রাজনগরে ভূমি বিরোধকে কেন্দ্র করে হত্যাচেষ্টার শিকার ছোট ভাই

মশাহিদ আহমদ,মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলায় ভূমিবিরোধকে কেন্দ্র করে বড়ভাইয়ের ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের হত্যাচেষ্টার শিকার হয়েছেন এক ছোটভাই। নিজ দখলে থাকা পৈত্রিক সম্পত্তি অদল-বদল ও ক্ষতিপূরণ প্রদানের সিন্ধান্ত আসে প্রতিটি সালিশে। পরিবার, গ্রাম পঞ্চায়েত, গ্রাম আদালত, কোথাও নিজের পক্ষে সিদ্ধান্ত না আসায় ক্ষিপ্ত বড়ভাই ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের দিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে ছোটভাইকে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ ঘটনায় সৌভাগ্যক্রমে প্রাণে বেঁচে গেলেও, বড়ভাই ও তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকির কারণে বাড়ি-ঘর ছেড়ে ফেরারী জীবন-যাপন করতে বাধ্য হচ্ছেন ছোট ২ ভাই এবং ৩ প্রতিবেশী ও তাদের স্কুল-কলেজ পড়–য়া ছেলেমেয়েসহ পরিবারবর্গ।

থানায় দায়েরকৃত মামলা ও ভূক্তভোগী সুত্রে জানা গেছে- উপজেলার ক্ষেমসহ গ্রামের মৃত: এরশাদ মিয়ার পুত্র মো: ইব্রাহীম আলী ও ফরিদ মিয়ার মধ্যে চলমান ভূমি সম্পর্কে আদালতের নির্দেশে তদন্ত এবং উক্ত ভূমিবিরোধ নিষ্পত্তির চেষ্টায় গত ২৬ অক্টোবর দুপুরে রাজনগর সদর ইউপি’র গ্রাম আদালতে শুনানীর ধার্য্য তারিখ ছিল। শুনানী শেষে ইব্রাহীম আলী গ্রাম আদালত কক্ষ থেকে বারান্দায় বের হলে, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে জহিরুল ইসলাম, মাসিক তরফদার, বাদশা মিয়া, ইউসুফ মিয়াসহ একদল ভাড়াটে সন্ত্রাসী নিয়ে বড়ভাই ফরিদ মিয়া জনসমক্ষে প্রকাশ্যে ইব্রাহীম আলীর উপর হামলা চালান। এসময় ইব্রাহীম আলী ধরাশায়ী হয়ে পড়লে সন্ত্রাসী জহিরুল ইসলাম ডেগার দিয়ে ইব্রাহীম আলীর বুকের বাম পাশে পর পর দু’টি ঘা মেরে মৃত্যু নিশ্চিত করার চেষ্টা চালান। কোনকিছু বুঝে উঠার আগেই হঠাৎ এ সন্ত্রাসী ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার এবং গ্রাম আদালত ও বিভিন্ন প্রয়োজনে ইউপি কার্যালয়ে আগত লোকজন হতভম্ব হয়ে পড়েন।

উপস্থিত লোকজনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে আতংক। এ পর্যায়ে চেয়ারম্যান-মেম্বাররা সন্ত্রাসীদেরকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা চালিয়ে গুরুতর আহত ইব্রাহীম আলীকে উদ্ধার করে সংশিষ্ট ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুর রকিবকে দিয়ে তাকে চিকিৎসার জন্য রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে পাঠান। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই জহিরুল ইসলাম, মাসিক তরফদার গং সন্ত্রাসীরা সেখানে গিয়েও ডেগারযোগে ইব্রাহীম আলীকে আক্রমন করে। এসময় ইব্রাহীম আলীর সাথে থাকা ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুর রকিব তাদেরকে প্রতিহত করার চেষ্টায় জহিরুল ইসলামের হাতে থাকা ডেগার ধরে ফেললে মাশিক তরফদার ক্ষিপ্ত হয়ে তার হাতে থাকা কাঠের রুল দিয়ে মেম্বার আব্দুর রকিবকে আঘাত করলে, তিনি বাম চোখের নীচে আঘাতপ্রপ্ত হয়ে গুরুতর আহত হন।

এ পর্যায়ে, আহতদের শোর-চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে মেম্বার আব্দুর রকিব ও ইব্রাহীম আলীকে রক্ষা করেন। এরই মধ্যে অবস্থার অবনতি ঘটলে ইব্রাহীম আলীকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয় এবং মেম্বার আব্দুর রকিবকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৮ দিনের চিকিৎসায় কিছুটা সুস্থ্য হলেও সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকিতে ভীতসন্ত্রস্ত ইব্রাহীম আলী এখনও বাড়ি ফিরতে পারছেননা। এ ঘটনায় তার অপর ভাই লোকমান মিয়া ৫ জনের নাম উলেখ ও অজ্ঞাত আরও ৪ জনের বিরুদ্ধে রাজনগর থানায় একটি মামলা (নং- ২৬, জিআর- ১৯০, তাং- ৩০/১০/২০১৬ইং) দায়ের করেন।

অপরদিকে, রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ইউপি কার্যালয়ে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, গ্রাম আদালত অবমাননা ও ইউপি মেম্বারকে মারধোরের প্রতিবাদে পরদিন ২৭ অক্টোবর রাজনগর ইউপি কার্যালয়ে সভা ডেকে এ ঘটনা সভার কার্য্যবিবরনীতে উল্লেখপূর্বক তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রেরণ করেন ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারগণ। অপরদিকে, এ ঘটনা ধামাটাপা দিতে ফরিদ মিয়া তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদেরকে দিয়ে রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সের জরুরী বিভাগে চিকিৎসা ও ভর্তির সংগ্রহ করে, উল্টো লোকমান মিয়া, ছানাউর রহমান ছানা, আব্দুর রশিদ, মখলিছ মিয়া ও মাথির তরফদারের বিরুদ্ধে একই থানায় একটি মিথ্যা মামলা (নং- ০৩, জিআর- ১৯৩, তাং- ০৩/১১/২০১৬ইং) দায়ের করেন। ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে এ প্রতিনিধিসহ ৪ জন সাংবাদিক গত ১০ নভেম্বর বেলা ১২টায় সরেজমিন রাজনগর সদর ইউপি কার্যালয়ে গেলে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চেয়ারম্যান দেওয়ান খায়রুল মজিদ ছালেক, আহত মেম্বার আব্দুর রকিব, জিতু মিয়া, সেলিম, গফুর মিয়া, উপস্থিত কমরু মিয়া, লেবু মিয়া, আব্দুর রহিম, এমদাদ মিয়া, মোতাহির হোসেন, আব্দুল কাইয়ুম বকুল প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ ইব্রাহীম আলীর উপর ফরিদ মিয়া ও তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের হামলা ও মারধোরের সত্যতা নিশ্চিত করে ঘটনার উপরোল্লিখিত বিবরণ দেন।

সেইসাথে, ফরিদ মিয়ার দায়েরী মামলার ঘটনাটি সম্পূর্ন মিথ্যা ও সাজানো বলে নিশ্চিত করেন। এছাড়া স্থানীয় কর্ণিগ্রাম বাজারের লোকজনের কাছে জানতে চাইলে রাজনগর সদর ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ইমানী চৌধুরী, সাবেক মেম্বার আব্দুস শহিদ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গও ইব্রাহীম আলীর উপর ফরিদ মিয়া ও তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের হামলা এবং মারধোরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান- ইব্রাহীম আলীর সাথে ভূমিবিরোধসহ সকল ক্ষেত্রে এবং সর্বশেষ তার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ফরিদ মিয়া দোষী। রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাক্তার সুহেল রানা, হাসপাতালে ইব্রাহীম আলীর উপর হামলাচেষ্টা ও মেম্বার আব্দুর রকিব আহত হবার ঘটনা স্বীকার করে জানান- ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত ইব্রাহীম আলী এখানে ভর্তির পর অবস্থার অবনতি ঘটলে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ওইদিনই সন্ধ্যায় বাদশা, আলাল, জহিরুল ও মাশিক এসে মারামারিজনিত কারণে আহত জানিয়ে এখানে ভর্তি হলেও তাদের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন ছিলনা।

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সর্বশেষ আপডেট



» আগাম জামিন পেলেন ফখরুলসহ বিএনপির ১২ নেতা

» দেশে ফেরার পর সু চিকে রাজসিক অভ্যর্থনা

» কুয়াকাটায় ৫ লিটার চোলাই মদ সহ যুবক গ্রেফতার

» শৈলকুপায় আফতাব উদ্দিন স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্বোধন ও শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ

» শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষ্যে ঝিনাইদহে আলো’র মিছিল

» খাদ্য অধিকার আইনের দাবীতে ঝিনাইদহে মানববন্ধন

» শিশুদের খেলা করাকে কেন্দ্র করে ঝিনাইদহে গৃহবধুকে পিটিয়ে আহত

» জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে ফতুল্লায় সাড়াশী অভিযানে গ্রেপ্তার -১৪

» বক্তাবলীতে মেম্বার মতিনের বিএনপি ছেড়ে আ’লীগে যোগদান

» শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে মহানগর বিএনপির দোয়া

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ১লা পৌষ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাজনগরে ভূমি বিরোধকে কেন্দ্র করে হত্যাচেষ্টার শিকার ছোট ভাই

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

মশাহিদ আহমদ,মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলায় ভূমিবিরোধকে কেন্দ্র করে বড়ভাইয়ের ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের হত্যাচেষ্টার শিকার হয়েছেন এক ছোটভাই। নিজ দখলে থাকা পৈত্রিক সম্পত্তি অদল-বদল ও ক্ষতিপূরণ প্রদানের সিন্ধান্ত আসে প্রতিটি সালিশে। পরিবার, গ্রাম পঞ্চায়েত, গ্রাম আদালত, কোথাও নিজের পক্ষে সিদ্ধান্ত না আসায় ক্ষিপ্ত বড়ভাই ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের দিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে ছোটভাইকে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ ঘটনায় সৌভাগ্যক্রমে প্রাণে বেঁচে গেলেও, বড়ভাই ও তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকির কারণে বাড়ি-ঘর ছেড়ে ফেরারী জীবন-যাপন করতে বাধ্য হচ্ছেন ছোট ২ ভাই এবং ৩ প্রতিবেশী ও তাদের স্কুল-কলেজ পড়–য়া ছেলেমেয়েসহ পরিবারবর্গ।

থানায় দায়েরকৃত মামলা ও ভূক্তভোগী সুত্রে জানা গেছে- উপজেলার ক্ষেমসহ গ্রামের মৃত: এরশাদ মিয়ার পুত্র মো: ইব্রাহীম আলী ও ফরিদ মিয়ার মধ্যে চলমান ভূমি সম্পর্কে আদালতের নির্দেশে তদন্ত এবং উক্ত ভূমিবিরোধ নিষ্পত্তির চেষ্টায় গত ২৬ অক্টোবর দুপুরে রাজনগর সদর ইউপি’র গ্রাম আদালতে শুনানীর ধার্য্য তারিখ ছিল। শুনানী শেষে ইব্রাহীম আলী গ্রাম আদালত কক্ষ থেকে বারান্দায় বের হলে, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে জহিরুল ইসলাম, মাসিক তরফদার, বাদশা মিয়া, ইউসুফ মিয়াসহ একদল ভাড়াটে সন্ত্রাসী নিয়ে বড়ভাই ফরিদ মিয়া জনসমক্ষে প্রকাশ্যে ইব্রাহীম আলীর উপর হামলা চালান। এসময় ইব্রাহীম আলী ধরাশায়ী হয়ে পড়লে সন্ত্রাসী জহিরুল ইসলাম ডেগার দিয়ে ইব্রাহীম আলীর বুকের বাম পাশে পর পর দু’টি ঘা মেরে মৃত্যু নিশ্চিত করার চেষ্টা চালান। কোনকিছু বুঝে উঠার আগেই হঠাৎ এ সন্ত্রাসী ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার এবং গ্রাম আদালত ও বিভিন্ন প্রয়োজনে ইউপি কার্যালয়ে আগত লোকজন হতভম্ব হয়ে পড়েন।

উপস্থিত লোকজনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে আতংক। এ পর্যায়ে চেয়ারম্যান-মেম্বাররা সন্ত্রাসীদেরকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা চালিয়ে গুরুতর আহত ইব্রাহীম আলীকে উদ্ধার করে সংশিষ্ট ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুর রকিবকে দিয়ে তাকে চিকিৎসার জন্য রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে পাঠান। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই জহিরুল ইসলাম, মাসিক তরফদার গং সন্ত্রাসীরা সেখানে গিয়েও ডেগারযোগে ইব্রাহীম আলীকে আক্রমন করে। এসময় ইব্রাহীম আলীর সাথে থাকা ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুর রকিব তাদেরকে প্রতিহত করার চেষ্টায় জহিরুল ইসলামের হাতে থাকা ডেগার ধরে ফেললে মাশিক তরফদার ক্ষিপ্ত হয়ে তার হাতে থাকা কাঠের রুল দিয়ে মেম্বার আব্দুর রকিবকে আঘাত করলে, তিনি বাম চোখের নীচে আঘাতপ্রপ্ত হয়ে গুরুতর আহত হন।

এ পর্যায়ে, আহতদের শোর-চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে মেম্বার আব্দুর রকিব ও ইব্রাহীম আলীকে রক্ষা করেন। এরই মধ্যে অবস্থার অবনতি ঘটলে ইব্রাহীম আলীকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয় এবং মেম্বার আব্দুর রকিবকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৮ দিনের চিকিৎসায় কিছুটা সুস্থ্য হলেও সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকিতে ভীতসন্ত্রস্ত ইব্রাহীম আলী এখনও বাড়ি ফিরতে পারছেননা। এ ঘটনায় তার অপর ভাই লোকমান মিয়া ৫ জনের নাম উলেখ ও অজ্ঞাত আরও ৪ জনের বিরুদ্ধে রাজনগর থানায় একটি মামলা (নং- ২৬, জিআর- ১৯০, তাং- ৩০/১০/২০১৬ইং) দায়ের করেন।

অপরদিকে, রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ইউপি কার্যালয়ে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, গ্রাম আদালত অবমাননা ও ইউপি মেম্বারকে মারধোরের প্রতিবাদে পরদিন ২৭ অক্টোবর রাজনগর ইউপি কার্যালয়ে সভা ডেকে এ ঘটনা সভার কার্য্যবিবরনীতে উল্লেখপূর্বক তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রেরণ করেন ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারগণ। অপরদিকে, এ ঘটনা ধামাটাপা দিতে ফরিদ মিয়া তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদেরকে দিয়ে রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সের জরুরী বিভাগে চিকিৎসা ও ভর্তির সংগ্রহ করে, উল্টো লোকমান মিয়া, ছানাউর রহমান ছানা, আব্দুর রশিদ, মখলিছ মিয়া ও মাথির তরফদারের বিরুদ্ধে একই থানায় একটি মিথ্যা মামলা (নং- ০৩, জিআর- ১৯৩, তাং- ০৩/১১/২০১৬ইং) দায়ের করেন। ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে এ প্রতিনিধিসহ ৪ জন সাংবাদিক গত ১০ নভেম্বর বেলা ১২টায় সরেজমিন রাজনগর সদর ইউপি কার্যালয়ে গেলে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চেয়ারম্যান দেওয়ান খায়রুল মজিদ ছালেক, আহত মেম্বার আব্দুর রকিব, জিতু মিয়া, সেলিম, গফুর মিয়া, উপস্থিত কমরু মিয়া, লেবু মিয়া, আব্দুর রহিম, এমদাদ মিয়া, মোতাহির হোসেন, আব্দুল কাইয়ুম বকুল প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ ইব্রাহীম আলীর উপর ফরিদ মিয়া ও তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের হামলা ও মারধোরের সত্যতা নিশ্চিত করে ঘটনার উপরোল্লিখিত বিবরণ দেন।

সেইসাথে, ফরিদ মিয়ার দায়েরী মামলার ঘটনাটি সম্পূর্ন মিথ্যা ও সাজানো বলে নিশ্চিত করেন। এছাড়া স্থানীয় কর্ণিগ্রাম বাজারের লোকজনের কাছে জানতে চাইলে রাজনগর সদর ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ইমানী চৌধুরী, সাবেক মেম্বার আব্দুস শহিদ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গও ইব্রাহীম আলীর উপর ফরিদ মিয়া ও তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের হামলা এবং মারধোরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান- ইব্রাহীম আলীর সাথে ভূমিবিরোধসহ সকল ক্ষেত্রে এবং সর্বশেষ তার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ফরিদ মিয়া দোষী। রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাক্তার সুহেল রানা, হাসপাতালে ইব্রাহীম আলীর উপর হামলাচেষ্টা ও মেম্বার আব্দুর রকিব আহত হবার ঘটনা স্বীকার করে জানান- ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত ইব্রাহীম আলী এখানে ভর্তির পর অবস্থার অবনতি ঘটলে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ওইদিনই সন্ধ্যায় বাদশা, আলাল, জহিরুল ও মাশিক এসে মারামারিজনিত কারণে আহত জানিয়ে এখানে ভর্তি হলেও তাদের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন ছিলনা।

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us | Sitemap
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
সহ-সম্পাদক : নুরুজ্জামান কাফি
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited