রূপগঞ্জ থেকে উদ্ধার হওয়া অস্ত্র ও গোলাবারুদের সঙ্গে দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মিল রয়েছে-সিটিটিসি প্রধান

Spread the love

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ এলাকা থেকে উদ্ধার হওয়া বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদের সঙ্গে গত বছর দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মিল রয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম।

 

মনিরুল ইসলাম বলেন, একই কৌশলে এ দুই স্থানে অস্ত্র ও গোলাবারুদ লুকিয়ে রাখা হয়েছিল।  এর পেছনে একটি চক্রই সক্রিয় থাকতে পারে। আজ শুক্রবার(০২ জুন ২০১৭) নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ৫নং সেক্টরে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল সাংবাদিকদের এসব কথা জানান। সিটিটিসি প্রধান  বলেন, রূপগঞ্জে উদ্ধার করা অস্ত্র ও গোলাবারুদ দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ যা একই পদ্ধতিতে লুকিয়ে রাখা হয়েছে।  এসব মিলের কারণে পুলিশের ধারণা এটি একই গ্রুপের কাজ। উদ্ধার হওয়া অস্ত্রগুলো সচল ও স্বয়ংক্রিয় বলেও ধারণা এই পুলিশ কর্মকর্তার। বিপুল পরিমাণ এসব অস্ত্র দুই-তিনমাস আগে এখানে রাখা হয়েছে বলেও ধারণা করছেন তিনি।

 

তবে এ ঘটনায় জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কিনা পুলিশ তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি বলে জানান। এরআগে সকালে পরিদর্শনে গিয়ে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক জানান, বড় ধরনের নাশকতার জন্য নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অস্ত্র ও গোলাবারুদের মজুদ গড়ে তোলা হয়েছিল।

 

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ‘রূপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের বগলা গ্রামে শরিফুল ইসলাম নামের একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ এসব অস্ত্রের তথ্য পায়। তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী রূপগঞ্জ উপশহরের ৩ নম্বর সেক্টরের ব্লু সিটি এলাকায় মাটি খনন করে দুটি এসএমজি উদ্ধার করা হয়। পরে আরও জিজ্ঞাসাবাদে শরিফুল স্বীকার করে, উপশহরের ৫ নম্বর সেক্টরে আরও বিপুল অস্ত্র মজুদ রয়েছে।’

 

পুলিশের মহাপরিদর্শক  জানান, এই অভিযানে একটি বাড়ি ও পাশের লেক থেকে দুটি রকেট লঞ্চার, ৬২টি এম-১৬ রাইফেল, ৫টি পিস্তল, বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে।

 

আইজিপি বলেন, ‘বাংলাদেশকে নিয়ে দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্র চলছে। সেই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই কোনও অপরাধী চক্র এই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র গোরাবারুদ এনে থাকতে পারে। এরই মধ্যে এক ব্যক্তি আমাদের হাতে গ্রেফতার হয়েছে। ওই ব্যক্তির তথ্যের ভিত্তিতে এসব অস্ত্র-গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। এই চক্রের হাতে আরও অস্ত্র-গোলাবারুদ আছে কিনা খুঁজে দেখা হচ্ছে। কারা কী কারণে কী উদ্দেশ্যে এই গোলাবারদু মজুদ করেছে, তা শিগগিরই জানা যাবে।’

 

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে জুনে রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়িতে একটি খাল থেকে ৯৭টি পিস্তল, ৪৯৪টি ম্যাগাজিন ও ১ হাজার ৬০টি গুলি উদ্ধার করেছিল পুলিশ। এসব অস্ত্রের গায়ে সিরিয়াল নম্বর, উৎপাদনকারী কোম্পানি বা দেশের নাম কিছুই লেখা ছিল না।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» মানুষ নামের অমানুষগুলো…

» বাউফলে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

» আগামী ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যেই উৎপাদনে প্রথম ইউনিট।। ছয় হাজার শ্রমিকের বেতন-ভাতা পরিশোধ

» জঙ্গী দমনের মত মাদক নির্মূলেও ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবো

» ইংল্যান্ডে বাংলাদেশের জার্সি পরা ওরা কারা?

» সন্ত্রাসীর সঙ্গে যুদ্ধ করেও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না স্ত্রী

» র‍্যাংকিংয়ে বড় সুখবর পেল বাংলাদেশ

» পাকিস্তানের বোলিং তোপে কোণঠাসা নিউজিল্যান্ড

» যশোরের বেনাপোল পুটখালী থেকে ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ আটক-৩

» শ্রমিকদের জন্য হাসপাতল, আবাসন, রেশনিং, শিক্ষা, পরিবহনসহ গুরুত্বপূর্ন মৌলিক বিষয়ে বর্তমান বাজেটে বরাদ্দ রাখার দাবীতে। মাননীয় স্পিকারের বরাবর স্বারকলিপি প্রদান

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ১৩ই আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রূপগঞ্জ থেকে উদ্ধার হওয়া অস্ত্র ও গোলাবারুদের সঙ্গে দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মিল রয়েছে-সিটিটিসি প্রধান

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ এলাকা থেকে উদ্ধার হওয়া বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদের সঙ্গে গত বছর দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মিল রয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম।

 

মনিরুল ইসলাম বলেন, একই কৌশলে এ দুই স্থানে অস্ত্র ও গোলাবারুদ লুকিয়ে রাখা হয়েছিল।  এর পেছনে একটি চক্রই সক্রিয় থাকতে পারে। আজ শুক্রবার(০২ জুন ২০১৭) নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ৫নং সেক্টরে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল সাংবাদিকদের এসব কথা জানান। সিটিটিসি প্রধান  বলেন, রূপগঞ্জে উদ্ধার করা অস্ত্র ও গোলাবারুদ দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ যা একই পদ্ধতিতে লুকিয়ে রাখা হয়েছে।  এসব মিলের কারণে পুলিশের ধারণা এটি একই গ্রুপের কাজ। উদ্ধার হওয়া অস্ত্রগুলো সচল ও স্বয়ংক্রিয় বলেও ধারণা এই পুলিশ কর্মকর্তার। বিপুল পরিমাণ এসব অস্ত্র দুই-তিনমাস আগে এখানে রাখা হয়েছে বলেও ধারণা করছেন তিনি।

 

তবে এ ঘটনায় জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কিনা পুলিশ তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি বলে জানান। এরআগে সকালে পরিদর্শনে গিয়ে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক জানান, বড় ধরনের নাশকতার জন্য নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অস্ত্র ও গোলাবারুদের মজুদ গড়ে তোলা হয়েছিল।

 

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ‘রূপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের বগলা গ্রামে শরিফুল ইসলাম নামের একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ এসব অস্ত্রের তথ্য পায়। তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী রূপগঞ্জ উপশহরের ৩ নম্বর সেক্টরের ব্লু সিটি এলাকায় মাটি খনন করে দুটি এসএমজি উদ্ধার করা হয়। পরে আরও জিজ্ঞাসাবাদে শরিফুল স্বীকার করে, উপশহরের ৫ নম্বর সেক্টরে আরও বিপুল অস্ত্র মজুদ রয়েছে।’

 

পুলিশের মহাপরিদর্শক  জানান, এই অভিযানে একটি বাড়ি ও পাশের লেক থেকে দুটি রকেট লঞ্চার, ৬২টি এম-১৬ রাইফেল, ৫টি পিস্তল, বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে।

 

আইজিপি বলেন, ‘বাংলাদেশকে নিয়ে দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্র চলছে। সেই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই কোনও অপরাধী চক্র এই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র গোরাবারুদ এনে থাকতে পারে। এরই মধ্যে এক ব্যক্তি আমাদের হাতে গ্রেফতার হয়েছে। ওই ব্যক্তির তথ্যের ভিত্তিতে এসব অস্ত্র-গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। এই চক্রের হাতে আরও অস্ত্র-গোলাবারুদ আছে কিনা খুঁজে দেখা হচ্ছে। কারা কী কারণে কী উদ্দেশ্যে এই গোলাবারদু মজুদ করেছে, তা শিগগিরই জানা যাবে।’

 

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে জুনে রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়িতে একটি খাল থেকে ৯৭টি পিস্তল, ৪৯৪টি ম্যাগাজিন ও ১ হাজার ৬০টি গুলি উদ্ধার করেছিল পুলিশ। এসব অস্ত্রের গায়ে সিরিয়াল নম্বর, উৎপাদনকারী কোম্পানি বা দেশের নাম কিছুই লেখা ছিল না।

 

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited