বান্দরবানে চলছে পাহাড় কাটার মহোৎসব

রিমন পালিত,বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানের রুমায় ক্ষমতাসীন দলের প্রভাব কাটিয়ে চারটি বুলড্রোজার ব্যবহার করে পাহাড় কাটার মহোৎসবে মেতেছে প্রভাবশালী চক্র। প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তরের কোনো অনুমতি ছাড়াই জেলার রুমা উপজেলার বড়শি পাড়ায় বনাঞ্চলের অভ্যন্তরে প্রায় চার একর জায়গা পাহাড় কেটে সমান করে গড়ে তোলা হচ্ছে অবৈধ ইটের ভাটা।প্রায় দু’মাস ধরে নির্বিচারে পাহাড় কাটা হলেও প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরব ভূমিকায় রয়েছেন।

শ্রমিক ও স্থানীয়রা জানায়, জেলার রুমা উপজেলার দর্শণীয় স্থান বগালেক ট্যুরিস্ট স্পটে যাবার পথে বড়শিপাড়া এলাকায় ক্ষমতাসীন দলের প্রভাব কাটিয়ে ব্যবসায়ী আনিসুর রহমান সুজনের নেতৃত্বে একটি চক্র চারটি বুলড্রোজার, স্কেভেটর এবং শ্রমিক দিয়ে ইটের ভাটা তৈরির জন্য পাহাড় কাটছে।

প্রশাসন এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের কোনো অনুমতি ছাড়াই প্রায় দু’মাস ধরে অবৈধভাবে নির্বিচারে পাহাড় কেটে চার একর জায়গা সমান করা হচ্ছে। প্রশাসনের কাছ থেকে ইটের ভাটা স্থাপনের জন্যও কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি।

প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরব ভূমিকার সুযোগে রুমা উপজেলায় আশপাশের আরো অনেকে পাহাড় কেটে জায়গা সম্প্রসারণের কাজ করছে। সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, বুলড্রোজার দিয়ে পাহাড় কেটে ইতিমধ্যে চার একর জায়গার অনেকখানি সমান করে ফেলা হয়েছে। ছোট বড় চারটি বুলড্রোজার দিয়ে সমানতালে কাটা হচ্ছে পাহাড়। পাহাড় কাটার ছবি তোলতে গেলে গনমাধ্যমকর্মীদের বাঁধা দেয়া হয়।

স্থানীয় বাসিন্দার শৈহ্লাচিং মারমা, পারকুম বম’সহ অনেকে বলেন, ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতার ছত্রছায়ায় বড়শি পাড়া এলাকায় পাহাড় কেটে অবৈধ ইটের ভাটা গড়ে তোলা হচ্ছে। অনুমতি ছাড়ায় পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক ড্রাম চিমনী ব্যবহার করতে যাচ্ছে ইটের ভাটায়। শিশুদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়াবে এ ইটের ভাটা। পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতি পাহাড় কেটে গড়ে তোলা ইটের ভাটা।

উপজেলা মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভায়ও পাহাড় কাটা এবং ইটের ভাটা স্থাপন বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ইউএনও ও উপজেলা চেয়ারম্যান’কে বলা হয়েছে। কিন্তু অদৃশ্য কারণে আজও কোনো ব্যবস্থায় নেয়া হয়নি। নির্মাণ কাজের দায়িত্বশীল ম্যানেজার প্রকৃতি বড়–য়া বলেন, ইটের ভাটা তৈরির জন্য পাহাড়গুলো সমান করা হচ্ছে। এ ইট ভাটার মালিক ব্যবসায়ী আনিসুর রহমান সুজন। প্রাথমিকভাবে ভাটায় ড্রাম চিমনি ব্যবহার করা হবে।

তবে ইটের ভাটার মালিক আনিসুর রহমান সুজন বলেন, পাহাড় কাটা হচ্ছেনা। কিন্তু বুলড্রোজার দিয়ে ইটের ভাটার জন্য জায়গা সমান করা হচ্ছে। প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে কোনো ধরণের অনুমোদন নেয়া হয়নি। তবে ইটের ভাটা স্থাপনের জন্য প্রশাসনের কাছে অনুমতির জন্য আবেদন করা হয়েছে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিচালক মাসুদ করিম বলেন, পাহাড় কেটে পরিবেশ ধংস করে ইটের ভাটা গড়ে তোলার কোনো অনুমতি নেই। সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে রুমা উপজেলায় অবৈধভাবে স্থাপিত ইটের ভাটা মালিকের বিরুদ্ধে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রুমা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: শরিফুল হক বলেন, ইটের ভাটা স্থাপনে পরিবেশ অধিদপ্তর এবং জেলা প্রশাসনের অনুমোদন নিতে হয়। ইটের ভাটা মালিককে অনুমোদনের কাগজপত্র নিয়ে ইউএনও অফিসে আসতে বলা হয়েছে। অনুমোদনের কাগজপত্র দেখাতে না পারলে বন্ধ করে দেয়া হবে। উন্নয়নের স্বার্থে ইটের ভাটার প্রয়োজন আছে, কিন্তু সরকারী নিয়মনীতি অনুসরণ না করে অবৈধভাবে গড়ে তোলা যাবেনা।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» পুলিশের সফলতার পেছনে সাধারন মানুষের ভূমিকা ব্যাপক -ওসি কামাল উদ্দীন

» আলীরটেকের বেহাল সড়কগুলো সংস্কারে উদ্দ্যোগ নেই চেয়ারম্যানের

» মৌলভীবাজারে উদ্ভাবকের খোঁজে বিষয়ক প্রেস বিফিং

» গলাচিপায় অবরোধ শেষ হলেও চাল পাননি ৬৫০২ জেলে

» কক্সবাজারের সাংবাদিকের উপর হামলার প্রতিবাদে ঝিনাইদহে মানববন্ধন

» ঝিনাইদহে জেলা ব্র্যান্ডিং, কিশোর বাতায়ন প্রতিযোগীতা বিষয়ে তথ্য অফিসের সংবাদ সম্মেলন

» ঝিনাইদহে জাতীয় স্যানিটেশন মাস অক্টোবর ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস পালিত

» মাটিতে মিশে গেছে গঙ্গামতি সৈকতের প্রবশদ্বারের একমাত্র রাস্তা

» বান্দরবানে ই-সেবা কার্যক্রম অবহিতকরন উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্টিত

» বান্দরবানে অনুপ্রবেশকারীর রোধকল্পে সচেতন মুলক কর্মশালা অনুষ্টিত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন






Loading…

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
Email: kuakataonline@gmail.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন: + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

বান্দরবানে চলছে পাহাড় কাটার মহোৎসব

রিমন পালিত,বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানের রুমায় ক্ষমতাসীন দলের প্রভাব কাটিয়ে চারটি বুলড্রোজার ব্যবহার করে পাহাড় কাটার মহোৎসবে মেতেছে প্রভাবশালী চক্র। প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তরের কোনো অনুমতি ছাড়াই জেলার রুমা উপজেলার বড়শি পাড়ায় বনাঞ্চলের অভ্যন্তরে প্রায় চার একর জায়গা পাহাড় কেটে সমান করে গড়ে তোলা হচ্ছে অবৈধ ইটের ভাটা।প্রায় দু’মাস ধরে নির্বিচারে পাহাড় কাটা হলেও প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরব ভূমিকায় রয়েছেন।

শ্রমিক ও স্থানীয়রা জানায়, জেলার রুমা উপজেলার দর্শণীয় স্থান বগালেক ট্যুরিস্ট স্পটে যাবার পথে বড়শিপাড়া এলাকায় ক্ষমতাসীন দলের প্রভাব কাটিয়ে ব্যবসায়ী আনিসুর রহমান সুজনের নেতৃত্বে একটি চক্র চারটি বুলড্রোজার, স্কেভেটর এবং শ্রমিক দিয়ে ইটের ভাটা তৈরির জন্য পাহাড় কাটছে।

প্রশাসন এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের কোনো অনুমতি ছাড়াই প্রায় দু’মাস ধরে অবৈধভাবে নির্বিচারে পাহাড় কেটে চার একর জায়গা সমান করা হচ্ছে। প্রশাসনের কাছ থেকে ইটের ভাটা স্থাপনের জন্যও কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি।

প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরব ভূমিকার সুযোগে রুমা উপজেলায় আশপাশের আরো অনেকে পাহাড় কেটে জায়গা সম্প্রসারণের কাজ করছে। সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, বুলড্রোজার দিয়ে পাহাড় কেটে ইতিমধ্যে চার একর জায়গার অনেকখানি সমান করে ফেলা হয়েছে। ছোট বড় চারটি বুলড্রোজার দিয়ে সমানতালে কাটা হচ্ছে পাহাড়। পাহাড় কাটার ছবি তোলতে গেলে গনমাধ্যমকর্মীদের বাঁধা দেয়া হয়।

স্থানীয় বাসিন্দার শৈহ্লাচিং মারমা, পারকুম বম’সহ অনেকে বলেন, ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতার ছত্রছায়ায় বড়শি পাড়া এলাকায় পাহাড় কেটে অবৈধ ইটের ভাটা গড়ে তোলা হচ্ছে। অনুমতি ছাড়ায় পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক ড্রাম চিমনী ব্যবহার করতে যাচ্ছে ইটের ভাটায়। শিশুদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়াবে এ ইটের ভাটা। পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতি পাহাড় কেটে গড়ে তোলা ইটের ভাটা।

উপজেলা মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভায়ও পাহাড় কাটা এবং ইটের ভাটা স্থাপন বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ইউএনও ও উপজেলা চেয়ারম্যান’কে বলা হয়েছে। কিন্তু অদৃশ্য কারণে আজও কোনো ব্যবস্থায় নেয়া হয়নি। নির্মাণ কাজের দায়িত্বশীল ম্যানেজার প্রকৃতি বড়–য়া বলেন, ইটের ভাটা তৈরির জন্য পাহাড়গুলো সমান করা হচ্ছে। এ ইট ভাটার মালিক ব্যবসায়ী আনিসুর রহমান সুজন। প্রাথমিকভাবে ভাটায় ড্রাম চিমনি ব্যবহার করা হবে।

তবে ইটের ভাটার মালিক আনিসুর রহমান সুজন বলেন, পাহাড় কাটা হচ্ছেনা। কিন্তু বুলড্রোজার দিয়ে ইটের ভাটার জন্য জায়গা সমান করা হচ্ছে। প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে কোনো ধরণের অনুমোদন নেয়া হয়নি। তবে ইটের ভাটা স্থাপনের জন্য প্রশাসনের কাছে অনুমতির জন্য আবেদন করা হয়েছে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিচালক মাসুদ করিম বলেন, পাহাড় কেটে পরিবেশ ধংস করে ইটের ভাটা গড়ে তোলার কোনো অনুমতি নেই। সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে রুমা উপজেলায় অবৈধভাবে স্থাপিত ইটের ভাটা মালিকের বিরুদ্ধে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রুমা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: শরিফুল হক বলেন, ইটের ভাটা স্থাপনে পরিবেশ অধিদপ্তর এবং জেলা প্রশাসনের অনুমোদন নিতে হয়। ইটের ভাটা মালিককে অনুমোদনের কাগজপত্র নিয়ে ইউএনও অফিসে আসতে বলা হয়েছে। অনুমোদনের কাগজপত্র দেখাতে না পারলে বন্ধ করে দেয়া হবে। উন্নয়নের স্বার্থে ইটের ভাটার প্রয়োজন আছে, কিন্তু সরকারী নিয়মনীতি অনুসরণ না করে অবৈধভাবে গড়ে তোলা যাবেনা।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Loading…

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
Email: kuakataonline@gmail.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন: + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com