কোটা সংস্কার আন্দোল: বাইরের ছেলেরা কেন আমার গায়ে টাচ করবে?

কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফারুক হাছানকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে ছাত্রলীগের হামলা থেকে বাঁচাতে গিয়ে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী মরিয়ম। এ সময় শাহবাগ থানায় আটকে রেখে ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগও করেন পুলিশের বিরুদ্ধে।

 

তিনি বলেন, ‘যখন আমাকে তুলে সিএনজির ভেতরে করে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন সিএনজির প্রত্যেকটা মুহূর্ত ছিল আমার কাছে জাহান্নাম। পরে আমি ভেবেছি, হয়তো থানায় গেলে সেভ থাকবো। কিন্তু না, থানা ছিল আমার জন্য সেকেন্ড জাহান্নাম।গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে মরিয়ম এসব কথা বলেন।

 

 

তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে একটি কর্মসূচিতে অংশ নিতে আমি সেদিন (রবিবার, ২ জুলাই) শহীদ মিনারে গিয়েছিলাম। এর আগে আমি ব্যক্তিগতভাবে ফারুক ভাইকে চিনতাম না। সেখানে এসে দেখি কিছু লোক ফারুক ভাইকে বেধড়ক মারতেছে। তখন এ দৃশ্য দেখে আমি ফারুক ভাইকে বাঁচাতে এগিয়ে যাই। তারা এমনভাবে কুকুরের মতো মারতেছে, তা দেখে শুধু আমি না, যে কেউ এগিয়ে যাবে। তারপর আমি ফারুক ভাইকে একটি রিকশায় তুলতে চাইলে ছাত্রলীগের নেতারা তাকে মেরে একটি মোটরসাইকেলে করে তুলে নিয়ে যায়।’

 

তিনি বলেন, ‘তারপর তারা আমাকে ধরে নিয়ে আমার শরীরের কোন কোন জায়গায় হাত দিছে তা আপনারা শুনতে চান? আপনারা আমাকে সিমপ্যাথি দেখাতে আসবেন না। সিমপ্যাথি নেওয়ার মেয়ে আমি না। আমি ইনটেনশনালি এই আন্দোলনে এসেছি। অ্যাজ এ হিউম্যান, আমার কিছু রাইটস আছে। যদি আমার কোনও অন্যায় হয়ে থাকে, তাহলে পুলিশ আমাকে ধরে নিয়ে যেতে পারতো। আমাকে কোর্টে চালান করে দিতে পারতো। কিন্তু বাইরের ছেলেরা কেন আমাকে তুলে নিয়ে যাবে। কেন তারা আমার গায়ে টাচ করবে? এটা শুনতে ইচ্ছা করছে আপনাদের? ‘তারা আমাকে একটি সিএনজিতে করে থানায় নিয়ে যায়। তারা আমার সঙ্গে খুব বাজে ব্যবহার করেছে।

 

আমি যখন সিএনজিতে ছিলাম, তখন সিএনজির প্রত্যেকটা মুহূর্ত ছিল আমার কাছে জাহান্নাম। পরে আমি ভেবেছি, হয়তো থানায় গেলে আমি সেভ থাকবো। কিন্তু না, থানা ছিল আমার জন্য সেকেন্ড জাহান্নাম। আমার সঙ্গে যেটা হয়েছে, তা আপনাদের সামনে বলতে আমার খুব খারাপ লাগছে।’ কারা তাকে সিএনজিতে নিয়েছিল এমন প্রশ্নের জবাবে মরিয়ম জানান, তাদের তিনি চেনেন না। তবে ফারুককে যারা মারধর করেছিলেন, তারাই তাকে থানায় নিয়ে যান। মরিয়মের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের বিদায়ী কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফ উদ্দিন বাবু তা ‘মিথ্যাচার’ বলে উড়িয়ে দেন।

 

শাহবাগ থানায় তাকে নিগ্রহের শিকার হতে হয়েছিল অভিযোগ করে মরিয়ম বলেন, পুলিশ মাদকসেবী প্রমাণের চেষ্টা চালিয়েছিল। এমনকি আমার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ পর্যন্ত করতে দেয়নি। তিনি বলেন, আমি যখন বারবার কান্না করে বলতেছি, আমার বাসায় একটা ফোন দিতে দেন, আমি বাসায় যাব। দিচ্ছে না, বলে কী- ‘নেতা হবা? নেতা হতে হলে জেল খাটতে হয়’। তিনি বলেন, তারা আমাকে স্বীকার করাচ্ছে, কেন্দ্রীয় কমিটির (পরিষদ) অনেক গোপন খবর আমি জানি। তাদেরকে তা দিতে হবে।

 

রাতভর রাখার পরের দিন দুপুরে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানান মরিয়ম। এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বৃহস্পতিবার বিকালে ওই ছাত্রীর অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, থানায় নিয়ে মরিয়মকে কোনো ধরনের নির্যাতন কিংবা ভয়-ভীতি দেখানো হয়নি। তার অভিযোগ ভিত্তিহীন।

 

উল্লেখ্য, গত রবিবার (২ জুলাই) শহীদ মিনারে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদ জানাতে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আন্দোলনকারীরা সেখানে উপস্থিত হয়। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় বলে আন্দোলনকারীরা অভিযোগ করেন। ঘটনাস্থল থেকে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফারুক হাছানকে কিল, লাথি ও ঘুষি মেরে তুলে নিয়ে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করা হয়। এ সময় ফারুককে বাঁচাতে গেলে আন্দোলনকারী মরিয়মকেও ছাত্রলীগ কর্মীরা তুলে নিয়ে নির্যাতন করে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» মাদারীপুরের অদম্য মেধাবী কাকলীর পাশে র‌্যাব -৮

» মাহমুদুর রহমানকে নিয়ে আসা হচ্ছে ইউনাইটেড হাসপাতালে

» কুষ্টিয়ায় মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা

» ফতুল্লায় নারী শ্রমিক গনধর্ষনের শিকার থানায় মামলা গ্রেপ্তার-১

» ফতুল্লায় পরকিয়া প্রেমিকের সাথে চম্পট হওয়া লাকী আটক

» ফতুল্লায় ২৩০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেপ্তার-৫

» কোর্টের মাধ্যমে ‘মা’ খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবেনা – আজাদ বিশ্বাস

» আবারো হোন্ডা যোগে পালালো মনির শিষ্য সায়েম,মাহবুব

» ফতুল্লায় সংখ্যালঘু’র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিলো তোতলা বিল্লাল!

» সাকিব-তামিমের জোড়া ফিফটিতে স্বস্তিতে বাংলাদেশ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন






ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
Email: info@kuakatanews.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

কোটা সংস্কার আন্দোল: বাইরের ছেলেরা কেন আমার গায়ে টাচ করবে?

কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফারুক হাছানকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে ছাত্রলীগের হামলা থেকে বাঁচাতে গিয়ে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী মরিয়ম। এ সময় শাহবাগ থানায় আটকে রেখে ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগও করেন পুলিশের বিরুদ্ধে।

 

তিনি বলেন, ‘যখন আমাকে তুলে সিএনজির ভেতরে করে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন সিএনজির প্রত্যেকটা মুহূর্ত ছিল আমার কাছে জাহান্নাম। পরে আমি ভেবেছি, হয়তো থানায় গেলে সেভ থাকবো। কিন্তু না, থানা ছিল আমার জন্য সেকেন্ড জাহান্নাম।গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে মরিয়ম এসব কথা বলেন।

 

 

তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে একটি কর্মসূচিতে অংশ নিতে আমি সেদিন (রবিবার, ২ জুলাই) শহীদ মিনারে গিয়েছিলাম। এর আগে আমি ব্যক্তিগতভাবে ফারুক ভাইকে চিনতাম না। সেখানে এসে দেখি কিছু লোক ফারুক ভাইকে বেধড়ক মারতেছে। তখন এ দৃশ্য দেখে আমি ফারুক ভাইকে বাঁচাতে এগিয়ে যাই। তারা এমনভাবে কুকুরের মতো মারতেছে, তা দেখে শুধু আমি না, যে কেউ এগিয়ে যাবে। তারপর আমি ফারুক ভাইকে একটি রিকশায় তুলতে চাইলে ছাত্রলীগের নেতারা তাকে মেরে একটি মোটরসাইকেলে করে তুলে নিয়ে যায়।’

 

তিনি বলেন, ‘তারপর তারা আমাকে ধরে নিয়ে আমার শরীরের কোন কোন জায়গায় হাত দিছে তা আপনারা শুনতে চান? আপনারা আমাকে সিমপ্যাথি দেখাতে আসবেন না। সিমপ্যাথি নেওয়ার মেয়ে আমি না। আমি ইনটেনশনালি এই আন্দোলনে এসেছি। অ্যাজ এ হিউম্যান, আমার কিছু রাইটস আছে। যদি আমার কোনও অন্যায় হয়ে থাকে, তাহলে পুলিশ আমাকে ধরে নিয়ে যেতে পারতো। আমাকে কোর্টে চালান করে দিতে পারতো। কিন্তু বাইরের ছেলেরা কেন আমাকে তুলে নিয়ে যাবে। কেন তারা আমার গায়ে টাচ করবে? এটা শুনতে ইচ্ছা করছে আপনাদের? ‘তারা আমাকে একটি সিএনজিতে করে থানায় নিয়ে যায়। তারা আমার সঙ্গে খুব বাজে ব্যবহার করেছে।

 

আমি যখন সিএনজিতে ছিলাম, তখন সিএনজির প্রত্যেকটা মুহূর্ত ছিল আমার কাছে জাহান্নাম। পরে আমি ভেবেছি, হয়তো থানায় গেলে আমি সেভ থাকবো। কিন্তু না, থানা ছিল আমার জন্য সেকেন্ড জাহান্নাম। আমার সঙ্গে যেটা হয়েছে, তা আপনাদের সামনে বলতে আমার খুব খারাপ লাগছে।’ কারা তাকে সিএনজিতে নিয়েছিল এমন প্রশ্নের জবাবে মরিয়ম জানান, তাদের তিনি চেনেন না। তবে ফারুককে যারা মারধর করেছিলেন, তারাই তাকে থানায় নিয়ে যান। মরিয়মের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের বিদায়ী কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফ উদ্দিন বাবু তা ‘মিথ্যাচার’ বলে উড়িয়ে দেন।

 

শাহবাগ থানায় তাকে নিগ্রহের শিকার হতে হয়েছিল অভিযোগ করে মরিয়ম বলেন, পুলিশ মাদকসেবী প্রমাণের চেষ্টা চালিয়েছিল। এমনকি আমার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ পর্যন্ত করতে দেয়নি। তিনি বলেন, আমি যখন বারবার কান্না করে বলতেছি, আমার বাসায় একটা ফোন দিতে দেন, আমি বাসায় যাব। দিচ্ছে না, বলে কী- ‘নেতা হবা? নেতা হতে হলে জেল খাটতে হয়’। তিনি বলেন, তারা আমাকে স্বীকার করাচ্ছে, কেন্দ্রীয় কমিটির (পরিষদ) অনেক গোপন খবর আমি জানি। তাদেরকে তা দিতে হবে।

 

রাতভর রাখার পরের দিন দুপুরে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানান মরিয়ম। এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বৃহস্পতিবার বিকালে ওই ছাত্রীর অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, থানায় নিয়ে মরিয়মকে কোনো ধরনের নির্যাতন কিংবা ভয়-ভীতি দেখানো হয়নি। তার অভিযোগ ভিত্তিহীন।

 

উল্লেখ্য, গত রবিবার (২ জুলাই) শহীদ মিনারে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদ জানাতে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আন্দোলনকারীরা সেখানে উপস্থিত হয়। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় বলে আন্দোলনকারীরা অভিযোগ করেন। ঘটনাস্থল থেকে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফারুক হাছানকে কিল, লাথি ও ঘুষি মেরে তুলে নিয়ে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করা হয়। এ সময় ফারুককে বাঁচাতে গেলে আন্দোলনকারী মরিয়মকেও ছাত্রলীগ কর্মীরা তুলে নিয়ে নির্যাতন করে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
মফস্বল বিভাগ প্রধান: উত্তম কুমার হাওলাদার
Email: info@kuakatanews.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
বিজ্ঞাপন এবং নিউজ : + ৮৮ ০১৭১৬ ৮৯২ ৯৭০।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited