চিকিৎসায় গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যু, ডাক্তারকে বেধড়ক পিটুনি (ভিডিও)

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  চিকিৎসায় গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে বেধড়ক মারধর করা হলো সরকারি হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসককে। সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে মারধরের সেই ভয়াবহ ছবি। গত রোববার ভারতের উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদে এই ঘটনা ঘটে। জানা যায়, সেদিন রাত ১১টা নাগাদ হেমতাবাদ ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রেওই রোগীর মৃত্যুর পর তাঁর পরিবারের লোকজন ও প্রতিবেশীরা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্তব্যরত চিকিত্সক বিপুল ঘোষকে বেধড়ক মারধর করেন। পাশাপাশি, ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ।

 

রাতেই জখম ওই চিকিৎসককে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তাঁর মাথায় ও ঘাড়ে চোট লেগেছে বলে জানিয়েছেন সেখানকার চিকিৎসকেরা। সোমবার সকালে মৃতের পরিবারের তরফে বিপুল ঘোষের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি, হেমতাবাদ ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের তরফেও পুলিশের কাছে চিকিত্সককে মারধর ও সরকারি সম্পত্তি নষ্টের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার অনুপ জায়সবাল বলেন, ‘‘সোমবার ওই রোগীর দেহ রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। তার রিপোর্ট হাতে আসলেই মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

 

পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে, মৃত ওই রোগীর নাম সাবেদা খাতুন (৫৫)। তাঁর বাড়ি হেমতাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের ছোটকান্ত এলাকায়! সাবেদার ছেলে সবেদ আলির দাবি, তাঁর মায়ের আগে থেকেই উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা ছিল! সোমবার রাত ৯টা নাগাদ বাড়িতেই সাবেদার শ্বাসকষ্ট-সহ বুক ও পেটে ব্যথা শুরু হয়। রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ তাঁকে হেমতাবাদ ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান তাঁরা। অভিযোগ, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার পর ১০ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে সাবেদাকে বিনা চিকিত্সায় ফেলে রাখা হয়। এরপর চিকিত্সক বিপুল ঘোষ সাবেদাকে দেখেন। তাঁর নির্দেশে একজন নার্স সাবেদাকে একটি ইঞ্জেকশন ও স্যালাইন দেন। কিছুক্ষণ পর আর একটি ইঞ্জেকশন দিলে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়।

 

সবেদের অভিযোগ, বিপুলবাবু ও নার্সদের গাফিলতির জেরেই তাঁর মায়ের মৃত্যু হয়েছে। এরপরেই স্বাস্থ্যকেন্দ্রের বহির্বিভাগ, জরুরিবিভাগ, স্টোররুম-সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের একাধিক দরজা, জানালা, কাচ, প্লাইউডের দেওয়াল, চেয়ার, টেবিল, ডাস্টবিন এবং একটি সিসি ক্যামেরা, ট্রলি-সহ বিভিন্নসামগ্রী ভাঙচুর করা হয়। ব্যাপক মারধর করা ডাঃ বিপুলকে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, ওই রোগিণীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আনা হয়েছিল। ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» কলাপাড়ার ধানখালী ডিগ্রী কলেজ বাজারের রাস্তাটির বেহাল দশা”দেখার কেউ নাই !

» ফতুল্লায় চোরদের উপদ্রবে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে বাসিন্দারা

» গোপালগঞ্জে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গোপালগঞ্জে দিনব্যাপী ফ্রি-মেডিকেল ক্যাম্প

» গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে জমে উঠেছে কোরবানীর পশুরহাট

» ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ৮ মাস ধরে ব্যবসায়ী নিখোঁজ

» বাগেরহাটে-শরণখোলা আঞ্চলিক মহাসড়কে দূর্ঘটনা নিহত-১, আহত ৫

» বাগেরহাটে ৪০ মন জমজ ভাই সাড়ে ৬ লাখ টাকায় বিক্রি!

» উদ্বোধনের অপেক্ষায় দশমিনা ফায়ার সাব-ষ্টেশন

» নওগাঁয় জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মান কাজের উদ্ধোধন

» কুয়াকাটা রাখাইন মার্কেটে জলাবদ্ধতা॥ দুর্ভোগে ব্যবসায়ী ও পর্যটকরা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন




ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
Email: info@kuakatanews.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

চিকিৎসায় গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যু, ডাক্তারকে বেধড়ক পিটুনি (ভিডিও)

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  চিকিৎসায় গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে বেধড়ক মারধর করা হলো সরকারি হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসককে। সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে মারধরের সেই ভয়াবহ ছবি। গত রোববার ভারতের উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদে এই ঘটনা ঘটে। জানা যায়, সেদিন রাত ১১টা নাগাদ হেমতাবাদ ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রেওই রোগীর মৃত্যুর পর তাঁর পরিবারের লোকজন ও প্রতিবেশীরা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্তব্যরত চিকিত্সক বিপুল ঘোষকে বেধড়ক মারধর করেন। পাশাপাশি, ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ।

 

রাতেই জখম ওই চিকিৎসককে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তাঁর মাথায় ও ঘাড়ে চোট লেগেছে বলে জানিয়েছেন সেখানকার চিকিৎসকেরা। সোমবার সকালে মৃতের পরিবারের তরফে বিপুল ঘোষের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি, হেমতাবাদ ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের তরফেও পুলিশের কাছে চিকিত্সককে মারধর ও সরকারি সম্পত্তি নষ্টের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার অনুপ জায়সবাল বলেন, ‘‘সোমবার ওই রোগীর দেহ রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। তার রিপোর্ট হাতে আসলেই মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

 

পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে, মৃত ওই রোগীর নাম সাবেদা খাতুন (৫৫)। তাঁর বাড়ি হেমতাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের ছোটকান্ত এলাকায়! সাবেদার ছেলে সবেদ আলির দাবি, তাঁর মায়ের আগে থেকেই উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা ছিল! সোমবার রাত ৯টা নাগাদ বাড়িতেই সাবেদার শ্বাসকষ্ট-সহ বুক ও পেটে ব্যথা শুরু হয়। রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ তাঁকে হেমতাবাদ ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান তাঁরা। অভিযোগ, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার পর ১০ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে সাবেদাকে বিনা চিকিত্সায় ফেলে রাখা হয়। এরপর চিকিত্সক বিপুল ঘোষ সাবেদাকে দেখেন। তাঁর নির্দেশে একজন নার্স সাবেদাকে একটি ইঞ্জেকশন ও স্যালাইন দেন। কিছুক্ষণ পর আর একটি ইঞ্জেকশন দিলে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়।

 

সবেদের অভিযোগ, বিপুলবাবু ও নার্সদের গাফিলতির জেরেই তাঁর মায়ের মৃত্যু হয়েছে। এরপরেই স্বাস্থ্যকেন্দ্রের বহির্বিভাগ, জরুরিবিভাগ, স্টোররুম-সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের একাধিক দরজা, জানালা, কাচ, প্লাইউডের দেওয়াল, চেয়ার, টেবিল, ডাস্টবিন এবং একটি সিসি ক্যামেরা, ট্রলি-সহ বিভিন্নসামগ্রী ভাঙচুর করা হয়। ব্যাপক মারধর করা ডাঃ বিপুলকে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, ওই রোগিণীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আনা হয়েছিল। ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
Email: info@kuakatanews.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited