কুলাউড়ায় আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে বাড়ছে বানভাসী মানুষের সংখ্যা

Spread the love

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার:  স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির এক কর্মীসভা থেকে স’মিল সেক্টরে সরকার ঘোষিত নিম্নতম মজুরির গেজেট কার্যকর, নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র, সার্বিস বুক প্রদান ও ৮ ঘন্টা কর্মদিবসসহ শ্রম আইন বাস্তবায়ন এবং কর্মক্ষেত্রে কাজের পোষাক, মাক্স, হ্যামলেটসহ উপযুক্ত নিরাপত্তা প্রদান, শ্রমিকদের জন্য রেশনিং চালু, শ্রীমঙ্গলে স্থায়ী শ্রম আদালত ও যুগ্ম-শ্রম কার্যালয় স্থাপন করার দাবি জানানো হয়েছে গত ২৭ জুন বুধবার সন্ধ্যায়।

 

কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছবাজারে স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির সভাপতি মাখন বক্তের সভাপতিত্বে¡ অনুষ্টিত সভা থেকে এই দাবিগুলো করা হয়। সভার শুরুতে স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল মজিদের পিতা মোঃ হাজির মাহমুদ(৯৫)-এর বার্ধক্যজনিত মৃত্যুতে এবং গত ২৭ মে কর্মরত অবস্থায় শহীদ হোসেন নামের একজন স’মিল মৃত্যুবরণ করায় সভায় তাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয় এবং শ্রমিক শহীদ হোসেনের পরিবারকে আইনানুগ উপযুক্ত ক্ষতিপুরণ প্রদান করার দাবি জানানো হয়।

 

সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রজত বিশ্বাস, স’মিল শ্রমিক সংঘ সিলেট বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন ও মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সভাপতি মোঃ আরজান আলী। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল মজিদ, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর মিয়া, কোষাধক্ষ্য মোঃ ছালামত মিয়া, কাজল কুমার বাক্তি, শাহিন মিয়া, মোঃ মানিক মিয়া, ফরিদ মিয়া, মজিদ বক্ত, আনসার ভান্ডারী, আলমাস মিয়া প্রমূখ। সভায় বক্তারা বলেন- দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পর ২০১৪ সালে স’মিল সেক্টরে কর্মরত শ্রমিক কর্মচারীদের জন্য নিম্নতম মজুরি ঘোষণা করা হলেও এখনও অধিকাংশ স’মিলে নিম্নতম মজুরির গেজেট কার্যকর হয়নি।

 

শুধু তাই নয় স’মিল শ্রমিকরা দৈনিক ৮ ঘন্টা কর্মদিবসসহ দেশের প্রচলিত শ্রম আইনের সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত। স’মিল সেক্টরে শ্রমিকদের কাজের কোন নির্দিষ্ট কর্মঘন্টা নাই, অর্জিত ছুটি, চিকিৎসা ছুটি, উৎসব ছুটিসহ শ্রমআইনের ন্যূনতম সুযোগ-সুবিধাও কার্যকর করা হয় না। সাপ্তাহিক ছুটি প্রদান করা হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ছুটির দিনের মজুরি দেওয়া হয় না। শ্রম আইনে নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র, সার্ভিসবুক প্রদান বাধ্যতামূলক হলেও মালিকরা এসবের ধারধারেন না। স’মিল শ্রমিকদের যেমন নেই কাজের পোষাক, মাক্স, চশমা, গ্লাভস, তেমনি প্রতিষ্টানে ক্রেন ও ট্রলি না থাকায় স’মিল শ্রমিকরা অমানবিক পরিশ্রম করে বিরাট বিরাট গাছ টেনে মেশিনে তুলতে গিয়ে প্রায়ই দূর্ঘটনার শিকার হন। কিন্তু মালিকরা আহত শ্রমিকদের ক্ষতিপুরণ বা উপযুক্ত চিকিৎসা খরচ প্রদান করেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» রোহিঙ্গাদের কারণে বনাঞ্চলের ক্ষতি হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

» নুসরাত হত্যা: ১৬ আসামিকে আদালতে হাজির

» নিখোঁজের ১১ দিন পর ময়মনসিংহ থেকে সোহেল তাজের ভাগ্নে উদ্ধার

» বান্দরবানে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত

» ভারতের বিহার প্রদেশে খালি পেটে লিচু খাওয়ার পর ১০৩ শিশুর মৃত্যু

» বড়লেখায় ভোক্তা অধিকার আইনে ৪ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

» শনিবার ৪ লাখ শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন এ প্লাস

» আগৈলঝাড়ায় ১১শ’ পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারি গ্রেপ্তার

» বিশালতা : মোঃ জুমান হোসেন

» ধলাই নদীর বাঁধ ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে বসত-ভিটাসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন





ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৬ই আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ায় আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে বাড়ছে বানভাসী মানুষের সংখ্যা

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার:  স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির এক কর্মীসভা থেকে স’মিল সেক্টরে সরকার ঘোষিত নিম্নতম মজুরির গেজেট কার্যকর, নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র, সার্বিস বুক প্রদান ও ৮ ঘন্টা কর্মদিবসসহ শ্রম আইন বাস্তবায়ন এবং কর্মক্ষেত্রে কাজের পোষাক, মাক্স, হ্যামলেটসহ উপযুক্ত নিরাপত্তা প্রদান, শ্রমিকদের জন্য রেশনিং চালু, শ্রীমঙ্গলে স্থায়ী শ্রম আদালত ও যুগ্ম-শ্রম কার্যালয় স্থাপন করার দাবি জানানো হয়েছে গত ২৭ জুন বুধবার সন্ধ্যায়।

 

কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছবাজারে স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির সভাপতি মাখন বক্তের সভাপতিত্বে¡ অনুষ্টিত সভা থেকে এই দাবিগুলো করা হয়। সভার শুরুতে স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল মজিদের পিতা মোঃ হাজির মাহমুদ(৯৫)-এর বার্ধক্যজনিত মৃত্যুতে এবং গত ২৭ মে কর্মরত অবস্থায় শহীদ হোসেন নামের একজন স’মিল মৃত্যুবরণ করায় সভায় তাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয় এবং শ্রমিক শহীদ হোসেনের পরিবারকে আইনানুগ উপযুক্ত ক্ষতিপুরণ প্রদান করার দাবি জানানো হয়।

 

সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রজত বিশ্বাস, স’মিল শ্রমিক সংঘ সিলেট বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন ও মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সভাপতি মোঃ আরজান আলী। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স’মিল শ্রমিক সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল মজিদ, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর মিয়া, কোষাধক্ষ্য মোঃ ছালামত মিয়া, কাজল কুমার বাক্তি, শাহিন মিয়া, মোঃ মানিক মিয়া, ফরিদ মিয়া, মজিদ বক্ত, আনসার ভান্ডারী, আলমাস মিয়া প্রমূখ। সভায় বক্তারা বলেন- দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পর ২০১৪ সালে স’মিল সেক্টরে কর্মরত শ্রমিক কর্মচারীদের জন্য নিম্নতম মজুরি ঘোষণা করা হলেও এখনও অধিকাংশ স’মিলে নিম্নতম মজুরির গেজেট কার্যকর হয়নি।

 

শুধু তাই নয় স’মিল শ্রমিকরা দৈনিক ৮ ঘন্টা কর্মদিবসসহ দেশের প্রচলিত শ্রম আইনের সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত। স’মিল সেক্টরে শ্রমিকদের কাজের কোন নির্দিষ্ট কর্মঘন্টা নাই, অর্জিত ছুটি, চিকিৎসা ছুটি, উৎসব ছুটিসহ শ্রমআইনের ন্যূনতম সুযোগ-সুবিধাও কার্যকর করা হয় না। সাপ্তাহিক ছুটি প্রদান করা হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ছুটির দিনের মজুরি দেওয়া হয় না। শ্রম আইনে নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র, সার্ভিসবুক প্রদান বাধ্যতামূলক হলেও মালিকরা এসবের ধারধারেন না। স’মিল শ্রমিকদের যেমন নেই কাজের পোষাক, মাক্স, চশমা, গ্লাভস, তেমনি প্রতিষ্টানে ক্রেন ও ট্রলি না থাকায় স’মিল শ্রমিকরা অমানবিক পরিশ্রম করে বিরাট বিরাট গাছ টেনে মেশিনে তুলতে গিয়ে প্রায়ই দূর্ঘটনার শিকার হন। কিন্তু মালিকরা আহত শ্রমিকদের ক্ষতিপুরণ বা উপযুক্ত চিকিৎসা খরচ প্রদান করেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited