শ্রীমঙ্গলে ২ সন্তানের জননীর মৃত্যুর সুষ্ট তদন্ত দাবী

Spread the love

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার:  শ্রীমঙ্গলে ২ সন্তানের জননী ফেরদৌসি আক্তার এর বিষপানে আন্তহত্যার ঘটনায় মৃত্যুর সঠিক কারণ ও সুষ্ট তদন্ত দাবী করে শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছে তার দেবর ডা.সাইদুর রহমান। গত ১৫ আগস্ট ভাবী ফেরদৌসি আক্তার বিষপানে আন্তহত্যার ঘটনায় মৃত্যুর জন্য বড় ভাই জিয়াউল হক@ জিহাদ অনেকটা দায়ী করে গত ৩১ আগস্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে জানান- নিজ ব্যবসা প্রতিস্টানে পার্টনার করার শর্তে সৌদিআরব প্রবাসী বড় ভাই সাইফুর রহমান এর পাটানো ১১ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা আন্তসাৎ করতে চেয়ে ছিলেন জিহাদ।

 

এ নিয়ে ভাবী ও তার ভাই জিহাদ এর সাথে ব্যাবসা প্রতিস্টানের লভ্যাংশ এর টাকা নিয়ে মনো মালিন্য চলছিল। বড় ভাই জিহাদ এর প্রতারনায় ভাবী মানসিক টানাপোড়নে ছিলেন। আন্তহত্যার কিছুক্ষন আগেও তার ভাইর সাথে উত্তপ্ত কথা-বার্তা ছলছিল। এর কিছুক্ষন পর ঘটে আন্তহত্যার ঘটনা। সমন্ধী জিয়াউল হক@ জিহাদ এর প্রলোভনে পড়ে তার ব্যবসা প্রতিস্টানে পার্টনার করার শর্তে সৌদি আরবের ব্যাংক আল-জাজিরা থেকে ২০১৫ সালের ১৩ জুন ১ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা, ১১ জুলাই ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা, ১৫ আগস্ট ৫৪ হাজার টাকা, ২৭ সেপ্টেম্বর ১ লক্ষ ৭৯ হাজার ৯শত ৯৯ টাকা, ২৭ অক্টোবর ১ লক্ষ ১৬ হাজার ৯শত ৯৯টাকা, ৩১ ডিসেম্বর ৬০ হাজার ১ টাকা, ২০১৬ সালে ১৪ জানুয়ারী ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা, ২৫ জানুয়ারী ২২ হাজার ৯শত ৯৯ টাকা, ১২ মার্চ ১৫ হাজার টাকা, ৬ এপ্রিল ৮৪ হাজার ৯শত ৯৯ টাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারী ১০ হাজার টাকা, ২০১৭ সালের ১৭ এপ্রিল ১৫ হাজার টাকা ও ২৪ মে ৩২ হাজার টাকা প্রদান করেন।

 

সমন্ধী জিয়াউল হক@ জিহাদ এর সাথে পাওনা টাকা নিয়ে চরম বিরোধ। একদিকে স্বামী সন্তানের ভবিষ্যত অন্যদিকে বড় ভাই জিহাদ প্রতারনা করে টাকাগুলো আন্তসাৎ করতে চেয়েছেন। এসব মানসিক যন্তনায় তিনি হয়তো আন্তহত্যা করেছেন। তিনি সৌদিআরব প্রবাসী বড় ভাই সাইফুর রহমান এর পাটানো ১১ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা ফেরত ও তার ভাবী ফেরদৌসি আক্তার এর বিষপানে আন্তহত্যার ঘটনায় মৃত্যুর সঠিক কারণ ও সুষ্ট তদন্ত দাবী করে । উল্লেখ্য- ফেরদৌসি আক্তার হত্যাকারীদের শনাক্তকরে দ্রুত গ্রেফতার খুনিদের দৃষ্টান্তমৃলক শাস্তি দাবী করে গত ৩০ আগস্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তার বড় ভাই জিয়াউল হক@ জিহাদসহ তার পরিবারের লোকজন। ৩০ আগস্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন সম্মেলনে দাবী করা হয়, আওই গ্রামের আবুল বাসার এর কন্যা ফেরদৌসী আক্তার এর সাথে ২০১০ ইং সালে রেজিঃ নিকাহনামা মৃলে মাধবপাশা গ্রাামের মৃত দলিলুর রহমান এর পুত্র সৌদি আরবপ্রবাসী সাইফুর রহমান এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবন্ধ হন। তাদের দাম্পত্য জীবন চলা অবস্থায় মতিউর রহমান তকি ও সালমা আক্তার জন্ম গ্রহন করে। সালমা আক্তার জন্ম গ্রহন করার পর থেকেই তার পিত্রালয় থেকে যৌতুক হিসাবে পাঁচ লক্ষ টাকা এনে দেওয়ার জন্য চাপ সৃস্টি করলে সে পিত্রালয় থেকে টাকা এনে দিতে অপরগতা প্রকাশ করে।

 

এ ঘটনায় গত ১৫ আগস্ট সন্ধায় ফেরদৌসির শশুরালয়ের লোকজন তাকে কিল, ঘুষি, লাথি, মুরকর মারিয়া শ্বাসরুদ্ধ করিয়া প্রানে হত্যার চেস্টা করে এবং জোরপৃর্বক মুখে বিষ দিয়ে হত্যা করে। পরবর্তীতে, জিয়াউল হক@ জিহাদ ফেরদৌসী আক্তার এর মোবাইল ফোনে ফোন দিলে তার ছেলে মতিউর রহমান তকি (৫) ফোন রিসিভ করে জানায় তার মা মারা গেছে। মামলার বাদী জিয়াউল হক@ জিহাদ জানান- ফেরদৌসী আক্তারকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়। আমাদের উভয়ের বাড়ী পাশা-পাশি হলেও বোনের মৃত্যু সংবাদ জানানো হয়নি। তাছাড়া, গোপনে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্য্র থেকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে তার লাশ নিয়ে আসলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃতঃ ঘোষনা করেন। পরবর্তীতে তার লাশ গুম করার উদ্যাশ্যে মৌলভীবাজার থেকে গাড়ীযোগে সিলেটে নিয়ে যাওয়া হয়।

 

সর্বশেষ এ ঘটনায় জিয়াউল হক@ জিহাদ বাদী হয়ে মাধবপাশা গ্রাামের মৃত দলিলুর রহমান এর পুত্র সৌদি আরবে অবস্থানরত স্বামী সাইফুর রহমান (৩২), তার ছোট ভাই সাইদুর রহমান (২৬), দাউদুর রহমান (২৯), মোঃ সিপাতুর রহমান সিপাত (২৪),জ্যেষ্ট ভাই মশিউর রহমান রুবেল (৩৮), ভাবী সুমি আক্তার (৩০), তার মা শাশুরী সামছুননাহার (৬০) ও তার বড় বোন মৌলভীবাজার সদর উপজেলার সুলতানপুর এলাকার কাজী জুবায়ের ইসলাম এর স্ত্রী লাভলী আক্তার (৪০) কে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ইং সনের (সংশোধিত-২০০৩) এর ১১/ (ক)/৩০ আইনে গত ২৮ আগস্ট মামলা দায়ের করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» গলাচিপায় ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়ে পাঠদান

» কলাপাড়ায় গাঁজা সহ ব্যবসায়ী আটক

» এবার হাসপাতালে যাওয়ার পথে নার্সকে কুপিয়ে হত্যা

» গাছের সাথে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন

» খুনির সঙ্গে রিফাতের স্ত্রী মিন্নির ‘সম্পর্কের তথ্য’ ফাঁস

» দশমিনা-উলানিয়া সড়কের কারপিটিংপিচ উঠে খানা খন্দের সৃষ্টি

» দশমিনায় চাঁই ব্যবহারের ফলে: গল্পেরমত থেকে যাবে দেশী প্রজাতির মাছ

» কলাপাড়ায় গৃহবধু হত্যা মামলায় শ্বশুড় গ্রেফতার

» সীমান্ত প্রেসক্লাব বেনাপোলের প্রচার সম্পাদক রাসেলের উপর প্রাননাশের হুমকিতে থানায় জিডি

» কেরোসিনের চুলা বিস্ফোরণে তিন ছাত্রী দগ্ধ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ১৩ই আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শ্রীমঙ্গলে ২ সন্তানের জননীর মৃত্যুর সুষ্ট তদন্ত দাবী

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার:  শ্রীমঙ্গলে ২ সন্তানের জননী ফেরদৌসি আক্তার এর বিষপানে আন্তহত্যার ঘটনায় মৃত্যুর সঠিক কারণ ও সুষ্ট তদন্ত দাবী করে শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছে তার দেবর ডা.সাইদুর রহমান। গত ১৫ আগস্ট ভাবী ফেরদৌসি আক্তার বিষপানে আন্তহত্যার ঘটনায় মৃত্যুর জন্য বড় ভাই জিয়াউল হক@ জিহাদ অনেকটা দায়ী করে গত ৩১ আগস্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে জানান- নিজ ব্যবসা প্রতিস্টানে পার্টনার করার শর্তে সৌদিআরব প্রবাসী বড় ভাই সাইফুর রহমান এর পাটানো ১১ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা আন্তসাৎ করতে চেয়ে ছিলেন জিহাদ।

 

এ নিয়ে ভাবী ও তার ভাই জিহাদ এর সাথে ব্যাবসা প্রতিস্টানের লভ্যাংশ এর টাকা নিয়ে মনো মালিন্য চলছিল। বড় ভাই জিহাদ এর প্রতারনায় ভাবী মানসিক টানাপোড়নে ছিলেন। আন্তহত্যার কিছুক্ষন আগেও তার ভাইর সাথে উত্তপ্ত কথা-বার্তা ছলছিল। এর কিছুক্ষন পর ঘটে আন্তহত্যার ঘটনা। সমন্ধী জিয়াউল হক@ জিহাদ এর প্রলোভনে পড়ে তার ব্যবসা প্রতিস্টানে পার্টনার করার শর্তে সৌদি আরবের ব্যাংক আল-জাজিরা থেকে ২০১৫ সালের ১৩ জুন ১ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা, ১১ জুলাই ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা, ১৫ আগস্ট ৫৪ হাজার টাকা, ২৭ সেপ্টেম্বর ১ লক্ষ ৭৯ হাজার ৯শত ৯৯ টাকা, ২৭ অক্টোবর ১ লক্ষ ১৬ হাজার ৯শত ৯৯টাকা, ৩১ ডিসেম্বর ৬০ হাজার ১ টাকা, ২০১৬ সালে ১৪ জানুয়ারী ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা, ২৫ জানুয়ারী ২২ হাজার ৯শত ৯৯ টাকা, ১২ মার্চ ১৫ হাজার টাকা, ৬ এপ্রিল ৮৪ হাজার ৯শত ৯৯ টাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারী ১০ হাজার টাকা, ২০১৭ সালের ১৭ এপ্রিল ১৫ হাজার টাকা ও ২৪ মে ৩২ হাজার টাকা প্রদান করেন।

 

সমন্ধী জিয়াউল হক@ জিহাদ এর সাথে পাওনা টাকা নিয়ে চরম বিরোধ। একদিকে স্বামী সন্তানের ভবিষ্যত অন্যদিকে বড় ভাই জিহাদ প্রতারনা করে টাকাগুলো আন্তসাৎ করতে চেয়েছেন। এসব মানসিক যন্তনায় তিনি হয়তো আন্তহত্যা করেছেন। তিনি সৌদিআরব প্রবাসী বড় ভাই সাইফুর রহমান এর পাটানো ১১ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা ফেরত ও তার ভাবী ফেরদৌসি আক্তার এর বিষপানে আন্তহত্যার ঘটনায় মৃত্যুর সঠিক কারণ ও সুষ্ট তদন্ত দাবী করে । উল্লেখ্য- ফেরদৌসি আক্তার হত্যাকারীদের শনাক্তকরে দ্রুত গ্রেফতার খুনিদের দৃষ্টান্তমৃলক শাস্তি দাবী করে গত ৩০ আগস্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তার বড় ভাই জিয়াউল হক@ জিহাদসহ তার পরিবারের লোকজন। ৩০ আগস্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন সম্মেলনে দাবী করা হয়, আওই গ্রামের আবুল বাসার এর কন্যা ফেরদৌসী আক্তার এর সাথে ২০১০ ইং সালে রেজিঃ নিকাহনামা মৃলে মাধবপাশা গ্রাামের মৃত দলিলুর রহমান এর পুত্র সৌদি আরবপ্রবাসী সাইফুর রহমান এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবন্ধ হন। তাদের দাম্পত্য জীবন চলা অবস্থায় মতিউর রহমান তকি ও সালমা আক্তার জন্ম গ্রহন করে। সালমা আক্তার জন্ম গ্রহন করার পর থেকেই তার পিত্রালয় থেকে যৌতুক হিসাবে পাঁচ লক্ষ টাকা এনে দেওয়ার জন্য চাপ সৃস্টি করলে সে পিত্রালয় থেকে টাকা এনে দিতে অপরগতা প্রকাশ করে।

 

এ ঘটনায় গত ১৫ আগস্ট সন্ধায় ফেরদৌসির শশুরালয়ের লোকজন তাকে কিল, ঘুষি, লাথি, মুরকর মারিয়া শ্বাসরুদ্ধ করিয়া প্রানে হত্যার চেস্টা করে এবং জোরপৃর্বক মুখে বিষ দিয়ে হত্যা করে। পরবর্তীতে, জিয়াউল হক@ জিহাদ ফেরদৌসী আক্তার এর মোবাইল ফোনে ফোন দিলে তার ছেলে মতিউর রহমান তকি (৫) ফোন রিসিভ করে জানায় তার মা মারা গেছে। মামলার বাদী জিয়াউল হক@ জিহাদ জানান- ফেরদৌসী আক্তারকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়। আমাদের উভয়ের বাড়ী পাশা-পাশি হলেও বোনের মৃত্যু সংবাদ জানানো হয়নি। তাছাড়া, গোপনে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্য্র থেকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে তার লাশ নিয়ে আসলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃতঃ ঘোষনা করেন। পরবর্তীতে তার লাশ গুম করার উদ্যাশ্যে মৌলভীবাজার থেকে গাড়ীযোগে সিলেটে নিয়ে যাওয়া হয়।

 

সর্বশেষ এ ঘটনায় জিয়াউল হক@ জিহাদ বাদী হয়ে মাধবপাশা গ্রাামের মৃত দলিলুর রহমান এর পুত্র সৌদি আরবে অবস্থানরত স্বামী সাইফুর রহমান (৩২), তার ছোট ভাই সাইদুর রহমান (২৬), দাউদুর রহমান (২৯), মোঃ সিপাতুর রহমান সিপাত (২৪),জ্যেষ্ট ভাই মশিউর রহমান রুবেল (৩৮), ভাবী সুমি আক্তার (৩০), তার মা শাশুরী সামছুননাহার (৬০) ও তার বড় বোন মৌলভীবাজার সদর উপজেলার সুলতানপুর এলাকার কাজী জুবায়ের ইসলাম এর স্ত্রী লাভলী আক্তার (৪০) কে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ইং সনের (সংশোধিত-২০০৩) এর ১১/ (ক)/৩০ আইনে গত ২৮ আগস্ট মামলা দায়ের করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited