প্রধানমন্ত্রীই শেষ কথা,রাষ্ট্রপতির কিছু করার নেই:প্রফেসর ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী

Spread the love

নির্বাচন কমিশন (ইসি) নিয়োগে রাষ্ট্রপতির তেমন কিছু করার নেই বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কথাই শেষ কথা। তার কথার ওপর ভিত্তি করে আলোচনা করা যেতে পারে। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনে নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি। গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে আদর্শ নাগরিক আন্দোলন নামের একটি সংগঠন।

বর্তমান ইসির মেয়াদ শিগগিরই শেষ হতে যাচ্ছে। এখন চলছে নতুন কমিশন গঠনের আলোচনা। দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের একটি বিএনপি ইতিমধ্যে ইসি গঠনের জন্য একটি রূপরেখা উপস্থাপন করেছে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে। তারা সব দলের সঙ্গে আলোচনা করে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের দাবি জানিয়েছে। তবে সরকারি দল তা প্রত্যাখ্যান করায় এই প্রস্তাব নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কথা বলতে তার সময় চেয়েছে বিএনপি।

সম্ভবত এরই ইঙ্গিত করে গোলটেবিল আলোচনায় সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘রাষ্ট্রপতির কতটুকু ক্ষমতা তা আমি জানি। প্রধানমন্ত্রীকে ছাড়া কোনো কাজই করতে পারবেন না তিনি। আসলে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনের জন্য নিরপেক্ষ সরকার প্রয়োজন। দেশে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে যত নির্বাচন হয়েছে, সব কটিই সুষ্ঠু হয়েছে। তাই নির্বাচন কমিশন নয়, প্রয়োজন নিরপেক্ষ সরকার।’ নির্বাচন কমিশনে যে-ই যান সবাই চাকরি বাঁচানোর জন্য কিংবা অন্য কোনো কারণে, সরকারের কথাই শোনেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়া নিরপেক্ষ সরকারের একটি দুর্দান্ত ফর্মুলা দিয়েছিলেন জানিয়ে বিএনপির এ সাবেক নেতা বলেন, নিরপেক্ষ সরকারের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ৫ জানুয়ারি একটি হাস্যকর নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সরকার গঠন করেছে আওয়ামী লীগ। বিরোধী দল দমনে প্রধানমন্ত্রী পরিপক্ব- এমন মন্তব্য করে বদরু্দ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কন্যা ইতিমধ্যে রাজনীতিতে অনেক পরিপক্ব হয়েছেন। বিরোধী দল দমনের সব পন্থা তিনি রপ্ত করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর কথাই শেষ কথা। তাই তার কথার ওপর ভিত্তি করেই আলোচনা করা যেতে পারে।’

রোহিঙ্গাদের জন্য সীমান্ত খুলে দেয়ার দাবি জানিয়ে সাবেক এ রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘৭১ সালের কথা স্মরণ করে রোহিঙ্গাদের জন্য আমাদের সীমান্ত খুলে দেয়া উচিত। আমরা পার্শ্ববর্তী দেশে ১ কোটি লোক আশ্রয় নিয়েছিলাম, ৯ মাস তারা আমাদের সাহায্য করেছে। রোহিঙ্গাদের পক্ষে যুদ্ধ করার দরকার নেই। এই সমুদ্রে ভাসা লোকগুলোর জন্য সীমান্ত খুলে দিলেই হবে। এ সময় জাতিসংঘ তাদের সব খরচ দিলেও কেন আমরা তাদের রাখব না।’

আদর্শ নাগরিক আন্দোলন-Ideal Citizen Movement -এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুহাম্মাদ মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আল আমিন-এর সঞ্চালনায় এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী, সাবেক এমপি গোলাম মাওলানা রনি, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সিরাজুল ইসলাম, নাগরিক ফোরামের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহিল মাসুদ,জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, সংগঠনের সহ-সভাপতি তাসনীম আলম, লিয়াকত আলী, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আদেলউদ্দিন আল-মাহমুদ,  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহনূর ইসলাম শাহীন,বাহারুল ইসলাম [ইউনুস],শাহাব উদ্দিন শিহাব, সাংগঠনিক সম্পাদক, মহিউদ্দিন  মাহী, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কে.জি সেলিম, প্রচার সম্পাদক তাওহিদুল ইসলাম তৌহিদ, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আবু সাঈদ পাটোয়ারী,সহ দপ্তর সম্পাদক    শামীম আহমেদ, ক্রীড়া সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক প্রমুখ।

জাফরুল্লাহ বলেন,ক্ষমতার জন্য খালেদাকে আন্দোলনে আসতে হবে, বক্তৃতা  দিয়েই খালাস হওয়া সম্ভব নয়। ঘরে বসে কালো কাপড় মুখে দিয়ে থাকলে কেউ এসে খালেদা জিয়াকে কেউ ক্ষমতা দিয়ে যাবে না। সন্তান না কাদলে মা দুধও দেয় না। তেমনি আন্দোলন না করলে মুক্তি পাওয়াও সম্ভব নয়। আর খালেদা ক্ষমতায় না আসলে তারেক রহমনকে বিদেশেই থাকতে হবে। একসময় দেখা যাবে তারেক তার বউ এর টাকায় চলছে। রোহিঙ্গাদের সম্পর্কে তিনি বলেন, আজকে রোহিঙ্গাদের না করলে আমরা নিজেরাই মানবতা বিরোধী কাজ করছি। তাদের জন্য আমাদের দরজা খুলে দিতে হবে। তবে সর্বোচ্চ যাতে বিচরন না করতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।কক্সবাজার এলাকার পরিত্যক্ত এলাকা গুলোকে তাদের জন্য বরাদ্দ।

নির্বাচনে সেনাবাহিনী নামানো প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, সেনাবাহানী আমাদের রাষ্ট্রিয় বাহিনী। রাষ্ট্রে এতো জাতীয় কাজে তাদের নামালে দোষ কি। তারা যদি বিদেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে যেতে পারে তবে দেশে নিরপেক্ষ নির্বাচন প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখরে সমস্যা কোথায়। আমাদের দেশে মেগা লুটপাট, মেগা দুর্নীতি হচ্ছে বলেও জানান তিনি। লুটপাটের অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশে সালমান এফ রহমান এবং বিদেশে নাম উল্লেখ না করে ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রীর সন্তানকে বুঝায়।

গোলটেবিল আলোচনায় অংশ নিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মওলা রনি বলেন, ‘নির্বাচন করার মতো পরিবেশ নেই। এ দেশে ভোট হবে না- মানুষের মধ্যে এই মানসিক বৈকল্য তৈরি হয়েছে। যারা নির্বাচন করতে চায়, তারা মনে করছে ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হলে মন্ত্রী হলেও মানুষের কাছে সম্মান পাওয়া যায় না। সমাজে আজ এই রকম অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। কারও মনে বিশ্বাস এবং আস্থা নেই।’ ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের সৌন্দর‌্য হারিয়েছে উল্লেখ করে রনি বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের সৌন্দর‌্য ফিরিয়ে আনতে হবে। সব দলের সঙ্গে আলোচনা করে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করার দাবি জানান তিনি। আলোচনা সভার পর মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসানকে সভাপতি, রাজু আহমেদকে সিনিয়র সহসভাপতি এবং আল-আমীনকে সাধারণ সম্পাদক করে ‘আদর্শ নাগরিক আন্দোলন’র ১৭১ সদস্যের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» পাকিস্তানের বোলিং তোপে কোণঠাসা নিউজিল্যান্ড

» যশোরের বেনাপোল পুটখালী থেকে ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ আটক-৩

» শ্রমিকদের জন্য হাসপাতল, আবাসন, রেশনিং, শিক্ষা, পরিবহনসহ গুরুত্বপূর্ন মৌলিক বিষয়ে বর্তমান বাজেটে বরাদ্দ রাখার দাবীতে। মাননীয় স্পিকারের বরাবর স্বারকলিপি প্রদান

» উলাশীর নীলকুঠি পার্কে-বোমা হামলা ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ১৫ লাখ টাকা

» ধামইরহাট মঙ্গল খাল পুনঃ খনন হওয়ায় খুশি পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির উপকারভোগী কৃষকরা

» বেনাপোলে জয়যাত্রা টেলিভিশনের চেয়ারম্যান সিষ্টার হেলেনা জাহাঙ্গীরের সুস্থতা কামনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

» ইংল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়া

» কলাপাড়ায় তেগাছিয়ার খেঁয়াঘাট টি যেন এখন মরণ ফাঁদ! যাত্রীদের চরম দুর্ভ্যোগ

» টাকা ছাড়াই ১৮ জন বেকার যুবককে পুলিশে চাকরি দিলেন এসপি মাহবুবুর রহমান

» প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা বন্ধের পরিকল্পনা নেই: প্রতিমন্ত্রী

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন





ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ১২ই আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীই শেষ কথা,রাষ্ট্রপতির কিছু করার নেই:প্রফেসর ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

নির্বাচন কমিশন (ইসি) নিয়োগে রাষ্ট্রপতির তেমন কিছু করার নেই বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কথাই শেষ কথা। তার কথার ওপর ভিত্তি করে আলোচনা করা যেতে পারে। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনে নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি। গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে আদর্শ নাগরিক আন্দোলন নামের একটি সংগঠন।

বর্তমান ইসির মেয়াদ শিগগিরই শেষ হতে যাচ্ছে। এখন চলছে নতুন কমিশন গঠনের আলোচনা। দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের একটি বিএনপি ইতিমধ্যে ইসি গঠনের জন্য একটি রূপরেখা উপস্থাপন করেছে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে। তারা সব দলের সঙ্গে আলোচনা করে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের দাবি জানিয়েছে। তবে সরকারি দল তা প্রত্যাখ্যান করায় এই প্রস্তাব নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কথা বলতে তার সময় চেয়েছে বিএনপি।

সম্ভবত এরই ইঙ্গিত করে গোলটেবিল আলোচনায় সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘রাষ্ট্রপতির কতটুকু ক্ষমতা তা আমি জানি। প্রধানমন্ত্রীকে ছাড়া কোনো কাজই করতে পারবেন না তিনি। আসলে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনের জন্য নিরপেক্ষ সরকার প্রয়োজন। দেশে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে যত নির্বাচন হয়েছে, সব কটিই সুষ্ঠু হয়েছে। তাই নির্বাচন কমিশন নয়, প্রয়োজন নিরপেক্ষ সরকার।’ নির্বাচন কমিশনে যে-ই যান সবাই চাকরি বাঁচানোর জন্য কিংবা অন্য কোনো কারণে, সরকারের কথাই শোনেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়া নিরপেক্ষ সরকারের একটি দুর্দান্ত ফর্মুলা দিয়েছিলেন জানিয়ে বিএনপির এ সাবেক নেতা বলেন, নিরপেক্ষ সরকারের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ৫ জানুয়ারি একটি হাস্যকর নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সরকার গঠন করেছে আওয়ামী লীগ। বিরোধী দল দমনে প্রধানমন্ত্রী পরিপক্ব- এমন মন্তব্য করে বদরু্দ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কন্যা ইতিমধ্যে রাজনীতিতে অনেক পরিপক্ব হয়েছেন। বিরোধী দল দমনের সব পন্থা তিনি রপ্ত করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর কথাই শেষ কথা। তাই তার কথার ওপর ভিত্তি করেই আলোচনা করা যেতে পারে।’

রোহিঙ্গাদের জন্য সীমান্ত খুলে দেয়ার দাবি জানিয়ে সাবেক এ রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘৭১ সালের কথা স্মরণ করে রোহিঙ্গাদের জন্য আমাদের সীমান্ত খুলে দেয়া উচিত। আমরা পার্শ্ববর্তী দেশে ১ কোটি লোক আশ্রয় নিয়েছিলাম, ৯ মাস তারা আমাদের সাহায্য করেছে। রোহিঙ্গাদের পক্ষে যুদ্ধ করার দরকার নেই। এই সমুদ্রে ভাসা লোকগুলোর জন্য সীমান্ত খুলে দিলেই হবে। এ সময় জাতিসংঘ তাদের সব খরচ দিলেও কেন আমরা তাদের রাখব না।’

আদর্শ নাগরিক আন্দোলন-Ideal Citizen Movement -এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুহাম্মাদ মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আল আমিন-এর সঞ্চালনায় এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী, সাবেক এমপি গোলাম মাওলানা রনি, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সিরাজুল ইসলাম, নাগরিক ফোরামের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহিল মাসুদ,জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, সংগঠনের সহ-সভাপতি তাসনীম আলম, লিয়াকত আলী, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আদেলউদ্দিন আল-মাহমুদ,  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহনূর ইসলাম শাহীন,বাহারুল ইসলাম [ইউনুস],শাহাব উদ্দিন শিহাব, সাংগঠনিক সম্পাদক, মহিউদ্দিন  মাহী, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কে.জি সেলিম, প্রচার সম্পাদক তাওহিদুল ইসলাম তৌহিদ, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আবু সাঈদ পাটোয়ারী,সহ দপ্তর সম্পাদক    শামীম আহমেদ, ক্রীড়া সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক প্রমুখ।

জাফরুল্লাহ বলেন,ক্ষমতার জন্য খালেদাকে আন্দোলনে আসতে হবে, বক্তৃতা  দিয়েই খালাস হওয়া সম্ভব নয়। ঘরে বসে কালো কাপড় মুখে দিয়ে থাকলে কেউ এসে খালেদা জিয়াকে কেউ ক্ষমতা দিয়ে যাবে না। সন্তান না কাদলে মা দুধও দেয় না। তেমনি আন্দোলন না করলে মুক্তি পাওয়াও সম্ভব নয়। আর খালেদা ক্ষমতায় না আসলে তারেক রহমনকে বিদেশেই থাকতে হবে। একসময় দেখা যাবে তারেক তার বউ এর টাকায় চলছে। রোহিঙ্গাদের সম্পর্কে তিনি বলেন, আজকে রোহিঙ্গাদের না করলে আমরা নিজেরাই মানবতা বিরোধী কাজ করছি। তাদের জন্য আমাদের দরজা খুলে দিতে হবে। তবে সর্বোচ্চ যাতে বিচরন না করতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।কক্সবাজার এলাকার পরিত্যক্ত এলাকা গুলোকে তাদের জন্য বরাদ্দ।

নির্বাচনে সেনাবাহিনী নামানো প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, সেনাবাহানী আমাদের রাষ্ট্রিয় বাহিনী। রাষ্ট্রে এতো জাতীয় কাজে তাদের নামালে দোষ কি। তারা যদি বিদেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে যেতে পারে তবে দেশে নিরপেক্ষ নির্বাচন প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখরে সমস্যা কোথায়। আমাদের দেশে মেগা লুটপাট, মেগা দুর্নীতি হচ্ছে বলেও জানান তিনি। লুটপাটের অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশে সালমান এফ রহমান এবং বিদেশে নাম উল্লেখ না করে ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রীর সন্তানকে বুঝায়।

গোলটেবিল আলোচনায় অংশ নিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মওলা রনি বলেন, ‘নির্বাচন করার মতো পরিবেশ নেই। এ দেশে ভোট হবে না- মানুষের মধ্যে এই মানসিক বৈকল্য তৈরি হয়েছে। যারা নির্বাচন করতে চায়, তারা মনে করছে ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হলে মন্ত্রী হলেও মানুষের কাছে সম্মান পাওয়া যায় না। সমাজে আজ এই রকম অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। কারও মনে বিশ্বাস এবং আস্থা নেই।’ ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের সৌন্দর‌্য হারিয়েছে উল্লেখ করে রনি বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের সৌন্দর‌্য ফিরিয়ে আনতে হবে। সব দলের সঙ্গে আলোচনা করে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করার দাবি জানান তিনি। আলোচনা সভার পর মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসানকে সভাপতি, রাজু আহমেদকে সিনিয়র সহসভাপতি এবং আল-আমীনকে সাধারণ সম্পাদক করে ‘আদর্শ নাগরিক আন্দোলন’র ১৭১ সদস্যের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited