বরগুনায় এতিমদের নামে বরাদ্দকৃত টাকা লোপাট!

শাহ্ আলী,বরগুনা: বরগুনা সদর উপজেলার বালিয়াতলী ইউনিয়নের ছোট বালিয়াতলী ছালেহিয়া এতিম খানায় ১১ জন এতিম শিশুদের অনূকুলে সমাজসেবা মন্ত্রনালয় থেকে ১৬-১৭ অর্থ বছরে দুই কিস্তিতে ১ লাখ ৩২ হাজার টাকা ক্যাপিটেশন গ্রান্ট বরাদ্দ দেওয়া হয়। এতিম শূন্য এতিমখানায় এই বরাদ্দকৃত টাকা উত্তোলন করে এতিখানার সভাপতি, সম্পাদক লোপাট করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে দেখা যায়, ছালেহিয়া এতিমখানায় মাত্র দু’জন দুস্থ শিশু রয়েছে। এদের একজনের কাছ থেকে ৩’শ ও অন্য জনের কাছ থেকে ১’শ টাকা প্রতি মাসে খাওয়া বাবদ আদায় করছেন এতিমখানার সভাপতি/সম্পাদক। এই দু’জন ছাড়া বাকী দু’চারজন যারা আছে তারা ঐ মাদ্রাসায় পড়–য়া দুরের সচ্ছল পরিবারের সন্তান। মাদ্রাসার বোর্ডিংএ থেকে লেখাপড়া করে। ওই শিশুদের কাছ থেকে জানা যায়, তারা খাওয়া বাবদ বোর্ডিংএ মাস প্রতি ১’শ থেকে ৮’শ টাকা দিয়ে থাকেন।

জেলা সমাজসেবা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, প্রত্যেক এতিমখানার রেজিষ্ট্রেশন পেতে হলে নি¤েœ ১০ জন এতিম থাকতে হবে এবং ক্যাপিটেশন গ্রান্ট বরাদ্দের দ্বিগুন এতিমের ভরন-পোষন দিতে হবে এতিমখানার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালকের। ছালেহিয়া এতিমখানায় দেখা যায়, ১১ জন এতিমের নামে বরাদ্দ দিয়েছে বরগুনা জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তর, অথচ এই এতিমখানায় নিয়মানুযায়ী কমপক্ষে ২২ জন এতিম থাকার কথা। তাছাড়া এতিম শিশুদের নির্দিষ্ট ঘর থাকার কথা কিন্তু এখানে তা নেই, আছে মাদ্রাসার একটি বোর্ডিং। এতিম শিশুরা কোথায়? এতিমখানার সাধারণ সম্পাদক হাফেজ দেলোয়ার হোসেনকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন তারা বাড়ীতে গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার এক ব্যক্তি বলেন, ঐ এতিমখানায় আদৌ কোন এতিম নেই। সভাপতি সম্পাদক বছরের পর বছর ১১ জন এতিমের নামে সরকারী টাকা উত্তোলন করছে, আর এ টাকা তারা ব্যয় করছেন নিজেদের কাজে। দেলোয়ার মাওলানার আয়ের কোন উৎস নেই। তিনি একজন প্রতারক। হজ্ব করাতে নিবেন বলে ৬ জনের কাছ থেকে প্রায় ১৮ লাখ টাকা তিনি আত্মসাৎ করেন।

যে দুজন দুস্থ শিশু রয়েছে তাদের কাছ থেকে খাওয়া বাবদ টাকা নেয়া হয় কিনা জানতে চাইলে ছালেহিয়া এতিমখানার সভাপতি আবুল কালাম আকন জানান, হ্যা এদের কাছ থেকে অল্পস্বল্প টাকা নেয়া হয়। হাফেজ সাহেব, বাবুর্চি আছে এদের বেতন দিতে হয়।

এ ব্যাপারে জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক স্বপন কুমার মূখার্জী জানান, ওই প্রতিষ্ঠানে যদি এতিম/দুস্থদের কাছ থেকে টাকা উত্তোলন করা হয়, আর যদি কোন এতিম না থাকে তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে সত্যতা প্রমানিত হলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

সর্বশেষ আপডেট



» পুলিশের সফলতার পেছনে সাধারন মানুষের ভূমিকা ব্যাপক -ওসি কামাল উদ্দীন

» আলীরটেকের বেহাল সড়কগুলো সংস্কারে উদ্দ্যোগ নেই চেয়ারম্যানের

» মৌলভীবাজারে উদ্ভাবকের খোঁজে বিষয়ক প্রেস বিফিং

» গলাচিপায় অবরোধ শেষ হলেও চাল পাননি ৬৫০২ জেলে

» কক্সবাজারের সাংবাদিকের উপর হামলার প্রতিবাদে ঝিনাইদহে মানববন্ধন

» ঝিনাইদহে জেলা ব্র্যান্ডিং, কিশোর বাতায়ন প্রতিযোগীতা বিষয়ে তথ্য অফিসের সংবাদ সম্মেলন

» ঝিনাইদহে জাতীয় স্যানিটেশন মাস অক্টোবর ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস পালিত

» মাটিতে মিশে গেছে গঙ্গামতি সৈকতের প্রবশদ্বারের একমাত্র রাস্তা

» বান্দরবানে ই-সেবা কার্যক্রম অবহিতকরন উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্টিত

» বান্দরবানে অনুপ্রবেশকারীর রোধকল্পে সচেতন মুলক কর্মশালা অনুষ্টিত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন






Loading…

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
Email: kuakataonline@gmail.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন: + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: editor.kuakatanews@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

বরগুনায় এতিমদের নামে বরাদ্দকৃত টাকা লোপাট!

শাহ্ আলী,বরগুনা: বরগুনা সদর উপজেলার বালিয়াতলী ইউনিয়নের ছোট বালিয়াতলী ছালেহিয়া এতিম খানায় ১১ জন এতিম শিশুদের অনূকুলে সমাজসেবা মন্ত্রনালয় থেকে ১৬-১৭ অর্থ বছরে দুই কিস্তিতে ১ লাখ ৩২ হাজার টাকা ক্যাপিটেশন গ্রান্ট বরাদ্দ দেওয়া হয়। এতিম শূন্য এতিমখানায় এই বরাদ্দকৃত টাকা উত্তোলন করে এতিখানার সভাপতি, সম্পাদক লোপাট করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে দেখা যায়, ছালেহিয়া এতিমখানায় মাত্র দু’জন দুস্থ শিশু রয়েছে। এদের একজনের কাছ থেকে ৩’শ ও অন্য জনের কাছ থেকে ১’শ টাকা প্রতি মাসে খাওয়া বাবদ আদায় করছেন এতিমখানার সভাপতি/সম্পাদক। এই দু’জন ছাড়া বাকী দু’চারজন যারা আছে তারা ঐ মাদ্রাসায় পড়–য়া দুরের সচ্ছল পরিবারের সন্তান। মাদ্রাসার বোর্ডিংএ থেকে লেখাপড়া করে। ওই শিশুদের কাছ থেকে জানা যায়, তারা খাওয়া বাবদ বোর্ডিংএ মাস প্রতি ১’শ থেকে ৮’শ টাকা দিয়ে থাকেন।

জেলা সমাজসেবা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, প্রত্যেক এতিমখানার রেজিষ্ট্রেশন পেতে হলে নি¤েœ ১০ জন এতিম থাকতে হবে এবং ক্যাপিটেশন গ্রান্ট বরাদ্দের দ্বিগুন এতিমের ভরন-পোষন দিতে হবে এতিমখানার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালকের। ছালেহিয়া এতিমখানায় দেখা যায়, ১১ জন এতিমের নামে বরাদ্দ দিয়েছে বরগুনা জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তর, অথচ এই এতিমখানায় নিয়মানুযায়ী কমপক্ষে ২২ জন এতিম থাকার কথা। তাছাড়া এতিম শিশুদের নির্দিষ্ট ঘর থাকার কথা কিন্তু এখানে তা নেই, আছে মাদ্রাসার একটি বোর্ডিং। এতিম শিশুরা কোথায়? এতিমখানার সাধারণ সম্পাদক হাফেজ দেলোয়ার হোসেনকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন তারা বাড়ীতে গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার এক ব্যক্তি বলেন, ঐ এতিমখানায় আদৌ কোন এতিম নেই। সভাপতি সম্পাদক বছরের পর বছর ১১ জন এতিমের নামে সরকারী টাকা উত্তোলন করছে, আর এ টাকা তারা ব্যয় করছেন নিজেদের কাজে। দেলোয়ার মাওলানার আয়ের কোন উৎস নেই। তিনি একজন প্রতারক। হজ্ব করাতে নিবেন বলে ৬ জনের কাছ থেকে প্রায় ১৮ লাখ টাকা তিনি আত্মসাৎ করেন।

যে দুজন দুস্থ শিশু রয়েছে তাদের কাছ থেকে খাওয়া বাবদ টাকা নেয়া হয় কিনা জানতে চাইলে ছালেহিয়া এতিমখানার সভাপতি আবুল কালাম আকন জানান, হ্যা এদের কাছ থেকে অল্পস্বল্প টাকা নেয়া হয়। হাফেজ সাহেব, বাবুর্চি আছে এদের বেতন দিতে হয়।

এ ব্যাপারে জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক স্বপন কুমার মূখার্জী জানান, ওই প্রতিষ্ঠানে যদি এতিম/দুস্থদের কাছ থেকে টাকা উত্তোলন করা হয়, আর যদি কোন এতিম না থাকে তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে সত্যতা প্রমানিত হলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Loading…

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: আবুল কালাম আজাদ, খোকন
প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
সম্পাদক : এডভোকেট মো: ফেরদৌস খান
বার্তা সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ
Email: kuakataonline@gmail.com
যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন: + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: editor.kuakatanews@gmail.com

© Copyright BY KuakataNews.Com

Design & Developed BY PopularITLimited

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com