পানি পড়া, তেল পড়া দেন। দেশের বিভিন্ন স্থান, বিশেষ করে ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকে বহু লোক আসে। সমস্ত রোগের চিকিৎসা করেন।

 

অভিযুক্ত আলতাপ হোসেন বলেন, আমার বদ নসীব। রাগের মাথায় একটু মেরেছি, এটি সঠিক। কিন্তু যা বলা হয়েছে তা সম্পুর্ণ ঠিক নয়। চতুর্থ বিবি আসমা বেগম এমন কিছু কাজ করেছে যা এক কথায় অকারেন্স। বাকি চার বিবিগণও নিজেদের ভুলের কারণে চলে গেছেন। ভুলের সংশোধন তারা করতে পারেনি। আমি কাউকে অযথা হয়রাণি করিনি। ইউপি চেয়ারম্যান এবিএম হুমায়ুন কবির জানান, একবার চতুর্থ স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগ পেয়ে তিনি ডেকে শাসিয়ে দিয়েছেন।

 

কলাপাড়া থানার ওসি আলাউদ্দিন জানান, আসমা বেগমকে কতোটা নির্দয় এবং নির্মমভাবে মারধর ও মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে তা তিনি মহিলা পুলিশের মাধ্যমে অবগত হয়েছেন। আলতাফকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। বাদিনীও সময় চেয়ে ফয়সালার কথা বলেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited