গাবতলি গরুর হাট ও মাংস ব্যবসায়ীদের প্রশাসনের নজরদারিতে আনতে হবে

প্রিয় সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা, আসসালামু আলাইকুম। পবিত্র রমজানকে স্বাগতম। রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করার আহবান জানাচ্ছি আপনাদের মাধ্যমে। সরকারের নির্দেশ মাংস ব্যবসায়ীদের মেনে চলার অনুরোধ করছি। জানি মাংস ব্যবসায়ীরা অনেক কষ্টে আছেন, ১৫ মাস গাবতলি গরু হাটের ইজারাদার ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তাদের সাথে যুদ্ধ করতে হচ্ছে। এই যুদ্ধে মাংস ব্যবসায়ীদের জয় হবে, জয় হবে জনগণের।

 

ন্যায়সঙ্গত অধিকার আদায়ে যুক্ত হয়েছেন মাননীয় বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহম্মেদ, তিনি এ বিষয়ে সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন। আরো সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র সাঈদ খোকন। ঘোষণা দিয়েছেন একটি গরুর হাট প্রতিষ্ঠা করা হবে। এখন মাংসের দাম নির্ধারন করা হয়েছে ২৬শে রমজান পর্যন্ত মেনে চলে ইতিহাস সৃষ্টি করুন। জনগণ মাংস ব্যবসায়ীদের আন্দোলনে সমর্থন করবে, জনগণের সমর্থন ছাড়া কোন ন্যায় প্রতিষ্ঠা করা যায় না। আমি সাংবাদিক ভাইদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি কিছু অসৎ মাংস ব্যবসায়ীদের মুখোশ জনসম্মুখে উন্মোচন করায়, প্রশাসন যাতে এদেরকে আইনের আওতায় আনতে পারেন।

 

প্রিয় সাংবাদিক ভাইয়েরা, সরকারের আইন অমান্য করে এখনো গাবতলি গরু হাটের ইজারাদা জনগণের অর্থ মাংস ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে লুট করে নিচ্ছে। ইতিমধ্যে বিগত ৩/৫/২০১৭ ইং তারিখে মাই টিভি’র খবরে সচিত্র প্রতিবেদন দেখানো হয়েছে। সকল দৈনিক পত্রিকা ও এমন কোন টিভি মিডিয়া নাই যারা গাবতলি গরু হাটের অত্যাচারের প্রতিবেদন দেখান নাই। তবুও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নাই। রমজান মাসে বাজার মনিটরিং এর জন্য কোন সভা করতে পারি নাই, মাংস ব্যবসায়ী সমিতির অফিসে সন্ত্রাসীরা তালা দিয়ে রেখেছেন। সিটি কর্পোরেশন সে তালা খোলার কোন ব্যবস্থা করেন নাই। আমি বিশ্বাস করি, ক্যামেরার শক্তির কাছে সব অপরাধীরা আত্মসমর্পন করতে বাধ্য হবে। সমাজে ন্যায় প্রতিষ্ঠার হাতিয়ার হচ্ছে মিডিয়া, মিডিয়ার ক্যামেরা দেখে অসৎ মাংস ব্যবসায়ীরা পালিয়ে থাকে, গাবতলি গরু হাটের ইজারাদাও পালিয়ে থাকবে। সকল দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে। মাংস ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা ডিএনসিসি’র কর্মকর্তাদের সাথে মিডিয়ায় যে কোন বিতর্কে অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত।

 

এই সরকার দূর্ণীতি নির্মুল করবেই, মিডিয়ার মাধ্যমে বলছি, দূর্ণীতি দমন কমিশনের মাধ্যমে তদন্ত করতে হবে। অনেক কষ্টে জনস্বার্থে একটি রীট আবেদন করেছি, উক্ত মামলাটি জনস্বার্থে এগিয়ে নিতে আইনজীবির সহায়তা চাই। মাংস ব্যবসায়ীদের অর্থনৈতিক অবস্থা, শিক্ষাগত যোগ্যতা, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা, সামাজিক যোগাযোগ সম্পর্কে সবই সাংবাদিক ভাইয়েরা জানেন। গুটি কয়েক সাংবাদিকদের সহায়তায় মাংস ব্যবসায়ীদের আন্দোলন শুরু হয়, তাদের মধ্যে বন্ধু ওমর ফারুক উল্লেখযোগ্য, তিনি আজ আমাদের মাঝে নেই। আজ সারা বাংলাদেশের মিডিয়ার সহায়তা পাচ্ছি, দাবী আদায় হবেই এবং সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা পাবেই। পৃথিবীর কোন লুটেরা বেশীদিন টিকে থাকতে পারে নাই। মিডিয়া ও দেশের আইন কখনো হেরে যেতে পারেনা, হারতে দেয়া হবে না, হেরে গেলে দেশে আইন বলে কিছু থাকে না।

 

হাজার কোটি টাকার মালিক অসৎ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য আমি প্রতিনিয়ত লড়ে যাচ্ছি। আমি এত সাহস, এত শক্তি কোথায় পাই ? দেশের সুশীল মিডিয়া আমাদের পাশে আছে বলে এবং আইনের বাস্তবতা ও  প্রয়োগ যেদিন হবে, সেদিন সব ধরনের অনাচার বন্ধ হতে বাধ্য। আপনাদের সবার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে আজকের মত এখানেই আমার বক্তব্য শেষ করছি। হয়তো এটাই আমার জীবনের শেষ সংবাদ সম্মেলন মাংস ব্যবসায়ীদের পক্ষে। জনগণের অধিকার, মাংস ব্যবসায়ীদের দাবী আদায়ের ব্যর্থতার দায় নিয়ে ৪০ বছরের সাংঠনিক কার্যক্রম মহাসচিবের পদ থেকে পদত্যাগ করলাম। সমিতি পুনঃগঠণ ও বিলুপ্ত না হওয়া পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করবো। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ। বিদায়ের আগে যদি কোন প্রশ্ন থাকে করতে পারেন।

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» কলাপাড়ায় রান্নার চুলা ভাঙ্গার প্রতিবাদ করায় গৃহবধুকে নির্যাতন

» নওগাঁর আত্রাই ২নং ভোঁ-পাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিকী কাউন্সিল অধিবেশন-২০১৯

» ঝিনাইদহ ইসলামিক ফাউন্ডশেনের আয়োজনে ঈদে মিলাদুন্নবী পালিত

» ঝিনাইদহে তারেক রহমানের জন্ম-বাষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

» ঝিনাইদহে তৃতীয় দিনের মত চলছে পরিবহণ ধর্মঘট, যাত্রীরা পড়ছেন মহা দুর্ভগে

» মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে ঢুকছে এরা কারা?

» দুই হাত ছাড়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়ে ফাল্গুনী আজ অফিসার

» সুফিয়া কামালের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনা সভা করেছে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট

» কলাপাড়ায় চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

» কলাপাড়ায় আয়কর মেলার উদ্বোধন

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গাবতলি গরুর হাট ও মাংস ব্যবসায়ীদের প্রশাসনের নজরদারিতে আনতে হবে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

প্রিয় সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা, আসসালামু আলাইকুম। পবিত্র রমজানকে স্বাগতম। রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করার আহবান জানাচ্ছি আপনাদের মাধ্যমে। সরকারের নির্দেশ মাংস ব্যবসায়ীদের মেনে চলার অনুরোধ করছি। জানি মাংস ব্যবসায়ীরা অনেক কষ্টে আছেন, ১৫ মাস গাবতলি গরু হাটের ইজারাদার ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তাদের সাথে যুদ্ধ করতে হচ্ছে। এই যুদ্ধে মাংস ব্যবসায়ীদের জয় হবে, জয় হবে জনগণের।

 

ন্যায়সঙ্গত অধিকার আদায়ে যুক্ত হয়েছেন মাননীয় বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহম্মেদ, তিনি এ বিষয়ে সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন। আরো সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র সাঈদ খোকন। ঘোষণা দিয়েছেন একটি গরুর হাট প্রতিষ্ঠা করা হবে। এখন মাংসের দাম নির্ধারন করা হয়েছে ২৬শে রমজান পর্যন্ত মেনে চলে ইতিহাস সৃষ্টি করুন। জনগণ মাংস ব্যবসায়ীদের আন্দোলনে সমর্থন করবে, জনগণের সমর্থন ছাড়া কোন ন্যায় প্রতিষ্ঠা করা যায় না। আমি সাংবাদিক ভাইদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি কিছু অসৎ মাংস ব্যবসায়ীদের মুখোশ জনসম্মুখে উন্মোচন করায়, প্রশাসন যাতে এদেরকে আইনের আওতায় আনতে পারেন।

 

প্রিয় সাংবাদিক ভাইয়েরা, সরকারের আইন অমান্য করে এখনো গাবতলি গরু হাটের ইজারাদা জনগণের অর্থ মাংস ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে লুট করে নিচ্ছে। ইতিমধ্যে বিগত ৩/৫/২০১৭ ইং তারিখে মাই টিভি’র খবরে সচিত্র প্রতিবেদন দেখানো হয়েছে। সকল দৈনিক পত্রিকা ও এমন কোন টিভি মিডিয়া নাই যারা গাবতলি গরু হাটের অত্যাচারের প্রতিবেদন দেখান নাই। তবুও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নাই। রমজান মাসে বাজার মনিটরিং এর জন্য কোন সভা করতে পারি নাই, মাংস ব্যবসায়ী সমিতির অফিসে সন্ত্রাসীরা তালা দিয়ে রেখেছেন। সিটি কর্পোরেশন সে তালা খোলার কোন ব্যবস্থা করেন নাই। আমি বিশ্বাস করি, ক্যামেরার শক্তির কাছে সব অপরাধীরা আত্মসমর্পন করতে বাধ্য হবে। সমাজে ন্যায় প্রতিষ্ঠার হাতিয়ার হচ্ছে মিডিয়া, মিডিয়ার ক্যামেরা দেখে অসৎ মাংস ব্যবসায়ীরা পালিয়ে থাকে, গাবতলি গরু হাটের ইজারাদাও পালিয়ে থাকবে। সকল দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে। মাংস ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা ডিএনসিসি’র কর্মকর্তাদের সাথে মিডিয়ায় যে কোন বিতর্কে অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত।

 

এই সরকার দূর্ণীতি নির্মুল করবেই, মিডিয়ার মাধ্যমে বলছি, দূর্ণীতি দমন কমিশনের মাধ্যমে তদন্ত করতে হবে। অনেক কষ্টে জনস্বার্থে একটি রীট আবেদন করেছি, উক্ত মামলাটি জনস্বার্থে এগিয়ে নিতে আইনজীবির সহায়তা চাই। মাংস ব্যবসায়ীদের অর্থনৈতিক অবস্থা, শিক্ষাগত যোগ্যতা, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা, সামাজিক যোগাযোগ সম্পর্কে সবই সাংবাদিক ভাইয়েরা জানেন। গুটি কয়েক সাংবাদিকদের সহায়তায় মাংস ব্যবসায়ীদের আন্দোলন শুরু হয়, তাদের মধ্যে বন্ধু ওমর ফারুক উল্লেখযোগ্য, তিনি আজ আমাদের মাঝে নেই। আজ সারা বাংলাদেশের মিডিয়ার সহায়তা পাচ্ছি, দাবী আদায় হবেই এবং সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা পাবেই। পৃথিবীর কোন লুটেরা বেশীদিন টিকে থাকতে পারে নাই। মিডিয়া ও দেশের আইন কখনো হেরে যেতে পারেনা, হারতে দেয়া হবে না, হেরে গেলে দেশে আইন বলে কিছু থাকে না।

 

হাজার কোটি টাকার মালিক অসৎ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য আমি প্রতিনিয়ত লড়ে যাচ্ছি। আমি এত সাহস, এত শক্তি কোথায় পাই ? দেশের সুশীল মিডিয়া আমাদের পাশে আছে বলে এবং আইনের বাস্তবতা ও  প্রয়োগ যেদিন হবে, সেদিন সব ধরনের অনাচার বন্ধ হতে বাধ্য। আপনাদের সবার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে আজকের মত এখানেই আমার বক্তব্য শেষ করছি। হয়তো এটাই আমার জীবনের শেষ সংবাদ সম্মেলন মাংস ব্যবসায়ীদের পক্ষে। জনগণের অধিকার, মাংস ব্যবসায়ীদের দাবী আদায়ের ব্যর্থতার দায় নিয়ে ৪০ বছরের সাংঠনিক কার্যক্রম মহাসচিবের পদ থেকে পদত্যাগ করলাম। সমিতি পুনঃগঠণ ও বিলুপ্ত না হওয়া পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করবো। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ। বিদায়ের আগে যদি কোন প্রশ্ন থাকে করতে পারেন।

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited